জামায়াতের সেক্রেটারিসহ পাঁচ নেতাকর্মী ফের রিমান্ডে

অনলাইন ডেস্ক

জামায়াতের সেক্রেটারিসহ পাঁচ নেতাকর্মী ফের রিমান্ডে

রাজধানীর ভাটারা থানায় করা সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলায় জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া গোলাম পরওয়ারসহ পাঁচ নেতাকর্মীর ফের দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। 

আজ ঢাকা মহানগর হাকিম মাসুদ উর রহমানের আদালত এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ডে যাওয়া অপর আসামিরা হলেন- জামায়াতের কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল রফিকুল ইসলাম খান, কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য ইজ্জত উল্লাহ, মোবারক হোসাইন ও জামায়াতের সুরা সদস্য ইয়াসিন আরাফাত।

আরও পড়ুন:


দুর্ভোগের শেষ নেই বাসাবো কদমতলার বাসিন্দাদের

ফ্লাইওভার থেকে বাইক নিয়ে ৪০ ফুট নীচে পড়ে যুবকের মৃত্যু

একসঙ্গে টিকা নিলেন যশ-নুসরাত

কারবালায় বোমা বিস্ফোরণে দুই পুলিশসহ আহত তিনজন


এদিন চার দিনের রিমান্ড শেষে আসামিদের আদালতে হাজির করা হয়। এরপর মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ফের পাঁচ জনের দশ দিন করে রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিদর্শক কাজী ওয়াজেদ আলী। আসামি পক্ষে আইনজীবীরা রিমান্ড আবেদন বাতিল ও জামিন চেয়ে আবেদন করেন। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষ জামিনের বিরোধিতা করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত তাদের প্রত্যেকের দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

১৭ বছরেও ল্যান্ড সার্ভে আপিল ট্রাইব্যুনাল না হওয়ায় হাইকোর্টের বিরক্তি

অনলাইন ডেস্ক

১৭ বছরেও ল্যান্ড সার্ভে আপিল ট্রাইব্যুনাল না হওয়ায় হাইকোর্টের বিরক্তি

জমি নিয়ে বিরোধের এক রিটের শুনানিতে হাইকোর্ট বলেছেন, ২০০৪ সালে আইন হয়েছে। আছে আদালতের রায় ও নির্দেশ। তা সত্ত্বেও ১৭ বছরেও আপিল ট্রাইব্যুনাল গঠন হলো না, যা আদালতের জন্য বিরক্তিকর।

শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষে নিয়োজিত ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেলকে উদ্দেশ করে গতকাল রোববার হাইকোর্ট এসব কথা বলেন। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে এই রিটের ওপর শুনানি হয়।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমারের উদ্দেশে আদালত আরও বলেন, ‘১৭ বছরেও আপিল ট্রাইব্যুনাল গঠন করতে পারেননি। ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিবের সঙ্গে কথা বলেন। কী পদক্ষেপ নিয়েছেন, জানান। ব্যবস্থা না নেওয়া হয়ে থাকলে প্রয়োজনে সচিবকে ডেকে আনা হবে।’

আরও পড়ুন:


প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহরে হামলার মামলার আসামি গ্রেপ্তার

কাল লাখ লাখ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বন্ধ হয়ে যাবে!

আত্মহত্যা ছাড়া আর কোনো পথ দেখছি না: শাকিল


এ সময় ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার বলেন, ২০১৩ সালে আপিল ট্রাইব্যুনাল গঠন করা হয়। বিচারক নিয়োগের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

তখন আদালত বলেন, ‘গ্রামারের কথা এই আদালতে বলবেন না।’

ডেমরার ডগার মৌজায় অবস্থিত সাড়ে চার কাটা জমি নিয়ে ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালের দুটি রায় ও সিদ্ধান্তের বৈধতা নিয়ে মো. আশরারুল আজিম ওই রিট করেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী নসীব কায়সার।

পরে আইনজীবী নসীব কায়সার  বলেন, ১৯৫০ সালের রাষ্ট্রীয় অধিগ্রহণ ও প্রজাস্বত্ব আইন ২০০৪ সালে সংশোধন করা হয়। সংশোধনীতে ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনাল ও আপিল ট্রাইব্যুনাল গঠনের কথা রয়েছে। সংশোধনীর পর ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনাল গঠন করা হলেও আপিল ট্রাইব্যুনাল এখনো গঠন করা হয়নি।

আইনজীবীরা বলছেন, ২০০৪ সালের সংশোধিত রাষ্ট্রীয় অধিগ্রহণ ও প্রজাস্বত্ব আইনের ২ ধারায় ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনাল ও ল্যান্ড সার্ভে আপিলের ট্রাইব্যুনাল গঠনের কথা বলা হয়েছে। আইন অনুযায়ী দেশে ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনাল গঠন করা হয়েছে।ট্রাইব্যুনালগুলোর নেতৃত্বে আছেন যুগ্ম জেলা জজ পর্যায়ের বিচারক। ল্যান্ড সার্ভে আপিল ট্রাইব্যুনাল না থাকায় ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালের রায়, ডিক্রি ও আদেশে সংক্ষুব্ধ বিচারপ্রার্থী উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হচ্ছেন।

২০১৯ সালের ২৫ জুলাই হাইকোর্ট এক রায়ে অনুলিপি পাওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে ল্যান্ড সার্ভে আপিল ট্রাইব্যুনাল গঠন করে আদালতকে অবহিত করতে ভূমিসচিবকে নির্দেশ দেন।

রায়ে বলা হয়, ২০০৪ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত, তথা দীর্ঘ ১৫ বছরে ভূমি মন্ত্রণালয় আপিল ট্রাইব্যুনাল প্রতিষ্ঠা করতে না পারায় লাখ লাখ মানুষ চরম ও সীমাহীন দুর্ভোগে নিমজ্জিত হয়েছে। সাধারণ জনগণ যাদের কারণে দীর্ঘ ১৫ বছর এই ভোগান্তি ভোগ করল, তাদের অবশ্যই জবাবদিহি করতে হবে। দাঁড়াতে হবে জনগণের কাঠগড়ায়।

news24bd.tv/কামরুল

পরবর্তী খবর

অনিবন্ধিত সুদের ব্যবসা বন্ধের নির্দেশ

অনলাইন ডেস্ক

অনিবন্ধিত সুদের ব্যবসা বন্ধের নির্দেশ

সারাদেশে অনিবন্ধিত সুদের ব্যবসা অবিলম্বে বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমান ও বিচারপতি জাকির হোসেনের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

অনিবন্ধিত সুদের প্রতিষ্ঠান তালিকা তৈরি করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশও দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আরও পড়ুন: 


প্রকাশ হলো এসএসসি ও এইচএসসির পরীক্ষার রুটিন

নিজের মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দিলেন বাইকার


আদেশ পাওয়ার পর ৪৫ দিনের মধ্যে কমিটি করে তালিকা করে তাৎক্ষণিক বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে শুনানী হবে আগামী ৩০ নভেম্বরে।

রিটকারী আইনজীবী বলেন, কোনো লাইসেন্স ছাড়া তারা সুদের ব্যবসা করতেন। এতে অনেক মানুষ প্রতারিত হচ্ছে, ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। শুনানীতে ইভ্যালির নামও উঠে এসেছে। এসব বিষয় তুলে হাইকোর্টে রিট করা হয়।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

শ্যালিকা অন্তঃসত্ত্বা খবর শুনে পালায় দুলাভাই, অবশেষে গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

শ্যালিকা অন্তঃসত্ত্বা খবর শুনে পালায় দুলাভাই, অবশেষে গ্রেপ্তার

নেত্রকোনার মদনে শ্যালিকাকে ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত দুলাভাইকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ইতিমধ্যে শ্যালিকা একটি সন্তানও প্রসব করেছে। অভিযুক্ত দুলাভাইয়ের নাম মানিক মিয়া (৩০)।

গ্রেপ্তারকে রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নেত্রকোনা আদালতে পাঠানো হয়েছে।

শনিবার রাতে নোয়াখালীর সোনামুড়ীর বগাদিয়া থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নোয়াখালী জেলার সোনামুড়ী উপজেলার বগাদিয়া গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে মানিকের সঙ্গে রং নাম্বারে প্রেমের সম্পর্ক হয় নেত্রকোনার মদন উপজেলার ভুক্তভোগী তরুণীর (১৯) বড় বোনের। দীর্ঘদিন আগে প্রেমের টানে মানিক মিয়া মদন উপজেলায় এসে ওই তরুণীর বড় বোনকে বিয়ে করে মদনেই সংসার জীবন শুরু করে। সংসার জীবনে ৭ বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে তাদের।

সম্প্রতি মানিক মিয়া তার শ্যালিকাকে ঘরে একা পেয়ে ধর্ষণ করে। পরে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে একাধিকবার ধর্ষণে এক পর্যায়ে ওই তরুণী (শ্যালিকা) অন্তঃসত্ত্বা হয়।

অন্তঃসত্ত্বার খবর জানতে পেরে মানিক মিয়া পালিয়ে নোয়াখালীতে যায়।

আরও পড়ুন:


হংকংয়ের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের মেয়েদের বড় জয়

তালেবান ক্ষমতায় আসায় বিএনপি-জামায়াত-হেফাজত উৎফুল্ল: কৃষিমন্ত্রী

সৌদি আরবে বাংলাদেশির মৃত্যু

দুই ডোজ টিকা নিয়েও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার করোনা শনাক্ত


এদিকে গত জুন মাসে ওই তরুণী (শ্যালিকা) একটি ছেলে সন্তান জন্ম দেয়।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী তরুণী নেত্রকোনা আদালতে তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

আদালতের নির্দেশে গত ২১ সেপ্টেম্বর মদন থানায় মামলা করা হয়। এরই প্রেক্ষিতে মদন থানার এসআই আব্দুল আজিজ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে শনিবার রাতে নোয়াখালীর সোনামুড়ী উপজেলার বগাদিয়া গ্রাম থেকে মানিক মিয়াকে গ্রেপ্তার করে মদন থানায় নিয়ে আসে।

মদন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফেরদৌস আলম বলেন, এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে মানিক মিয়াসহ তিনজনকে আসামি করে মামলা করেছে। প্রধান আসামি মানিক মিয়াকে গ্রেপ্তার করে রোববার বিকেলে নেত্রকোনা আদালতে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

‘পরকীয়া প্রেমিককে’ নিয়ে স্বামীকে হত্যা করে স্ত্রী

ফখরুল হাসান পলাশ, দিনাজপুর

‘পরকীয়া প্রেমিককে’ নিয়ে স্বামীকে হত্যা করে স্ত্রী

দিনাজপুরে স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রী ও তার কথিত প্রেমিকর যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ডের রায় দিয়েছেন আদালত।

একইসাথে তাদেরকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে আরও ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

রোববার বিকেলে দিনাজপুর সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আজিজ আহমদ ভুঞা এই রায় দেন।

দিনাজপুর আদালত পুলিশ পরিদর্শক মনিরুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আসামিরা হলেন- দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের মৃত মজিদ প্রামানিকের মেয়ে ফাহমিনা বেগম ৪৩) ও তার প্রেমিক একই উপজেলার নিয়ামতপুর নতুনবাজার এলাকার সুশিল রবিদাসের ছেলে মানিক রবিদাস ওরফে আর্ট মানিক (৪৫)।

আরও পড়ুন:


হংকংয়ের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের মেয়েদের বড় জয়

তালেবান ক্ষমতায় আসায় বিএনপি-জামায়াত-হেফাজত উৎফুল্ল: কৃষিমন্ত্রী

সৌদি আরবে বাংলাদেশির মৃত্যু

দুই ডোজ টিকা নিয়েও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার করোনা শনাক্ত


মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২০১৫ সালের ২৫ অক্টোবর পার্বতীপুর উপজেলা শহরের মোজাফফর হোসেন মহল্লার বাসিন্দা মুদী ব্যবসায়ী আবু ছালাম মোল্লার মরদেহ নিজ ঘরের ফ্যানে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় নিহতের বড় ভাই আবু হোসেন মোল্লা বাদী হয়ে পার্বতীপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত চলাকালে আসামি ফাহমিনা বেগম স্বেচ্ছায় জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

জবানবন্দিতে উল্লেখ করা হয়, তারা দুজনে (অভিযুক্ত দু’জন) মিলে লাইলনের রশি দিয়ে ফাঁস দিয়ে আবু ছালাম মোল্লাকে হত্যা করে। পরে মরদেহ ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে দেয়। মামলা দায়েরের পর পুলিশ নিহতের স্ত্রী ফাহমিনা বেগম ও মানিক রবি দাসের বিরুদ্ধে চার্জশীট দাখিল করে।

এই মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে ২১ জন স্বাক্ষী স্বাক্ষ্য প্রদান করেন।

এছাড়াও আসামি ফাহমিনা বেগম নিজেই সাফাই সাক্ষ্য দেন।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট রবিউল ইসলাম ও আসামীপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট হযরত আলী বেলাল।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

পাঠ্যবইয়ে ভুল, ব্যাখ্যা দিতে বোর্ডের চেয়ারম্যানকে হাইকোর্টে তলব

অনলাইন ডেস্ক

মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের পাঠ্যবইয়ে থাকা ভুলের ব্যাখ্যা দিতে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের চেয়ারম্যানকে তলব করেছেন হাইকোর্ট। আগামী ১০ নভেম্বর তাকে সশরীরে হাজির হতে বলা হয়েছে।

রোববার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। শুনানিতে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি ক্ষমতায় থাকার সময় পাঠ্য বইয়ে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে এত ভুল নিয়ে প্রশ্ন তোলেন হাইকোর্ট।

এ সময় আদালত বলেছেন, পাঠ্য বইয়ে এত ভুল থাকা দুর্ভাগ্যজনক। ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের এক শিক্ষার্থীর অভিভাবকের করা রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে আদালত রুলসহ এ আদেশ দিয়েছেন।

আরও পড়ুন:


বিমানবন্দরে শুরু আরটি-পিসিআর ল্যাবের কার্যক্রম

নির্মাণশৈলী ও রাতে নৈসর্গিক দৃশ্য দেখতে পায়রা সেতুতে পর্যটকদের ভিড়

কাল লাখ লাখ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বন্ধ হয়ে যাবে!

জাপার ফিরোজ রশীদের বিরুদ্ধে সম্পত্তি দখলের অভিযোগ, হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত


রুলে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের পাঠ্য বইতে থাকা ভুল সংশোধনে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর