দাফনের ৮১ দিন পর কবর থেকে তোলা হলো লাশ

জুবাইদুল ইসলাম, শেরপুর

দাফনের ৮১ দিন পর কবর থেকে তোলা হলো লাশ

শেরপুরে দাফনের ৮১ দিন পর আদালতের নির্দেশে কবর থেকে আবু সাঈদ (৩০) নামে এক যুবকের লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। ১ সেপ্টেম্বর বুধবার সকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মিজানুর রহমানের উপস্থিতিতে ওই লাশ উত্তোলন করা হয়। সাঈদ সদর উপজেলার গাজীরখামার ইউনিয়নের শালচূড়া গ্রামের নূর হোসেনের ছেলে।

পরিবারের অভিযোগ, মেধাবী ছাত্র আবু সাঈদ শহরের একটি বেসরকারি স্কুলে শিক্ষকতার পাশাপাশি বিসিএসের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। তার সাথে প্রতিবেশী শারমিন সুলতানা ডেইজি নামে এক মেডিকেল শিক্ষার্থীর প্রেম ছিল। কিন্তু ডেইজির পরিবার তাদের সম্পর্ককে মেনে নেয়নি। এরই জের ধরে গত ১১ জুন আবু সাঈদকে তার বন্ধুদের মাধ্যমে পূর্বপরিকল্পিতভাবে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয় এবং ঘটনাটিকে সড়ক দুর্ঘটনা বলে পরিবারকে জানানো হয়। দুর্ঘটনার পর তারা সাঈদকে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি না করে তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাঈদকে মৃত ঘোষণা করেন। এরপর সাঈদের বন্ধুরা তার লাশ বিনা ময়নাতদন্তে দাফনের জন্য তাড়াহুড়ো করে। পরদিন সাঈদকে বিনা ময়নাতদন্তে দাফন করা হয়। ডেইজির পরিবারসহ বেশ কয়েকজন এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত বলে অভিযোগ তার পরিবারের।

এ ঘটনায় মো. আতিক মিয়া (৩০), মো. জাকির (২৮), তরিকুল ইসলাম (৩০), ডা. সোয়েব (২৭), শারমিন সুলতানা ডেইজি (২৫), মোছা. জুলি (৩২) ও মো. আলীম মিয়া (৪০)সহ ৭ জনকে স্বনামে ও অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনকে আসামি করে গত ২৭ জুন আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন নিহত আবু সাঈদের ছোটবোন তানজিনা আক্তার নয়ন। মামলাটি ২২ আগস্ট সদর থানায় এফআইআরভূক্ত হয়। পরে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. রুবেল মিয়ার আবেদনের প্রেক্ষিতে লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের আদেশ দেয় আদালত। এছাড়া গত মঙ্গলবার সকালে প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে আবু সাঈদের হত্যায় জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবি জানায় তার পরিবার।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. রুবেল মিয়া জানান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও নিহত সাঈদের পরিবারের উপস্থিতিতে লাশ উত্তোলন করে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে। এখন ময়নাতদন্ত ও ফরেনসিক রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে এবং সে অনুযায়ী পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মিজানুর রহমান জানান, আদালতের নির্দেশে কবর থেকে আবু সাঈদের লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। এরপর লাশের ময়নাতদন্ত ও ফরেনসিক রিপোর্টের ভিত্তিতে তদন্ত কর্তৃপক্ষ পরবর্তী ব্যবস্থা নেবেন।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

উত্তপ্ত ময়মনসিংহের আনন্দমোহন কলেজ, হল বন্ধ ঘোষণা

সৈয়দ নোমান

শুক্রবার রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ আনন্দ মোহন কলেজ ছাত্রলীগের ইউনিটকে জেলার অধীনস্থ ঘোষণা করে। এমন সংবাদ বিজ্ঞপ্তির পরই উত্তপ্ত হয়ে উঠে ময়মনসিংহের আনন্দমোহন কলেজ।

এ নিয়ে মহানগর ও জেলা ছাত্রলীগের অনুসারীদের মধ্যে উত্তেজনা, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ককটেল বিস্ফোরণ এবং হাতাহাতির ঘটনাও ঘটেছে। বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে সব  আবাসিক হল। সৈয়দ নোমান

তিন ডিসেম্বর কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, আনন্দমোহন কলেজ শাখা ছাত্রলীগ ইউনিটটি ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের অন্তর্গত। এমন সিদ্ধান্তের বিপক্ষে অবস্থান নেয় কলেজ ছাত্রলীগের একটি পক্ষ। বিপরীতে মাঠে নামে আরেকটি গ্রুপ। এনিয়ে তৈরি হয় উত্তেজনাকর পরিস্থিতি।

আরও পড়ুন:

সিএনএনের সংবাদ উপস্থাপক বরখাস্ত

চট্টগ্রামেও হাফ ভাড়া নেওয়ার ঘোষণা 

আনন্দমোহন কলেজে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের দ্বন্দ্বের জেরে শনিবার দিনভরই ছিল উত্তেজনা। সংঘাত এড়াতে বন্ধ ঘোষণা করা হয় হলগুলো। হলও ছেড়ে যায় শিক্ষার্থীরা। হঠাৎ ক্যাম্পাস বন্ধ করে দেয়ায় শিক্ষার্থীরা বিপাকে। এ নিয়ে ক্ষোভও জানায় তারা।

এদিকে ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের দাবি, গঠনতন্ত্রের নিয়মানুযায়ী কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ বিষয়টি আবারও বিবেচনা করবে।

শিক্ষকরাও বলছেন, আপাতত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ক্যাম্পাস বন্ধ করা ছাড়া কোনো উপায় ছিল না। যদিও পুলিশ সবকিছু নিয়ন্ত্রণে আনার দাবি করছে।

গতবছরের নভেম্বরে আনন্দমোহন কলেজে ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

 news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর

নতুন নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান কারাগারে

অনলাইন ডেস্ক

নতুন নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান কারাগারে

গাইবান্ধা সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান মোসাব্বির হোসেনের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। ব্যবসায়ী রোকন হত্যা মামলায় তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

আজ রোববার বিকেলে গাইবান্ধা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ফেরদৌস ওয়াহিদ এ নির্দেশ দেন। এর আগে রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের ওই চেয়ারম্যান উচ্চ আদালত থেকে আট সপ্তাহের অন্তর্বর্তী জামিন নেন।

জানা গেছে, ২০২১ সালের ১৭ জুন গাইবান্ধা সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের বালুয়াবাজারে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যবসায়ী রোকন সরদারকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় আহত হয় ইউপি সদস্য আশিকুজ্জামান ও জিল্লুর রহমান। নিহত রোকন সরদার ভগবানপুর গ্রামের আবদুর রউফ সরদারের ছেলে। এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই খোকন সরদার নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান মোসাব্বিরসহ ১৬ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন।

আরও পড়ুন:

সিএনএনের সংবাদ উপস্থাপক বরখাস্ত

চট্টগ্রামেও হাফ ভাড়া নেওয়ার ঘোষণা 

আসামিপক্ষের আইনজীবী সাবেক পিপি শফিকুল ইসলাম শফি জানান, এ বছর উচ্চ আদালত থেকে মোসাব্বির হোসেন ৮ সপ্তাহের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন নেন। আজ রোববার জামিনের শেষ দিনে আজ আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিনের আবেদন করলে তা নামঞ্জুর করে বিচারক কারাগারে পাঠান।

 news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর

গফরগাঁওয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে স্কুলছাত্রসহ নিহত ২

অনলাইন ডেস্ক

গফরগাঁওয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে স্কুলছাত্রসহ নিহত ২

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে উছমান (১২) ও রাজিব (২১) নামের দুইজন দুইজন নিহত হয়েছেন। আজ বিকেলে উপজেলার ভরভরা নামা পাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত রাজিব পেশায় একজন ইলেকট্রিশিয়ান। তিনি ভরভরা নামা পাড়া গ্রামের মৃত আলী হোসেনের ছেলে। আর স্কুল শিক্ষার্থী উছমান একই গ্রামের কাইয়ুম মিয়ার ছেলে। 

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হাজী সাইফুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

আরও পড়ুন:


চট্টগ্রামেও হাফ ভাড়া নেওয়ার ঘোষণা

লকডাউন দেয়ার বিষয়ে যা জানালেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী


গফরগাঁও থানার ওসি ফারুক আহম্মেদ জানান, বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের ভরভরা নামা পাড়া গ্রামের কাইয়ুম মিয়ার বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগ লাইনের তার মাটিতে নামিয়ে কাজ করছিলেন একই এলাকার ইলেকট্রিশিয়ান রাজিব। এ সময় পাশে অবস্থান করছিল উছমান। পরে তারা দুজনেই বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে পাশের পুকুরে ছিটকে পড়ে। খোঁজ পেয়ে বাড়ির লোকজন দুইজনকে মৃত অবস্থায় পুকুর থেকে উদ্ধার করে।

তিনি বলেন, বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হবে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

নৌকার মনোনয়ন পেয়ে বোমা ফাটিয়ে উল্লাস, গ্রেপ্তার ২

অনলাইন ডেস্ক

নৌকার মনোনয়ন পেয়ে বোমা ফাটিয়ে উল্লাস, গ্রেপ্তার ২

রাজবাড়ীর পাংশায় নৌকার মনোনয়ন পাওয়ার আনন্দে বোমা ফাটিয়ে উদযাপন করার অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যানের ছেলেসহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে তিনটি হাতবোমা উদ্ধার করা হয়েছে।

শনিবার (৪ ডি‌সেম্বর) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় মৌরাট ইউনিয়নের বাগদুলি বাজার কমিউনিটি ক্লিনিকের সামনে ব্রিজ এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। 

আটকরা হলেন- মৌরাটের ইউপি চেয়ারম্যান ও আসন্ন ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. হাবিবুর রহমান প্রামাণিকের ছেলে শামীম প্রামাণিক (৩৬) ও ইউ‌পির চর হরিনাডাঙ্গা গ্রামের ইসলাম মণ্ডলের ছেলে মো. জালাল মণ্ডল (৩০)।

গ্রেপ্তারদের আজ আদালতে পাঠানো হয়েছে। 

পাংশা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মিজানুর রহমান বলেন, নৌকার মনোনয়ন পাওয়ার সংবাদ পেয়ে প্রায় ২৫-৩০টি মোটরসাইকেল নিয়ে সাবেক চেয়ারম্যান মো. শওকত আলী সরদারের বাড়ির পাশে ব্রিজের ওপর বোমা ফাটিয়ে আনন্দ উল্লাস করছিলেন তারা। এ সময় তিনটি হাতবোমাসহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁদের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক আইনে মামলা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:


চট্টগ্রামেও হাফ ভাড়া নেওয়ার ঘোষণা

লকডাউন দেয়ার বিষয়ে যা জানালেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী


 

পাংশা মডেল থানার তদন্ত কর্মকর্তা উত্তম কুমার ঘোষ বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বোমা ফাটানোর বিষয়টি জানতে পারি। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তিনটি বোমাসহ তাদের গ্রেপ্তার করেছে। সেখানে একটি বিস্ফোরিত বোমার আলামত পাওয়া গেছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

বাবার ইচ্ছে পূরণে হেলিকপ্টারে বউ আনলেন কৃষক

অনলাইন ডেস্ক

বাবার ইচ্ছে পূরণে হেলিকপ্টারে বউ আনলেন কৃষক

হেলিকপ্টারে করে ছেলের বউ আনবেন, এমন ইচ্ছে বাবার। আজ রোববার বিকেলে বাবার সেই স্বপ্ন পূরণ করেছে কৃষক ছেলে।

জানা গেছে, টাঙ্গাইল সদর উপজেলার পোড়াবাড়ী ইউনিয়নের বাউসাইদ গ্রামের মহির উদ্দিনের একমাত্র ছেলে কৃষক রাসেল মিয়ার সঙ্গে আড়াই মাস আগে বিয়ে হয় ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার বাটাজোর গ্রামের মুন্নু খার মেয়ে মিতু আক্তারের। আজ রোববার কনেকে আনুষ্ঠানিকভাবে উঠিয়ে নিয়ে আসেন।

বরযাত্রীরা প্রাইভেটকার ও বাসে করে গেলেও বর যায় হেলিকপ্টারে। পরে বিকেলে কনেকে নিয়ে ফেরেন। প্রত্যন্ত গ্রামে হেলিকপ্টারে আসা বর-বধূকে দেখতে সকাল থেকেই ছিল জমজমাট পরিবেশ। ব্যতিক্রমধর্মী এই আয়োজন সামাল দিতে উপস্থিত ছিল পুলিশ।

আরও পড়ুন:

সিএনএনের সংবাদ উপস্থাপক বরখাস্ত

চট্টগ্রামেও হাফ ভাড়া নেওয়ার ঘোষণা 

বর রাসেল মিয়া বলেন, বাবার ইচ্ছাপূরণ করতেই হেলিকপ্টারটি ভাড়ায় আনা হয়। টাঙ্গাইল থেকে রওনা দিয়ে ময়মনসিংহ থেকে নববধূকে নিয়ে ফিরে এসেছি।

কনে মিতু আক্তার বলেন, আমি কখনও কল্পনা করিনি আমার বর আমাকে হেলিকপ্টারে করে তার বাড়ি নিয়ে যাবে। আমি খুব খুশি।

নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা টাঙ্গাইল সদর থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক মো. মনিরুজ্জামান মুন্সি জানান, বর পক্ষ নিরাপত্তার জন্য এক সপ্তাহ আগে আবেদন করে। সেই প্রেক্ষিতে নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে।

 news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর