যে কারণে আফগান নারী পুলিশকর্মীর চোখ উপড়ে নিয়েছিল তালেবান
Breaking News
যে কারণে আফগান নারী পুলিশকর্মীর চোখ উপড়ে নিয়েছিল তালেবান

যে কারণে আফগান নারী পুলিশকর্মীর চোখ উপড়ে নিয়েছিল তালেবান

অনলাইন ডেস্ক

প্রাক্তন আফগান নারী পুলিশকর্মী খাতেরা হাশমি। ঘরের বাইরে পা রাখা কর্মরতা এই নারীকে ছুরি দিয়ে কুপিয়েও শান্তি হয় নি তালেবানের। শেষে তিনি অচেতন হয়ে পড়লে তাঁর চোখ দু’টিও উপড়ে নেয় তালেবানরা এমনটাই জানিয়েছেন এই প্রাক্তন পুলিশকর্মী । বলেন, "তালেবান বদলায় নি।

২০ বছর আগেও তারা যেমন ছিল, এখনও তেমনই আছে। ”

বর্তমানে ভারতে রয়েছেন খাতেরা হাশমি। প্রিয় স্বদেশভূমি জঙ্গিদের দখলে। সেখানেই রয়েছে তাঁর সন্তানরাও! এত দূরে বসে যাদের জন্য দৃষ্টিহীন চোখ দু’টি থেকে অবিরাম ঝরে পড়ছে অশ্রুধারা। এদিকে খবর পেয়েছেন, তালেবান তাঁর প্রাণে বেঁচে যাওয়ার খবরে যারপরনাই অসন্তুষ্ট। দেশে ফিরলেই তাদের হাতে খোয়াতে হবে প্রাণ।

এক সংবাদমাধ্যমকে তালেবান সম্পর্কে বলতে গিয়ে তিনি জানান, "তালেবানের কাছে একজন নারীর সব থেকে বড় অপরাধ কাজে যোগ দিতে ঘরের বাইরে পা রাখা। আমার সঙ্গে যা হয়েছে, তা এই মুহূর্তে দেশের আরও বহু মেয়ের সঙ্গে হয়ে চলেছে। কিন্তু তারা মুখ খুলতে পারছে না। কারণ তারা ভয় পেয়ে আছে। ” 

আরও পড়ুন:


বাংলাদেশসহ ১০টি দেশের ওপর ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল ফিলিপাইন

আগামী সপ্তাহে নতুন সরকার ঘোষণা করবে আফগানিস্তান

ঠাকুরগাঁওয়ে ট্রাক-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ১

দামি হোটেলে সিদ্ধার্থ-শেহনাজের বিয়ে হত, গোপন ছিল সে খবর


আফগানিস্তান থেকে ভারতে চিকিৎসার জন্য এসেছিলেন খাতেরা। এরপরই তালেবান একে একে দখল করে নিতে থাকে আফগানিস্তানের নানা প্রদেশ। ক্রমে কাবুল। আফগানিস্তানে ফের শুরু হয়ে যায় পুরোদস্তুর তালেবান যুগ। আর ক্ষমতায় এসেই তারা আগে খোঁজ করা শুরু করেছে সেই সব মেয়েদের যাঁরা তাদের ফতোয়ায় কান দেন নি।  

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

news24bd.tv রিমু  

;