দেশ ছাড়লেন আফগান নারী বক্সার

অনলাইন ডেস্ক

দেশ ছাড়লেন আফগান নারী বক্সার

আফগানিস্তানের মহিলা বক্সিংয়ের জাতীয় দলের সদস্য রেজাই। ১৬ বছর বয়স থেকে তিনি অনুশীলন শুরু করেন।

একজন লাইটওয়েট বক্সার। তাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছিল তালেবানরা।

শেষ পর্যন্ত বাঁচার জন্য নিজের দেশ আফগানিস্তান ছেড়েছেন তিনি।

লাইটওয়েট বক্সার সিমা রেজাই বলেন, তালেবানরা কাবুল দখলের পরও আমি কোচের কাছে অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছিলাম। কিন্তু এরপর স্থানীয় কিছু লোক তালেবানকে জানিয়ে দেয়, এই এলাকায় এক তরুণী থাকে, যার কোচ পুরুষ। এরপরই আমার কাছে একটি চিঠি পাঠানো হয়।

আরও পড়ুন: 


টঙ্গী রেল ক্রসিংয়ের পাশে যুবকের মরদেহ

সিলেট-৩ আসন থেকে নির্বাচিত হাবিবের শপথ গ্রহণ

সিরাজগঞ্জে ট্রাকচাপায় যুবক নিহত

আত্রাই নদীতে গোসলে নেমে স্বামী-স্ত্রী নিখোঁজ


চিটিতে তালেবান জানিয়ে দেয়, ‘যদি আমি অনুশীলন চালিয়ে যাই কিংবা আমেরিকায় গিয়ে বক্সিং করি তাহলে আমাকে মেরে ফেলা হবে।’

রেজাইয়ের বক্সিং এর বিষয়টি তার বাবা পছন্দ করতেন না। তবুও কোচের অধীনে অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছিলেন।

কিন্তু এবার তালেবানের হুমকি পাওয়ার পর দেশ ছেড়েছেন এই বক্সার। কাতারের উদ্দেশে যাত্রা করেছেন তিনি। তারপর শুরু হবে যুক্তরাষ্ট্রের ভিসার অপেক্ষা। ভিসা পেলেই উড়ে যাবেন আমেরিকা। তারপর সেখানেই পেশাদার বক্সিংয়ের কেরিয়ার শুরু করবেন।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

নিজের মৃত্যু নাটক সাজিয়ে শ্রীঘরে যুক্তরাষ্ট্র ফেরত যুবক!

অনলাইন ডেস্ক

নিজের মৃত্যু নাটক সাজিয়ে শ্রীঘরে যুক্তরাষ্ট্র ফেরত যুবক!

২০ বছরে পর নিজ দেশে ফিরেই সাপের কামড়ে নিজের মৃত্যু নাটক সাজান এক ব্যক্তি। নিজের মৃত্যুর খবর নিশ্চত করে  পরিবারের অন্য সদস্যদের মাধ্যমে বীমা কোম্পানি থেকে প্রায়  ৫০ লক্ষ মার্কিন ডলার দাবি করে। কিন্তু বীমা কোম্পানির তদন্তে বেরিয়ে আসে আসল ঘটনা। এই ঘটনায় পুলিশের কাছে গ্রেফতার হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ভারতের মহারাষ্ট্রের এক ব্যক্তি।

৫৪ বছর বয়সী সেই প্রতারকের নাম প্রভাবক ভিমাজি ওয়াঘচরে। ২০ বছর পর এ বছরের জানুয়ারিতে দেশে ফিরেছিলেন তিনি। ২২ এপ্রিল আহমেদনগরের রাজঘুর গ্রাম থেকে সেই প্রভাকরের মৃত্যুর খবর পায় পুলিশ। ময়নাতদন্তে সেই মৃত্যুর কারণ দেখানো হয়েছিল ‘সাপের কামড়’! হর্ষদ লাহামগে ও প্রবীণ নামে গ্রামের দুজন বাসিন্দা নিজেদেরকে প্রভাবকের ভাইপো দাবি করে লাশটি শনাক্ত করে।

পরে তারাই যখন কথিত চাচার হয়ে বীমা প্রতিষ্ঠানের কাছে অর্থ দাবি করে, তখন প্রতিষ্ঠানটি যোগাযোগ করে ভারতের স্থানীয় পুলিশ দপ্তরে।বীমা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা প্রভাকরের বাড়িতে আসলে তার সামনে ধরা পড়ে প্রভাকরের মৃত্যু যে একটা সাজানো নাটক সেটা।

তদন্তে জানা যায়, মারা যাওয়া ঐ ব্যক্তিটির নাম নবনাথ যশবন্ত অনপ, ঘটনাক্রমে যাকে খুঁজে পায় প্রভাবকের ঐ দুই সহযোগী। নাটক সাজাতে একজন উদ্ধারকারীর কাছ থেকে একটি গোখরা সাপও যোগাড় করেন হর্ষদ। বীমার টাকা পেতে সফল হলে হর্ষদ ও প্রবীণকে ৩৫ লাখ রুপি দেয়ারও অঙ্গীকার করেন প্রভাবকর।

এরপর স্থান-সময় ঠিক করে নবনাথ নামের ঐ মানসিকভাবে অসুস্থ এক লোকের পায়ে সাপের কামড় খাওয়ায় তারা। লাশ নিয়ে যাওয়া হয় প্রভাবকের বাড়িতে। সেখান থেকে অ্যাম্বুলেন্সে করে হাসপাতালে। এ ঘটনা প্রতিবেশিরা দেখে ফেললে তাদের জানানো হয়, কোভিডে মারা গেছে প্রবীণ। গড়বড়টা এখানেই হয়।

আরও পড়ুন:

চাপের মুখে বাংলাদেশ

ইংল্যান্ড ম্যাচের আগে টাইগার শিবিরে বড় দুটি দুঃসংবাদ

শাহরুখের সাথে জুটি থেকে সরে দাঁড়ালেন নায়িকা


 

এরপর যখন লাশের ভুয়া কাগজ বানিয়ে সেটিকে ‘নিজের লাশ’ বানান প্রভাবক ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা। আবেদন করেন বীমা প্রতিষ্ঠানের কাছে। কিন্তু বীমা প্রতিষ্ঠানের এজেন্ট ভারতে প্রভাকরের গ্রামে এসে দেখেন, না কেউ কোভিডে মরেছে, না কেউ সাপে কাটায়!

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

জনগণকে কম খাওয়ার নির্দেশ কিমের

অনলাইন ডেস্ক

জনগণকে কম খাওয়ার নির্দেশ কিমের

দেশের জনগণকে বর্তমান খাদ্য সংকটের মধ্যে কম খাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন উওর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন।

কিম খাদ্য সরবরাহের ঘাটতির জন্য একটি‌ ‍‘বিচ্যুতির সিরিজ’ কে দায়ী করে বলেন, মানুষের খাদ্য পরিস্থিতি এখন কঠিন হয়ে উঠছে কারণ কৃষি ক্ষেত্র তার শস্য উৎপাদন পরিকল্পনা পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে।

এই বছরের জুনে, কিম কর্মকর্তাদের কৃষি উৎপাদন বাড়ানোর উপায় খুঁজে বের করার আহ্বান জানিয়েছিলেন। 

আরও পড়ুন:

চাপের মুখে বাংলাদেশ

ইংল্যান্ড ম্যাচের আগে টাইগার শিবিরে বড় দুটি দুঃসংবাদ

শাহরুখের সাথে জুটি থেকে সরে দাঁড়ালেন নায়িকা


 

চীনের সাথে উত্তর কোরিয়ার সীমান্ত বন্ধ করার ফলে খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে, যা ২০২০ সালে কোভিড-১৯ সংক্রমণ রোধ করার জন্য আরোপ করা হয়েছিল। সীমান্ত বন্ধের ফলে উত্তরে কোরিয়ার অর্থনীতি আরও হ্রাস পেয়েছে, যার ফলে চীনের সাথে বাণিজ্য বন্ধ হয়ে গেছে। গত গ্রীষ্মে টাইফুন এবং বন্যা উত্তর কোরিয়ার ফসল নষ্ট করে পরিস্থিতি আরও খারাপ করে তুলেছে। চীনের সাথে সীমান্ত বন্ধের কারণে, উত্তর কোরিয়ার অর্থনীতি আঘাত পেয়েছে এবং এর ফলে খাদ্যের দাম বেড়েছে, যার ফলে এর ২৫ মিলিয়ন জনসংখ্যার মধ্যে মানুষের অনাহারে মৃত্যু হয়েছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

আঁটসাঁট পোশাকে বাবার কফিনের সামনে হাসিমুখে মডেল

অনলাইন ডেস্ক

আঁটসাঁট পোশাকে বাবার কফিনের সামনে হাসিমুখে মডেল

আপনজনের মৃত্যুতে মানুষ বিমর্ষ থাকবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বাবার কফিনের সামনে আঁটসাঁট পোশাকে হাসিমুখে ছবি তুলে  তোপের মুখে পড়েছেন এক ইনস্টাগ্রাম মডেল।

ব্যাপারটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনা হয়।

পরে বাধ্য হয়ে নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে দেন এই মডেল। বুধবার একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে এমন প্রতিবেদন প্রচার করা হয়।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার বাসিন্দা জেইন রিভেরার বাবা গত ১১ অক্টোবর মারা যান। বাবার শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে বাবার কফিনের সামনে আঁটসাঁট কালো রঙের ব্লেজার পরে হাসিমুখে পোজ দিয়ে ছবি তুলেছেন জেইন। এ সময় তার বাবাব কফিনের ডালাটি খোলা ছিল।

আরও পড়ুন:


নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন: ওসি-এসআইকে বরখাস্তের নির্দেশ

প্রেমিকাকে গলা কেটে ‌‘হত্যাকারী’ মনিরও মারা গেল

মাওলানা আজহারীর লন্ডন সফরের পক্ষে বিপক্ষে নানা তৎপরতা

প্রবাসীদের জন্য যে সুখবর দিল মালয়েশিয়া


 

এই ছবি নিজের ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করেন মডেল জেইন। এরপর জেইনের পোজ দেওয়া ছবির স্ক্রিনশট নিয়ে অনেকেই তা শেয়ার করেন।

জেইনের কাণ্ডে নেটিজেনরা তীব্র সমালোচনাও শুরু করেন।

এক সোশ্যাল মিডিয়া বিশেষজ্ঞ টুইটারে ওই পোস্টের স্ক্রিনশট শেয়ার করে লিখেছেন, এই ইনস্টাগ্রাম মডেলের বাবা মারা গেছেন। অথচ তিনি খোলা কফিনের সামনে হাসিমুখে ফটোশুট করেছেন।

আরেক নেটিজেন মন্তব্য করেছেন, দিন দিন মানুষ শিষ্টাচার বোধ ভুলে যাচ্ছেন। আরেকজন শেষকৃত্যের মতো অনুষ্ঠানে জেইনের আঁটসাঁট পোশাক পড়া নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করেছেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হওয়ার পর জেইন তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে দেন। 

পরে অবশ্য এনবিসি নিউজকে এভাবে ছবি তোলার পক্ষে সাফাই গেয়েছেন তিনি।

জেইনের মতে তার বাবা বেঁচে থাকতে তাকে এভাবে দেখে খুশি হতেন।

news24bd.tv/তৌহিদ

পরবর্তী খবর

চীনকে চোখ রাঙাচ্ছে ভারত

অনলাইন ডেস্ক

চীনের সঙ্গে সীমান্ত নিয়ে দ্বন্দ্বের মাঝেই অগ্নি-৫ ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষায় সাফল্য পেল ভারত। বুধবার পাঁচ হাজার কি.মি. পাল্লার সফল ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে দেশটি।

যা ৫ হাজার কিলোমিটার দূরবর্তী কোনো লক্ষবস্তুতে নির্ভুলভাবে আঘাত হানতে সক্ষম।

আরও পড়ুন:


নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন: ওসি-এসআইকে বরখাস্তের নির্দেশ

প্রেমিকাকে গলা কেটে ‌‘হত্যাকারী’ মনিরও মারা গেল

মাওলানা আজহারীর লন্ডন সফরের পক্ষে বিপক্ষে নানা তৎপরতা

প্রবাসীদের জন্য যে সুখবর দিল মালয়েশিয়া


হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, ভারতের উড়িষ্যা উপকূলের এপিজে আবদুল কালাম দ্বীপ থেকে সন্ধ্যা ৭টা ৫০ মিনিটে উৎক্ষেপণ করা হয় আন্তঃমহাদেশীয় এই ব্যালিস্টিক মিসাইলটি। তিনপর্যায়ের একটি কঠিন জ্বালানি ব্যাবহার করে এই ক্ষেপণাস্ত্র। যা আঘাত হানতে সক্ষম চীনের মূল ভূখণ্ডের লক্ষবস্তুতেও।

চীন ছাড়াও এশিয়ার বিভিন্ন দেশ এবং ইউরোপ ও আফ্রিকার কিছু অংশেও পৌঁছাতে সক্ষম অগ্নি-৫। এই সফল পরীক্ষাকে বেইজিংয়ের বিরুদ্ধে নয়াদিল্লির একটি শক্তিশালী বার্তা হিসেবে দেখা হচ্ছে।

news24bd.tv/তৌহিদ

পরবর্তী খবর

ইউটিউব দেখে সন্তানের জন্ম দিল কিশোরী!

অনলাইন ডেস্ক

ইউটিউব দেখে সন্তানের জন্ম দিল কিশোরী!

ঘরে বসে ইউটিউব দেখে সন্তানের জন্ম দিয়েছে ১৭ বছরের এক কিশোরী। কোনোভাবেই টের পায়নি ওই কিশোরীর বাড়ির লোকজন।

ভারতের কেরালায় এমন চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে।

কেরালের মলপ্পুরমে বাবা-মায়ের সঙ্গে থাকে ১৭ বছরের ওই কিশোরী। গত সপ্তাহে নিজের ঘর থেকে একেবারেই বেরোয়নি সে। জিজ্ঞেস করলে বলতো বিরক্ত কোরও না, স্কুলের অনলাইন ক্লাস চলছে। সন্দেহ হয়নি মেয়েটির বাবা ও দৃষ্টিহীন মায়ের। শেষ পর্যন্ত মেয়ের ঘর থেকে বাচ্চার কান্না শুনে দরজায় কড়া নাড়ে বাড়ির লোকজন। এমন খবর প্রকাশ করেছে আনন্দবাজার।

নিজেকে ঘরবন্দি করে প্রসব বেদনায় অস্থির ১৭ বছরের কিশোরী দেখতে থাকে কী ভাবে নিজে নিজেই সন্তানের জন্ম দেওয়া যায়। এ কাজে সে বেছে নেয় ভিডিও স্ট্রিমিং সাইট ইউটিউব-কে। অবশেষে ২৪ অক্টোবর ইউটিউবের ভিডিও দেখে শেখা পদ্ধতি অবলম্বন করেই সন্তানের জন্ম দেয় সে।

দ্রুত মা ও শিশুকে হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। বর্তমানে মা ও শিশু, দুজনেই সুস্থ আছে বলে জানা গেছে। হাসপাতাল থেকেই খবর পায় পুলিশ। তদন্ত করে পুলিশ ২১ বছরের এক যুবককে পকসো আইনে গ্রেপ্তার করেছে।  কিশোরীর প্রতিবেশীওই যুবকের সাথে অনেকদিন ধরেই প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে বলে জানা যায়। কিন্তু এই ঘটনার কথা পরিবারের কাছে চেপে যায় তারা।

আরও পড়ুন:

ডিভোর্স দেয়ায় স্ত্রীকে কুপিয়ে খুন, আত্মহত্যার চেষ্টা স্বামীর

মাকে পিটিয়ে হত্যা; ছেলের মৃত্যুদণ্ড

হিন্দু সম্প্রদায়ের মন্দিরে হামলা, বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ

পুলিশ জানায়, সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর কিভাবে নাড়ি কেটে শিশুকে মায়ের শরীরের থেকে আলাদা করতে হয়, কিশোরীকে তা ইউটিউব দেখে শেখার পরামর্শ দিয়েছিল যুবক। 

পুলিশ ইতিমধ্যে কিশোরীর গর্ভে সন্তানের জন্মদাতা যুবককে গ্রেফতার করেছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর