আজ ঢাকার যা যা বন্ধ ও খোলা

অনলাইন ডেস্ক

আজ ঢাকার যা যা বন্ধ ও খোলা

দিনের শুরুতেই মাথায় পরিকল্পনা থাকে কর্মব্যস্ত এই নগরে ছোটাছুটির গন্তব্যটা কোথায় কোথায় হবে। সেটাও অনেকটা নির্ধারিত নিজের ও পরিবারের কাজের ওপর। শপিংমল, পার্ক ও বিনোদন কেন্দ্র গুলোতেই থাকে সচরাচর সবার ঝোঁক। দিনের শুরুতেই পরিকল্পনা করে রেখেছেন এখানে যাবেন, সেখানে যাবেন। পরিকল্পনা মতই নির্দিষ্ট স্থানে ঠিকই গেলেন, কিন্তু গিয়ে দেখলেন তা বন্ধ। তখন মেজাজটা যে কত খারাপ হয় সেটা আর বলার ভাষা থাকে না। তাই জেনে নিন রাজধানীতে আজ মঙ্গলবার যে সব  এলাকা এবং মার্কেটগুলো বন্ধ থাকবে।

বন্ধ থাকবে যেসব মার্কেট
বসুন্ধরা সিটি, মোতালেব প্লাজা, ইস্টার্ন প্লাজা, সেজান পয়েন্ট, নিউ মার্কেট, চাঁদনী চক, চন্দ্রিমা মার্কেট, গাউছিয়া, ধানমন্ডি হকার্স, বদরুদ্দোজা মার্কেট, প্রিয়াঙ্গন শপিং সেন্টার, গাউসুল আজম মার্কেট, রাইফেলস স্কয়ার, অর্চাড পয়েন্ট, ক্যাপিটাল মার্কেট, ধানমন্ডি প্লাজা, মেট্রো শপিং মল, প্রিন্স প্লাজা, রাপা প্লাজা, আনাম র‍্যাংগস প্লাজা, কারওয়ান বাজার ডিআইটি মার্কেট, অর্চিড প্লাজা।

বন্ধ থাকবে যেসব এলাকার দোকানপাট
কাঁঠালবাগান, হাতিরপুল, মানিক মিয়া অ্যাভিনিউ, রাজাবাজার, মণিপুরিপাড়া, তেজকুনীপাড়া, ফার্মগেট, কারওয়ান বাজার, নীলক্ষেত, কাঁটাবন, এলিফ্যান্ট রোড, শুক্রাবাদ, সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, হাজারীবাগ, জিগাতলা, রায়েরবাজার, পিলখানা, লালমাটিয়া।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

পানি নিয়ে মারামারি, বৌভাত থেকে নববধূকে নিয়ে পালাল বর

অনলাইন ডেস্ক

পানি নিয়ে মারামারি, বৌভাত থেকে নববধূকে নিয়ে পালাল বর

বিয়ের পরে বৌভাত অনুষ্ঠানে পানি খাওয়া নিয়ে তর্ক-বিতর্কের জেরে মারামারি ঘটনা ঘটে। এতে কনেপক্ষের মা, ভাই, বোনসহ ৫ জন আহত হয়। এ সময় নববধূকে নিয়ে পালিয়ে যায় বর।  আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। মারধরে আহতরা হলেন- কনের মা নুর নাহার বেগম, বোন কমলা, ভাই নাজিম, ভাবি মুক্তা ও চাচাতো ভাই খলিল। 

রোববার দুপুরে ভোলার মনপুরা উপজেলার দক্ষিণ সাকুচিয়া ইউনিয়নের চরগোয়ালিয়া গ্রামের ৬নং ওয়ার্ডে জামাই আল-আমিনের বাড়িতে বৌভাতে মারামারির ঘটনা ঘটে।এ ই ঘটনায় আহতদের  সবার বাড়ি উপজেলার দক্ষিণ সাকুচিয়া ইউনিয়নের চরগোয়ালিয়া গ্রামে।

সোমবার এই ঘটনায় কণের বাবা আইয়ুব আলী মনপুরা থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।  পরে মনপুরা প্রেস ক্লাবে এসে ওই ঘটনায় অভিযোগ করছেন কনের মা, ভাই ও ভাবি।

কনের মা নুরনহার বেগম জানান, উপজেলার দক্ষিণ সাকুচিয়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা নুরনবীর ছেলে আল-আমিনের সঙ্গে বৃহস্পতিবার তার মেয়ে তানজিলা আক্তার মিমের বিবাহ হয়। বিয়ের দুইদিন পর গত রোববার জামাই বাড়িতে বৌভাত অনুষ্ঠানে যান তারা। সেখানে ঘটক রুবেল ১০ হাজার টাকা দাবি করে। পরে জামাই পক্ষের লোকজন জামাই ও মেয়ের জন্য জামা-কাপড় নিয়ে আসেনি কেন কথা বলতে শুরু করে।

আরও পড়ুন:


ইভ্যালিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের সর্বোচ্চ চেষ্টা করব: বিচারপতি মানিক

করোনা: দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু কমলেও বেড়েছে শনাক্ত

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

ডিএমপি কমিশনার ও র‍্যাব ডিজি’র পদোন্নতি


 

তিনি জানান, খাওয়ার টেবিলে পানি দিতে বললে তর্ক-বিতর্ক শুরু করে জামাইপক্ষের লোকজন। একপর্যায়ে ঘটক রুবেল ও ছিদ্দিকসহ আরও ৫-৭ জন মারধর শুরু করে। ঘটনার পর থেকে মেয়েকে নিয়ে জামাই আল-আমিন পালিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

দুটো হার হৃদয় ভেঙে চুরমার করেছে : মাশরাফি

অনলাইন ডেস্ক

দুটো হার হৃদয় ভেঙে চুরমার করেছে : মাশরাফি

কাল দুইটা হার দেখেছি, একটা বাংলাদেশ ক্রিকেট দল, যেটায় কষ্ট পেয়েছি। আরেকটি পুরো বাংলাদেশের, যা হৃদয় ভেঙে চুরমার করেছে। 

এ লাল সবুজ তো আমরা চাইনি। কতো কতো সপ্ন, কতো কষ্টার্জিত জীবন যুদ্ধ এক নিমিষেই শেষ। আল্লাহ আপনি আমাদের হেদায়েত দিন।’

এভাবে কথাগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক ও সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজা। আজ সোমবার নিজের ফেসবুক পেজে এক স্ট্যাটাসে এসব লিখেছেন তিনি।


আরও পড়ুন

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

শরীরের ইমিউনিটির উপর বিশ্বাসী অভিনেত্রী করোনায় আক্রান্ত

অনিয়ন্ত্রিত পতিতাবৃত্তি বন্ধ করতে চান স্পেনের প্রধানমন্ত্রী

অবরোধ তুলে নিলো ঢাবি শিক্ষার্থীরা


এই দুই হার লিখে মাশরাফি বুঝাতে চেয়েছেন গতকাল মরুর বুকে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল যখন স্কটল্যান্ডের কাছে হারে আর একই দিনে দেশের একাংশে রংপুরের পীরগঞ্জের হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষের বাড়ি-ঘরে আগুনের ঘটনা। একটি ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে অন্তত ২০টি বাড়ি-ঘর পুড়িয়ে দেওয়া হয়। এমন ঘটনায় পুরো বাংলাদেশের সাথে হতবাক মাশরাফিও।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত 

পরবর্তী খবর

চট্টগ্রামের চিড়িয়াখানায় বাঘের খাঁচায় আরো দুই শাবক| চিড়িয়াখানায় এখন এক ডজন বাঘ

অনলাইন ডেস্ক

চট্টগ্রামের চিড়িয়াখানায়  বাঘের খাঁচায় আরো দুই শাবক। মা জয়া নামে বাঘিনীর আদরেই বড় হচ্ছে  এসব শাবক। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ বলছে, চট্টগ্রামের চিড়িয়াখানায় এখন এক ডজন বাঘ।দর্শনার্থীরাও বাঘ দেখে খুশি।

বনের বাঘ এখন খাঁচায়, চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় একের পর এক জন্ম দেয় বাঘের শাবক। সম্প্রতি আরো দুই শাবক জন্ম দিয়েছে মা জয়া। ২০২০ সালের ১৪ নভেম্বর জয়া বাঘিনী জো বাইডেন নামে ছেলে বাঘ শাবকের জন্ম দেয় ।যা তার প্রথম সন্তান ছিল। জো বাইডেনের প্রতি বিমাতাসুলভ আচরণ করায় সেটিকে চিড়িয়াখানার তত্ত্বাবধানে লালন পালন করা হয়েছিল।তবে এবার দুই শাবকই মায়ের  আদরেই বড় হচ্ছে।

আরও পড়ুন:


ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইপিএল নিয়ে জুয়া, ৩ জনের সাজা

চট্টগ্রাম আদালত এলাকায় বোমা হামলা মামলার রায় আজ

টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেতে আদালতে ট্রাম্প

যুবলীগ নেতার সঙ্গে ভিডিও ফাঁস! মামলা তুলে নিতে নারীকে হুমকি


 

চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় কোন বাঘ না থাকায় ২০১৬ সালে আফ্রিকা থেকে রাজ-পরি নামে  দুই বাঘ আনা হলেও এখন  নতুন দুই শাবকসহ এই চিড়িয়াখানার বাঘের খাঁচায়  এক ডজন বাঘ।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

১১ বছর পর আদালতের রায়ে স্বপদে ফিরলেন অধ্যক্ষ তোফাজ্জল হোসেন

মোহাম্মদ আল-আমীন, গাজীপুর

১১ বছর পর আদালতের রায়ে স্বপদে ফিরলেন অধ্যক্ষ তোফাজ্জল হোসেন

নিন্ম আদালতে দায়ের করা মামলায় দীর্ঘ ১১ বছর পর পক্ষে রায় পাওয়ার মাধ্যমে অধ্যক্ষ পদ ফিরে পেলেন গাজীপুর জেলার শ্রীপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের (বর্তমানে শ্রীপুর মুক্তিযোদ্ধা রহমত আলী সরকারি কলেজ) শিক্ষক মো. তোফাজ্জল হোসেন আকন্দ।  

গত ৩০ সেপ্টেম্বর আদালত তার পক্ষে ওই রায় দেন। মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবি এ এ এম আমানুল্লাহ ফরিদ রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার বাদী মো. তোফাজ্জল হোসেন আকন্দের আইনজীবি এ এ এম আমানুল্লাহ ফরিদ মুঠোফোনে জানান, গাজীপুর আদালতে অধ্যক্ষ মো. তোফাজ্জল হোসেন আকন্দের দায়ের করা দেওয়ানী মোকাদ্দমা (নং ২৩০/২০১০) এর আইনী লড়াইয় শেষে প্রায় ১১ বছর পর গাজীপুরের ৫ম সিনিয়র জজ আদালত থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর স্বপদে বহাল মর্মে রায় পান।

মামলার বিবাদী পক্ষের আইনজীবি মো. এমদাদুল হক মাছুম বলেন, মামলার বাদী মো. তোফাজ্জল হোসেন আকন্দ অধ্যক্ষ থাকাকালীন ২০০৯ এর ২৮ মার্চ কলেজ থেকে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেছেন। পদত্যাগের ১৪ মাস পর ২০১০ সালের ৩ মে তার চাকুরী ফিরে পেতে গাজীপুর আদালতে মামলা দায়ের করেন।

রায়ের ব্যাপারে বিবাদী পক্ষের আইনজীবি আরো বলেন, যেহেতু মামলাটি সরকার বাদী সেহেতু নিন্ম আদালত রায় দিলেও আদালতের জিপি (সরকারি কৌঁসুলী) এর মতামত নেওয়ার প্রয়োজন। এসব কিছুর আগেই ওই রায়ের বিরুদ্ধে রোববার (১৭ অক্টোবর) গাজীপুর জেলা জজ আদালতে সরকার পক্ষ তথা কলেজ পক্ষ থেকে আপীল করা হয়েছে। আপিলের কপি শিক্ষা অধিদপ্তরসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে পাঠানো হয়েছে। আদালত পরবর্তী আদেশের জন্য তা আমলে নিয়েছেন।  

ওই রায়ের বিরুদ্ধে বিবাদী পক্ষ তথা কলেজের পক্ষ থেকে গাজীপুর জেলা জজ আদালতে একটি আপীল মোকদ্দমা দায়ের করা হয়েছে। ফলে উচ্চ আদালত আপীলের বিষয়টি নিশ্চিত না করা পর্যন্ত নিন্ম আদালতের রায়টি অকার্যকর থাকবে বলে জানিয়েছেন বিবাদীপক্ষের আইনজীবি এমদাদুল হক মাসুম।

শ্রীপুর মুক্তিযোদ্ধা রহমত আলী সরকারি কলেজের সভাপতি ও শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তরিকুল ইসলাম বলেন, রায়ের কপি এবং আপীলের কপি দুটোই আমার হাতে এসেছে। ওই শিক্ষকের যোগদানের বিষয়ে শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে কোনো অফিসিয়াল নির্দেশনা পাইনি। এ বিষয়ে আইন কী বলে তা যাচাই বাছাই করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন:


গাজীপুরে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে পার্লার কর্মীকে গণধর্ষণ

পরিকল্পিতভাবে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি পূজায় সহিংসতা সৃষ্টি করেছে: কাদের

ইন্দোনেশিয়ার বালিতে শক্তিশালী ভূমিকম্প, নিহত ৩

ঘোড়ার খামারে বিয়ে করছেন বিল গেটসের মেয়ে


এ ব্যাপারে তোফাজ্জল হোসেন আকন্দ বলেন, ২০০৫ সালে তিনি অধ্যক্ষ পদে নিয়োগ পান। ২০০৯ সালে কলেজের পরিচালনা পরিষদের এক সভা চলাকালে তাঁকে সন্ত্রাসী কায়দায় সাদা কাগজে স্বাক্ষর নিয়ে বের করে দেওয়া হয়। পরে তাঁরা রেজল্যুশন তৈরি করে নুরুন্নবী আকন্দকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দেন। একজন শিক্ষক হিসেবে এটা তাঁর কাছে ছিল চরম অপমান। এ অন্যায় তিনি মেনে নিতে পারেননি। চালিয়ে গেছেন আইনি লড়াই। 

অধ্যক্ষ তোফাজ্জল হোসেন আরও বলেন, বিধি অনুযায়ী বয়স হয়ে যাওয়ায় তার চাকরির মেয়াদ আর কয়েক মাস আছে। আদালতের আদেশে সত্যের জয় হয়েছে। বাকি কয়েক মাস তিনি সুষ্ঠুভাবে দায়িত্ব পালন করতে চান।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

মাছের সাথে এ কেমন শক্রতা!

নোয়াখালী প্রতিনিধি

মাছের সাথে এ কেমন শক্রতা!

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে রাতের আধারে পুকুরে বিষ ঢেলে প্রায় ২ লাখ টাকার মাছ নিধন করেছে দুর্বৃত্তরা। রোববার ভোরে উপজেলার চর আমান উল্যাহ ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামের জোবায়েরের মৎস্য খামারে এ ঘটনা ঘটে। 

চর আমান উল্যাহ ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য মো.গোফরান উদ্দিন ও স্থানীয়রা জানান, রোবার ভোর রাতের দিকে কে বা কারা পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে। এলাকাবাসী এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে অপরাধীকে চিহ্নিত করে উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানান।

মৎস্য খামারি মো.জোবায়ের হোসেন জামরুল বলেন, আমাদের পার্শ্ববর্তী মিয়া ডুবাইওয়ালার বাড়ির দরজায় একটি পুকুর ১০ বছরের জন্য লিজ নিয়েছি। এখানে বিভিন্ন প্রজাতের মাছ চাষ করেছি। পার্শ্ববর্তী বাড়ীর মো.দেলোয়ার হোসেন রুবেল, টিপু সুলতান, আনোয়ার হোসেন'সহ মুকবুল আহম্মদের সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ আমাদের পারিবারিক কলেহ রয়েছে। 

আরও পড়ুন


বঙ্গবন্ধু যেতেই গুলি বন্ধ করল বিডিআর

মানুষের সঙ্গে যেভাবে কথা বলতেন বিশ্বনবী

সূরা বাকারা: আয়াত ১২৮-১৩৩, আল্লাহর নির্দেশ ও হয়রত ইব্রাহিম (আ.)

কলকাতা প্রেস ক্লাবে ‘বঙ্গবন্ধু মিডিয়া সেন্টার’


 

গত কয়েকমাস পূর্বে বিদ্যুতের খুঁটি নিয়ে তাদের সাথে বাকবিতন্ডা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে হয়ত তারা বিষ ঢেলে নিধন করেছে। পুকুরের পাড়ে একটি বিষাক্ত সরঞ্জাম মিশানোর পলিথিন পাওয়া গেছে। 

চরজব্বর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.জিয়াউল হক জানান, লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত প্রদক্ষেপ নেওয়া হবে। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর