ভাসমান পদ্ধতির সবজি চাষ দক্ষিণাঞ্চলের কৃষিতে বড় সম্ভাবনা
নানা প্রতিবন্ধকতায় লাভ হচ্ছে কম

ভাসমান পদ্ধতির সবজি চাষ দক্ষিণাঞ্চলের কৃষিতে বড় সম্ভাবনা

Other

ভাসমান পদ্ধতির সবজি চাষ দক্ষিণাঞ্চলের কৃষিতে বড় সম্ভাবনা হলেও, নানা প্রতিবন্ধকতায় কৃষকের লাভ হচ্ছে কম। নিম্নাঞ্চলে অন্য ফসল চাষ কষ্টকর, তাই ভাসমান পদ্ধতিই বড় ভরসা কৃষিজীবি মানুষের।  

পিরোজপুরের নাজিরপুরে এই পদ্ধতি ব্যবহার করে অর্ধশতাব্দির বেশি সময় ধরে সবজির আবাদ করলেও, এখন কৃষক বলছেন, দাদন ব্যবসা ও উৎপাদন খরচ বেড়ে যাওয়ায় ক্ষতির মুখে তারা।  

পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার এই এলাকায় বছরের বেশিরভাগসময় জলাবদ্ধতা থাকে।

এর কারণ জোয়ার-ভাটা। স্বাভাবিক কৃষি এখানে সম্ভব নয়। তাই কয়েক যুগ আগে থেকে পানির ওপর কচুরিপানার বেড তৈরি করে ভাসমান পদ্ধতিতে সবজির আবাদ করে আসছেন কৃষক। নতুনত্ব হিসেবে এখন সবজির চারা তৈরি করে নার্সারিতে বিক্রি আয়ের বিকল্প উৎস হয়ে দেখা দিয়েছে। যদিও করোনায় এই ব্যবসাও সংকটে।

খাত ভিত্তিক সরকারি কোনো সহযোগিতা নেই এই খাতে। আছে দাদন ব্যবসার চড়া সুদের কারবার।

কৃষি কর্মকর্তারা, ভাসমান সবজি চাষিদের ব্যাংক ঋণের ব্যবস্থা করতে এরইমধ্যে কাজ শুরু হয়েছে বলে জানান। পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার নিম্নাঞ্চলের ৮০ থেকে ৯০ ভাগ মানুষ ভাসমান কৃষির সঙ্গে জড়িত।  

আরও পড়ুন


বিয়ে করেছেন অপূর্ব'র সাবেক স্ত্রী অদিতিও

মুক্তিযুদ্ধের সময়ে ‘দাদা ভাই’য়ের লেখা হিসাবের খাতা প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর

সিরাজগঞ্জ-৬ আসনের সংসদ সদস্য হাসিবুর রহমান স্বপন আর নেই

দেশে পৌঁছেছে ক্যাপ্টেন নওশাদের মরদেহ


NEWS24.TV / কামরুল

;