অবশেষে ফুঁ দিয়ে আগুন ধরানো সেই সাধুবাবা গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

অবশেষে ফুঁ দিয়ে আগুন ধরানো সেই সাধুবাবা গ্রেপ্তার

মানিকগঞ্জ শহরের আন্ধারমানিক এলাকায় একটি বাড়ি থেকে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও মোবাইল চুরির ঘটনায় প্রতারক সাধুবাবা ওরফে বাচ্চু প্রধানকে (৭৩) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। প্রতারক সাধুবাবা ওরফে বাচ্চু ওই বাড়ির সবাইকে প্রসাদ খাইয়ে অচেতন করে এসব চুরি করে। চাঁদপুর জেলার মতলব দক্ষিণ থানার নারায়ণপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মানিকগঞ্জ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ভাস্কর সাহা গণমাধ্যমকে জানান, সাধুবাবা ওরফে বাচ্চু প্রধান একজন পেশাদার প্রতারক। গত ৪ সেপ্টেম্বর শনিবার মানিকগঞ্জ শহরের আন্ধারমানিক এলাকায় পঙ্কজ কুমার মন্ডলের বাড়িতে গিয়ে নিজেকে বারদী থেকে আগত সন্ন্যাসী হিসেবে পরিচয় দিয়ে আশ্রয় চান।

তিনি আরও জানান, সরল বিশ্বাসে তারাও তাকে থাকতে দেয়। তারপর তার হাতে মাখানো স্যাকারিন মিশ্রিত মাটি খেতে দেয় তাদের। ফুঁ দিয়ে কাগজে আগুন ধরিয়ে ওই পরিবারের সকলকে চমকে দিয়ে তাদের আস্থা অর্জন করে। দুই রাত সেই বাড়িতে অবস্থান করে প্রতারক বাচ্চু। সুযোগ বুঝে সাধুবাবা ঘুমের ওষুধ মিশ্রিত প্রসাদ খাইয়ে ওই বাড়ির ছয় সদস্যকে অচেতন করে তাদের টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও মোবাইল ফোন নিয়ে চলে যায়।

আরও পড়ুন


বাজারে দাম কমছে স্বর্ণের

আজ নায়ক সালমান শাহ’র জন্মদিন, বেঁচে থাকলে বয়স হতো ৫০

রাজনীতি কারও চিরস্থায়ী জমিদারি নয়

সূরা বাকারা: আয়াত ৮০-৮৪, ইহুদীদের ধারণাকে আল্লাহর মিথ্যা ঘোষণা


ঘটনার পরদিন, প্রতিবেশীরা তাদের অচেতন অবস্থা দেখে স্থানীয় কাউন্সিলর আবু মোহাম্মদ নাহিদকে খবর দেয়। পরে পুলিশকে অবহিত করলে ঘটনাস্থলে পৌঁছে কাউন্সিলর ও প্রতিবেশীদের সহায়তায় মুমূর্ষু ব্যক্তিদের জেলা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। দুই-তিনদিন পর তাদের জ্ঞান ফিরলে সকলের অচেতন হয়ে থাকার প্রকৃত কারণ জানা যায়। এই ঘটনায় বাড়ির মালিক পঙ্কজ কুমার মন্ডল বাদী হয়ে মানিকগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এরপর, তথ্য ও প্রযুক্তির সহায়তায় অবস্থান নিশ্চিত হয়ে, প্রতারক সাধুবাবাকে চাঁদপুর জেলার মতলব দক্ষিণ থানার নারায়ণপুর এলাকা গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশের কাছে প্রাথমিকভাবে বাচ্চু প্রধান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে। তার হেফাজতে থাকা লুণ্ঠিত মোবাইল ফোন, নগদ অর্থ ও স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করা হয়েছে।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

১৫টি ট্রাক নিয়ে পাটুরিয়ায় উল্টে গেল ফেরি

অনলাইন ডেস্ক

১৫টি ট্রাক নিয়ে পাটুরিয়ায় উল্টে গেল ফেরি

মানিকগঞ্জের পাটুরিয়ায় ৫ নম্বর ঘাটে আমানত শাহ নামের একটি রো রো ফেরি উল্টে গেছে।

আজ সকাল পৌনে ১০টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

শিবালয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জেসমিন সুলতানা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ঘাট থেকে যানবাহন নিয়ে পাটুরিয়ার ৫ নম্বর ফেরিঘাটে এটি নোঙর করে ফেরিটি। এরপর ফেরি থেকে ২-৩ তিনটি যানবাহন নামার পরই ফেরিটি উল্টে যায়।


আরও পড়ুন: 

জ্যৈষ্ঠ আইনজীবী বাসেত মজুমদার আর নেই

ইংল্যান্ড ম্যাচের আগে টাইগার শিবিরে বড় দুটি দুঃসংবাদ

১০ মিনিটের সংঘর্ষে রণক্ষেত্র নয়াপল্টন


তিনি আরও বলেন, ফেরিতে ১৭ ট্রাক, মোটরসাইকেল ও কয়েকটি ছোট যান ছিল। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

সাম্প্রদায়িক হামলায় নোয়াখালীতে আরও ৮ জন গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

সাম্প্রদায়িক হামলায় নোয়াখালীতে আরও ৮ জন গ্রেপ্তার

নোয়াখালীর চৌমুহনীতে সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় আরও আটজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ নিয়ে মোট ২৬ মামলায় ২০১ জনকে গ্রেপ্তার করা হলো।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার শহীদুল ইসলাম জানান, সোমবার রাতে গ্রেপ্তার জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহসভাপতি ফয়সাল ইনাম কমল আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দেন। 


আরও পড়ুন: 

জ্যৈষ্ঠ আইনজীবী বাসেত মজুমদার আর নেই

ইংল্যান্ড ম্যাচের আগে টাইগার শিবিরে বড় দুটি দুঃসংবাদ


এসময়  ফয়সাল চৌমুহনীতে সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় উস্কানিদাতা হিসেবে বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহসভাপতি বরকত উল্লা বুলুসহ বিএনপি-জামায়াতের ১৫ নেতার সম্পৃক্ততার বিষয়ে তথ্য দেন। 

এদিকে চৌমুহনীতে মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুরের মামলায় তিন আসামির একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

হাসপাতালে অজ্ঞান করার ইনজেকশন দিতেই মারা গেলেন অন্তঃসত্ত্বা

অনলাইন ডেস্ক

হাসপাতালে অজ্ঞান করার ইনজেকশন দিতেই মারা গেলেন অন্তঃসত্ত্বা

নিলুফা ইয়াসমিন (২৫) নামে এক অন্তঃসত্ত্বা নারীর মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতাল ভাঙচুর ও ম্যানেজারকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে।  

তথ্যসূত্রে জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার রাতে সিরাজগঞ্জের পৌর এলাকার এম এ মতিন সড়কের মঈনুদ্দিন মেমোরিয়াল হাসপাতালে অপারেশনের আগে অজ্ঞান করার ইনজেকশন দিতেই ওই অন্তঃসত্ত্বার নারীর মৃত্যু হয়।  এ ঘটনায় তার স্বজনরা হাসপাতাল ভাঙচুর ও ম্যানেজারকে মারধর করেছে। ঘটনার পর থেকে হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও কর্মচারীরা পলাতক রয়েছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিরাজগঞ্জ সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাইফুল ইসলাম। 

মৃত নিলুফা ইয়াসমিন রংপুর জেলার গঙ্গাচড়া থানার চরখালি শেরপুর গ্রামের রুবেল হোসাইনের স্ত্রী ও তাড়াশ উপজেলার মাধাইনগর ইউনিয়নের উত্তর মথুরাপুর গ্রামের শামছুল আলমের মেয়ে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঈনুদ্দিন মেমোরিয়াল হাসপাতালে ওই রোগীর মৃত্যু হওয়ার পর পরই স্বজনেরা হাসপাতাল ভাঙচুর করে। এসময় হাসপাতালের পরিচালক ডা. আব্দুল আজিজ সরকারের ছোট ভাই আব্দুর রাজ্জাককে মারধর করা হয়।

আরও পড়ুন:


যশোরে ৫ শিশুকে বলাৎকার! যুবক গ্রেফতার

বাড়িতে ঢুকে যুবলীগকর্মীকে কুপিয়ে হত্যা


মৃতের ভাই আল-আমিন হোসেনসহ পরিবারের লোকজন অভিযোগ করে বলেন, নিলুফাকে দুপুর ১টার দিকে হাসপাতালে আনা হয়। সন্ধ্যার দিকে তাকে সিজার করার জন্য অপারেশন টেবিলে নিয়ে যায়। এ সময় ডা. সজীব অজ্ঞান করার ইনজেকশন দেন। এর কিছুক্ষণ পরে অপারেশন করার আগেই মারা যান নিলুফা।

সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাইফুল ইসলাম জানান, সন্ধ্যা ৬টার দিকে নিলুফাকে অপারেশনের জন্য ওটিতে নেওয়া হয়। অপারেশন শুরুর আগেই তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় রোগীর স্বজনার হাসপাতালে ভাঙচুর শুরু করে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে।

news24bd.tv রিমু  

পরবর্তী খবর

যশোরে ৫ শিশুকে বলাৎকার! যুবক গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক

যশোরে ৫ শিশুকে বলাৎকার! যুবক গ্রেফতার

মোবাইলে পাবজি গেম খেলার প্রলোভন দেখিয়ে পাঁচ শিশুকে বলাৎকারের অভিযোগে নিজাম আকুঞ্জী (৩০) নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটে যশোরের অভয়নগরে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে উপজেলার নওয়াপাড়া গ্রাম থেকে অভিযুক্ত নিজামকে আটক করা হয়। 

আটক নিজাম আকুঞ্জী গুয়াখোলা গ্রামের মৃত মহির উদ্দিন আকুঞ্জীর ছেলে।  

এ ব্যাপারে বলাৎকারের শিকার এক শিশুর চাচা জানান, মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে তার ভাতিজা (১১) বাড়ির পাশের মসজিদ থেকে নামাজ পড়ে ফিরছিল। এ সময় নিজাম আকুঞ্জী তাকে পাবজি গেম খেলার কথা বলে ঘরের মধ্যে নিয়ে বলাৎকার করে। বিষয়টি জানাজানি করলে সমস্যা হবে বলে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাকে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। বাড়ি ফিরে ভাতিজা তার বাবা-মাকে বিষয়টি জানায়। 

ভাতিজার মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন আরো চার শিশুকে একই কৌশলে বলাৎকার করেছেন নিজাম। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ওই চার শিশুর সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারাও বিষয়টি স্বীকার করে। পরে বিষয়টি গ্রামবাসীর মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা নিজামকে ধরে পুলিশে খবর দেয়। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) রাতে অভয়নগর থানা পুলিশ নিজামকে আটক করে। 

আরও পড়ুন:


বাড়িতে ঢুকে যুবলীগকর্মীকে কুপিয়ে হত্যা

এদিকে অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম শামীম হাসান জানান, বলাৎকারের অভিযোগে নিজাম আকুঞ্জী নামে এক যুবককে আটক করা হয়েছে। বুধবার (২৭ অক্টোবর) তাকে যশোর আদালতে প্রেরণ করা হবে। এ ছাড়া ভিকটিম পাঁচ শিশুকেও যশোরে মেডিক্যালে চেকআপসহ ২২ ধারায় জবানবন্দি প্রদানের জন্য প্রেরণ করা হবে। মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। 

news24bd.tv রিমু  

পরবর্তী খবর

বাড়িতে ঢুকে যুবলীগকর্মীকে কুপিয়ে হত্যা

অনলাইন ডেস্ক

বাড়িতে ঢুকে যুবলীগকর্মীকে কুপিয়ে হত্যা

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে যুবলীগকর্মী পলাশ শেখকে (৩০) কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। গত সোমবার রাতে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে নড়াইলের লোহাগড়ার মল্লিকপুরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। 

নিহত পলাশ উপজেলার চর মল্লিকপুর গ্রামের খোকন শেখের ছেলে। এ ঘটনায় পুলিশ এখনো কাউকে আটক করতে পারেনি। এদিকে এ হত্যার প্রতিবাদে গতকাল মঙ্গলবার বিক্ষোভ করেছেন স্থানীয় যুবলীগের নেতাকর্মীরা। এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাত ৮টার দিকে কয়েকজন বন্ধু নিয়ে পলাশ শেখ মোটরসাইকেলযোগে চর মল্লিকপুর গ্রামে ইমরানের বাড়িতে দাওয়াত খেতে যান। ওই সময় ১০ থেকে ১৫ জন দুর্বৃত্ত ওই বাড়ি ঘিরে পলাশের ওপর হামলা চালায়। এ সময় পলাশ দৌড়ে রাস্তার পাশে ইমরানের মুদি দোকানের সামনে পড়ে গেলে দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাঁর শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসী পলাশকে উদ্ধার করে লোহাগড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। হত্যার পর নড়াইলের পুলিশ সুপার প্রবীর কুমার রায়সহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

স্থানীয় লোকজন জানায়, মল্লিকপুর ইউনিয়নের তফসিল এখনো ঘোষণা করা না হলেও নির্বাচন ঘিরে সাবেক চেয়ারম্যান সাহিদুর রহমান সমর্থিত লোকজনের সঙ্গে চর মল্লিকপুর গ্রামের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপ্রত্যাশী ফরিদ শেখ সমর্থিত লোকজনের দ্বন্দ্ব চলছিল। পলাশ শেখ চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ফরিদ শেখের পক্ষে এলাকায় কাজ করছিলেন। এর জের ধরে পলাশ খুন হয়েছেন বলে এলাকাবাসীর ধারণা।

পলাশ শেখের বাবা খোকন শেখ বলেন, “কয়েক দিন আগে সাইদুরের ভাই শরীফুল আমাকে ফোনে এই বলে হুমকি দিয়েছিল যে পলাশ যদি তাদের পক্ষে না যায়, তাহলে আমাকে চিরতরে বাবা ডাক শোনা বন্ধ করে দেবে।”

এদিকে পলাশ হত্যার প্রতিবাদ এবং হত্যাকারীদের আটক ও ফাঁসির দাবিতে লোহাগড়া যুবলীগের উদ্যোগে একটি বিক্ষোভ মিছিল থানা মোড় থেকে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

আরও পড়ুন:


জান্নাত লাভের দোয়া

কেমন হবে কিয়ামতের ময়দান

নড়াইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (লোহাগড়া সার্কেল) তানজিলা সিদ্দিকা বলেন, এটি রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড। এ ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে, এখনো মামলা করা হয়নি।

news24bd.tv রিমু  

 

পরবর্তী খবর