সমুদ্রের উপর উড়োজাহাজ নামবে কক্সবাজারে!

অনলাইন ডেস্ক

সমুদ্রের উপর উড়োজাহাজ নামবে কক্সবাজারে!

সমুদ্রের উপর উড়োজাহাজ নামবে বাংলাদেশেও! আর সেটি হবে কক্সবাজার বিমানবন্দরে। প্রায় তিন হাজার সাতশো দশ কোটি টাকা ব্যয়ে সমুদ্র ছুঁয়ে সম্প্রসারিত হচ্ছে নতুন রানওয়ে। আগামীকাল রবিবার এই প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সিভিল এভিয়েশন অথরিটির চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মফিদুর রহমান বলেন, বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো এই প্রযুক্তি দেশের এভিয়েশন খাত অগ্রসর হওয়ার পাশাপাশি অর্থনীতি ও পর্যটন খাতের উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

সমুদ্র তীরবর্তী জমি পুনরুদ্ধারের মাধ্যমে বিমানবন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণ করে সরকার বিমানবন্দটির আরো উন্নয়ন ঘটানোর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে যাতে আন্তর্জাতিক বিমান কম্পানিগুলো তাদের বড় বিমানকেগুলোকেওও এই বিমানবন্দরে অবতরণ করাতে পারে।

এই প্রকল্পটি সম্পন্ন হলে নতুন ১০ হাজার ৭০০ ফুট রানওয়ে হবে। যার ফলে আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের বোইং ৭৭৭ ও ৭৪ এর মতো বড় আকারের বিমানগুলো এই বিমানবন্দরে অবতরণ করতে পারবে এবং এর ফলে এখানে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট পরিচালনা করার পথ সুগম হবে।


আরও পড়ুন:

কুরআন পাঠের সফটওয়্যার উদ্বোধন করল ইরান

প্রেমের টানে সীমান্ত পার, প্রেমিকাকে পাঠানো হলো ভারতে

নানা কৌশলে এটিএম বুথে টাকা চুরি

পেরুতে বাস খাদে : নিহত ১৬


উদ্বোধন অনুষ্ঠানে  বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী এবং সিভিল অ্যাভিয়েশন অথোরিটি অব বাংলাদেশ (সিএএবি)’র চেয়ারম্যান উপস্থিত থাকবেন।

সিএএবি চীনের চ্যাংজিয়াং ইচ্যাং ওয়টারওয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং ব্যুরো (সিওয়াইডব্লিউইবি) ও চায়না সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং কন্সস্ট্রাকশন কর্পোরেশন (সিসিইসিসি)’র সাথে চলতি বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি এই প্রকল্পের একটি চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত

পরবর্তী খবর

বাইকে আগুন দেওয়া কে এই শওকত?

অনলাইন ডেস্ক

বাইকে আগুন দেওয়া কে এই শওকত?

শওকত আলমের বাড়ি ঢাকার কেরাণীগঞ্জের আটিবাজারে। তার দুই ছেলে এক মেয়ে। কেরাণীগঞ্জে তার একটি হার্ডওয়্যারের দোকান ছিল। কিন্তু লকডাউনের কারণে তার ব্যবসায় লোকসান হয়। এরপর তিনি ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েন। মাঝে বেশকিছু দিন বেকার থাকার পর নিজের মোটরসাইকেলটা নিয়ে গত দেড় মাস ধরে রাইড শেয়ারিং করছেন।

প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে রাত ১০-১১টা পর্যন্ত রাইড শেয়ারিং করেন তিনি।

‘মামলা দেওয়ায়’ সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে রাজধানীর বাড্ডা লিংক রোডে নিজের মোটরসাইকেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে প্রতিবাদ জানান শওকত আলম সোহেল।

বাইকটি আগুনে পুড়ে যাওয়ার ওই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। যা মুহূর্তের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায়।

ভিডিওতে দেখা যায়, মোটরসাইকেলটিতে দাউ দাউ আগুন জ্বলছে। পাশের লোকজন ছুটে এসে পানি দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করছেন। কিন্তু ততক্ষণে পুড়ে গেছে বাইকটি।

সূত্র জানায়, আগে থেকেই ওই মোটরসাইকেলটিকে একটি মামলা দেওয়া ছিল। কাগজপত্রে ‘সামান্য ত্রুটি’ থাকায় পুলিশ ফের মামলা দেওয়ায় মনের কষ্টে এ বাইকে আগুন দেন বাইকার শওকত।

পরবর্তী খবর

সেই শওকত বললেন, ‘চাইলে ১০টি মোটরসাইকেল নিতে পারি’

অনলাইন ডেস্ক

সেই শওকত বললেন, ‘চাইলে ১০টি মোটরসাইকেল নিতে পারি’

সম্প্রতি রাজধানীর বাড্ডায় ‘মামলা দেওয়ায়’ নিজের মোটরসাইকেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে প্রতিবাদের ঘটনা এখন দেশজুড়ে আলোচনায়।

সোমবারের (২৭ সেপ্টেম্বর) ওই ঘটনার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ে।

এরপর তা গণমাধ্যমে প্রকাশ হলে নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। ঘটনার পর পুড়ে যাওয়া মোটরসাইকেল ও চালক শওকত আলম সোহেলকে বাড্ডা থানায় নিয়ে যায় পুলিশ হয়। পরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এরপর থেকেই সেই মোটরসাইকেল চালককে ‘ক্ষতিপূরণ হিসেবে’ এবং ‘মানবিকতার জায়গা’ থেকে মোটরসাইকেল উপহার দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন অনেকে। এরমধ্যে আছেন শিক্ষক, প্রকৌশলী এবং ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর সাবেক জিএস গোলাম রাব্বানী।

তারা সবাই শওকত আলমের সাথে যোগাযোগও করেছেন। কিন্তু শওকত আলম কারো কাছ থেকেই মোটরসাইকেল নিতে চান না। শুধু মোটরসাইকেল না, কোনো প্রকার সহযোগিতাই তিনি নিতে চান না। প্রতিবাদের অংশ হিসেবে তিনি তার মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে জ্বালিয়ে দিয়েছেন বলে সময় সংবাদকে জানান।

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় শওকত আলম সোহেলের সাথে কথা হয় এ প্রতিবেদকের।

এসময় তিনি বলেন, ‘ওই ঘটনার পর অনেকেই আমার সাথে যোগাযোগ করেছেন। তারা মোটরসাইকেল দিতে চেয়েছেন। কিন্তু আমি তো মোটরসাইকেল পাওয়ার জন্য আগুন দেইনি। আমি আগুন দিয়েছি প্রচলিত সিস্টেমকে বদলাতে। পুলিশ প্রশাসন থেকে শুরু করে রাইড শেয়ার অ্যাপসভিত্তিক যে অরাজকতা চলছে, আমি এই সিস্টেমের পরিবর্তন চাই।’

তিনি বলেন, ‘আজকে আমি যদি মোটরসাইকেল নেই তাহলে দেশের কোনো পরিবর্তন হবে না। আজকে আমি ভুক্তভোগী হয়েছি, কালকে আরেকজন হবে। কিন্তু এভাবে তো একটি সিস্টেম চলতে পারে না। পুলিশের এই স্বেচ্ছাচারী মামলা যতদিন বন্ধ না হবে ততদিন আমি প্রতিবাদ চালিয়ে যাব।’

‘এখন চাইলে ১০টি মোটরসাইকেল নিতে পারি’ জানিয়ে শওকত আলম বলেন, ‘অনেক মানুষ আমাকে মোটরসাইকেল দিতে চাচ্ছে, আমি চাইলে ১০টি মোটরসাইকেল নিতে পারব। তারা সবাই উপহারের কথা বলছে, কিন্তু সিস্টেম বদলানো নিয়ে কেউ কোনো কথা বলে না।’

‘আমি তাদের কাছ থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে রাস্তায় নামলে কালকে আবারও একইভাবে মামলা দেওয়া হবে। দিনের পর দিন এভাবে চলতে থাকবে। তাহলে কোনো সমাধান তো আসল না। আমি মোটরসাইকেল চাই না, একটি সিস্টেমের পরিবর্তন চাই, যাতে কেউ হয়রানি না হয়।’

রাইড শেয়ারিং অ্যাপস ভিত্তিক কোম্পানিগুলোর সমালোচনা করে শওকত আলম সোহেল বলেন, 'আমার রাগ পুলিশের ওপর না, রাগ রাইড শেয়ারিং অ্যাপের ওপর। অ্যাপ ব্যবহার করে যা আয় করি তার বেশিরভাগই তারা নিয়ে যায়।'

তিনি বলেন, 'আমি পেটের দায়ে রাইড শেয়ারিং করি। কিন্তু যা আয় করি তা যদি মামলার জরিমানা হিসেবে দেই, তাহলে সব কাগজপত্র ঠিক রেখে লাভ কি। তাই রাগ থেকে মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দিয়েছি।'

এদিকে ময়মনসিংহের আনসারুল হক নামে একজন স্কুল শিক্ষক সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে ভুক্তভোগী শওকত আলমকে একটি মোটরসাইকেল উপহার দেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন।

তবে আনসারুল হক দাবি করেন, ‘শওকত আলমের সাথে আমাদের কথা হয়েছে। তিনি আমাদের উপহার গ্রহণ করবেন। কিন্তু তিনিও একইভাবে সিস্টেমের পরিবর্তনের কথা আমাদের জানিয়েছেন। বলেছেন, আমি মোটরসাইকেল নিলে মানুষ বলবে আমি একটি পাওয়ার জন্য পুড়িয়ে দিয়েছি। কিন্তু আমি সিস্টেম বদলাতে ক্ষোভ থেকেই এটা করেছি। তাই শুরুতে তিনি উপহার নিতে চাননি। পরে, অনেক বুঝানোর পর তিনি রাজি হয়েছেন।’ তার জন্য মোটরসাইকেল কেনা হয়ে গেছে বলেও জানান এই শিক্ষক।

পরবর্তী খবর

অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া স্থগিত

অনলাইন ডেস্ক

অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া স্থগিত

সারা দেশে অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া আপাতত স্থগিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। মঙ্গলবার ( ২৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় গণমাধ্যমকে তিনি বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মোস্তফা জব্বার বলেন, আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী আজকেই শেষ দিন ছিল অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টালগুলো বন্ধের জন্য। তবে বিটিআরসি'র তালিকা ধরে নিউজ পোর্টালগুলো বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিলো যেখানে বেশকিছু ত্রুটি আছে।

আরও পড়ুন:


দুই মেয়েসহ মা নিখোঁজ উৎকন্ঠায় পরিবার

রশি দিয়ে বাধা প্রতিবন্ধী শহিদের বন্দী জীবন

বাগেরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় ক্রিকেটার রিদু নিহত

স্কুল খোলার পর যেভাবে চলবে প্রাথমিকের ক্লাস!


 

তাই আপাতত অনিবন্ধিত নিউজপোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া স্থগিত করা হয়েছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু

অনলাইন ডেস্ক

অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু

সারা দেশে অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর গণমাধ্যমকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধের জন্য তো হাইকোর্টের রায় রয়েছে। এগুলো আমাদের ফলোআপ করতে হবে। সেই রায় অনুপাতে আমরা তালিকা তৈরি করে যেগুলো নিবন্ধনহীন সেগুলো বন্ধ করছি।

মন্ত্রী আরও বলেন, তবে এই বন্ধ প্রক্রিয়ায় যদি কোনো ভুল হয়, ভুলে যদি কোনো পোর্টাল বন্ধ করা হয় তাহলে সংশ্লিষ্ট পোর্টাল কর্তৃপক্ষ বিটিআরসির সঙ্গে যোগাযোগ করে নিবন্ধনের তথ্য প্রমাণ দিলে সেসব সাইট খুলে দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন:


দুই মেয়েসহ মা নিখোঁজ উৎকন্ঠায় পরিবার

রশি দিয়ে বাধা প্রতিবন্ধী শহিদের বন্দী জীবন

বাগেরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় ক্রিকেটার রিদু নিহত

স্কুল খোলার পর যেভাবে চলবে প্রাথমিকের ক্লাস!


 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার বলেন, অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টালগুলো বন্ধ করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

কী বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তোলেন মুফতি ইব্রাহিম?

অনলাইন ডেস্ক

কী বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তোলেন মুফতি ইব্রাহিম?

আজ মঙ্গলবার ভোরে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জাকির হোসেন রোড থেকে মুফতি ইব্রাহিমকে আটক করা হয়। ওয়াজ নসিহতের নামে উদ্ভট ও ভুল তথ্য ছড়ানোর অভিযোগে মুফতি কাজী ইব্রাহিমকে আটক করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।


আরও পড়ুন

দুই পরীক্ষা বাতিল নিয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী

পাশের রুম থেকে দুর্গন্ধ ছড়ানোর পরে ছেলে টের পেলো বাবা মারা গেছেন!

বিয়ে বন্ধ করতে কনে নিজেই থানায়!

শেখ হাসিনার জন্মদিনে নড়িয়ায় দোয়া ও দুই হাজার কোরআন বিতরণ


ডিএমপির সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম ও ডিবি-উত্তরের যুগ্ম কমিশনার মোহাম্মদ হারুন-অর-রশীদ জানিয়েছেন, মুফতি ইব্রাহিম বিভিন্ন মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষকে হিন্দুস্তানের দালাল ও র-এর এজেন্ট বলছেন। কেন তিনি এসব বলছেন, তা জানতেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে মুফতি ইব্রাহিম সন্তোষজনক বক্তব্য দিতে না পারলে মামলা হবে এবং তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর