রাষ্ট্রে জনগণের মালিকানা কেড়ে নেওয়া হয়েছে: ফখরুল

অনলাইন ডেস্ক

রাষ্ট্রে জনগণের মালিকানা কেড়ে নেওয়া হয়েছে: ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমরা বর্তমানে এক ভয়াবহ দুর্দিন অতিক্রম করছি। এক কথায় রাষ্ট্রে জনগণের মালিকানা কেড়ে নেওয়া হয়েছে। 

তিনি বলেন, অবাধ, নিরপেক্ষ ভোটের মাধ্যমে স্বাধীনভাবে জনপ্রতিনিধি নির্বাচনের পথ রুদ্ধ করে দেওয়া হয়েছে। নির্বাচনী বিধি-ব্যবস্থা ধ্বংস করা হয়েছে।

‘আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবস’ উপলক্ষে মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব এসব কথা বলেন। 

বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, জাতিসংঘ কর্তৃক ২০০৭ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে এই দিবসটি পালিত হয়ে আসছে গণতন্ত্রের সারবত্তা ও অনুশীলনে সকলকে উদ্বুদ্ধ করতে।

আরও পড়ুন:


বন্দর কর্মচারীর মালিকানায় শত কোটি টাকার সম্পদ

আলোর পথে ফিরেছে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা

ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্রকে ঘিরে সরগরম পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি

৩ হাজার কনস্টেবল নিচ্ছে বাংলাদেশ পুলিশ


ফখরুল বলেন, এ কথা সত্য যে, বর্তমান সরকারের অধীনে কোন নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়। তাই নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন কমিশনের তত্ত্বাবধানে নির্বাচন আজ গণদাবিতে পরিণত হয়েছে। অনৈতিক শাসন ফ্যাঁসিবাদী কায়দায় দীর্ঘায়িত করতে যেয়ে সরকার দেশ, রাজনীতি ও গণতন্ত্রকে সংকটে ফেলে দিয়েছে।

তিনি বলেন, প্রকৃত গণতান্ত্রিক সমাজে ব্যক্তি মানুষের মর্যাদা সমুন্নত থাকে। গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থায় মানুষকে দাসে পরিণত করা যায় না। একমাত্র গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র সমাজেই কেবলমাত্র মানুষের অধিকার নিশ্চিত হয়।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ই-কমার্স উদ্যোক্তাদের জেলখানায় পাঠিয়ে লাভ নেই: বাণিজ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

ই-কমার্স উদ্যোক্তাদের জেলখানায় পাঠিয়ে লাভ নেই: বাণিজ্যমন্ত্রী

ই-কমার্স উদ্যোক্তাদের কাউকে জেলে পাঠিয়ে দিলে কোনো লাভ হবে না বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। এছাড়াও ই-কমার্সের সার্বিক বিষয়ে মন্ত্রণালয় ইতিবাচকভাবে চেষ্টা করছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

আজ বুধবার রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) সম্মেলন কক্ষে ‘সোর্সিং বাংলাদেশ ২০২১-ভার্চুয়াল সংস্করণ’ নামে সপ্তাহব্যাপী অনলাইন মেলার আয়োজন উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের তিনি একথা বলেন।

ই-কমার্স ইভ্যালি ও ই-অরেঞ্জের মালিকরা জেলখানায় থাকায় ভুক্তভোগী গ্রাহকদের কী হবে?- এমন প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ই-কমার্সের কারণে অনেক গ্রাহকের অর্থ নষ্ট হয়েছে। এখন অনেককে বলতে শোনা যাচ্ছে, যাদের প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়েছে তাদের যদি ব্যবসা করতে দিয়ে কঠিনভাবে অবজারবেশন করা হতো, তাহলে কিছুটা ক্ষতি কাভার হতে পারতো। এ ধরনের সাজেশন কতটা যৌক্তিক তা নিয়ে চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে।


আরও পড়ুন

কেন মন ভাঙালো তরুণদের ক্রাশ রাশমিকার!


বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা সার্বিক বিষয়গুলো অবজারভেশন করছি। আমরাসহ চার মন্ত্রণালয় (অর্থ, বাণিজ্য, আইন ও স্বরাষ্ট্র) বিষয়টি নিয়ে কথা আলোচনা করছি। তাদের অবস্থান নির্ণয় করা হচ্ছে, কোনো উন্নতি করা যায় কিনা সে বিষয়টি দেখা হচ্ছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত    

পরবর্তী খবর

প্রধানমন্ত্রীর এসডিজি অগ্রগতি পুরস্কার দেশের ইতিহাসে মাইলফলক: কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রধানমন্ত্রীর এসডিজি অগ্রগতি পুরস্কার দেশের ইতিহাসে মাইলফলক: কাদের

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এসডিজি অগ্রগতি পুরস্কার পাওয়ার ঘটনা বাংলাদেশের ইতিহাসে মাইলফলক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকালে মন্ত্রী তাঁর বাসভবনে ব্রিফিংকালে একথা বলেন।

এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যের (এমডিজি) নানা ক্ষেত্রে সফলতা অর্জনের পর টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে দ্রুত এগিয়ে চলার ক্ষেত্রে যুগান্তকারী সাফল্যের জন্য এই বিশ্ব স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। বাংলাদেশের ইতিহাসে এই অনন্য অর্জন মাইল ফলক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন সংক্রান্ত নবম বার্ষিক আন্তর্জাতিক সম্মেলনের পূর্ণ অধিবেশনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশিষ্ট উন্নয়ন অর্থনীতিবিদ জেফ্রিস্যাক্স -" জুয়েল ইনদি ক্রাউন অব দি ডে" হিসেবে অভিহিত করেন।

তিনি জানান, অর্থনীতিবিদ জেফ্রিস্যাক্স বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারি চলাকালে ও এসডিজি অর্জনে শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টার জন্য তাঁর নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেন। বিশ্ব পর্যায়ে বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠত্ব প্রতিষ্ঠার জন্য আওয়ামী লীগসহ দেশের সকল মানুষের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানান। জননেত্রী শেখ হাসিনার  দীর্ঘায়ু ও সুস্বাস্থ্য কামনা করেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বিএনপি নেতাদের বিভিন্ন বক্তব্যের জবাবে বলেন, দেশের মানুষ ভালো আছে বলেই মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীররা ভালো নেই। এ জন্যই বিএনপি মহাসচিব কাল্পনিক অভিযোগ করে বলছেন, দেশের মানুষ ভালো নেই। আসলে দেশের মানুষ করোনার অভিঘাত মোকাবিলা করে ভালো আছে বলেই বিএনপি নেতাদের কষ্ট হচ্ছে। 

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ক্ষমতার মোহে অন্ধ, মিথ্যাচার আর বিষোদগারকে যারা রোজনামচায় পরিণত করেছে, তারা মানুষের ভালো থাকা পছন্দ করবে না এটাই স্বাভাবিক। নেতিবাচক রাজনীতি মানসিকতার কারণে বিএনপিই নিজেদের ভালো থাকার পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

করোনার অভিঘাত মোকাবিলা করে জীবন এখন স্বাভাবিক ছন্দে ফিরে আসতে শুরু করেছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, অন্যদিকে বিএনপি গৃহকোণে বসে নসিহত করছে।তাদের এমন আচরণ একদিকে মানুষের এগিয়ে চলার উদ্যমকে ক্ষতিগ্রস্ত করে অপরদিকে নিজেদের হতাশাকে জাতির সামনে স্পষ্ট করছে।

আরও পড়ুন


চাকরি দেবে এসএমসি এন্টারপ্রাইজ

সাংবাদিকের ওপর হামলার প্রতিবাদে এসপির কার্যালয়ে অবস্থান ধর্মঘট

পার্বত্যাঞ্চলে চলছে জুম তোলার ধুম, ভাল ফলনের আশা

গোয়ায় গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় অভিনেত্রী ও তার প্রেমিকের মৃত্যু


সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরানোর ভাঙ্গা রেকর্ড জনগণ গত তেরো বছর শুনে আসছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন ঘরে বসে বিএনপি কৃষক, শ্রমিক আর সাংবাদিকদের জন্য মায়াকান্না দেখায়।

কৃষক নাকি উৎপাদিত পণ্যের মূল্য পায় না, বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন এদেশে কৃষি ও কৃষকের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু যা করেছেন সে ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

কৃষি বান্ধব সরকার হিসেবে শেখ হাসিনা উৎপাদন, পণ্যমূল্য,পন্যবাজারজাত করণ,উপকরণ সরবরাহ এবং ঋণ ও প্রণোদনা প্রদানের মাধ্যমে দেশে এক অনন্য উদাহরণ সৃষ্টি করেছেন বলেও জানান সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। 

বিএনপির শাসনামলে উৎপাদনের জন্য সার চেয়ে পায়নি কৃষকরা, বরং কৃষকদের বুকে গুলি চালিয়েছিলো বিএনপি এসব স্মরণ করে দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন কৃষকরা পায়নি প্রয়োজনীয় সাপোর্ট, ভর্তুকি, অথচ আজ বিএনপি নেতারা কৃষকদের জন্য মেকি দরদ দেখাচ্ছে।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

বিএনপিকে জামায়াত-জঙ্গিবাদ ছেড়ে রাজনীতির মাঠে আসার আহবান কৃষিমন্ত্রীর

অনলাইন ডেস্ক

বিএনপিকে জামায়াত-জঙ্গিবাদ ছেড়ে রাজনীতির মাঠে আসার আহবান কৃষিমন্ত্রীর

বিএনপিকে জামায়াতে ইসলামী ও জঙ্গিবাদ ছেড়ে রাজনৈতিক মাঠে আসার আহ্বান জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক কৃষিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, বিএনপি যদি জামায়াতে ইসলামৗ জঙ্গিবাদ ছেড়ে রাজনীতির মাঠে আসে তবে দেশের মানুষও তাদেরকে বিরোধী দল হিসেবে স্বাগত জানাবে।

আজ এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। 

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

আমাদের সামনে কঠিন সময় আসছে : শামীম ওসমান

অনলাইন ডেস্ক

আমাদের সামনে কঠিন সময় আসছে : শামীম ওসমান

দেশ নিয়ে খুব বেশি আন্তর্জাতিক চক্রান্ত  হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান।

শামীম ওসমান বলেন, আমাদের সামনে যে কঠিন সময় আসছে, সে সময়টাতে আবার আমাকে ফাইট দিতে হবে। আমি মনে করি ২০০১ সালের  বোমা হামলাতেই মরে গেছি। তাই মৃত্যুকে আমি আর ভয় পাই না, ভরসা একমাত্র আল্লাহর ওপর আর সত্যের পথেই হাঁটব।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টম্বর) ইলেক্ট্রনিকস সাংবাদিকদের নতুন সংগঠনের শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে গণমাধ্যমকর্মীদের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেন শামীম ওসমান। এ সময় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রবীণ সাংবাদিক এম এ সালাম।


সিলেটে বাসার ছাদ থেকে আপন দুই বোনের মরদেহ উদ্ধার

ক্ষমতায় থাকছেন ট্রুডো, তবে গঠন করতে হবে সংখ্যালঘু সরকার

মিডিয়া ভুয়া খবর ছড়িয়েছে: বাপ্পী লাহিড়ি


 

তিনি বলেন, সামনের সময়টা কঠিন। গ্লোবাল পলিটিকস বদলে গেছে। বাংলাদেশে একটা কঠিন সময় আসছে। আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলছি ইতিহাসে এর চেয়ে খারাপ সময় আসবে না। এ সময় জিতবেন না আপনারা। জিতবে শেখ হাসিনা।

শামীম ওসমান বলেন, আপনারা (গণমাধ্যমকর্মীরা) আমার পক্ষে বা বিপক্ষে থাকেন সেটা বড় কথা নয়। বড় কথা হলো এদেশ যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে, সেই উন্নয়নের অগ্রগতির পক্ষে থাকুন। কারণ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়া এদেশ আবারও মুখ থুবড়ে পড়বে। 

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া ইউনিয়ন ও পৌরসভা নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হয়েছে: কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া ইউনিয়ন ও পৌরসভা নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হয়েছে: কাদের

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, শেখ হাসিনার সরকার স্থানীয় সরকার নির্বাচনকে বরাবরই গুরুত্ব দিয়ে আসছে। গতকাল অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন এবং পৌরসভা নির্বাচন দু’একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইউনিয়ন এবং পৌরসভা নির্বাচনে জনগণের অংশগ্রহণ বেড়েছে যা ইতিবাচক।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকালে সচিবালয়ে মন্ত্রীর দপ্তরে ব্রিফিংকালে এসব কথা বলেন তিনি। 

ওবায়দুল কাদের বলেন, স্থানীয় সরকার নির্বাচন তৃণমূলে গণতন্ত্রের ভিত মজবুত করে, জবাবদিহিতার সুযোগ বাড়ায় এবং এর ফলে উন্নয়ন কার্যক্রম প্রান্তিক পর্যায়ে পৌঁছে যায়।

সংবিধান অনুযায়ী সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের নির্বাচন কমিশনকে সরকার সকল ধরনের সহযোগিতা করে আসছে দাবি করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আশা করি নির্বাচন কমিশন পরবর্তী ধাপের নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় আরো কার্যকর এবং কঠোর পদক্ষেপ নেবেন। বিএনপির কথা শুনলে মনে হয় দেশে একমাত্র তারাই গণতন্ত্রের ধারক, বাহক ও রক্ষক। তারাই গণতন্ত্রের সোল এজেন্ট।

বিএনপি নিজেদের দ্বারা গণতন্ত্র হত্যার অতীত ভুলে গেছে, ভুলে গেছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গণতন্ত্রের চলমান অগ্রযাত্রায় পদে পদে প্রতিবন্ধকতা তৈরির কথা উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, মুখে জনগণের অধিকার আর গণতন্ত্রের কথা বললেও নির্বাচনে অংশ না নেওয়া বিএনপির স্পষ্ট দ্বি-চারিতা।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, যে দলের মহাসচিব নির্বাচিত হয়ে সংসদে যান না। অথচ জনগণের অধিকারের কথা বলেন, এ থেকে বুঝা যায় তাদের কথা ও কাজে কোন মিল নেই। বিএনপি চর্চা করে দ্বৈত-নীতি এ কারণে তাদের প্রার্থীদের উপর ভোটারদের আস্থাহীনতা তৈরি হয়েছে। 

বিএনপি এসব বুঝতে পেরেই ভরাডুবি এড়াতে নির্বাচন থেকে দুরে সরে গেছে, যা প্রকারন্তরে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে বলে মনে করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি আরও বলেন, দলীয় শীর্ষ নেতাদের হঠকারিতা আর সরকারের বিরুদ্ধে অতিমাত্রায় কৌশল করতে গিয়ে বিএনপি এখন "আস্থাহীনতার ফাঁদে" পড়েছে, তাই তারা এ ফাঁদ থেকে বেরিয়ে আসতে পারছে না।

ওবায়দুল কাদের মনে করেন, এ ফাঁদ থেকে বেরিয়ে আসতে চাইলেও নেতিবাচক আর দূর-নিয়ন্ত্রিত রিমোট কন্ট্রোলের রাজনীতি সংকটের আরো গভীরে নিমজ্জিত করেছে বিএনপিকে।

আরও পড়ুন


ডা. জাফরুল্লাহর রিট আবেদন শুনতে অপারগতা হাইকোর্টের

প্রধানমন্ত্রীকে জাতিসংঘের এসডিজি অগ্রগতি পুরস্কার প্রদান

ঝিনাইদহে ইউনিয়নে কমিটি গঠন নিয়ে ক্ষুদ্ধ সাবেক যুবলীগ নেতাকর্মীরা

টিউমার আক্রান্ত শিশুর চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন মাইনুল হোসেন খান নিখিল


সাংবাদিক নেতাদের বিরুদ্ধে ঢালাওভাবে ব্যাংক হিসাব তলবের বিষয়টি সাংবাদিক মহলে যে ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে তা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও তথ্যমন্ত্রী কথা বলেছেন, এ বিষয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী আশা প্রকাশ করে বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফিরলে বিষয়টি দেখবেন। 

শেখ হাসিনা সরকার গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও তথ্যের অবাধ প্রবাহে বিশ্বসী উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, করোনাকালে কিংবা অন্যান্য সময়ে গণমাধ্যম এবং সংশ্লিষ্ট কর্মিদের সুখে-দুঃখে শেখ হাসিনা সবসময় পাশে ছিলেন ভবিষ্যতেও থাকবেন। 

বিএনপির শাসনামলে ছিলো গণমাধ্যমের জন্য অন্ধকার সময় উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, তখন অসংখ্য সাংবাদিক হত্যার শিকার হয়েছিলো। 

যাদের হাত সাংবাদিকদের রক্তে রঞ্জিত আজ তারা সাংবাদিকদের জন্য মায়াকান্না করছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।এ নিয়ে বিএনপির কুম্ভিরাশ্রু প্রদর্শন মাছের মায়ের পুত্র শোকের মতো উল্লেখ করেন ওবায়দুল কাদের।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর