টিকটক বানাতে বারণ করায় স্কুল শিক্ষার্থীর ‘আত্মহত্যা’!
টিকটক বানাতে বারণ করায় স্কুল শিক্ষার্থীর ‘আত্মহত্যা’!

টিকটক বানাতে বারণ করায় স্কুল শিক্ষার্থীর ‘আত্মহত্যা’!

অনলাইন ডেস্ক

রাইসা আক্তারের বয়স মাত্র ১৪। পড়েন সপ্তম শ্রেণীতে। কিন্তু তার ইচ্ছে করতো টিকটক ভিডিও  বানাতে আর প্রেমিকের সাথে প্রেমে মত্ত থাকতো।   কিন্তু ছোট্ট এই কিশোরী পড়াশোনা বাদ দিয়ে টিকটক এবং মোবাইল নিয়ে প্রেমিকের সাথে ব্যস্ত থাকার ফলে পরিবার থেকে বকাঝকা করতো।

সেই বকাঝকা সহ্য করতে না পেরে রাইসা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার পশ্চিম ভরনশাহী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্বজনরা জানান, রাইসা আকতার ধুনট উপজেলার পশ্চিম ভরনশাহী গ্রামের ছাবেদ আলীর মেয়ে। সে ধুনট পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় রাইসা টিকটক ও লাইকিতে আসক্ত হয়ে পড়ে। জনপ্রিয়তা বাড়াতে ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করে।  

লেখাপড়া বাদ দিয়ে সব সময় হাতে মোবাইল ফোন নিয়ে থাকত। এছাড়া এলাকার এক ছেলের প্রেমে পড়ে। পরিবারের লোকজন টের পেয়ে তাকে শাসন করেন। তাকে বিয়ে দেওয়ার জন্য পাত্র খোঁজা হচ্ছিল। এসব নিয়ে বড়বোনের সঙ্গে তার ঝগড়া হয়। ক্ষোভ ও অভিমানে রাইসা বুধবার বিকালে বাড়ির শয়ন ঘরে ঢুকে দরজা লাগিয়ে দেয়।  

রাতে বাড়ির লোকজন দরজা খুলে ঘরে ঢুকে রাইসাকে ঘরের আঁড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে থাকতে দেখেন। দ্রুত তাকে উদ্ধার করে ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক জহুরুল ইসলাম মৃত ঘোষণা করেন।

আরও পড়ুন: 


নতুন সেপটিক ট্যাঙ্কে গেল দুই প্রাণ

জিয়ার ময়নাতদন্ত করেন তোফায়েল, বের করেন ২২ বুলেট: জাগপা


 

 ধুনট থানার ওসি কৃপা সিন্ধু বালা জানান, বৃহস্পতিবার সকালে মরদেহ উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv/আলী

;