কিশোরীকে চতুর্থ স্ত্রী বানাতে গিয়ে শ্রীঘরে চিকিৎসক
কিশোরীকে চতুর্থ স্ত্রী বানাতে গিয়ে শ্রীঘরে চিকিৎসক

কিশোরীকে চতুর্থ স্ত্রী বানাতে গিয়ে শ্রীঘরে চিকিৎসক

অনলাইন ডেস্ক

পেশায় চিকিৎসক ডা. আরিফুর রহমান (৪৫) এরই মধ্যে অবিবাহিত পরিচয়ে বিয়ে করেছেন তিনটি। একইভাবে ১৩ বছরের এক কিশোরীকে চতুর্থ বিয়ে করতে গিয়ে  ধরা পড়েছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে। তবে এক বিয়ের কথা আরেক স্ত্রীকে জানাননি তিনি।  

শুক্রবার রাতে ঢাকার দোহার উপজেলার সুতারপাড়া ইউনিয়নের ঘাড়মোড়া এলাকা থেবে তাকে আটক করে  পুলিশ।

দোহার থানার ওসি (তদন্ত) মাসুদুর রহমান গণমাধ্যমকে জানান, শুক্রবার রাতে একটি বাল্যবিবাহ হচ্ছে এমন সংবাদ পেয়ে পুলিশ সেখানে গিয়ে বর আরিফুর রহমানকে আটক করে। ঘটনাস্থলেই ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে আরিফুরকে ছয়মাসের কারাদণ্ড প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট এ এফ এম ফিরোজ মাহমুদ। এসময় কনের পিতাকেও ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। সাজাপ্রাপ্ত ডা. মো. আরিফুর রহমান বরিশাল সদর উপজেলার মো. সিয়ামের ছেলে।

আরও পড়ুন:


দুই মেয়েসহ মা নিখোঁজ উৎকন্ঠায় পরিবার

রশি দিয়ে বাধা প্রতিবন্ধী শহিদের বন্দী জীবন

বাগেরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় ক্রিকেটার রিদু নিহত

স্কুল খোলার পর যেভাবে চলবে প্রাথমিকের ক্লাস!


 

আরিফুর রহমানকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশকে জানায় সে পেশায় একজন চিকিৎসক। ২০০৬ সালে ঢাকার স্যার সলিমুল্লাহ মিটর্ফোড মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এমবিবিএস পাশ করেন তিনি। জিজ্ঞাসাবাদে বের হয়ে আসে ওই চিকিৎসকের আরও তিনি বিয়ের কথা। নিজের মুখে পুলিশের কাছে স্বীকারও করেন এরই মধ্যে বরিশালে দুইটি ও দোহারে একটি বিয়ে করেছেন আরিফুর। তবে এক বিয়ের কথা আরেক স্ত্রীকে জানাননি তিনি।  

তার দেয়া ঠিকানা অনুযায়ী খোঁজ নিয়ে বিয়ের বিষয়ে নিশ্চিত হন পুলিশ। আটকের খবর পেয়ে শনিবার দুপুরে দোহার থানায় আসেন আরিফুরের বরিশালের এক স্ত্রীর ভাই। শনিবার দুপুরে কারাগারে প্রেরণ করা হয় ওই চিকিৎসকে।

news24bd.tv/আলী

;