দ্বিতীয়বার ডেঙ্গু হলে বেশি ভয়

অন্তরা বিশ্বাস

দ্বিতীয়বার ডেঙ্গু হলে বেশি ভয়

দ্বিতীয়বার ডেঙ্গু হলে বেশি ভয়াবহ আকার ধারণ করে বলে মনে করছেন চিকিৎসকরা। তবে একবার যে ধরণের এডিস মশার কামড়ে ডেঙ্গু হয় পরের বার সেই ধরণের মশার কামড়ে ডেঙ্গু হয় না বলে জানান তারা। এদিকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সময় ডেঙ্গুর বিষয়ে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ চিকিৎসকদের। 

ডেঙ্গু ভাইরাসের চার ধরনের স্ট্রেইন। ডেন-১, ডেন-২, ডেন-৩ ও ডেন-৪। ২০০২ সালের পর থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ডেন-১ ও ডেন-২ স্ট্রেইন দেখা যেত। কিন্তু ২০১৭ সালের পর থেকে ডেন-৩ এ বেশি মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে। অনেকেই দ্বিতীয় বার ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছেন। দ্বিতীয়বার আক্রান্তদের ভয়াবহতা বেশি হবার সম্ভাবনা থাকে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে তা নাও হতে পারে। 

ডেঙ্গু হলে কেউ কেউ শকে চলে যান। চামড়া ভেদ করে রক্ত চলে এসে চামড়ার ওপর কালো দাগ পড়া, কালো পায়খানা হওয়া, প্রস্রাবের সঙ্গে রক্ত ঝরাসহ বেশ বেশ কিছু সমস্যা ডেঙ্গু শকের উপসর্গ। ডেঙ্গু শক হলে শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়। লিভার ও হার্টের ক্রিয়া ক্ষমতা হ্রাস পায়। ডেঙ্গুকে কোনভাবেই হালকাভাবে নেয়া যাবে না বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।


বিয়ে ছাড়াই আবারও মা হচ্ছেন কাইলি জেনার

বলিউড পরিচালক বিশাল ভরদ্বাজের প্রস্তাবে মিমের না!

দেশমাতা, আমাকে কি একটু নিরাপত্তা দিতে পারেন


 

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে চলতি বছরের প্রথম ৬ মাসে ডেঙ্গুতে কোনো রোগীর মৃত্যু হয়নি। তবে জুলাই থেকে রোগী বাড়ায় গেল সোয়া দুই মাসেই ৫৩ জন মারা গেছেন ডেঙ্গুতে। এ মাসের প্রথম সাতদিনেই ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দুই হাজার তিনশ ছাড়িয়েছে। ২০২১ সালের অগাস্টে এই মৌসুমের সর্বাধিক রোগী হাসপাতালে ভর্তি হন। আগস্ট মাসে হাসপাতালে ভর্তি ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা সাড়ে সাত হাজার ছাড়ায়।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

যেসব খাবারে দ্রুত ক্লান্তি কাটবে

অনলাইন ডেস্ক

যেসব খাবারে দ্রুত ক্লান্তি কাটবে

পর্যাপ্ত বিশ্রামের পরও ক্লান্তি দূর হয় না শরীরে। কখনও আবার অতিরিক্ত কাজের চাপে মানসিকভাবেও ক্লান্তি অনুভব করেন কেউ কেউ। পুষ্টিবিদরা বলছেন, ডায়েটে কয়েকটি বিশেষ খাবার এই ধরনের সমস্যা থেকে মুক্তি দেবে। যে সকল খাবারে আয়রনের পরিমাণ প্রচুর, সেগুলো নিয়মিত খেলে ক্লান্তি কাটবে দ্রুত। যেমন-

১. ড্রাই ফ্রুটস - সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর আমন্ড এবং বিকেলে কাজু, কিশমিশ, পেস্তা, আখরোট রোজ খেলে শরীর ও মন দুইটাই চাঙ্গা থাকবে। 

২. সবুজ শাক, সবজি ও ফল - অ্যান্টি অক্সিডেন্ট এবং ভিটামিনে ভরপুর ফল, সবজি নিয়মিত খান। স্বাস্থ্যকর তো বটেই, এমনকি বহু শারীরিক জটিলতা কাটাতেও সাহায্য করবে এই ধরনের খাবার। 

৩. মাংস - শরীরের কারণে অনেকেরই রেড মিট খাওয়া বারণ। সেক্ষেত্রে সপ্তাহে চার থেকে পাঁচ দিন মুরগির মাংস খেতে পারেন। পুষ্টিতে ভরপুর যেমন, তেমনই এটি শরীরের কোনও ক্ষতি করে না। 

রও পড়ুন:

নারী ক্ষমতায়নে আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

বিচারের কাঠগড়ায় অং সান সুচি

ফ্রান্সের পাশে ইউরোপীয় ইউনিয়ন

৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ, আটক ৩


৪. মাছ - অনেকেই মাছের গন্ধ সহ্য করতে পারেন না। কিন্তু মাছের মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ আয়রন। তাই নিয়মিত খেলে শরীরের ক্লান্তি দূর হবে। 

৫. বীজ - পুষ্টিবিদদের পরামর্শ অনুযায়ী স্যালাড বা কোনও তরকারিতে ফ্ল্যাক্স সিড, কুমড়ার বীজ, সূর্যমুখীর বীজ মিশিয়ে খেতে পারেন। এটিও ভীষণ উপকারী। 

news24bd.tv রিমু 

পরবর্তী খবর

র‍্যাপিড পিসিআর ল্যাব স্থাপনের জায়গা পাওয়া যাচ্ছে না বিমান বন্দরে

রিশাদ হাসান

সংযুক্ত আরব আমিরাতগামী প্রবাসী শ্রমিকদের বিদেশ যেতে র‍্যাপিড পিসিআর ল্যাব স্থাপনের জায়গা পাওয়া যাচ্ছে না বিমান বন্দরে। এ নিয়ে সমন্বয়হীনতায় দুই মন্ত্রণালয়। প্রবাসী কল্যান মন্ত্রী বলছেন, বিমানবন্দরের পার্কিং এ ল্যাব তৈরি হতে সময় লাগবে বলে টার্মিনালের ভেতরে আরটিপিসিআর ল্যাব দিয়েই আপাতত করোনা পরীক্ষা। বিমান বন্দরে ল্যাবের জন্য জায়গা খুঁজে বের করা স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাজ নয় বলে জানিয়েছেন জাহিদ মালেক। 

মঙ্গলবার সকালে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে সংযুক্ত আরব আমিরাতগামী শ্রমিকদের করোনা পরীক্ষার ল্যাব স্থাপনের কার্যক্রম পরিদর্শনে আসেন প্রবাসী কল্যান মন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

সিভিল এভিয়েশনের নির্ধারিত পার্কিং লটে ল্যাব স্থাপন সময় সাপেক্ষ বলে পরে টার্মিনালের ভেতর জায়গা নির্ধারণ করেন দুই মন্ত্রী। প্রবাসী কল্যানমন্ত্রী জানান, র‍্যাপিড পিসিআর ল্যাব স্থাপন হওয়ার আগ পর্যন্ত কাজ চলবে টার্মিনালের অভ্যন্তরে আরটিপিসিআর ল্যাব দ্বারাই।


সিলেটে বাসার ছাদ থেকে আপন দুই বোনের মরদেহ উদ্ধার

ক্ষমতায় থাকছেন ট্রুডো, তবে গঠন করতে হবে সংখ্যালঘু সরকার

মিডিয়া ভুয়া খবর ছড়িয়েছে: বাপ্পী লাহিড়ি


 

পরিদর্শন শেষে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট টিবি হাসপাতালে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, বিমান বন্দরে ল্যাবের জন্য জায়গা খুঁজে দেয়া তার কাজ নয়।

এরই মধ্যে ল্যাব স্থাপনের জন্য অনুমোদন দেয়া হয়েছে ৭টি প্রতিষ্ঠানকে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ যে আরটিপিসিআর ল্যাব বসাবে তা অনুমোদন বিষয়ে যোগাযোগও করতে হবে সিভিল এভিয়েশনকে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

শরীরে প্রচুর শক্তি ও প্রোটিন জোগায় খেজুর

অনলাইন ডেস্ক

শরীরে প্রচুর শক্তি ও প্রোটিন জোগায় খেজুর

খেজুর প্রোটিনের একটি শক্তিশালী উৎস। নিয়মিত শরীরচর্চায় প্রতিদিনের খাবারে খেজুর রাখা একটি চমৎকার সিদ্ধান্ত হতে পারে। এছাড়া রুচি বাড়াতে খেজুর অনেক কার্যকরী একটি খাবার। 

পানিতে ভিজিয়ে প্রতিদিন সকালে খেজুর খেলে হজমের দ্রুত উন্নত হয়। এর উচ্চ ফাইবার কোষ্ঠকাঠিন্যে সমস্যার সমাধানও করে। খেজুর কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে এবং ওজন কমাতেও সহায়তা করবে।

খেজুরে থাকে ভিটামিন বি ১, বি ২, বি ৩, বি ৫, এ ১ এবং সি। এটি আপনাকে সুস্থ রাখার পাশাপশি আপনার শক্তির মাত্রায়ও একটি লক্ষণীয় পরিবর্তন আনবে। কারণ খেজুরে আছে গ্লুকোজ, সুক্রোজ এবং ফ্রুক্টোজের মতো প্রাকৃতিক শর্করা। সুতরাং প্রতিদিনের নাস্তার বিকল্প হিসেবেও রাখতে পারেন। কারণ দ্রুত শক্তি পেতে খেজুরের চেয়ে ভালো বিকল্প হয় না।

হাড় ভালো রাখার ক্ষেত্রে খেজুর বিস্ময়করভাবে কাজ করে। খেজুরে আছে সেলেনিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, তামা এবং ম্যাগনেসিয়াম যা আমাদের হাড়কে সুস্থ রাখতে এবং অস্টিওপরোসিসের মতো রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

রও পড়ুন:

ধীর জীবন মানেই অলস জীবন নয়

একটি হটডগ আয়ু কমাতে পারে ৩৬ মিনিট পর্যন্ত!

ইভা রহমান এখন ইভা 'আরমান'

তৃতীয় স্বামীর কাছে শুধু বিচ্ছেদই নয়, খরচও চাইলেন শ্রাবন্তী


এছাড়াও খেজুরে থাকা পটাশিয়াম আমাদের শরীরের জন্য ভীষণ উপকারী। বিশেষ করে স্নায়ুতন্ত্রকে শক্তিশালী করতে সাহায্য করে এই উপাদান। এতে অল্প সোডিয়ামও থাকে যা আপনার স্নায়ুতন্ত্রকে ঠিক রাখে। খেজুর পটাশিয়াম কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি নিয়ন্ত্রণে রাখে। 

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

নিয়ন্ত্রণে আসছে না ডেঙ্গু

মারুফা রহমান

দেশে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২৭৫ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। যার ভেতর ৬৪ জন ঢাকার বাইরে এবং বাকি ২১১ জনই ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন। এ নিয়ে চলতি বছরে দেশে ১৫ হাজার ৯৭৬ জনের ডেঙ্গু শনাক্ত হয়েছে। আর মারা গেছেন ৫৯ জন। সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। তবে আগামী একমাসের মধ্যে ডেঙ্গুর প্রকোপ কমার আশাবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে, এক হাজার ৭২ জন রোগী ভর্তি আছেন। তাদের মধ্যে ঢাকার ৪১টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ৮৫৭ জন ও দেশের অন্যান্য বিভাগগুলোতে ২১৫ জন রোগী ভর্তি আছেন।

