হুইপ সামশুল ধ্বংস করেছেন পটিয়া আ.লীগের একতা

ডেস্ক রিপোর্ট

কোনো নোটিশ ছাড়া পটিয়ার ১৪টি ইউনিয়নের আওয়ামী লীগে কমিটি বিলুপ্ত করে কাছের মানুষদের জায়গা দিয়েছেন সামশুল হক। এতে করে পুরো উপজেলার রাজনীতির নিয়ন্ত্রণ এখন তার হাতে। পটিয়া আওয়ামী লীগ নেতাদের অভিযোগ, প্রকৃত আওয়ামী লীগারদের হটিয়ে বিএনপি-জামায়াত নেতাদের পূনর্বাসন করেছেন হুইপ। 

এটা অনেকটা সাম্রাজ্য চালানোর মতো। এখানে আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতাদের জায়গা কম। সবই দখলে হুইপ সামশুল হক চৌধুরীর। নিজের আখের গোছাতে গিয়ে তিনি ধ্বংস করেছেন পটিয়া আওয়ামী লীগের একতা। এখন তার লোকজনই বিভিন্ন ইউনিয়নের নতুন কমিটিতে সর্বেসর্বা।

পটিয়ায় মোটি ১৭টি ইউনিয়ন রয়েছে। এর মধ্যে ১৪টির কমিটি বিনা নোটিশে বিলুপ্ত করেন হুইপ সামশুল। নিজের পছন্দের লোক বসিয়ে তৃণমূলকে নেতৃত্ব শুণ্য করার পায়তারা  হুইপ সামশুল হকের এমন অভিযোগ স্থানীয় নেতাদের।


বিয়ে ছাড়াই আবারও মা হচ্ছেন কাইলি জেনার

বলিউড পরিচালক বিশাল ভরদ্বাজের প্রস্তাবে মিমের না!

দেশমাতা, আমাকে কি একটু নিরাপত্তা দিতে পারেন


 

পটিয়া আওয়ামী লীগের নেতাদের অভিযোগ আরো ভয়ঙ্কর। তারা বলছেন, ইউনিয়ন পর্যায়ে এখন প্রকৃত আওয়ামী লীগের পরিবর্তে, ঠাঁই হচ্ছে বিএনপি-জামায়াত ঘনিষ্ঠদের।

পটিয়ায় আওয়ামী লীগের স্থানীয় রাজনীতিকে বাঁচাতে উপজেলা কমিটি ও ইউনিয়ন কমিটি আবারো গঠন প্রয়োজন বলে মনে করেন রাজনীতি সচেতনরা।

 news24bd.tv/

পরবর্তী খবর

আন্দোলন এবং নির্বাচনের জন্য ‘কার্যকর নেতৃত্ব’ খুজঁছে বিএনপি

তৌহিদ শান্ত

আন্দোলন এবং নির্বাচনের জন্য ‘কার্যকর নেতৃত্ব’ খুজঁছে বিএনপি। ১ম দফার মতবিনিময় সভাতে বিষয়টি আলোচনায় আসে। সে লক্ষ্যে কাল থেকে শুরু হওয়া নির্বাহী কমিটির সদস্যদের সভাতেও এটি আলোচিত হতে পারে। নেতারা বলছেন, রাজনীতিতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতি এবং দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির প্রবাসে থাকা— ২০১৮’র নির্বাচনে প্রভাব রেখেছিল। 

মঙ্গল, বুধ এবং বৃহস্পতিবার ২য় দফার এই মত বিনিময় সভায় অংশ নেবেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্যরা। ২০১৮ সালের ৩ ফ্রেব্রুয়ারী রাজধানীর হোটেল লা মেরিডিয়ানে এই কমিটির সবশেষ বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

ঐ মাসে ৮ ফ্রেব্রুয়ারী কারাগারে যাওয়ার ৫ দিন আগে অনুষ্ঠিত ঐ বৈঠকের সভাপতিত্ব করেছিলেন খালেদা জিয়া। এবারের বৈঠকের সভাপতিত্ব করবেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

রও পড়ুন:

ধীর জীবন মানেই অলস জীবন নয়

একটি হটডগ আয়ু কমাতে পারে ৩৬ মিনিট পর্যন্ত!

ইভ্যালি ধরলেও সমস্যা, ছাড়লেও সমস্যা! কোথায় যাবেন ফারিয়া?

তৃতীয় স্বামীর কাছে শুধু বিচ্ছেদই নয়, খরচও চাইলেন শ্রাবন্তী


১ম দফার সভায় স্থায়ী কমিটি, ভাইস চেয়ারম্যান, উপদেষ্টামন্ডলী এবং সম্পাদকমন্ডলীর সদস্যরা করনীয় নিয়ে যা বলেছেন- নির্বাহী কমিটির সভায় মাঠ পর্যায়ে ঐ ইস্যুগুলো বাস্তবায়নের সম্ভাব্যতা কতটা- সেটি্ই আলোচনা হবে।

তবে গেলো সভায় একটি নতুন বিষয় তুলে ধরেছেন বিএনপির দুইজন ভাইস চেয়ারম্যান। আন্দোলন এবং নির্বাচনে অংশ নেয়া- এ দুটোর সফালতার পেছনে একজন প্রত্যক্ষ এবং কার্যাকর নেতা নির্নয়ের কথা বলেছেন তারা।

নির্বাহী কমিটির এই বৈঠকের পেশাজীবী, জেলা নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের পরেই মাঠের আন্দোলনের ঘোষণা আসতে পারে বলে জানা্ন নেতারা।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

মহামারি কমতেই সরব হচ্ছে রাজনীতি

শাহ আলী জয়

কমতে শুরু করেছে মহামারী করোনার সংক্রমণ। ভার্চুয়াল জগৎ থেকে বেরিয়ে দেশের রাজনীতিও মাঠ মুখী হতে শুরু করেছে । দলীয় কর্মকাণ্ড আরো গতিশীল করতে এরই মধ্যে তৎপরতা শুরু করেছে দেশের প্রধান দুই রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। দলীয় রাজনীতিকে আন্দোলনমুখী করার ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে বিএনপি। আর আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে দলকে আরো সু সংগঠিত করছে  আওয়ামী লীগ। 

বর্তমান নির্বাচন কমিশিনের মেয়াদ বাকী আমার পাঁচ মাস। নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন প্রকৃয়া শুরুর আগেই রাজনীতির মাঠ গরম করতে চায় বিএনপি। 

একই সঙ্গে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন এবং দলীয় চেয়ারপার্সনের মুক্তির দাবী আদায়ে রাজপথকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে দলটি। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের ধারাবাহিক রুদ্ধদ্বার বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। 

রাজ পথের আন্দোলনে দায়িত্ব পাওয়া নেতারা অনুপস্থিত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়ার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে দেড় দশক ক্ষমতার বাইরে থাকা দলটি।

তবে সরকার দল আওয়ামী লীগের ভাবনায় আগামী নির্বাচন। আর এ জন্য সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডকে আরো গতিশীল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। তৃণমূল পর্যন্ত দলকে ঢেলে সাজাতে মেয়াদউত্তীর্ণ সকল সাংগঠনিক ইউনিটের সম্মেলন দ্রুতই শেষ করবে দলটি।

রও পড়ুন:

ধীর জীবন মানেই অলস জীবন নয়

একটি হটডগ আয়ু কমাতে পারে ৩৬ মিনিট পর্যন্ত!

ইভ্যালি ধরলেও সমস্যা, ছাড়লেও সমস্যা! কোথায় যাবেন ফারিয়া?

তৃতীয় স্বামীর কাছে শুধু বিচ্ছেদই নয়, খরচও চাইলেন শ্রাবন্তী


দীর্ঘ সময় ক্ষমতায় থাকা দলটির তৃনমূলে কোথাও কোথাও কোন্দল তৈরি হয়েছে স্বীকার করে কেন্দ্রীয় নেতারা বলছেন, নির্বাচনের আগে এইসব বিরোধ মিটিয়ে ফেলা হবে অন্যতম প্রধান কাজ।

আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা বলছেন, মাঠপর্যায়ে সংগঠনকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোহ নেয়া হয় গত সম্মেলনের পরপরই। কিন্তু করোনা বাস্তবতায় এ উদ্যোগ কিছুটা বিলম্বিত হয়।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

নিরপেক্ষ ইসি বিএনপির মূল লক্ষ্য নয়: ইনু

অনলাইন ডেস্ক

নিরপেক্ষ ইসি বিএনপির মূল লক্ষ্য নয়: ইনু

জাসদ সভাপতি ও সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল ইনু বলেছেন, নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন (ইসি) বিএনপির মূল লক্ষ্য নয়। তাদের উদ্দেশ্য দুর্নীতিবাজ, তারেক-খালেদা জিয়া, যুদ্ধাপরাধী ও জামায়াতকে রক্ষা করা। 

আজ দুপুরে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় বহলবাড়িয়া ইউনিয়নের কেএনবি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নতুন একাডেমিক ভবনের উদ্বোধন শেষে এ কথা বলেন তিনি।

ইনু বলেন, নির্বাচনকে বিএনপি গণতন্ত্রের অংশ হিসেবে না দেখে, একটি অস্বাভাবিক পরিস্থিতি ও চক্রান্তের কৌশল হিসেবে ব্যবহার করছে।  

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনকে দেখার মাপকাঠির চশমাটা বিএনপির এখনো ঠিক না, তাই নির্বাচনকে তারা কোন চশমায় দেখবেন আগে সেটা মনস্থির করুক।  

আরও পড়ুন:


২০৪১ সালের মধ্যে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন লক্ষ্য ৬০ হাজার মেগাওয়াট

খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ল

দুর্নীতি ও মানি লন্ডারিং মামলায় ডিআইজি পার্থ গোপাল কারাগারে

নতুন লুকে পর্দায় ফিরছেন শুভ!


এ সময় জাসদ কেন্দীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলিম স্বপন, মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আব্দুর কাদের, মিরপুর উপজেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক আহাম্মদ আলীসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, জাসদের স্থানীয় নেতা-কর্মীরা  উপস্থিত ছিলেন।  

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

মির্জা ফখরুল হচ্ছেন খুনির অনুসারী : তথ্য প্রতিমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

মির্জা ফখরুল হচ্ছেন খুনির অনুসারী : তথ্য প্রতিমন্ত্রী

নির্বাচনী প্রেসক্রিপশন বিএনপি’র কাছ থেকে শিখতে হবে না জানিয়ে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা: মুরাদ হাসান বলেছেন,বাংলার জনগণ বিএনপি’র  প্রেসক্রিপশন শুনতে চায় না। বিএনপির কাছে নির্বাচন শিখতে হবে না। মির্জা ফখরুল হচ্ছেন খুনির অনুসারী। তিনি কি নির্বাচনী ফর্মুলা দিবেন।

তিনি আজ মন্ত্রণালয় তার অফিসকক্ষে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে গণমাধ্যমের সাথে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন। 

তিনি বলেন, জনগণ তাদের খুশিমত নির্বাচনে ভোট দিবেন। জনগণই সিদ্ধান্ত নিবেন কারা দেশ পরিচালনা করবে।  বঙ্গবন্ধুর সংবিধান অনুযায়ী বাংলাদেশে জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের স্বপ্ন দেখে লাভ নেই। সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচনকালীন সময়ে 

তথ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, তারা ভোটের দিন নাটক রচনায় পটু। আর পল্টনে বসে মিডিয়ার সামনে কান্নাকাটি, ভোট বর্জন করলেও এজেন্ট খুঁজে পায় না। এজেন্টরা যায় সিলেট, কক্সবাজার, থাইল্যান্ড ও মালেশিয়া  ঘুরতে। কেন ঘুরতে যায়, বুঝতে হবে। এই হচ্ছে বিএনপি। আর সব দোষ আওয়ামী লীগের, সবদোষ বঙ্গবন্ধুর কন্যার, এই ব্যবসা আর বাংলাদেশে হবে না।

রও পড়ুন:

ধীর জীবন মানেই অলস জীবন নয়

একটি হটডগ আয়ু কমাতে পারে ৩৬ মিনিট পর্যন্ত!

ইভ্যালি ধরলেও সমস্যা, ছাড়লেও সমস্যা! কোথায় যাবেন ফারিয়া?

তৃতীয় স্বামীর কাছে শুধু বিচ্ছেদই নয়, খরচও চাইলেন শ্রাবন্তী


 

ডা: মুরাদ বলেন, বিএনপি জানিয়েছে যে, আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে তারা কোন নির্বাচনে যাবে না। নির্বাচন কোন সরকারের অধীনে হয় না। নির্বাচন হয় নির্বাচন কমিশনের অধীনে। সব ক্ষমতা নির্বাচন কমিশনের হাতে চলে যায়। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সেই স্বপ্ন দেখে আর লাভ নাই। নির্বাচন কমিশনের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। মিথ্যা স্বপ্ন দেখে কোন লাভ হবে না।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

‘প্রধানমন্ত্রীর সঠিক নেতৃত্বের কারণে দেশে করোনা মহামারীতে রূপ নেয়নি’

অনলাইন ডেস্ক

‘প্রধানমন্ত্রীর সঠিক নেতৃত্বের কারণে দেশে করোনা মহামারীতে রূপ নেয়নি’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঠিক নেতৃত্ব ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার কারণে বাংলাদেশে করোনা, মহামারীতে রূপ নিতে পারেনি বলে মন্তব্য করেছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।  

প্রতিমন্ত্রী আজ দিনাজপুরের বেচাগঞ্জে সনকাই উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন উদ্বোধনের পর সুধী সমাবেশে  একথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে কিছু মানুষ আছে, যারা সূর্য অস্ত যাওয়ার আগেই বলে দেয় আজকে সূর্য উঠে নাই। ২০২০ সালের মার্চে দেশে যখন করোনা আসল, তখন বলা হলো বাংলাদেশে দুই কোটি মানুষ করোনায় মারা যাবে। মানে দুই কোটি মানুষ মারা যেতে পারলে মনে হয় সবাই খুশি। যারা বিরোধী রাজনীতি করে, তারা মনে করে দুই কোটি মানুষ মারা গেলে শেখ হাসিনা সরকারকে ফেলে দেয়া যাবে। শেখ হাসিনা সরকার আর থাকতে পারবেনা। ওদের কল্পনা বাস্তবায়ন হয় নাই। বাংলাদেশে সঠিক একজন নেতৃত্ব ছিল প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা। যারা এ ধরনের আশঙ্কা করেছিলো, তাদের সে আশঙ্কা সত্যি হয় নাই সঠিক নেতৃত্বের কারণে। আমাদের দেশ সঠিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে ।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, এই করোনার মধ্যেও আমরা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী পালন করেছি। বাংলাদেশ নিরাপদ ছিল বলেই প্রতিবেশী সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানগণ বাংলাদেশে এসেছেন। করেনার দেড় বছরে দেশের উন্নয়ন বন্ধ থাকে নাই। উন্নয়ন প্রকল্পের বিদেশি কারিগরী কর্মকর্তারা বাংলাদেশে আসছেন। আমাদের পদ্মাসেতুর কাজ একদিনের জন্যও বন্ধ হয়নি। হলি আর্টিজানে ১২ জন মানুষকে হত্যা করা হয়েছিল। তারপরও মেট্রোরেলের কাজ বন্ধ হয়নি। করোনার মধ্যেও বন্ধ হয় নাই। অলরেডি মেট্রোরেলের ট্রায়াল হয়ে গেছে। করোনার মধ্যে কর্ণফুলী টানেল বন্ধ হয় নাই, মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্র বন্দরের কাজ চলছে, আমাদের পায়রা, মোংলা এবং চট্টগ্রাম বন্দরে করোনার মধ্যেও কাজ চলমান আছে। একদিনের জন্যও আমাদের বন্দরগুলো বন্ধ হয় নাই।

রও পড়ুন:

ধীর জীবন মানেই অলস জীবন নয়

একটি হটডগ আয়ু কমাতে পারে ৩৬ মিনিট পর্যন্ত!

ইভ্যালি ধরলেও সমস্যা, ছাড়লেও সমস্যা! কোথায় যাবেন ফারিয়া?

তৃতীয় স্বামীর কাছে শুধু বিচ্ছেদই নয়, খরচও চাইলেন শ্রাবন্তী


 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ আজ নারী অগ্রগতিতে সারা বিশ্বে অনুকরণীয়। আমরা প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে এজন্য পুরস্কৃতও হয়েছি। পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের পর নারীদের অন্ধকারে ঠেলে দেয়া হয়েছিলো। ১৯৯৬ সালে ২১ বছর পর আওয়ামী লীগ সরকারের সময় নারী জাগরণের মাইলফলক সূচিত হয়। ইউনিয়ন পরিষদে আগে নারীদের অংশগ্রহণ ছিলোনা। শেখ হাসিনা বৃহত্তর ওয়ার্ডে নারী প্রতিনিধি নির্বাচনের ব্যবস্থা করেছিলেন। এটাই ছিল নারী অগ্রগতির ভিত্তি। নারী শিক্ষা, নারীদের উন্নয়ন ও অগ্রগতির একক কৃতিত্ব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর