সুচ বিঁধিয়ে কন্য সন্তানকে খুন, শেষ রক্ষা হলো না সেই মায়ের

অনলাইন ডেস্ক

সুচ বিঁধিয়ে কন্য সন্তানকে খুন, শেষ রক্ষা হলো না সেই মায়ের

তিন বছরের শিশু কন্যটিই মায়ের বিবাহবহির্ভুক সম্পর্কের মাঝে বাঁধা হয়ে দাড়িয়েছিলো। কিন্তু জন্মদাত্রী সেই মাই তার শিশু কন্যটিকে পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে মিলে হত্যার পরিকল্পনা করে। তার পর তদের পরিকল্পনা অনুযায়ী সেই কন্যটিকে তারা সুচ বিঁধিয়ে তিলে তিলে হত্যা করে।চার বছর আগের সেই ঘটনায় নিহত শিশুর মা এবং তার প্রেমিককে ফাঁসির সাজা দিলো আদালত।

ভারতের পুরুলিয়ার সুচ-কাণ্ডে নিহত শিশুর মা এবং তার প্রেমিক দুজনকেই মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত। ষড়যন্ত্র করে সুচ ফুটিয়ে শিশুকন্যাকে হত্যার মামলায় গত শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) পুরুলিয়ার একটি দ্রুত বিচার আদালত দুজনকে দোষি সাব্যস্ত করে। সরকারি আইনজীবীর আবেদনের প্রেক্ষিতে মামলাটির রায় স্থগিত রাখার পর আজ (২১ সেপ্টেম্বর) শিশুটির মা মঙ্গলা গোস্বামী এবং তার প্রেমিক সনাতন গোস্বামী ঠাকুরকে আদালত ফাঁসির নির্দেশ দিয়েছে।

২০১৭ সালের ১১ জুলাই জ্বর ও সর্দি-কাশির উপসর্গ নিয়ে সাড়ে তিন বছরের মেয়েকে পুরুলিয়ার সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছিল মা মঙ্গলা। 


সিলেটে বাসার ছাদ থেকে আপন দুই বোনের মরদেহ উদ্ধার

ক্ষমতায় থাকছেন ট্রুডো, তবে গঠন করতে হবে সংখ্যালঘু সরকার

মিডিয়া ভুয়া খবর ছড়িয়েছে: বাপ্পী লাহিড়ি


সে সময়ে চিকিৎসকেরা জানিয়েছিলেন, সেই সময়েই শিশুটির শরীরে একাধিক ক্ষত এবং আঁচড়ের চিহ্ন ছিল। এমনকি শিশুটির নিম্নাঙ্গে রক্তের দাগও ছিল বলে জানিয়েছিলেন তারা। এইসব ক্ষতের কারণ জানতে মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করে এক্সরে করা হলে দেখা যায় তার শরীরের ভেতর বিঁধে রয়েছে সাতটি সূচ। কীভাবে সুচ বেঁধানো হলো, তা জানতে চাওয়া হলেও তার সদুত্তর মেলেনি মঙ্গলার কাছে। 

পরে সে দাবি করে, প্রাক্তন হোমগার্ড সনাতনের বাড়ির পরিচারিকা সে। তার ধারণা সনাতনই তার মেয়ের উপরে নির্যাতন চালিয়েছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

পাকিস্তানের জয় উদযাপন করে চাকরি হারালেন ভারতীয় শিক্ষিকা

অনলাইন ডেস্ক

পাকিস্তানের জয় উদযাপন করে চাকরি হারালেন ভারতীয় শিক্ষিকা

বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে পাকিস্তানের প্রথমবারের মতো জয়ে বাঁধভাঙা উল্লাসে ফেটেছে গোটা পাকিস্তান। ম্যাচে বিরাট কোহলিদের ১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে পরাজিত করেছে তারা। সেই জয়ে উল্লাসে সামিল হয়ে চাকরি হারালেন ভারতীয় এক শিক্ষিকা। তার নাম নাফিসা আতারি। তিনি রাজস্থানের উদয়পুরের নিরজা মোদি বিদ্যালয়ে শিশুদের পড়ান।   

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ শেষে ভারতীয় ওই শিক্ষিকা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ানের ব্যাটিংয়ের ছবি দেন। আর ক্যাপশনে লেখেন, ‘আমরাই জিতেছি।’ 

নাফিসার সেই স্ট্যাটাসে তার বিদ্যালয়ের এক ছাত্রের অভিভাবক মন্তব্যের ঘরের জিজ্ঞেস করেন, আপনি ভারতীয় হয়েও পাকিস্তানের সমর্থন করেন? 

নাফিসা জবাবে লেখেন, জি, আমি পাকিস্তান দলের সমর্থক। এর অল্প কিছুক্ষণের মধ্যেই নাফিসার স্ট্যাটাসের স্ক্রিনশট দ্রুত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় শুরু হলে নাফিসার স্কুল বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষেরও নজরে আসে । 

আরও পড়ুন:


যশোরে ৫ শিশুকে বলাৎকার! যুবক গ্রেফতার

বাড়িতে ঢুকে যুবলীগকর্মীকে কুপিয়ে হত্যা

পরদিন বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এক বিজ্ঞপ্তিতে নাফিসাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানিয়ে দেয়।

উল্লেখ্য, দুবাইয়ে ভারতের দেওয়া ১৫২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে কোনো উইকেট না হারিয়েই রেকর্ড জয় নিয়ে মাঠ ত্যাগ করে পাকিস্তান। দুর্দান্ত জয়ে মোহাম্মদ রিজওয়ান ৫৫ বলে ৭৯ ও অধিনায়ক বাবর আজম ৫২ বলে ৬৮ রানে অপরাজিত থাকেন।

news24bd.tv রিমু  

 

পরবর্তী খবর

প্রথমবারের চালু হলো নারী পরিচালিত একটি পুলিশ স্টেশন

অনলাইন ডেস্ক

প্রথমবারের চালু হলো নারী পরিচালিত একটি পুলিশ স্টেশন

পাকিস্তানের রাওয়ালকোটে প্রথমবারের মতো চালু হয়েছে নারী পরিচালিত একটি পুলিশ স্টেশন।

সোমবার পুলিশ স্টেশনটির উদ্বোধন করা হয়েছে।  অবিচারের প্রতিকার ও আইনি পরামর্শ পেতে নারীদের মধ্যে আস্থা তৈরিতে এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এমন খবর  প্রকাশ করেছে ডন।

আরও পড়ুন:

নিজের মেয়েকে হত্যা করতে গুগল সার্চ!

মা কালী সেজে জনগণকে তাক লাগালেন রিখিয়া

আরিয়ানের জামিন শুনানি আজ, টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়ার প্রস্তাব

পুলিশ স্টেশনটি উদ্বোধনের  পর পাকিস্তান পুলিশের মহাপরিদর্শক সোহেইল হাবিব তাজিক বলেন, প্রাথমিকভাবে ১১ সদস্যের একটি দল এটি পরিচালনা করবে। স্টেশন হাউস অফিসার হিসেবে এই দলের নেতৃত্বে থাকবেন পুলিশের উপপরিদর্শক জাহিদা হানিফ।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

হিরা দিয়ে মোড়ানে গাড়ি ছুঁলেই গুনতে হবে লাখ টাকা!

অনলাইন ডেস্ক

হিরা দিয়ে মোড়ানে গাড়ি ছুঁলেই গুনতে হবে লাখ টাকা!

প্রতিনিয়তই ঘটনাবহুল এই বিশ্বে কিছু না কিছু ঘটছেই। এর মধ্যে কিছু ঘটনা আমাদের আনন্দ দেয়, আর কিছু ঘটনা আমাদেরকে নাড়া দিয়ে যায়। এবার এমনই একটি গাড়ির খবর সামনে এলো যা দেখে চোখ ধাঁধিয়ে যেতে বাধ্য সবার। কারণ গাড়িটি  আপাদমস্তক ‘হিরা’ দিয়ে মোড়ানো!  কিন্তু তা বলে ভুল করেও ছুঁয়ে দেখা যাবে না। কারণ সে গাড়ি স্পর্শ করতে গেলেও পকেটে অন্তত লাখ টাকা রাখতে হবে! 

এমন খবর দিয়েছে আনন্দবাজার পত্রিকা।

বিলাসবহুল জীবনযাপনের জন্য সারা বিশ্বে প্রসিদ্ধ সৌদি আরবের যুবরাজ আল-ওয়ালিদ। বৈরুতের পাইনউড কলেজে তার পড়াশোনা। তারপর রিয়াদের একটি সেনা স্কুলে ভর্তি হন। এরপর ক্যালিফোর্নিয়ার মেনলো কলেজ থেকে বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে স্নাতক করেন। এছাড়াও নিউইয়র্কের সাইরাকুস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজবিজ্ঞান নিয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন তিনি।

আধুমাত্র সৌদি আরবেই তিনটি প্রাসাদ রয়েছে তার। তবে মধ্য রিয়াদের প্রাসাদেই বেশির ভাগ সময় কাটান তিনি। ওই প্রাসাদে অন্তত ৩১৭টি ঘর রয়েছে। এই বিশাল প্রাসাদ বানাতে খরচ হয়েছিল ১৩ কোটি ডলার। অন্য দেশে ভ্রমণ করতে গেলে ব্যক্তিগত বিমানেই যাতায়াত করেন ওয়ালিদ।

আকাশপথে ভ্রমণের জন্য যেমন ব্যক্তিগত বিমান রয়েছে, জলপথের জন্যও একটি ইয়ট রয়েছে। এটির মূল্য ৫০ কোটি ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় সাড়ে ৬ হাজার কোটি টাকা। অন্তত ২০০টি বহুমূল্য গাড়ি রয়েছে তার। তার দীর্ঘ গাড়ির তালিকায় রয়েছে ওই ‘হিরা’ খচিত গাড়িটিও। এমন কথা প্রচলিত রয়েছে যাকে শুধু ছুঁয়ে দেখতে গেলেই নাকি গুনতে হবে লাখ টাকা! সেটি আসলে একটি মার্সিডিজ গাড়ি। কিন্তু গাড়ির আগাগোড়া হিরার মতো কেলাস দিয়ে মোড়ানো। অন্তত তিন লাখ কেলাস রয়েছে গাড়িটিতে।

আরও পড়ুন:

মা কালী সেজে জনগণকে তাক লাগালেন রিখিয়া

আরিয়ানের জামিন শুনানি আজ, টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়ার প্রস্তাব


দু’সপ্তাহ ধরে ১৩ জন বিশেষজ্ঞের চেষ্টায় গাড়িটিকে এমন ‘হিরা’ দিয়ে সাজানো সম্ভব হয়েছিল। মার্সিডিজ এসএল৬০০ মডেলের গাড়িটির দাম ৪৮ লক্ষ ডলার। ২০০৭ সালে দুবাইয়ের একটি প্রদর্শনীতে মার্সিডিজের ৫০তম জন্মদিন উপলক্ষে গাড়িটি দেখানো হয়েছিল। তারপরই সেটি কিনে নেন যুবরাজ। পুরোটাই ‘হিরা’ দিয়ে মোড়ানো থাকায় আলো পড়লেই ঝলমল করে ওঠে ওই গাড়ি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

নিজের মেয়েকে হত্যা করতে গুগল সার্চ!

অনলাইন ডেস্ক

নিজের মেয়েকে হত্যা করতে গুগল সার্চ!

যুক্তরাজ্যের পশ্চিম মিডল্যান্ডস অঞ্চলের বার্মিংহামে জামার বেইলি (২১) নামে এক যুবককে ২৫ বছরের বেশি কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তিন সপ্তাহ বয়সের নিজের কন্যা শিশুকে ওষুধ খাইয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে তাকে এই সাজা দেওয়া হয়।

ডেইলি মেইল এবং বিবিসি সূত্রে জানা যায়, গতকাল সোমবার বার্মিংহাম ক্রাউন কোর্ট তাকে কারাগারে পাঠায়। ওষুধ খাওয়ানোর আগে কীভাবে শিশুটিকে হত্যা করবেন সেইজন্য গুগলে ‘হাউ টু পয়জন অ্যা বেবি’ এবং ‘হাউ টু কিল অ্যা নিউবর্ন বেবি’ লিখে সার্চ দেন তিনি।

২০২০ সালের জুন মাসে ঘটা ওই ঘটনার পর ওই শিশুটিকে ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে ভর্তি করা হয়। পরে সন্দেহভাজন হিসেবে বেইলিকে আটক করা হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পর শিশুটির ইউরিন পরীক্ষায় সোডিয়াম ভ্যালপোরেট শনাক্ত হয় যা এপিলেপ্সি (মৃগীরোগ) ও বাইপোলার ডিসঅর্ডারের জন্য ব্যবহার করা হয়। সোডিয়াম ভ্যালপোরেট একটি ছোট্ট শিশুর প্রাণ নেওয়ার জন্য যথেষ্ট।

তবে ঠিক কি কারণে শিশুটিকে হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে সে ব্যাপারে নির্দিষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। জানা যায় বেইলি দীর্ঘদিন মানষিক রোগে ভুগছেন। ধারণা করা হচ্ছে তিনি রোগকে ভালোভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে পারছেন না। আর এসব বিষয়ের কোনো প্রভাব এই ঘটনায় আছে কি না তা পরিষ্কার না।    

গোয়েন্দারা তদন্তের সময় বেইলির বাসা থেকে খিঁচুনির ওষুধ পেয়েছেন এবং তার বেইলির মুঠোফোনে শিশু হত্যার বিষয়ে গুগল সার্চের বিষয়টি নজরে আসে।

শিশুটি ইনটেনসিভ কেয়ার থেকে সুস্থ হয়ে ফিরেছে। পুলিশ জানায় তার অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। যদিও এটা নিশ্চিত না শিশুটির বয়স বাড়লে দীর্ঘমেয়াদী কোনো সমস্যা দেখা দিবে কিনা।

আরও পড়ুন:

মা কালী সেজে জনগণকে তাক লাগালেন রিখিয়া

আরিয়ানের জামিন শুনানি আজ, টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়ার প্রস্তাব

পুলিশ আরো জানায়, বেইলির এই কর্মকাণ্ড পূর্বপরিকল্পিত। আমাদের তদন্ত করা খুব কঠিন ছিল। মেডিকেল প্রমাণ ও বিভিন্ন সহযোগী সংস্থার সহায়তার জন্য তদন্ত সম্ভব হয়েছে। এই বিচার শেষ হওয়ায় আমরা খুশি। বেইলিকে প্যারোলে মুক্তির আবেদনের জন্যও সাজার অন্তত দুই তৃতীয়াংশ খাটতে হবে। 

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

ফজরের নামাজের সময় মসজিদের ভেতরে ১৮ জনকে গুলি করে হত্যা

অনলাইন ডেস্ক

ফজরের নামাজের সময় মসজিদের ভেতরে ১৮ জনকে গুলি করে হত্যা

ফজরের নামাজের সময়ে মসজিদের ভিতরে হামলা চালিয়ে অন্তত ১৮ জন মুসল্লিকে গুলি করে হত্যা করেছে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। ভোর পাঁচটার সময়ে মুসল্লিরা  যখন ফজরের নামাজ আদায় করছিলেন তখন এই হামলা চালানো হয়ে। পশ্চিম আফ্রিকার দেশ নাইজেরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় নাইজার প্রদেশের একটি মসজিদে এই ঘটনা ঘটে। খবর এবিসি নিউজের।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) বন্দুকধারীরা মোটরবাইকে করে মসজিদের সামনে যায় এবং মুসল্লিদেরকে গুলি করে হত্যা করে।

বন্দুকধারীরা সোমবার ভোর ৫টার দিকে উত্তরাঞ্চলীয় নাইজার প্রদেশের মাশেগু লোকাল গভর্নমেন্ট এলাকার মাজা-কুকা কমিউনিটিতে অবস্থিত ওই মসজিদটির পাশে পৌঁছায় এবং মসজিদের ভেতরে অবস্থানরতদের গুলি করে হত্যা করে।

আরও পড়ুন:

মা কালী সেজে জনগণকে তাক লাগালেন রিখিয়া

আরিয়ানের জামিন শুনানি আজ, টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়ার প্রস্তাব


স্থানীয় বাসিন্দা আবদুল গনি হাসান রয়টার্সকে জানায়, বন্দুকধারীরা ঘটনাস্থলে আসার পর সোজা মসজিদের দিকে যায় এবং সরাসরি নামাজরত মুসল্লিদের দিকে গুলিবর্ষণ শুরু করে। তাদের এই গুলিবর্ষণের হাত থেকে কেউই রেহাই পায়নি। এ সময় বন্দুকধারীরা ১০ জনেরও বেশি মানুষকে অপহরণ করে।

নাইজেরিয়ার নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মকর্তাদের মতে, সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের পাশাপাশি জঙ্গিগোষ্ঠী বোকো হারাম ও আইএস (ইসলামিক স্টেট) পশ্চিম আফ্রিকা শাখার সদস্যরাও নিয়মিত এসব অপরাধমূলক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর