ভারতে যাওয়া যাত্রীদের বেশিরভাগই যাচ্ছেন চিকিৎসার উদ্দেশে
ভারতে যাওয়া যাত্রীদের বেশিরভাগই যাচ্ছেন চিকিৎসার উদ্দেশে

ভারতে যাওয়া যাত্রীদের বেশিরভাগই যাচ্ছেন চিকিৎসার উদ্দেশে

অনলাইন ডেস্ক

দীর্ঘ ৪ মাস পর এয়ার বাবলের আওতায় চালু হয়েছে বাংলাদেশ-ভারত বিমান চলাচল। এর আগে তিন দফা বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের বিমান চলাচল শুরুর তারিখ পেছায়।

রোববার (৫ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় বিমান বাংলাদেশের কলকাতা ফ্লাইট এবং সাড়ে ১০টায় ইউএস-বাংলার চেন্নাই ফ্লাইট শাহজালাল বিমানবন্দর ছাড়ে।
 
প্রতি সপ্তাহে বাংলাদেশি বিমান সংস্থা সাতটি এবং ভারতীয় প্রতিষ্ঠান সাতটি ফ্লাইট পরিচালনা করবে বলে জানা গেছে।

যাত্রীদের বেশির ভাগই চিকিৎসা ভিসায় ভারতে যাচ্ছেন।
 
গত ১৪ এপ্রিল করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণে বাংলাদেশ থেকে বিমানপথে যাত্রী চলাচল বন্ধ হয়। মে মাসের মাঝামাঝি ১২ দেশের সঙ্গে আবার আকাশপথ চালু হলেও বন্ধ ছিল ভারত-বাংলাদেশ রুট। দুদেশের উচ্চপর্যায়ে যোগাযোগের পর এয়ার বাবল চুক্তিতে রোববার সকালে আবারও চালু হলো।

আরও পড়ুন


রোহিঙ্গাদের জন্মসনদ: সেই ইউপি সচিবের জামিন স্থগিত

আফগানিস্তান ইস্যু: ইরান, রাশিয়া, চীন ও পাকিস্তান আলোচনায় বসবে

বরিশালে ইউএনও ও পুলিশের মামলায় আরও দুই আ.লীগ নেতার জামিন

সেই পুলিশ কর্মকর্তা সোহেলকে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে: ডিএমপি কমিশনার


বিমান জানায়, ৫ সেপ্টেম্বর থেকে ঢাকা-কলকাতা রুটে বিমানের প্রথম ফ্লাইট যাবে। করোনা মহামারির মধ্যে গত বছরের অক্টোবরে ভারতের সঙ্গে 'এয়ার বাবল' চুক্তির আওতায় বিমান চলাচল শুরু হয়েছিল। মহামারিতে ভারত বিপর্যস্ত হয়ে পড়লে চলতি বছরের এপ্রিলে বন্ধ হয় বিমান চলাচল। দুই দেশের করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলে ৪ সেপ্টেম্বর ভারতীয় কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেয় বেবিচক।

অন্যদিকে বেসরকারি বিমান সংস্থা ইউএস-বাংলা ঢাকা-চেন্নাই-ঢাকা গন্তব্যে সপ্তাহে তিনদিন তিনটি ফ্লাইট চালাবে।

এর আগে গত ২৮ আগস্ট বেবিচককে ভারতের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের এক চিঠিতে ৩ সেপ্টেম্বর থেকে এয়ার বাবল চুক্তির আওতায় ফ্লাইট শুরুর প্রস্তাব দেওয়া হয়। প্রস্তুতির অভাবে সেই দিন বিমান চলাচল শুরু করতে পারেনি বাংলাদেশ। ২ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ আবারো দেশটিকে চিঠি পাঠায়।

news24bd.tv এসএম