জীবিত থেকেও মৃত, হচ্ছে না টিকার রেজিস্ট্রেশন
জীবিত থেকেও মৃত, হচ্ছে না টিকার রেজিস্ট্রেশন

জীবিত থেকেও মৃত, হচ্ছে না টিকার রেজিস্ট্রেশন

Other

নির্বাচন কমিশনের ডাটাবেজে তিন বছর আগে থেকেই মৃত তিনি। অথচ দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছেন ঝিনাইদহের সুস্থ-সবল এসএম আনোয়ার হোসেন। কিন্তু মৃত ঘোষিত থাকার কারণে করোনার টিকার রেজিস্ট্রেশন করতে পারছেন না তিনি। নিজেকে জীবিত প্রমাণ করতে ঘুরতে হচ্ছে নানা স্থানে।

তিন বছর আগের কথা। নির্বচন কমিশন মৃত হিসেবে তালিকাভুক্ত করে ঝিনাইদহ পৌরসভার কাঞ্চননগর গ্রামের এসএম আনোয়ার হোসেনকে; যিনি সুস্থ শরীরে দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছেন।
আনোয়ার হোসেন পেশায় ঠিকাদার। ডায়াবেটিস, রক্তচাপসহ নানা রোগ বাসা বেঁধেছে তার শরীরে। সম্প্রতি করোনার প্রকোপ থেকে বাঁচতে টিকার রেজিস্ট্রেশন করতে গিয়ে বাঁধে বিপত্তি। বেশ কয়েকবার চেষ্টার পরেও ব্যর্থ হন রেজিস্ট্রেশন করতে। সমাধান খুঁজতে জান জেলা নির্বাচন অফিসে। সেখানে গিয়েই জানতে পারেন জীবিত থেকেও সরকারের কাছে মৃত তিনি। এরপর থেকেই শুরু হয় নিজেকে জীবিত প্রমাণ করার যুদ্ধ। জান নির্বাচন কার্যালয়, কাউন্সিলরের অফিসসহ নানা স্থানে। ঘটনা জানাজানি হলে হতাশ হয়ে পড়েন আনোয়ার হোসেন আর তার পরিবার।

তবে কী কারণে ঘটেছে এমন ঘটনা তার সঠিক জবাব দিতে পারেনি নির্বাচন কমিশন।
২০১৮ সাল থেকে নির্বাচন কমিশনের হিসেবে মৃত রয়েছেন এসএম আনোয়ার হোসেন।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত

;