তালেবানের নতুন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মাথার মূল্য ৫০ লাখ ডলার!
তালেবানের নতুন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মাথার মূল্য ৫০ লাখ ডলার!

তালেবানের নতুন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মাথার মূল্য ৫০ লাখ ডলার!

অনলাইন ডেস্ক

আফগানিস্তানের ক্ষমতায় আসার তিন সপ্তাহেরও বেশি সময় পর তালেবান এক নতুন অন্তর্বর্তী সরকারের নাম ঘোষণা করেছে। নতুন সরকারের প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন মোল্লা মোহাম্মদ হাসান আখুন্দ। তালেবানের মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ এই ঘোষণা দেন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর এক টুইট বার্তায় তোলো নিউজ তালেবান নেতৃত্বাধীন আফগানিস্তানের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের ৫ শীর্ষ ব্যক্তির নাম প্রকাশ করে।

তারা লেখে- সরকার প্রধান মোল্লা হাসান আখুন্দ, সহকারী প্রধান (প্রথম) মোল্লা আব্দুল গণি বারাদার, সহকারী প্রধান (দ্বিতীয়) মৌলভী হান্নাফি, ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী মোল্লা ইয়াকুব, ভারপ্রাপ্ত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সিরাজুদ্দিন হাক্কানি।

তাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে হাক্কানি নেটওয়ার্কের নেতা সিরাজউদ্দিনের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। এদিকে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়া সিরাজউদ্দিন হাক্কানির মাথার মূল্য ৫০ লাখ ডলার ধরা আছে যুক্তরাষ্ট্রে।

যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকায় থাকা হাক্কানি নেটওয়ার্কের সঙ্গে আল কায়দার যোগসাজশ রয়েছে বলে মনে করা হয়। সংগঠনের বর্তমান প্রধান সিরাজউদ্দিন হাক্কানির নাম এফবিআইর ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ তালিকায় মঙ্গলবারও দেখা গেছে।

তাতে বলা হয়েছে, ২০০৮ সালে কাবুলে হোটেলে বোমা হামলা চালিয়ে ছয় মার্কিন নাগরিক হত্যার অভিযোগে তাকে খোঁজা হচ্ছে। একই বছর তৎকালীন আফগান প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাইকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

হাক্কানিকে ধরিয়ে দিলে কিংবা তাকে গ্রেফতারের তথ্য দিলে ৫০ লাখ ডলার পুরস্কার মিলবে বলে এফবিআইর ওয়েবসাইটে ঘোষণা দেওয়া আছে।

সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের বিরুদ্ধে যুদ্ধের সময় সিরাজউদ্দিন হাক্কানির বাবা জালালউদ্দিন হাক্কানি আফগানিস্তানের বাইরে নানা দেশে সমমনা জিহাদিদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলেন। সেই ধারা অব্যাহত ছিল ১৯৮৯ সালে দেশটি থেকে সোভিয়েত বাহিনী প্রত্যাহারের পরও। ওই সময়ে আল–কায়েদার নেতা ওসামা বিন লাদেনের সঙ্গেও তার যোগাযোগ ছিল।

আরও পড়ুন:


যুদ্ধ ও সন্ত্রাসমুক্ত আফগানিস্তান দেখতে চায় ইরান: আব্দুল্লাহিয়ান

নার্স দিয়ে ডেলিভারি, দুই নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ

একবার একটু দেখেন না আমার দিকে, কী করে বেঁচে আছি: পরীমণি

পরে ১৯৯৬ সালে এসে আফগানিস্তানে সরকার গঠন করে তালেবান। সে সময় তালেবানের সঙ্গে হাত মেলান জালালউদ্দিন হাক্কানি। তালেবান সরকারের একজন মন্ত্রী হিসেবেও দায়িত্ব পেয়েছিলেন তিনি। ২০০১ সালে মার্কিন ও তার মিত্রদের সেনা অভিযানে তালেবানের পতনের আগপর্যন্ত ওই দায়িত্বে ছিলেন তিনি।

২০১৮ সালে জালালউদ্দিন হাক্কানির মৃত্যুর পর হাক্কানি নেটওয়ার্কের দায়িত্ব পান তার ছেলে সিরাজউদ্দিন হাক্কানি। এখনো তিনি গ্রুপটির প্রধান হিসেবেই আছেন।

হাক্কানি নেটওয়ার্ক আফগানিস্তানে অনেকগুলো মারাত্মক আক্রমণ চালিয়েছে বলে মনে করা হয়- যার মধ্যে একটি ছিল কাবুলে ২০১৭ সালের ট্রাক-বোমা বিস্ফোরণ। এতে ১৫০ জনেরও বেশি লোক নিহত হয়।

news24bd.tv রিমু