দ্বিতীয় মামলার তদন্তের আগেই তৃতীয় মামলা

মুনিয়া ইস্যুতে তিন মামলা, বিস্ময় আইনজীবিদের

অনিক মৃধা

মুনিয়া ইস্যুতে ৩টি মামলা হয়েছে। প্রথমটি বোন নুসরাতের করা আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলা। দ্বিতীয়টি ভাইয়ের করা হত্যা মামলা আর তৃতীয়টি বোনের করা হত্যা ও ধর্ষনের মামলা। এই বাস্তবতায়, বোনের করা তৃতীয় মামলা প্রসঙ্গে আইনজীবীরা বলছেন, একই ভিকটিমকে নিয়ে একাধিক মামলা হলে, প্রথম মামলা খারিজের পর নিয়ম অনুযায়ী দ্বিতীয় মামলাটি তদন্ত শুরু হবে। তারা আরো বলছেন, দ্বিতীয় মামলা তদন্ত না করে তৃতীয় কোন মামলায় যাওয়ার  সুযোগ নেই। 

গুলশানের ফ্ল্যাটে গত ২৬ এপ্রিল আত্মহত্যা করে, মোসারাত জাহান মুনিয়া। সেই রাতেই বাদী হয়ে তার বোন নুসরাত জাহান তানিয়া একটি আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলা দায়ের করে। শুরু হয়, মামলার তদন্ত। তবে, মুনিয়ার মৃত্যুর ৬ দিনের মাথায় ২ মে ভাই আশিকুর রহমান সবুজ বাদী হয়ে নাজমুল করিম চৌধুরী শারুনকে আসামী করে, আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় আদালত জানায়, নুসরাতের করা আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত স্থগিত থাকবে ভায়ের করা হত্যা মামলা।

১৮ আগস্ট পুলিশ রিপোর্টের ভিত্তিতে, শুনানী শেষে ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম আদালত বসুন্ধরার এমডি সায়েম সোবহান আনভীরকে অব্যাহতি দেয়। তবে, ৬ সেপ্টম্বর নুসরাত জাহান বাদী হয়ে ৮ জনের বিরুদ্ধে হত্যা ও ধর্ষণ মামলা দায়ের করে। এই বাস্তবতায়, মহানগর দায়রা জজ কোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর বলছেন, একই ভিকটিমকে নিয়ে একাধিক মামলা হলে, প্রথম মামলা খারিজের পর নিয়ম অনুযায়ী দ্বিতীয় মামলাটি তদন্ত শুরু হবে।

আ্ওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক, নজিবুল্লাহ হিরু বলছেন, দ্বিতীয় মামলা তদন্ত না করে তৃতীয় কোন মামলায় যাওয়ার কোন সুযোগ নেই।

একই ব্যক্তি নিয়ে বাদীর এই ভিন্ন ভিন্ন মামলা আদালতে টিকবে না বলেও মত দিয়েছেন আইনজীবীরা।


বিয়ে ছাড়াই আবারও মা হচ্ছেন কাইলি জেনার

বলিউড পরিচালক বিশাল ভরদ্বাজের প্রস্তাবে মিমের না!

দেশমাতা, আমাকে কি একটু নিরাপত্তা দিতে পারেন


মৃত মুনিয়ার বড় ভাই আশিকুর রহমান সবুজ তার মামলার আর্জিতে ‘আসামি নাজমুল করিম শারুন আমার কোমলমতি বোনকে অসৎ উদ্দেশ্যে ব্যবহার ও ভোগ করেছে। আমার অধুনা মৃতা বোন মুনিয়া যখনই এই ঘৃণ্য চক্রান্ত থেকে বের হয়ে ফেরত আসতে চেয়েছে তখনই শারুন আমার বোন মুনিয়ার ওপর চরম ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে।

 news24bd.tv/

পরবর্তী খবর

রাসেলের বাসায় র‌্যাবের অভিযান চলছে

অনলাইন ডেস্ক

রাসেলের বাসায় র‌্যাবের অভিযান চলছে

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. রাসেলের মোহাম্মদপুরের বাসায় অভিযান চালাচ্ছে র‌্যাব।

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুর থেকে রাসেলের মোহাম্মদপুরের নিলয় কমপ্রিহেনসিভ হোল্ডিংয়ের বাসায় অভিযান চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছে র‌্যাবের দায়িত্বশীল সূত্র।

বিস্তারিত আসছে...

আরও পড়ুন: 


স্ত্রী হত্যার অভিযোগ, স্বামী-শ্বশুর পলাতক

চীনে ১০ কি.মি. গভীরতার শক্তিশালী ভূমিকম্পের হানা

দুবলার চর থেকে খুলনা কাঁকড়া পরিবহনে বাধা নেই: হাইকোর্ট

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

স্ত্রী হত্যার অভিযোগ, স্বামী-শ্বশুর পলাতক

অনলাইন ডেস্ক

স্ত্রী হত্যার অভিযোগ, স্বামী-শ্বশুর পলাতক

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে উপজেলার রশিদপুর এলাকায় (১৫ সেপ্টেম্বর রাতে) স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনার পর থেকে স্বামী ও শ্বশুর পলাতক রয়েছে। এ বিষয়ে থানায় মেয়ের পরিবারের পক্ষ থেকে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

নিহত হলেন- গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর থানার রশিদপুর বড়চালা এলাকার মৃত শামীম হোসেনের মেয়ে সাদিয়া আক্তার মিম(২০) এবং একই এলাকার শাহ -আলম সরকারের ছেলে শিমুল সরকারের স্ত্রী।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, প্রায় ২বছর আগে সাদিয়া আক্তার মিমের সাথে শিমুলের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের কিছু দিন পর থেকে স্বামী বিভিন্ন সময় সাদিয়াকে যৌতুকের জন্য চাপ দিতো। এছাড়া স্বামী সাথে সাথে স্বামীর পরিবারও বিভিন্ন সময় যৌতুক দাবি করতেন এবং নানা রকমের অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতেন। এটা এক সময় জীবন নাশের হুমকিতেও পরিণত হয়। এবিষয় নিয়ে দুই পরিবার একাধিক বার বসেও কোনো সমাধান হয়নি। পরে যৌতুকের দাবিতে মাস খানেক আগে সাদিয়ার বাবার কাছে মোটরসাইকেল কেনার জন্য ৫০হাজার টাকা দাবি করে শিমুল ও তার পরিবার। নিহতের পরিবার টাকা দিতে রাজি না হওয়াতে ২দিন ধরে বেধর মারধর করে শিমুল সাদিয়াকে। এসময় কোনো খাবারও দেওয়া হয়নি সাদিয়াকে। এ বিষয় নিয়ে দুই পরিবার বুধবার সন্ধ্যায় মিমাংসা হলেও মনের আক্রোশ মেটাতে রাতে ওই নারীকে হত্যা করে ঘরের মেঝে মধ্যে ফেলে রেখে তার স্বামী ও স্বামীর পরিবার দাবি নিহতের পরিবারের। পরে কৌশল করে পালিয়ে যায় স্বামী ও শ্বশুর। তারা এখনো পলাতক রয়েছে। পরের দিন (১৬ সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয়দের খবরের ভিত্তিতে পুলিশ লাশ উদ্ধার করেন। পরে ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের লাশ উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

আরও পড়ুন: 


চীনে ১০ কি.মি. গভীরতার শক্তিশালী ভূমিকম্পের হানা

দুবলার চর থেকে খুলনা কাঁকড়া পরিবহনে বাধা নেই: হাইকোর্ট


নিহতের স্বজন আবু সাইদ জানান, সাদিয়াকে তার স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোক মাঝে মাঝে যৌতুকের জন্য চাপ দিয়ে আসছিল এবং মাঝে মাঝে মারধোর করতো স্বামী ও তার পরিবার। এর মাঝে মোটরসাইকেল কিনবে বলে ৫০হাজার টাকা দাবি করে। টাকা দিতে না পারায় মেয়েটিকে খুব মারধর করে। সকালে জানতে পারি সাদিয়া মারা গেছে। আমাদের সন্দেহ ওর স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোক ওকে হত্যা করেছে। তা না হলে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোক পলাতক কেন? আমরা অভিযোগ দিতে চাইছি। তবে পুলিশ বলছে ইউডি মামলা করার জন্য এতে নাকি ময়নাতদন্তের পর সব বেড়িয়ে আসবে।

কালিয়াকৈর থানার উপ-পরিদর্শক আমিনুল ইসলাম জানান, নিহতে পরিবার ইউডি মামলা করার প্রস্তুতি করছে। আমরা মামলা নিয়ে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব। তবে স্বামীর পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে সাদিয়া নাকি ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর জানা যাবে এটা হত্যা না আত্মহত্যা।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

দুবলার চর থেকে খুলনা কাঁকড়া পরিবহনে বাধা নেই: হাইকোর্ট

অনলাইন ডেস্ক

দুবলার চর থেকে খুলনা কাঁকড়া পরিবহনে বাধা নেই: হাইকোর্ট

দুবলার চর থেকে খুলনা পর্যন্ত সরকার ঘোষিত রুটে যান্ত্রিক নৌযানে কাঁকড়া পরিবহনে কোনো বাধা নেই: হাইকোর্ট

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

নাশকতার মামলায় নওগাঁর পৌর মেয়র সনিসহ বিএনপির ৩ নেতা কারাগারে

বাবুল আখতার রানা, নওগাঁ

নাশকতার মামলায় নওগাঁর পৌর মেয়র সনিসহ বিএনপির ৩ নেতা কারাগারে

নওগাঁয় সরকারি কাজে বাঁধা ও পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় পৃথক মামলায় পৌর মেয়র নাজমুল হক সনিসহ বিএনপির তিন নেতাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

আজ বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নওগাঁর চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে আসামিরা জামিনের আবেদন করলে বিচারক আশরাফুল ইসলাম জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

কারাগারে প্রেরণকৃতরা নেতারা হলেন - নওগাঁ পৌরসভার মেয়র নাজমুল হক সনি, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম ধলু, সাবেক পৌর বিএনপির সদস্য সচিব মিজানুর রহমান।

আরও পড়ুন


ওহরাহ হজ করতে গেলেন ৭ টাইগার ক্রিকেটার

‘কুইক রেন্টাল’ বিদ্যুৎকেন্দ্র আরও ৫ বছর চালাতে সংসদে বিল পাস

খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আইন আদালতের প্রতি সরকারের কোন হস্তক্ষেপ নেই: ওবায়দুল কাদের


উল্লেখ্য, সরকারি কাজে বাধা, পুলিশের ওপর হামলা ও সরকারি সম্পত্তিসহ জানমালের নিরাপত্তা বিঘ্নিত করায় সন্ত্রাস বিরোধী আইনে গত ৩১ মার্চ নওগাঁ সদর থানার এসআই আব্দুল মান্নান বাদী হয়ে এ মামলা করেন। পৃথক মামলায় ৫৭ জন করে একই ব্যক্তিসহ অজ্ঞাত আরও অনেকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

কার কাছে থাকবে দুই শিশু? সিদ্ধান্ত আজ

অনলাইন ডেস্ক

কার কাছে থাকবে দুই শিশু? সিদ্ধান্ত আজ

কার কাছে থাকবে দুই শিশু! এ বিষয়ে আজ বৃহস্পতিবার সিদ্ধান্ত দেবেন হাইকোর্ট।

গত ২১ ফেব্রুয়ারি দুই মেয়ে জেসমিন ও লাইলাকে নিয়ে দুবাই হয়ে বাংলাদেশে আসেন বাবা ইমরান শরীফ। পরে দুই মেয়েকে জিম্মায় চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেন দুই শিশুর মা জাপানি নাগরিক এরিকো। 

পরে গত ১৯ আগস্ট সাবেক স্বামীর জিম্মায় থাকা দুই শিশু সন্তানকে ৩১ আগস্ট হাজির করার নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে তাদের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিলেন আদালত।

এরপর দুই শিশুকে নির্যাতনের অভিযোগ এনে তাদের মা পৃথক মামলা করেন। গত ২২ আগস্ট শিশুদের উদ্ধার করে পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ সিআইডি। এরপর তাদের তেজগাঁওয়ের ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রাখা হয়েছিল।

আরও পড়ুন: 


আজকের রাশিফল, কী আছে ভাগ্যে জেনে নিন

ঢাকার যেসব এলাকায় মার্কেট-দোকানপাট বন্ধ থাকবে

আইপিএলের সেরা যে তিন রেকর্ড আজও কেউ ভাঙতে পারেননি

মমেক হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৪


এরপরে গত ৩১ আগস্ট সেখান থেকে দুই শিশুকে গুলশানস্থ বাসায় একসঙ্গে ১৫ দিন বসবাস করার নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ঢাকার সমাজ সেবা অধিদফতরের উপ-পরিচালক পদের একজনকে বিষয়টি তদারকির নির্দেশ দেন। পাশাপাশি ডিএমপি কমিশনারকে তাদের পরিবারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বলা হয়। 

news24bd.tv রিমু 

পরবর্তী খবর