আগামী এক মাসের মধ্যে ডেঙ্গুর প্রকোপ কমে আসার আশ্বাস দিয়ে, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেছেন,  দীর্ঘ সময় ছুটিতে মানুষ গ্রামের বাড়িতে থাকায় বাসাবাড়ি ও নির্মাণাধীন ভবনে পানি জমে এডিস মশার জন্ম হয়েছে।


বিয়ে ছাড়াই আবারও মা হচ্ছেন কাইলি জেনার

বলিউড পরিচালক বিশাল ভরদ্বাজের প্রস্তাবে মিমের না!

দেশমাতা, আমাকে কি একটু নিরাপত্তা দিতে পারেন


 

চিকিৎসকরা বলছেন, আক্রান্তের সঠিক তথ্য আরও অনেক হবে কারণ মানুষ সময় মত টেষ্ট করছে না।  মৃত্যু ঝুঁকি থেকে বাঁচতে জ্বর হলেই চিকিৎসকের কাছে যাওয়া এবং এডিস মশা নিধন করার কোন বিকলন্প নেই বলেও জানান এভারকেয়ার হাসপাতালের চিকিৎসক   ডা: আরিফ মাহমুদ।

এ বছর ১ জানুয়ারি থেকে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা সর্বমোট ১৫ হাজার ৯৭৬ জন। একই সময়ে তাদের মধ্য থেকে হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৪ হাজার ৮৪৬ জন রোগী। আর চলতি বছরে এ পর্যন্ত ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৫৯ জনের।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

যে বয়সের শিশুদের জন্য ফাইজারের ভ্যাকসিন নিরাপদ

অনলাইন ডেস্ক

যে বয়সের শিশুদের জন্য ফাইজারের ভ্যাকসিন নিরাপদ

৫-১১ বছর বয়সী শিশুদের জন্য করোনার টিকার নিরাপদ এবং এন্টিবডি তৈরিতে কার্যকরী। দুই থেকে তিনবার ট্রায়ালের পর এ কথা বলছে ফাইজার। সিএনএন এর খবরে এই তথ্য জানানো হয়।

এই প্রথম শিশুদের জন্য টিকা প্রয়োগের কোনো ফলাফল প্রকাশ্যে এনেছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো ডেটা প্রকাশ করা হয়নি। ফাইজার বলছে, দ্রুত সময়ের মধ্যে শিশুদের টিকা প্রয়োগে একটি পরিকল্পনা যুক্তরাষ্ট্রের ফুড এন্ড ড্রাগ প্রশাসনের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে। শিগগিরই তারা কাজ শুরু করবে। ফাইজারের পরিকল্পনা জমা দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে এফডিএ। এবং সংস্থাটি কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই শিশুদের টিকা প্রয়োগে ফাইজারের টিকা অনুমোদন দেওয়ার চিন্তা-ভাবনা করছে।

শিশুদের উপর টিকা ট্রায়ালের জন্য ৫ থেকে ১১ বছর বয়সী ২ হাজার ২৬৮ জন শিশুকে নির্বাচিত করা হয়। ২১ দিনের মাথায় এসব শিশুদের দুই ডোজ টিকা প্রয়োগ করা হয়। প্রতি ডোজে ১০ মাইক্রোগ্রাম থেকে ৩০ মাইক্রোগ্রাম ছিল। ১২ বছর বয়সী শিশুদের ৩০ মাইক্রোগ্রাম ডোজের টিকা প্রয়োগ করা হয়।

ফাইজার এক নিউজ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ৫ থেকে ১১ বছর বয়সী শিশুদের নিরাপত্তা, সহনশীলতা এবং টিস্যু বিবেচনায় ১০ মাইক্রোগ্রামের টিকাটি সাবধানতার সঙ্গে নির্বাচন করেছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর