পাহাড়ি ঝর্ণা সংরক্ষণ করা হবে: ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান
পাহাড়ি ঝর্ণা সংরক্ষণ করা হবে: ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান

পাহাড়ি ঝর্ণা সংরক্ষণ করা হবে: ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান

Other

পাহাড়ি ঝর্ণাগুলো সংরক্ষণের বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (অতিরিক্ত সচিব) মো. জাবেদ আহমেদ।

তিনি বলেছেন, পার্বত্যাঞ্চলে বহু প্রাকৃতিক ঝর্ণা রয়েছে। এসব ঝর্ণা পর্যটকদের আকর্ষণের মূল কেন্দ্রবিন্দু।
পর্যটকদের কারণে এসব ঝর্ণা দেশে-বিদেশে ব্যাপক পরিচিত লাভ করেছে।

এসব ঝর্ণাকে সংরক্ষণ করা গেলে পর্যটকের জোয়ার বয়বে পাহাড়ে। পর্যটক আসলে এ অঞ্চলের জীবন মান বদলে যাবে। কর্মস্থান হবে। অর্থনৈতিক উন্নয়ন হবে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ধরে রাখতে হলে পাহাড় যত্নবান হওয়ার আহবান জানান তিনি।

রোববার সকালে রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়নের দূর্গম দোজড়ী পাড়ার গাছকাটা ছড়া-ঝর্ণা পরিদর্শন শেষে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (অতিরিক্ত সচিব) মো. জাবেদ আহমেদ এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (অতিরিক্ত সচিব) মো. জাবেদ আহমেদ আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল একটি সুখী সুন্দর বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নপূরণ করার জন্য সব জাতি গোষ্ঠীকে ঐক্যবদ্ধভাবে সম্প্রীতি বজায় রেখে কাজ করতে হবে।

তিনি বলেন, পার্বত্যাঞ্চলের মানুষের উন্নয়নের জন্য সরকার ব্যাপক কাজ করছেন। যার চিত্র এখন দৃশ্যমান। একটা সময় এসব অঞ্চলে আসার কথা চিন্তাও করা যেত না। কিন্তু সব মৌসূমে এখানে দেশি-বিদেশি পর্যটক আসছে। পর্যটক আসার কারণে এখানে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর কুটির শিল্পগুলো বাণিজ্যিক রূপ পেয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