নিজেকে সংশোধন বা দোষ-ত্রুটি থেকে মুক্ত রাখাতে যে দোয়া পড়বেন!
নিজেকে সংশোধন বা দোষ-ত্রুটি থেকে মুক্ত রাখাতে যে দোয়া পড়বেন!

নিজেকে সংশোধন বা দোষ-ত্রুটি থেকে মুক্ত রাখাতে যে দোয়া পড়বেন!

অনলাইন ডেস্ক

আরবিতে একটা প্রবাদ আছে, 'সবচেয়ে দূরদৃষ্টি সম্পন্ন বা বিচক্ষণ মানুষ হলো ওই ব্যক্তি যে নিজের দোষ-ত্রুটি দেখে। ' তাই নিজেকে সংশোধন করা কিংবা দোষ-ত্রুটি থেকে নিজেকে মুক্ত রাখা প্রত্যেক ঈমানদারের জন্য খুবই জরুরি।

এমন অনেক মানুষ আছে, যারা অন্যের দোষ-ত্রুটি নিয়ে সমালোচনা করে। অথচ অন্যকে সংশোধন করার আগে নিজের দোষ-ত্রুটি সংশোধন করা বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

অধিকাংশ মানুষ নিজে ভ্রান্তির মধ্যে ডুবে থেকে অন্যের সংশোধনে বেশি উদগ্রীব! এটি কোনো ঈমানদারের নিকট কাম্য নয়। আল্লাহ তাআলা বলেন-

'তোমরা কি মানুষকে সৎকর্মের নির্দেশ দাও এবং নিজেরা নিজেদেরকে ভুলে যাও, অথচ তোমরা কিতাব পাঠ কর? তবুও কি তোমরা চিন্তা কর না?' (সুরা বাকারা : আয়াত ৪৪)

এমন অনেক মানুষ রয়েছে যারা নিজেদের দোষ-ত্রুটি দেখে না কিংবা ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও দোষ-ত্রুটি থেকে নিজেদের মুক্ত রাখতে পারে না। তাদের উদ্দেশ্যে আল্লাহ তাআলা বলেন-

'হে মুমিনগণ! তোমরা নিজেদের নিয়ে চিন্তা কর। তোমরা যখন সৎপথে রয়েছ, তখন কেউ পথভ্রান্ত হলে তাতে তোমাদের কোনো ক্ষতি নাই। ' (সুরা মায়িদা : আয়াত ১০৫)

উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা আসলিহলি দ্বিনি, আল্লাজি হুয়া ইসমাতু আমরি, ওয়া আসলিহলি দুনইয়ায়া আল্লাতি ফিহা মাআশি, ওয়াজ আলিল মাউতা রহমাতান লি মিন কুল্লি সু-ইন।

অর্থ : হে আল্লাহ, তুমি আমার দ্বিনের ব্যাপারে আমাকে সংশোধন করে দাও, যা আমার সব কাজের রক্ষাকবচ। তুমি আমার পার্থিব জীবন সংশোধন করে দাও, যেখানে আছে আমার জীবন-জীবিকা এবং প্রতিটি অনিষ্ট থেকে রক্ষার জন্য আমার মৃত্যুকে আমার জন্য রহমতের উৎস বানাও।

উপকার : আবু হুরায়রা (রা.) বলেন, রাসুল (সা.) এই দোয়া করতেন। (আদাবুল মুফরাদ, হাদিস : ৬৭৩)

আরও পড়ুন:

------------------------------------------------------------

চাকরির জন্য আল্লাহর কাছে যে দোয়া পড়বেন

যে দোয়া পড়লে মনের আসা কবুল হয়

যারা বিনা হিসাবে জান্নাতে যাবে

যে দোয়া পড়লে কখনো বিফলে যায় না!

যে সময় দোয়া পড়লে দ্রুত কবুল হয়

কঠিন বিপদ থেকে রক্ষা পেতে যে দোয়া পড়বেন!

যাদের দোয়া দ্রুত কবুল হয়

-----------------------------------------------------------------

NEWS24.TV / কামরুল