করোনার বন্ধে এক স্কুলেই ৫০ বাল্যবিয়ে, তদন্ত কমিটি গঠন

মনিরুল ইসলাম মনি, সাতক্ষীরা

করোনার বন্ধে এক স্কুলেই ৫০ বাল্যবিয়ে, তদন্ত কমিটি গঠন

করোনাকালীন বন্ধের মধ্যে সাতক্ষীরার আলিপুর আদর্শ মাধ্যমিক স্কুলের ৫০ ছাত্রীর বাল্যবিয়ে হয়েছে। ঘটনাটি এখন দেশজুড়ে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে।

নির্দিষ্ট কোনো পরিসংখ্যান ও তথ্য দিতে না পারলেও স্কুলের প্রধান শিক্ষকের দাবি করোনার শুরু থেকে এ পর্যন্ত ৫০টি বাল্যবিয়ে হয়েছে।  

বিষয়টি নিয়ে উপজেলা ও জেলা শিক্ষাকর্মকর্তারা নড়েচড়ে বসেছেন। গঠিত হয়েছে একটি তদন্ত কমিটি।

খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে, ২০১৯ সালে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আলীপুর আদর্শ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সব শিক্ষার্থীকে বাল্যবিয়ে না করার শপথ করানো হয়। সে সময় উপজেলা প্রশাসন ঘটা করে আয়োজন করে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে একটি ডাটাবেজের আওতায় এনে লাল কার্ড দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন:


নোয়াখালীতে প্রকাশ্যে গুলি, একে অপরকে দুষছেন আওয়ামী লীগ নেতারা

কে এই মোল্লা মোহাম্মদ হাসান আখুন্দ

সিরিজ জয়ের মিশনে বিকেলে নামছে টাইগাররা


তবে করোনা মহামারির কারণে গত বছর ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ স্কুলটি। প্রায় দেড় বছরে এই স্কুলের ৫০ জন ছাত্রীর বাল্যবিয়ে হয়েছে বলে জানিয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। জেলার প্রায় প্রতিটি স্কুলের চিত্র প্রায় একই রকম। আগে থেকেই বাল্যবিয়ে প্রবণ জেলা সাতক্ষীরায় বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা ও প্রশাসনের উদ্যোগে নানা কর্মসূচির কারণে বাল্যবিয়ের হার প্রায় অর্ধেকে নেমে আসে। তবে করোনা সেই হিসাবকিতাব পাল্টে দিয়েছে।

আলীপুর আদর্শ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল লতিফ তার স্কুলের ৫০ জন ছাত্রীর বাল্যবিয়ের নাম ঠিকানা না দিতে পারলেও জানিয়েছেন, ‘বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিকভাবে খোঁজ নিয়ে অষ্টম থেকে দশম শ্রেণি পড়ুয়া অন্তত ৫০ জন ছাত্রীর বাল্যবিয়ের কথা জানা গেছে। এদের মধ্যে ১৮ জন এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। তাদের বয়স ১৩ থেকে ১৭ বছরের মধ্যে। কয়েকজনের বয়স প্রায় ১৮ বছর হয়েছে। বিষয়টি উপজেলা ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে জানিয়েছি। এরই মধ্যে এ বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। 

বাল্যবিয়ের শিকার ওই বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর বাবা জানান, ‘স্কুল বন্ধ থাকায় পড়াশোনায় মন বসতো না মেয়ের। ভালো পাত্র পেয়েছিলাম বলে তাড়াতাড়ি বিয়ে দিয়ে দিয়েছি। আমি ভোমরা বন্দরে একটি সি অ্যান্ড এফ অফিসে কাজ করি। গরিব মানুষ, তাই ভালো পাত্র হাতছাড়া করতে চাইনি’।

ওই স্কুলের আরেক ছাত্রীর বাবা বলেন, ‘পাড়ার এক বখাটে ছেলে মেয়েটাকে বিরক্ত করতো। বিয়ে করার জন্য হুমকিধমকি দিতো। সময় ভালো না, কখন কী হয়ে যায় এই ভয়ে ভালো পাত্র দেখে মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি।’

তবে মেয়ের বয়স ১৮ পার হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আলীপুর ইউনিয়নের একজন সিনিয়র বিবাহ রেজিস্ট্রার (কাজী) বলেন, ‘বর্তমানে আইনসঙ্গত উপায়ে বাল্যবিয়ের নিবন্ধন হয় না। কিছু অসাধু রেজিস্ট্রার নকল নিবন্ধন ফরমে সই নিয়ে বিয়ে সম্পন্ন করছে। পরে যখন ছাত্রীদের বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হচ্ছে তখন রেজিস্ট্রেশন করা হচ্ছে। ফলে আইন করেও কৌশলের কারণে বাল্যবিয়ে বন্ধ করা যাচ্ছে না।’

আলিপুর ইউনিয়ন পরিষদের আব্দুর রউফ জানান, ‘করোনা মহামারীতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় গোপনে কিছু বাল্যবিয়ে হয়েছে। তবে সেই সংখ্যা এতো বেশি নয়। তারপরও আমরা খোঁজ খবর নিচ্ছি।’

আলিপুর ইউনিয়ন পরিষদের সচিব কাঞ্চন কুমার দে বলেন, এক স্কুলে এতোগুলো ছাত্রীর বিয়ে কীভাবে হয়েছে তা আমার জানা নেই। এ বিষয়ে ইউনিয়ন পরিষদের কাছে কোনো তথ্যও নেই। কেউ গোপনে বাল্যবিয়ে দিয়ে থাকলে সেই তথ্য ইউনিয়ন পরিষদে জানায় না বলে জানান তিনি।

বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা সেভ দ্য চিলড্রেনের হয়ে কাজ করা ব্রেকিং দ্য সাইলেন্স সাতক্ষীরার কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম বলেন, গেলো পাঁচ বছর ধরে তারা সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ ও শিশু নির্যাতন বন্ধে কাজ করছেন। করোনার আগে জেলায় বাল্যবিয়ের হার অর্ধেকে নেমে এসেছিল। গত দেড় বছর করোনার কারণে স্কুল বন্ধ থাকায় সেই হার বেড়েছে। তবে সঠিক জরিপ ছাড়া এই মুহূর্তে ঠিক কতটা বেড়েছে তা বলা সম্ভব নয়। বিষয়টি নিয়ে আমাদের কর্মীরা কাজ শুরু করেছেন। আগামী মাসে একটি জরিপ প্রতিবেদন দিতে পারবো বলে জানান তিনি।

সাতক্ষীরা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এস এম আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, প্রাথমিক অনুসন্ধানে আমরা ওই বিদ্যালয়ে ২৫টি বাল্যবিয়ের বিষয়ে জানতে পেরেছি। এখনো অনুসন্ধান চলছে। তবে শুধু এই একটি স্কুলে নয়, জেলার প্রায় সব স্কুল থেকেই এমন অভিযোগ আসছে। বাস্তবে বাল্যবিয়ের এই সংখ্যা অনেক বেশি বলে মনে করেন তিনি।

সদর উপজেলা বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ কমিটির সদস্য ও জেলা মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তরের প্রোগ্রাম অফিসার ফাতেমা জওহরলাল জানান, বিষয়টি জানার পর আমাদের পক্ষ থেকে আগামীকাল ওই বিদ্যালয়ে একটি জরুরি সভা আহ্বান করা হয়েছে। সেখানে এ বিষয়ে বিস্তারিত খোঁজ নেওয়া হবে। এরই মধ্যে তদন্ত কার্যক্রম শুরু হয়েছে বলে জানান তিনি। 

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ডেঙ্গুজ্বরে পাবনায় বিএনপি নেতার মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

ডেঙ্গুজ্বরে পাবনায় বিএনপি নেতার মৃত্যু

ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে পাবনার ঈশ্বরদী জেলা বিএনপির নেতা ও পাকশী রিসোর্টের মালিক আকরাম আলী খান সঞ্জু মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি... রাজিউন)। শুক্রবার রাত ১২টার দিকে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ঈশ্বরদী পৌর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এস এম ফজলুর রহমান মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আকরাম আলী খান সঞ্জু উপজেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি ছিলেন। ডেঙ্গু আক্রান্ত হলে গত ২১ সেপ্টেম্বর তাকে ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তিনি লাইফ সাপোর্টে ছিলেন। শুক্রবার দিবাগত রাত রাত ১২টার দিকে তার ‍মৃত্যু হয়। 

শনিবার বাদ জোহর ঢাকায় মরহুমের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। তার দুই ছেলে দেশের বাইরে থাকায় তারা দেশে আসার পর রোববার ঈশ্বরদীর পাকশীতে জানাজা শেষে দাফন করা হবে বলে পরিবার সূত্রে জানা গেছে।

রও পড়ুন:

সব ফোনের একই চার্জার তৈরির প্রস্তাব, অ্যাপলের আপত্তি

প্রেমের স্বীকৃতি না পেয়ে প্রেট্রোল ঢেলে আগুন দিলেন নারী!

শরীর আর আগের মতো ছিলো না, বিচ্ছেদের কারণ জানিয়ে রোশান

নতুন নায়িকা কোলে নিয়ে শাহরুখকে মনে করালেন জায়েদ খান


সঞ্জু খানের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে ঈশ্বরদী-আটঘরিয়ার বিএনপির অনেক নেতাকর্মীর মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে। দলের বাইরেও অনেকে তার মৃত্যুতে শোকাহত।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

শতবর্ষী মায়ের অপেক্ষা, ৭০ বছর পর কুদ্দুস খোঁজ পেলেন পরিবারের

অনলাইন ডেস্ক

শতবর্ষী মায়ের অপেক্ষা, ৭০ বছর পর কুদ্দুস খোঁজ পেলেন পরিবারের

৭০ বছর পর আপন ঠিকানাসহ প্রিয়জনদের খুঁজে পেয়েছেন রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার বারুইপাড়ার আব্দুল কুদ্দুস মুন্সী। কুদ্দুসের বয়স এখন ৮০। হারিয়ে গেয়েছিলেন ১০ বছর বয়সে।

পুলিশ সদস্য চাচার সাথে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে রাজশাহীর বাগমারায় বেড়াতে এসে হারিয়ে যান তিনি। অনেক খোঁজা-খুঁজির পর তাকে পাওয়া না গেলে, সবাই মনে করেন সম্পত্তির লোভে পিতা-মাতার একমাত্র পুত্র সন্তান কুদ্দুসকে হত্যা করেছে তার চাচা।

স্বজনরা জানান, ছেলের আশায় এখনও পথ চেয়ে আছেন আব্দুল কুদ্দুসের শতবর্ষী মা। আর খুব শিগগিরই দেখা হতে যাচ্ছে মা-ছেলের।

১০ বছরের সেই ছোট্ট শিশুটি আজ ৮০ বছরের বৃদ্ধ। দিন দশেক আগে আইয়ূব আলী নামের পরিচিত একজনের ফেসবুক আইডিতে হারিয়ে যাওয়ার গল্প বলেন আব্দুল কুদ্দুস। সেখানে তিনি শুধু পিতা-মাতা ও নিজ গ্রাম বাড্ডার নাম বলতে পারেন। পরে ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে দেশ-বিদেশে ছড়িয়ে থাকা বাড্ডা গ্রামের বাসিন্দারা সাড়া দিতে থাকেন। একপর্যায়ে আব্দুল কুদ্দুসকে খুঁজে পান তার পরিবারের সদস্যরা।

আব্দুল কুদ্দুসের স্বজনরা জানান, এখনও জীবিত আছেন তার শতবর্ষী মা ও এক বোন। এরই মধ্যে মায়ের সাথে ভিডিও কলে কথাও বলেছেন আব্দুল কুদ্দুস। আর এত বছর পর নিজের পরিবার খুঁজে পাওয়ায় খুশি আব্দুল কুদ্দুসের স্ত্রী-সন্তানরাও।

আইয়ুব আলী বলেন, গত ১২ এপ্রিল আব্দুল কুদ্দুসের ৭০ বছর আগে হারিয়ে যাওয়ার একটি ভিডিও আমার ফেসবুক পেজে আপলোড করি। আর ফেসবুকে ওই পোস্টের উপরে লিখে ছিলাম যে, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবিনগর থানার এই বৃদ্ধা আজ থেকে প্রায় ৭০ বছর আগে হারিয়ে গিয়ে পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন। কেউ যদি তার কথা শুনে চিনতে পারেন।

আব্দুল কুদ্দুস সাংবাদিকদের জানান, আমার পুলিশ চাচার সাথে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে বাগমারা থানায় বেড়াতে এসে হারিয়ে যাই। তারপরে আত্রাই সিংসাড়া গ্রামে কোনভাবে চলে আসি। তারপরে বাগমারা বারুইপাড়া গ্রামে এক মেয়ের সাথে বিয়ে হয়। তিন ছেলে ও এক মেয়ে হয়। এ নিয়ে এখানেই আমার বসতবাড়ি হয়ে যায়।

আরও পড়ুন


ফের বিতর্কে জড়িয়ে পড়লেন কপিল শর্মা

শনিবার রাজধানীর যে সব মার্কেট ও দর্শনীয় স্থান বন্ধ

করোনা মোকাবিলায় জাতিসংঘে ৬ প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের পূর্ণ বিবরণ


তিনি আরও বলেন, আমার মায়ের সাথে ভিডিও কলে প্রথম যখন কথা বলি তখন আমার মা আমাকে বলে তুই আমার হারিয়ে যাওয়া আব্দুল কুদ্দুস বাবা। তোর ছোট বেলায় হাত কেটে গিয়েছিল। মায়ের মুখে এ কথা শুনার পরে আমি বলি, মা তোর কুদ্দুসের কোন হাত কেটে গিয়েছিল, তখন মা বলে বাম হাতের বুড়া আঙ্গুলের কেটে গিয়েছিল, তখন আমার মাথা খারাপ হয়ে যায়। আর বুঝতে পারি যে আমার মা সেই।

এদিকে হারিয়ে যাবার ৭০ বছর পর পরিবারের সাথে যোগাযোগের বিষয়টি আলোড়ন ফেলেছে আব্দুল কুদ্দুসের বর্তমান আবাস বাগমারার বারুইপাড়া গ্রামেও। চায়ের দোকান থেকে পাড়ামহল্লার মোড়ে মোড়ে মানুষের মুখে মুখে ফিরছে আব্দুল কুদ্দুসের গল্প।

সব ঠিক থাকলে আজ শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) মায়ের সাথে দেখা করতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া যাবেন আব্দুল কুদ্দুস মুন্সি। ৭০ বছর পর মা ফিরে পাবেন তার যক্ষের ধন, আর ছেলে পাবেন মায়ের পরশ।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

মোটরসাইকেল কিনে না দেওয়ার স্কুলছাত্রের আত্মহত্যা

অনলাইন ডেস্ক


মোটরসাইকেল কিনে না দেওয়ার স্কুলছাত্রের আত্মহত্যা

মোটরসাইকেল কিনে না দেওয়ায় পরিবারের সঙ্গে অভিমান করে রাইয়ান (১৫) নামে এক স্কুলছাত্র আত্মহত্যা করেছে।

আজ সকালে বরিশালে নগ‌রের ব্রাউন কম্পাউন্ডের বাসভবন থেকে তার মর‌দেহটি উদ্ধার করে পুলিশ। রাইয়ান বরিশাল জেলা স্কুলের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল।

প্রতিবেশীরা জানান, বেশ কয়েকদিন ধরেই রাইয়ান তার মা-বাবার কাছে মোটরসাইকেল কিনে দেওয়ার বায়না করছিল। তা না পেয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে সে আত্মহত্যা করেছে।

আরও পড়ুন:


ফুটবলে ক্যারিশমা দেখিয়ে অষ্টমবারের মতো গিনেস বুকে বাংলাদেশের ফয়সাল

ইসরায়েলের আয়রন ডোমের জন্য ১০০ কোটি ডলার দেবে যুক্তরাষ্ট্র

বিশ্বব্যাপী স্থিতিশীল খাদ্য ব্যবস্থা গড়ে তোলার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

সাত ঘণ্টা বৈঠক শেষ যা বললেন মির্জা ফখরুল!


কোতোয়ালি থানার এসআই সুলতান মাহমুদ বলেন, ব্রাউন কম্পাউন্ডের বাসিন্দা মো. শাহজাদার ছেলে রাইয়ান। গতকাল রাত ৩টার দিকে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে সে। মর‌দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ (শেবামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

দেশের সবখানে উন্নয়নের ছোঁয়া পৌঁছে গেছে: খাদ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

দেশের সবখানে উন্নয়নের ছোঁয়া পৌঁছে গেছে: খাদ্যমন্ত্রী

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, দেশের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তার কল্যাণে দেশের সবখানে উন্নয়নের ছোঁয়া পৌঁছে গেছে।

আজ সকালে নিয়ামতপুর উপজেলার স্থায়ী মঞ্চে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের সুবিধাভোগীদের মধ্যে প্রণোদনা বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, শিক্ষার জন্য যত রকম প্রণোদনা দেওয়ার দরকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার তার সব কিছু দিয়ে যাচ্ছে। বর্তমান সরকার কৃষককে প্রণোদনার পাশাপাশি সার, বীজ ও কৃষি উপকরণও দিচ্ছে। ফলে আমাদের কৃষিতে বিপ্লব ঘটেছে। দেশে খাদ্যের কোনো অভাব নেই।

আরও পড়ুন:


ফুটবলে ক্যারিশমা দেখিয়ে অষ্টমবারের মতো গিনেস বুকে বাংলাদেশের ফয়সাল

ইসরায়েলের আয়রন ডোমের জন্য ১০০ কোটি ডলার দেবে যুক্তরাষ্ট্র

বিশ্বব্যাপী স্থিতিশীল খাদ্য ব্যবস্থা গড়ে তোলার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

সাত ঘণ্টা বৈঠক শেষ যা বললেন মির্জা ফখরুল!


নিয়ামতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়া মারিয়া পেরেরার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে নিয়ামতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান ফরিদ আহম্মেদ, ভাইস চেয়ারম্যান আইউব হোসেন মণ্ডল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

জয়পুরহাটে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নিহত ২

অনলাইন ডেস্ক


জয়পুরহাটে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নিহত ২

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি ও কালাই উপজেলায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুইজন নিহত হয়েছেন। আজ দুপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, পাঁচবিবি উপজেলার ভিমপুরে সুবোধ রায় নিজ বাড়িতে বিদ্যুতের সংযোগ মেরামত করছিল। অসাবধানতার কারণে বিদ্যুতের তার শরীরে স্পর্শ করলে, বৈদ্যুতিক শকে তিনি গুরুতর আহত হন। পরিবারের সদস্যরা তাৎক্ষণিক তাকে দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত সুবোধ রায় পাঁচবিবি উপজেলার ভীমপুর গ্রামের শ্রী তরনী কান্ত রায়ের ছেলে।

আরও পড়ুন:


ফুটবলে ক্যারিশমা দেখিয়ে অষ্টমবারের মতো গিনেস বুকে বাংলাদেশের ফয়সাল

ইসরায়েলের আয়রন ডোমের জন্য ১০০ কোটি ডলার দেবে যুক্তরাষ্ট্র

বিশ্বব্যাপী স্থিতিশীল খাদ্য ব্যবস্থা গড়ে তোলার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

সাত ঘণ্টা বৈঠক শেষ যা বললেন মির্জা ফখরুল!


এদিকে গোলাম আজম নামে এক নির্মাণ শ্রমিক কালাই উপজেলার ঝামুটপুর গ্রামের সামিউল ইসলামের নির্মাণাধীন ভবনে নির্মাণ শ্রমিক হিসাবে কাজ করছিলেন। এ সময় অসাবধানতাবশত নির্মাণাধীন ভবনের বৈদ্যুতিক সংযোগকৃত ছেঁড়া তারের সঙ্গে জড়িয়ে গুরুতর আহত হন গোলাম আজম। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কালাই উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নেয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

পাঁচবিবি থানার ওসি পলাশ চন্দ্র দেব ও কালাই থানার ওসি সেলিম মালিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর