মাদক কারবারির সাথে সম্পর্ক প্রমাণিত হলে কঠোর ব্যবস্থা: আইজিপি

অনলাইন ডেস্ক

মাদক কারবারির সাথে সম্পর্ক প্রমাণিত হলে কঠোর ব্যবস্থা: আইজিপি

‌‘নতুন নীতিমালায় পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ করা হচ্ছে। কনস্টেবল নিয়োগ অত্যন্ত দক্ষতার সাথে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে হবে। আমরা পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন দেশ এবং উন্নত অনেক দেশের নিয়োগ নীতিমালা পর্যালোচনা করে বাংলাদেশ পুলিশের উপযোগী কনস্টেবল নিয়োগ নীতিমালা প্রণয়ন করেছি। এর ফলে আমরা কনস্টেবল পদে মেধা ও শারীরিক দিক থেকে অধিকতর যোগ্যতা সম্পন্ন পুলিশ সদস্য নিয়োগে সক্ষম হব। অচিরেই পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর এবং সার্জেন্ট পদেও নতুন নীতিমালা অনুযায়ী লোক নিয়োগ করা হবে।’

আজ মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকালে তিন দিনব্যাপী অপরাধ পর্যালোচনা সভার শেষ দিনে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে সমাপনী বক্তৃতায় এসব কথা বলেন পুলিশের মহাপরিচালক (ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ) ড. বেনজীর আহমেদ।

পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের হল অব ইন্টেগ্রিটিতে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আইজিপি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুস্পষ্ট নির্দেশনায় আমরা দেশ ও জনগণের কল্যাণে দুর্নীতিমুক্ত পুলিশ বাহিনী গড়ে তুলতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। পুলিশের কোনো সদস্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাকে ছাড় দেওয়া হবে না।

তিনি বলেন, পুলিশের কোনো সদস্যের মাদকের সাথে কোনো সংশ্লেষ থাকতে পারবে না। কারো যদি মাদকের সাথে সংশ্লেষ থাকে তাকে বেরিয়ে আসতে হবে। কোনো পুলিশ সদস্যের মাদক গ্রহণ, মাদক কারবারি বা মাদক কারবারির সাথে সম্পর্ক রয়েছে প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের দৃঢ় প্রত্যয় পুনরায় ব্যক্ত করেন আইজিপি।

আরও পড়ুন: 


মোংলা বন্দরে চাল ও সার বোঝাই জাহাজের পণ্য খালাস বন্ধ

দুই শিশুকে ধর্ষণের দায়ে ৬০ বছর কারাদণ্ড

ঘাস সংগ্রহ করতে নাগর নদী পার হচ্ছিল মৃত দুই নারী

নীলফামারীতে বিমান কোস্টার সার্ভিস উদ্বোধন


তিনি বলেন, একজন পুলিশ সদস্য হিসেবে এমন কোনো কাজ করা যাবে না, যাতে পুলিশ বাহিনী ক্ষতিগ্রস্ত হয়, দেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়, দেশের জনগণের ক্ষতি হয়।

বাংলাদেশ পুলিশকে একটি সুশৃঙ্খল বাহিনী উল্লেখ করে আইজিপি বলেন, বাহিনীর শৃঙ্খলা এবং কল্যাণ এক বিষয় নয়। শৃঙ্খলাকে কল্যাণের সাথে মিলিয়ে ফেলা যাবে না। বাহিনীর শৃঙ্খলা রক্ষার বিষয়ে কোনো ধরনের আপোষ করা যাবে না। কোনো পুলিশ সদস্য শৃঙ্খলা ভঙ্গ করলে তার বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। পাশাপাশি তাদের কল্যাণ নিশ্চিত করতেও আমরা যথেষ্ট সচেষ্ট রয়েছি।

তিনি বলেন, জুনিয়রদের কাজকর্ম তদারক করতে হবে। তাদেরকে পুলিশ বাহিনীর একজন যোগ্য সদস্য হিসেবে গড়ে তোলার দায়িত্ব সিনিয়র সহকর্মীদের পালন করতে হবে।

জনগণের দোরগোড়ায় পুলিশি সেবা নিয়ে যাওয়ার একটি কার্যকর পদ্ধতি ‘বিট পুলিশিং’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিট পুলিশিংয়ের মাধ্যমে সামাজিক অনেক অপরাধ প্রতিরোধ করা যায়। বিট পুলিশিংয়ের কারণে বর্তমানে মামলা অর্ধেকে নেমে এসেছে। তিনি বিট পুলিশিংয়ের মাধ্যমে চুরি, ডাকাতিসহ অন্যান্য অপরাধ দমনে তৎপর হওয়ার জন্য মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন।

উদ্ভাবনী পুলিশিংয়ের ওপর জোর দিয়ে পুলিশ প্রধান বলেন, পুলিশিংয়ের ক্ষেত্রে উদ্ভাবনী কৌশল ব্যবহার করতে হবে। পুলিশে বেস্ট প্র্যাকটিসের চর্চা বাড়াতে হবে।

তিনি বলেন, আমরা যেখানেই কাজ করি না কেন, আমাদেরকে পদচিহ্ন রেখে যাওয়ার চেষ্টা করতে হবে। যাতে মানুষ আমাদেরকে স্মরণ করে, মনে রাখে।

তিনি সাধারণ মানুষের প্রতি আচরণ বদলানোর আহবান জানিয়ে বলেন, মানুষের প্রতি অমানবিক আচরণ করা থেকে বিরত থাকতে হবে। এজন্য প্রয়োজন দৃষ্টিভঙ্গি বদলানো। আর এটা এক্ষুণি করা যায়। এতে সময় এবং আর্থিক বিনিয়োগ কোনোটারই প্রয়োজন হয় না।

মামলা তদন্ত পুলিশের প্রধান দায়িত্ব উল্লেখ করে আইজিপি বলেন, মামলা তদন্তের মান আরও বাড়াতে হবে। তদন্তের প্রতি অত্যন্ত মনোযোগী হতে এবং তদারকি বাড়াতে তিনি মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন।

আইজিপি বলেন, সোশ্যাল মিডিয়া নিয়মিত মনিটর করতে হবে, যাতে কোনো সাধারণ নাগরিক সাইবার ক্রাইমের শিকার না হন। 

তিনি পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যদের সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের ক্ষেত্রে সরকারের ও পুলিশ বাহিনীর অনুশাসন মেনে চলার নির্দেশ দেন।

ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, অবৈধ অস্ত্রের ব্যবহার ও বৈধ অস্ত্রের অবৈধ ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। বর্তমানে দেশের বিভিন্ন স্থানে মেগা প্রজেক্ট বাস্তবায়িত হচ্ছে। এসব প্রজেক্টে অনেক বিদেশি নাগরিক কাজ করছেন। তাদের যথাযথ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

তিনি বলেন, আগামীতে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে হবে।

পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে আইজিপি বলেন, শুধু চাকরি করলে হবে না। চাকরিতে প্রাইড নিয়ে আসতে হবে। এজন্য মানসিকতা ও মনস্তাত্ত্বিক পরিবর্তন আনতে হবে।

তিনি বলেন, চাকরির প্রতি ভালোবাসা থাকতে হবে, তাহলেই আমরা এগিয়ে যাব।

তিনি সংগঠনকে বটবৃক্ষের সাথে তুলনা করে বলেন, সংগঠন যত বড় হবে, তত এর শ্রীবৃদ্ধি ঘটবে। দেশ ও দেশের জনগণ উন্নত সেবা পাবে। তিনি দেশের জন্য, দেশের সাধারণ জনগণের জন্য কাজ করতে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের প্রতি আহবান জানান।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

বঙ্গবন্ধু কৃষকের কল্যাণেই বাকশাল করেছিলেন: পরিকল্পনামন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

বঙ্গবন্ধু কৃষকের কল্যাণেই বাকশাল করেছিলেন: পরিকল্পনামন্ত্রী

বাকশাল সমর্থন করে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, নিন্দুকেরা বাকশাল নিয়ে অনেক কথা বলে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষকের কল্যাণেই বাকশাল গঠন করেছিলেন।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর শেরে বাংলা-নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে এক সেমিনারে সভাপতির বক্তব্যে এম এ মান্নান বলেন, বঙ্গবন্ধুর হাত ধরেই কৃষি ও কৃষকের উন্নয়নের ভিত তৈরি হয়েছে। তার উপরে বহুতল ভবন তুলছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফার্মগেটের বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের জায়গায় হোটেল নির্মাণের কথা ছিল। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর কারণেই বিএআরসি ভাঙা সম্ভব হয়নি। তিনি সবসময় কৃষক দরদি ছিলেন। তাদের কল্যাণেই বঙ্গবন্ধু বাকশাল গঠন করেছিলেন।

তিনি বলেন, দুধ থেকে আরও ২৮ থেকে ২৯ ধরনের পণ্য তৈরি করা যায়, সেদিকে নজর দেওয়া হচ্ছে। মাছ দিয়ে ও বিভিন্ন ধরনের খাদ্য পণ্য উৎপাদন করা যেতে পারে। বাড়তি শাকসবজি এবং অপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন পণ্য যেমন সামুদ্রিক শৈবাল এগুলো বাইরে রফতানি হচ্ছে।

আরও পড়ুন:


পাঁচ বিভাগে বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টির আশঙ্কা

এই হচ্ছে বিএনপি, আর সব দোষ আওয়ামী লীগের?

রাজপথে নামার আহ্বান মোশাররফ-মান্নার

বাগেরহাটে ৩ ঘণ্টা পর প্লাইউড ফ্যাক্টরির আগুন নিয়ন্ত্রণে


news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

দেশের অর্থনীতি করোনাকালেও শক্তিশালী: খাদ্যমন্ত্রী

বাবুল আখতার রানা, নওগাঁ

দেশের অর্থনীতি করোনাকালেও শক্তিশালী: খাদ্যমন্ত্রী

বাংলাদেশের অর্থনীতি করোনাকালেও শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে। দেশের মাথাপিছু আয় বেড়ে এখন ২ হাজার ২২৭ ডলার। শ্রীলংকাকে ঋণ দেওয়া আমাদের অর্থনৈতিক সামর্থের প্রমাণ বহণ করে বলে মন্তব্য করেছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি।

বুধবার নওগাঁর পোরশা উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় উপকারভোগীদের মাঝে প্রণোদনা সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন তিনি।

সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল এখন সর্বত্র দৃশ্যমান। ডিজিটাল বাংলাদেশকে আরো জোরদারকরণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ল্যাপটপ বিতরণের কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশুর শিক্ষার সূচনা হয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, শিশুরা যাতে ছোটবেলা থেকেই তথ্য প্রযুক্তির সাথে
পরিচিত এবং দক্ষ হয়ে উঠতে পারে সেটা নিশ্চিত করা এই কর্মসূচির উদ্দেশ্য।

তিনি বলেন, করোনাকালে দেশের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড কিছুটা ব্যাহত হয়েছে। করোনা সংক্রমণ কমে যাওয়ায় উন্নয়ন কর্মকাণ্ড আবার গতি পেয়েছে।

আরও পড়ুন:


পাঁচ বিভাগে বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টির আশঙ্কা

এই হচ্ছে বিএনপি, আর সব দোষ আওয়ামী লীগের?

রাজপথে নামার আহ্বান মোশাররফ-মান্নার

বাগেরহাটে ৩ ঘণ্টা পর প্লাইউড ফ্যাক্টরির আগুন নিয়ন্ত্রণে


নওগাঁ জেলার উন্নয়নে নওগাঁ জেলা উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, খুব শীঘ্রই এই প্রকল্পের কার্যক্রম শুরু হবে। এটা বাস্তবায়ন হলে নওগাঁ জেলার দৃশ্যমান পরিবর্তন হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ নেতৃত্বে উন্নয়নের রোল মডেল বাংলাদেশ উল্লেখ করে সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে ২০৩০ সালের মধ্যে জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে নিজেদের অগ্রগতির স্বীকৃতি হিসেবে বিশেষ সম্মাননা ‘এসডিজি প্রগ্রেস অ্যাওয়ার্ড’ অর্জন করেছে বাংলাদেশ।

মন্ত্রী বলেন, দেশের দরিদ্র মানুষের জন্য সামাজিক নিরাপত্তার আওতা বাড়ানো হয়েছে। বয়স্কভাতা, বিধবাভাতা এবং প্রতিবন্ধীভাতাসহ সবধরনের ভাতা ভোগীদের আর্থিক সহায়তার পরিমাণও বৃদ্ধি করা হয়েছে। অসহায় দরিদ্র আর কেউ এ সুরক্ষার বাইরে থাকবে না।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল হামিদ রেজা এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন- পোরশা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ মঞ্জুর মোর্শেদ চৌধুরী।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম, কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার সরকার এবং মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা
সুলতান মাহমুদ বক্তব্য রাখেন। এর আগে মন্ত্রী পোরশা উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে করোনাকালে অসহায় দরিদ্রদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন।

এ ছাড়াও উপজেলা পরিষদ ল্যাবরেটরি বিদ্যালয়ের শিক্ষা ভবন ও উপজেলা নির্বাহীকর্মকর্তার দ্বিতল বাসভবনের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। পরে তৃতীয় প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচি-৩ এর আওতায় বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ল্যাপটপ বিতরণ, কৃষকদের মাঝে পেয়াজ বীজ বিতরণ এবং ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় দরিদ্র ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের মাঝে ঢেউটিন বিতরণ করেন।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

করোনায় বাড়লো মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত

অনলাইন ডেস্ক

করোনায় বাড়লো মৃত্যু, কমেছে শনাক্ত

গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

আজ বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।


আরও পড়ুন

ইভার গান গাওয়া নিয়ে কী চান নতুন স্বামী?

ই-কমার্স উদ্যোক্তাদের জেলখানায় পাঠিয়ে লাভ নেই: বাণিজ্যমন্ত্রী

কেন মন ভাঙালো তরুণদের ক্রাশ রাশমিকার!


গতকাল মঙ্গলবার সারাদেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৬ জন এবং ও মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ১৫৬২ জন।

বিস্তারিত আসছে . . .

news24bd.tv/এমি-জান্নাত    

পরবর্তী খবর

ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা

অনলাইন ডেস্ক

ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা

আগামী মাস থেকে ২২ দিনের জন্য ইলিশ আহরণ ও সংরক্ষণে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে যাচ্ছে সরকার। ইলিশের উৎপাদন বাড়াতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আজ বুধবার মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. ইফতেখার হোসেন এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, চলতি বছর ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে আগামী ৪ অক্টোবর থেকে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত মোট ২২ দিন ইলিশ প্রজনন ক্ষেত্রে ইলিশসহ সব ধরনের মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ সময় দেশব্যাপী ইলিশ আহরণ, বিপণন, পরিবহন, ক্রয়-বিক্রয়, বিনিময় ও মজুত নিষিদ্ধ থাকবে।


আরও পড়ুন

ইভার গান গাওয়া নিয়ে কী চান নতুন স্বামী?

ই-কমার্স উদ্যোক্তাদের জেলখানায় পাঠিয়ে লাভ নেই: বাণিজ্যমন্ত্রী

কেন মন ভাঙালো তরুণদের ক্রাশ রাশমিকার!


প্রতি বছর আশ্বিন মাসের পূর্ণিমার আগে-পরে মিলিয়ে মোট ১৫ থেকে ১৭ দিন হচ্ছে ইলিশের ডিম ছাড়ার মৌসুম। এ সময় ডিম পাড়তে সাগর থেকে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ নদীতে ছুটে আসে। সেই বিবেচনায় নিয়ে প্রতিবছরের মতো এ বছরও মোট ২২ দিন ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ করেছে সরকার। এ সময় ইলিশকে ডিম ছাড়ার সুযোগ দিতেই সরকার দেশের সব নদ-নদীতে ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরা বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত    

পরবর্তী খবর

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর পণ্যপরিবহন মালিক-শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার

অনলাইন ডেস্ক

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর পণ্যপরিবহন মালিক-শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার

১৫ দফা দাবিতে কাভার্ডভ্যান-ট্রাক মালিক-শ্রমিকদের ডাকা কর্মবিরতি প্রত্যাহার করেছে বাংলাদেশ কাভার্ডভ্যান-ট্রাক-প্রাইমমুভার পণ্যপরিবহন মালিক অ্যাসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ ট্রাকচালক শ্রমিক ফেডারেশন। 

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পণ্যপরিবহন মালিক-শ্রমিকদের সঙ্গে  বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

একই সাথে বাংলাদেশ কাভার্ডভ্যান-ট্রাক-প্রাইম মুভার পণ্যপরিবহন মালিক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মুকবুল আহমদ ও বাংলাদেশ ট্রাকচালক শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি তালুকদার মো. মনির সাংবাদিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহারের কথা জানান।

আরও পড়ুন


প্রধানমন্ত্রীর এসডিজি অগ্রগতি পুরস্কার দেশের ইতিহাসে মাইলফলক: কাদের

চাকরি দেবে এসএমসি এন্টারপ্রাইজ

সাংবাদিকের ওপর হামলার প্রতিবাদে এসপির কার্যালয়ে অবস্থান ধর্মঘট

পার্বত্যাঞ্চলে চলছে জুম তোলার ধুম, ভাল ফলনের আশা


দুপুর ১২টার দিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে কাভার্ডভ্যান-ট্রাক-প্রাইম মুভার পণ্য পরিবহন মালিক-শ্রমিক অ্যাসোসিয়েশনের ১৮ জন নেতা অংশ নেন। বিকেল পৌনে ৩টায় বৈঠক শেষ হয়।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর)  ১৫ দফা দাবিতে সকাল ৬টা থেকে ৭২ ঘণ্টা ধর্মঘট শুরু করেন পণ্যবাহী পরিবহনের মালিক-শ্রমিকরা।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর