অত্যাধুনিক ৭৩ বিমান ধ্বংস করে কাবুল ছাড়ল মার্কিন বাহিনী
অত্যাধুনিক ৭৩ বিমান ধ্বংস করে কাবুল ছাড়ল মার্কিন বাহিনী

অত্যাধুনিক ৭৩ বিমান ধ্বংস করে কাবুল ছাড়ল মার্কিন বাহিনী

অনলাইন ডেস্ক

৩১ আগস্ট পর্যন্ত সময়সীমা থাকলেও স্থানীয় সময় ৩০ আগস্ট (সোমবার) বিকেল সাড়ে ৩টায় সব শেষ মার্কিন বিমান ছেড়ে যায় কাবুল বিমানবন্দর। এর মধ্য দিয়ে শেষ হলো আফগানিস্তানে মার্কিন অধ্যায়। দেশটিতে আমেরিকার দীর্ঘ ২০ বছর সামরিক অভিযান চালায়।

এদিকে তাড়াহুড়া করে কাবুল ত্যাগের কারণে সব সামরিক বিমান নিজ দেশে ফেরত নিতে পারেনি যুক্তরাষ্ট্র।

ফলে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ৭৩টি সামরিক বিমান মার্কিন বাহিনী নষ্ট করে রেখে গেছে।

তালেবানদের কাছে থাকা এসব বিমান আর ব্যবহার করা সম্ভব নয় জানিয়ে মার্কিন সামরিক বাহিনীর জেনারেল কেনেথ ম্যাকেঞ্জি বলেন, কাবুল বিমানবন্দরের নিরাপত্তার জন্য যেসব সর্বাধুনিক প্রযুক্তির আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন করা ছিল, সামরিক বিমানগুলোর মতো সেগুলোও নষ্ট করে ফেলা হয়েছে।

কেনেথ ম্যাকেঞ্জি আরও বলেন, ফেলে রেখে আসা মার্কিন সামরিক বিমানগুলো আর কখনও আকাশে উড়বে না।

এছাড়া ৭০টি সামরিক যান এবং ২৭টি হামরি টহল যান নষ্ট করা হয়েছে, যার প্রতিটির মূল্য এক মিলিয়ন ডলার।

২০০১ সালে তালেবান সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করে সেখানে এ পর্যন্ত নিজেদের উপস্থিতি অব্যাহত রাখে যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো। এ মিশন শেষ হওয়ার কথা ছিল ৩১ আগস্ট। ৩০ আগস্ট মার্কিন সামরিক বাহিনীর সর্বশেষ ফ্লাইটটি আফগানিস্তান ত্যাগ করেছে।

মার্কিন সামরিক বাহিনীর জেনারেল কেনেথ ম্যাকেঞ্জি জানিয়েছেন, তারা ছয় হাজার মার্কিন নাগরিকসহ ৭৯ হাজার মানুষকে কাবুল থেকে যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে গেছেন। ১৫ আগস্ট তালেবান কাবুল দখল করার পর অল্প সময়ের মধ্যে সব মিলিয়ে কাবুল থেকে এক লাখ ২৩ হাজার সাধারণ মানুষকে বিভিন্ন দেশ নিয়ে গেছে।

আরও পড়ুন:


৪ মাস পর কাপ্তাই হ্রদে মাছ আহরণ

রাঙামাটিতে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের গুলিতে বৃদ্ধ নিহত


news24bd.tv তৌহিদ