অনিবন্ধিত সুদ বন্ধে ৬৪ জেলার ডিসি-এসপির বিরুদ্ধে রিট

অনলাইন ডেস্ক

অনিবন্ধিত সুদ বন্ধে ৬৪ জেলার ডিসি-এসপির বিরুদ্ধে রিট

সারাদেশের গ্রাম পর্যায়ে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা অনিবন্ধিত সুদের ব্যবসা বন্ধ করার নির্দেশনা চেয়ে রিট আবেদন দায়ের করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমান ও বিচারপতি জাকির হোসেনের হাইকোর্ট বেঞ্চে এ রিট দায়ের করা হয়েছে। রিটে ৬৪ জেলার ডিসি ও এসপিকে বিবাদী করা হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন জনস্বার্থে এ রিটটি দায়ের করেছেন।

আরও পড়ুন:


গ্রেপ্তার জামায়াত নেতাদের বিরুদ্ধে মামলা, রিমান্ডে চায় পুলিশ

করোনায় আক্রান্ত জাপা মহাসচিব, হাসপাতালে ভর্তি

৭ বছর কারাদণ্ড হতে পারে নুসরাতের

দুদকের তৃতীয় দিনের রিমান্ডে পিকে হালদারের সহযোগী নাহিদা-শুভ্র


news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

পীরগঞ্জের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৩৮ জন তিন দিনের রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক

পীরগঞ্জের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৩৮ জন তিন দিনের রিমান্ডে

রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দুপল্লীতে সহিংসতার ঘটনায় গ্রেপ্তারদের মধ্যে ৩৮ জনকে তিন দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

বিস্তারিত আসছে...

আরও পড়ুন:


পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা ওই ব্যক্তি ‌‘ভবঘুরে’

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা হয় রাত আড়াইটা থেকে ৬টার মধ্যে

নিজের শিশুকন্যাকে ব্লেডের ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করল বাবা


 

news24bd.tv/তৌহিদ

 

পরবর্তী খবর

বাল্যবিয়ে দেয়ায় বরের করা মামলায় কাজী ও চেয়ারম্যানসহ গ্রেপ্তার ৯

আব্দুল লতিফ লিটু, ঠাকুরগাঁও

বাল্যবিয়ে দেয়ায় বরের করা মামলায় কাজী ও চেয়ারম্যানসহ গ্রেপ্তার ৯

ঠাকুরগাঁওয়ে বাল্যবিয়ে দেওয়ার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যান, কাজী ও স্থানীয় সাংবাদিকসহ ৯ জনকে গ্রেফতারের আদেশ দিয়েছেন ঠাকুরগাঁও সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আরিফুর রহমান।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) সকালে জামিন নিতে আদালতে গেলে বালিয়াডাঙ্গী দুওসুও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম, কাজী আব্দুল কাদের ও স্থানীয় সাংবাদিক আবুল কালামসহ ৯ জনের জামিন নামঞ্জুর করে তাদের জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক।

আদালত সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি একটি শালিসের মাধ্যমে বালিয়াডাঙ্গি উপজেলা চাড়োল ইউনিয়নের পলাশবাড়ী গ্রামের খাদেমুলের নাবালিকা মেয়ের সঙ্গে একই গ্রামের মিজানুরের(২৬) বিয়ে হয়।

তবে বর মিজানুর নাবালিকা মেয়ের সঙ্গে জোরপূর্বক বিয়েটি দেওয়া হয়েছে জানিয়ে ঠাকুরগাঁও কোর্টে ৯ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেন।

আরও পড়ুন


বদরুন্নেসার শিক্ষিকা রুমা সরকারের মুক্তির দাবি আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের

ইকবালকে খুঁজে বের করার সর্বোচ্চ চেষ্টা চলছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ভুবন চিল নামেই বেশি পরিচিত, পৃথিবী জুড়েই এদের বসবাস

রাজধানীর মুগদা হাসপাতালের আগুন নিয়ন্ত্রণে


মিজানুর জানান, অন্যায়ভাবে একটি বিচার শালিসের নামে আমাকে নাবালিকা মেয়ের সঙ্গে বিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাই এই বিষয়ে আমি সঠিক বিচার দাবি করছি।

এদিকে পুরো বিষয়টিকে রহস্যজনক বলে এর সঠিক তদন্ত দাবি করেছেন আসামির স্বজনরা। তাদের দাবি- যে মেয়েটিকে নাবালিকা বলা হচ্ছে, এটি তার দ্বিতীয় বিয়ে। আগেই যেখানে তার একটি বিয়ে হয়েছিলো তাহলে সে কীভাবে নাবালিকা হয়?

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রীকে হত্যা মামলায় স্বামীর ফাঁসির আদেশ

নজির আহম্মদ রতন, ফেনী

ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রীকে হত্যা মামলায় স্বামীর ফাঁসির আদেশ

ফেনী শহরের বারাহিপুর এলাকায় পারিবারিক কলহের জেরে ফেসবুকে লাইভে এসে তাহমিনা আক্তার নামের এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় স্বামী ওবায়দুল হক টুটুলকে ৩০২ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) দুপুরে ফেনী  জেলা ও দায়রা জজ ড. বেগম জেবুন্নেছা এ  রায় ঘোষণা করেন। ৬০ কার্যদিবসে এ হত্যার বিচার সম্পন্ন হয়। তিনি বলেন, আসামিকে ফাঁসি দিয়ে মৃত্যুদন্ড রায় কার্যকর করার নির্দেশ দেয়া হলো ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হলো। আসামি ইচ্ছা করলে উচ্চ আদালতে আপিল করতে পারবে।

আদালত সূত্র জানায়, মঙ্গলবার তাহমিনা হত্যা মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে টুটুলের বিরুদ্ধে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন পাবলিক প্রসিকিউটর হাফেজ আহম্মদ ও বাদিপক্ষের আইনজীবী শাহজাহান সাজু। আসামীপক্ষে যুক্তিতর্ক তুলে ধরেন আইনজীবী আবদুস সাত্তার।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী  হাফেজ আহম্মদ বলেন, সকল তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে খুনের অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত আসামীকে মৃত্যুদন্ড দিয়েছে। মৃত্যু নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রাখতে বলা হয়েছে।

রায়ের বিষয়ে বাদীপক্ষের আইনজীবী শাহজাহান সাজু বলেন, অল্প সময়ে মামলাটির বিচার কাজ শেষ হয়েছে। এ রায়ের মধ্য দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন হয়েছে। আমরা সুবিচার পেয়েছি।

তাহমিনার বাবা সাহাব উদ্দিন বলেন, ন্যায় বিচার পেয়েছি, আদালত এবং সরকারের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।

আসামিপক্ষের আইনজীবী আবদুস সাত্তার বলেন, আমরা সুবিচার পাইনি। সুবিচারের জন্য উচ্চ আদালতে আমরা আপিল করবো।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১৫ এপ্রিল ফেসবুকে লাইভে এসে স্ত্রী তাহমিনাকে কুপিয়ে হত্যা করেন ওবায়দুল হক টুটুল। এ ঘটনায় তাহমিনার পিতা সাহাব উদ্দিন বাদি হয়ে ফেনী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

২০২০ সালের ১৫ ডিসেম্বর একমাত্র আসামী ওবায়দুল হক টুটুলকে অভিযুক্ত করে চার্জগঠন করা হয়। চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারি মামলার বাদি তাহমিনার পিতা সাহাব উদ্দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। এই মামলায় ১৭ জনের মধ্যে  ১৩ জন সাক্ষ্য প্রদান করে। ২০ জানুয়ারী থেকে বিচার কার্য শুরু হয়।

আরও পড়ুন


এবার নুসরাতকে ফেলে আরেক নায়িকাকে নিয়ে কাশ্মীরে গেলেন যশ!

নগদের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর তামিম ইকবাল, থাকছে বাইক জেতার সুযোগ

ছাত্রদলের ছাত্রীবিষয়ক সম্পাদক চেয়ারম্যান নির্বাচনে নৌকার মাঝি

প্রথমবারের মতো কারাগারে ছেলের সঙ্গে দেখা করলেন শাহরুখ (ভিডিও)


এর আগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো: ইমরান হোসেন গত বছরের  ১১ নভেম্বর টুটুলকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। 

পরিবার সূত্র জানায়, প্রায় ৫ বছর আগে ফেনী পৌরসভার  বারাহিপুর এলাকার গোলাম মাওলা ভূঁঞার ছেলে ওবায়দুল হক ভূঁঞা টুটুল কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার আকদিয়া গ্রামের সাহাব উদ্দিনের মেয়ে তাহমিনা আক্তারকে বিয়ে করেন। তাদের তাফান্নুন আরোয়া মায়োস নামে দেড় বছর বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে। স্ত্রীকে হত্যার আগে ফেসবুক লাইভে এসে টুটুল সবার কাছে মাফ চান এবং ঘটনার জন্য নিজেই দায়ী বলে স্বীকার করেন।

এছাড়া পারিবারিক অশান্তির জন্য স্ত্রীকে দায়ী করেন। তার স্ত্রী পরিবারকে ‘ব্ল্যাকমেইল’ করতেন বলেও দাবি করেন। তিনি ভিডিওতে তার মেয়েকে দেখভালের জন্য সবার কাছে অনুরোধ করেন।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহাসহ ১১ জনের মামলার রায় আবারও পেছালো

অনলাইন ডেস্ক

সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহাসহ ১১ জনের মামলার রায় আবারও পেছালো

ফারমার্স ব্যাংক (বর্তমানে পদ্মা ব্যাংক) থেকে ৪ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে আত্মসাতের অভিযোগে দুদকের করা মামলায় বাংলাদেশের সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার রায় ঘোষণার তারিখ আবারও পেছালো। আজ বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) সংশ্লিষ্ট মামলার রায় ঘোষণার দিন ধার্য ছিলো। ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলমের আদালতে এই মামলার রায় হওয়ার কথা ছিলো বলে জানা গেছে।

এর আগে গত ৫ অক্টোবর ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর ভারপ্রাপ্ত বিচারক আলী হোসেন এদিন ধার্য করেন। ওইদিন মামলার রায় ঘোষণার জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু বিচারক শেখ নাজমুল আলম অসুস্থ থাকায় তারিখ পিছিয়ে পরবর্তী রায় ঘোষণার জন্য ২১ অক্টোবর দিন ধার্য করেন। 

গত ২৯ আগস্ট আত্মপক্ষ সমর্থনে সাত আসামি নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন এবং আদালতের কাছে ন্যায়বিচার প্রত্যাশা করেন। এরা হলেন- ফারমার্স ব্যাংক লিমিটেডের অডিট কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মো. মাহবুবুল হক চিশতী (বাবুল চিশতী), ফারমার্স ব্যাংকের সাবেক এমডি এ কে এম শামীম, ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট স্বপন কুমার রায়, ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. লুৎফুল হক, সাবেক এসইভিপি গাজী সালাহউদ্দিন, টাঙ্গাইলের মো. শাহজাহান ও একই এলাকার নিরঞ্জন চন্দ্র সাহা। মামলার আসামিদের মধ্যে কারাগারে রয়েছেন মাহবুবুল হক চিশতী। আর বাকি ছয়জন জামিনে।

অপরদিকে সুরেন্দ্র কুমার সিনহা, ফারমার্স ব্যাংকের ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট সফিউদ্দিন আসকারী আহমেদ, রণজিৎ চন্দ্র সাহা ও তার স্ত্রী সান্ত্রী রায় পলাতক রয়েছেন। পলাতক থাকায় তারা আত্মপক্ষ সমর্থন করতে পারেননি। এ মামলায় সাক্ষি দিয়েছেন ২১ জন।

২০১৯ সালের ১০ জুলাই এস কে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়, ঢাকা-১ এ মামলা করা হয়। মামলার বাদী দুদকের পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন। আসামিদের বিরুদ্ধে ঋণ জালিয়াতি ও চার কোটি টাকা আত্মসাতে জড়িত থাকার অভিযোগ আনা হয়।

এরপর একই বছরের ১০ ডিসেম্বর আদালতে এস কে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দুদকের পরিচালক বেনজীর আহমেদ। ২০২০ সালের ১৩ আগস্ট ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম এস কে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।

আরও পড়ুন:


৬ মাস ধরে জেলে থাকা বিএনপির ৩ নেতা পূজামন্ডপের হামলার আসামি

বিশ্বে সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়েছে , ২০২২ সাল পর্যন্ত থাকতে পারে করোনা মহামারি

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখা কে এই ইকবাল?

পূজামণ্ডপে কোরআন শরিফ রেখে গদা নিয়ে যায় ইকবাল


আসামিদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪০৯/৪২০/১০৯ ধারা ও ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারা এবং ২০১২ সালের মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের ৪(২)(৩) ধারায় অভিযোগ গঠন করা হয়। ধারাগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। ফলে মামলার ধারা অনুযায়ী অপরাধ প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ শাস্তি হতে পারে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড।

news24bd.tv রিমু    

পরবর্তী খবর

এস কে সিনহাসহ ১১ জনের মামলার রায় আজ

অনলাইন ডেস্ক

এস কে সিনহাসহ ১১ জনের মামলার রায় আজ

ফারমার্স ব্যাংক (বর্তমানে পদ্মা ব্যাংক) থেকে ৪ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে আত্মসাতের অভিযোগে দুদকের করা মামলায় বাংলাদেশের সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার রায় আজ বৃহস্পতিবার ঘোষণা করা হবে। ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলমের আদালতে এ রায় ঘোষণা অনুষ্ঠিত হবে। 

গত ৫ অক্টোবর ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর ভারপ্রাপ্ত বিচারক আলী হোসেন এদিন ধার্য করেন। ওইদিন মামলার রায় ঘোষণার জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু বিচারক শেখ নাজমুল আলম অসুস্থ থাকায় তারিখ পিছিয়ে পরবর্তী রায় ঘোষণার জন্য ২১ অক্টোবর দিন ধার্য করেন।

গত ২৯ আগস্ট আত্মপক্ষ সমর্থনে সাত আসামি নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন এবং আদালতের কাছে ন্যায়বিচার প্রত্যাশা করেন। এরা হলেন- ফারমার্স ব্যাংক লিমিটেডের অডিট কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মো. মাহবুবুল হক চিশতী (বাবুল চিশতী), ফারমার্স ব্যাংকের সাবেক এমডি এ কে এম শামীম, ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট স্বপন কুমার রায়, ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. লুৎফুল হক, সাবেক এসইভিপি গাজী সালাহউদ্দিন, টাঙ্গাইলের মো. শাহজাহান ও একই এলাকার নিরঞ্জন চন্দ্র সাহা। মামলার আসামিদের মধ্যে কারাগারে রয়েছেন মাহবুবুল হক চিশতী। আর বাকি ছয়জন জামিনে।

অপরদিকে সুরেন্দ্র কুমার সিনহা, ফারমার্স ব্যাংকের ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট সফিউদ্দিন আসকারী আহমেদ, রণজিৎ চন্দ্র সাহা ও তার স্ত্রী সান্ত্রী রায় পলাতক রয়েছেন। পলাতক থাকায় তারা আত্মপক্ষ সমর্থন করতে পারেননি। এ মামলায় সাক্ষি দিয়েছেন ২১ জন।

২০১৯ সালের ১০ জুলাই এস কে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়, ঢাকা-১ এ মামলা করা হয়। মামলার বাদী দুদকের পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন। আসামিদের বিরুদ্ধে ঋণ জালিয়াতি ও চার কোটি টাকা আত্মসাতে জড়িত থাকার অভিযোগ আনা হয়।

এরপর একই বছরের ১০ ডিসেম্বর আদালতে এস কে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দুদকের পরিচালক বেনজীর আহমেদ। ২০২০ সালের ১৩ আগস্ট ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম এস কে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।

আরও পড়ুন:


প্রোগ্রামে ‘বোরকা না পরার’ নির্দেশ ঢাবি ছাত্রলীগ নেত্রীর!

রাজধানীতে ১৭ বছরের কিশোরীকে ধর্ষণ

‘ডু অর ডাই’ ম্যাচে সাকিব-মুস্তাফিজের কার্যকর বোলিংয়ে স্বস্তির জয়

বিশ্বে আবারও করোনায় সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়েছে


আসামিদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪০৯/৪২০/১০৯ ধারা ও ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারা এবং ২০১২ সালের মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের ৪(২)(৩) ধারায় অভিযোগ গঠন করা হয়। ধারাগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। ফলে মামলার ধারা অনুযায়ী অপরাধ প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ শাস্তি হতে পারে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড।

news24bd.tv রিমু  

পরবর্তী খবর