ই-কমার্স নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ গঠন করবে সরকার: বাণিজ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

ই-কমার্স নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ গঠন করবে সরকার: বাণিজ্যমন্ত্রী

করোনা মহামারিতে শত শত মানুষ ই-কমার্সের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করেছেন। কিছু ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করেছে। প্রতারকদের কারণে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ই-কমার্স বন্ধ করে দিলে কোনো সমাধান আসবে না। ই-কমার্স শৃঙ্খলায় ফেরাতে রেগুলেরেটরি অথরিটি গঠন করতে হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ‘ডিজিটাল কমার্স ব্যবসায় সাম্প্রতিক সমস্যা বিষয়ে’ পর্যালোচনা সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, একের পর কেলেঙ্কারিতে বেসামাল এই খাতের জন্য একটি ই-কমার্স আইন ও একটি কেন্দ্রীয় অভিযোগ সেল গঠন করা হবে।

ই-কমার্সে প্রতারণার জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয় দায় এড়াতে পারে না বলে যে বক্তব্য দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, তার জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, দায় আছে বলেই আমরা মিটিং করেছি। আমরা দায় এড়াতে চাচ্ছিও না।

টিপু মুনশি বলেন, বিশ্বের সব দেশে ই-কমার্স চালু রয়েছে। দেশেও লাখ লাখ মানুষ ই-কমার্সের সঙ্গে জড়িত পড়েছেন। করোনা মহামারিতে ই-কমার্স সুনাম অর্জন করেছে, মানুষ উপকৃত হয়েছে। কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের অসৎ ব্যবসা ও প্রতারণার কারণে সব ইকমার্স বন্ধ করে দেওয়া ঠিক হবে না। যারা অপরাধ করেছেন, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের প্রতারণার সুযোগ না পায়, সে জন্য সরকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে।

আরও পড়ুন:

অবশেষে ব্রিটেনের লাল তালিকা থেকে বাদ পড়ছে বাংলাদেশ

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

আর কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে না, জানালেন কৃষিমন্ত্রী

ইভ্যালির সঙ্গে আর সম্পর্ক নেই তাহসানের


 

তিনি বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ই-কমার্স পরিচালনা নির্দেশিকা কার্যকর হবার পর প্রতারণা বন্ধ হয়ে গেছে। এর আগে কয়েকটি প্রতিষ্ঠান গ্রাহকদের প্রতারিত করেছে, ইতোমধ্যে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আরও কী করা যায়, সরকার তা পরিক্ষী-নিরীক্ষা করে দেখছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

বিশ্বে আবারো বেড়েছে অপরিশোধিত তেলের দাম

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্ববাজারে ব্যারেলপ্রতি অপরিশোধিত তেলের দাম এক শতাংশ বেড়েছে।

ফলে এখন প্রতি ব্যারেলের দাম পরবে ৮৫ ডলার ৭৩ সেন্ট। সোমবার এসব তথ্য জানিয়েছে  রয়টার্স। বিশ্বজুড়ে চলাচলে নিষেধাজ্ঞা শিথিল হওয়া জ্বালানি খরচ বৃদ্ধিতে অবদান রাখবে  বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

তারা জানান, শুধু  যুক্তরাষ্ট্রে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য ‘গ্যাস-টু-অয়েল সুইচিং’ বছরের চতুর্থ প্রান্তিকে, দৈনিক সাড়ে চার লাখ ব্যারেল পর্যন্ত চাহিদা বাড়িয়ে দিতে পারে। অবশ্য এর সঙ্গে তাল মেলাতে উৎপাদনকারী দেশগুলোর তেল সরবরাহও বৃদ্ধি পেতে পারে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

বিচারপতি মানিককে প্রধান করে ইভ্যালি পরিচালনায় পাঁচ সদস্যের বোর্ড

হাবিবুল ইসলাম হাবিব

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালি পরিচালনার জন্য আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি এইচ এম সামসুদ্দিন চৌধুরী মানিককে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। সোমবার বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। 

পণ্য অর্ডার করে না পাওয়ায় ইভ্যালির অবসায়ন চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেন এক গ্রাহক। সেই রিটের শুনানি নিয়ে কয়েক দফা নির্দেশনা দেন হাইকোর্ট। পরে গ্রাহকদের কয়েক হাজার কোটি টাকা আটকে থাকা ও প্রতিষ্ঠানটির প্রতারনার অভিযোগ বিচার বিশ্লেষণ করে একটি পরিচালনা কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নেয় হাইকোর্ট।

তারই প্রেক্ষিতে সোমবার সাবেক বিচারপতি সামসুদ্দিন চৌধুরী মানিককে চেয়ারম্যান করে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। 

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন বিভাগের সাবেক সচিব মোহাম্মদ রেজাউল আহসান, ওএসডিতে থাকা অতিরিক্ত সচিব মাহবুব কবীর মিলন, চার্টার্ড অ্যাকাউন্টেন্ট ফখরুদ্দিন আহম্মেদ, কোম্পানি আইন বিশেষজ্ঞ আইনজীবী ব্যারিস্টার খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ। আদেশের কপি পাওয়ার পর বোর্ড মিটিংয়ে সিদ্ধান্ত হবে কোন প্রক্রিয়ার পরিচালিত হবে ইভ্যালি।

বোর্ডের চেয়ারম্যান সাবেক বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক বলেন, অন্য চার সদস্য একমত হলে ইভ্যালিকে লাভজনক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের চেষ্টা করবেন তিনি।

আরও পড়ুন:


ইভ্যালিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের সর্বোচ্চ চেষ্টা করব: বিচারপতি মানিক

করোনা: দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু কমলেও বেড়েছে শনাক্ত

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

ডিএমপি কমিশনার ও র‍্যাব ডিজি’র পদোন্নতি


এদিকে, সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ কর্তৃক গঠিত কমিটির প্রথম সভা শেষে বাণিজ্য সচিব বলেন, ইকমার্স নিবন্ধ ও লাইসেন্স সিয়ে তার মন্ত্রণালয় কাজ করছে।

জানা আগামী এক মাসের মধ্যে অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠান এবং ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ ও স্বার্থসুরক্ষা নিয়ে একটি সুপারিশ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠানো হবে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ইভ্যালিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের সর্বোচ্চ চেষ্টা করব: বিচারপতি মানিক

অনলাইন ডেস্ক

ইভ্যালিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের সর্বোচ্চ চেষ্টা করব: বিচারপতি মানিক

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির ব্যবস্থাপনায় সদ্য গঠিত বোর্ডের চেয়ারম্যান আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক বলেছেন, ইভ্যালিকে একটি লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরিত করতে চেষ্টা করব।

তিনি বলেন, আমি মাত্র খবর পেলাম আমাকে চেয়ারম্যান করা হয়েছে। এখনও আমি জিনিসটা পুরোপুরি বুঝে উঠতে পারিনি। কমিটির অন্য যে চারজন সদস্য রয়েছেন, তাদের সঙ্গে কথা বলতে হবে। বিজ্ঞ চার সদস্য যদি একমত হন আমরা সবাই মিলে ইভ্যালিকে একটি লাভজনক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তর করতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করব।

আরও পড়ুন:

ফতুল্লায় সুজন ফকির হত্যাকাণ্ডে দুই ঘাতক গ্রেপ্তার

মন্দিরে হামলার ঘটনায় গোয়েন্দা সংস্থা নিয়ে প্রশ্ন রিজভীর

প্রেম করে বিয়ে করায় ৪ নাতি ও ২ মেয়েকে পুড়িয়ে হত্যা

বড় ভাই শেখ জামালের মতো সেনা অফিসার হতে চাইতো শেখ রাসেল: প্রধানমন্ত্রী


আজ সোমবার (১৮ অক্টোবর) দুপুরে গণমাধ্যমকে দেওয়া তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় এসব কথা বলেন ইভ্যালি পরিচালনায় সদ্য গঠিত কমিটির চেয়ারম্যান আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক।

এর আগে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালি পরিচালনার জন্য আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিককে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করে দেন হাইকোর্ট। বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- সাবেক সচিব মোহাম্মদ রেজাউল আহসান, মাহবুবুল করিম, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট ফখরুদ্দিন আহম্মেদ, আইনজীবী ব্যারিস্টার খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ।

এর আগে গত ১২ অক্টোবর বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের হাইকোর্ট বেঞ্চ ইভ্যালি পরিচালনার জন্য কমিটি করে দেওয়ার কথা বলেন। এ বিষয়ে বুধবার (১৩ অক্টোবর) হাইকোর্টের আদেশ দেওয়ার কথা ছিল। পরে আদেশের দিন পেছানো হয়।

এদিকে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির সব নথি হাইকোর্টে জমা দেওয়া হয়েছে। গত ১১ অক্টোবর বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের হাইকোর্ট বেঞ্চে এসব নথি দাখিল করেন জয়েন্ট স্টক কোম্পানির রেজিস্ট্রার।

news24bd.tv/তৌহিদ

পরবর্তী খবর

মীর কনক্রিট ব্লকের পক্ষ থেকে পরিবেশবান্ধব হলো ব্লকের ঘর প্রদান

অনলাইন ডেস্ক

মীর কনক্রিট ব্লকের পক্ষ থেকে পরিবেশবান্ধব হলো ব্লকের ঘর প্রদান

৬০ বছরের কাছাকাছি বয়সে প্রায় ৫ লক্ষ গাছ রোপন করা  "সাদা মনের মানুষ" হিসেবে স্বীকৃতি প্রাপ্ত পাবনা জেলার ফরিদপুর উপজেলার বৃক্ষপ্রেমী মোঃ ইদ্রিস আলীকে সম্প্রতি মীর কনক্রিটব্লক এর উদ্যোগে  উপহারসরূপ পরিবেশবান্ধব হলো ব্লকের ঘর প্রদান করা হয়। 

ঘর হস্তান্তর অনুষ্ঠানে ফরিদপুর উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক মোঃ গোলাম হোসেন, ফরিদপুর  পৌরসভার মেয়র খ ম কাম্রজ্জামান মাজেদ, মীর গ্রুপ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব নাবা-ই জাহির, চীফ রিলেশন অফিসার মোঃ রফিকুল ইসলাম, মীর কনক্রিট ব্লকের বিক্রয় এবং বিপনন বিভাগের প্রধান সাখাওয়াত হোসেন, এসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার মোঃ ইবনে কাউসার রিয়াদ, সিনিয়র অফিসার মোঃ ইউসুফসহ অন্যন্য বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। উপজেলা চেয়ারম্যান মীর কনক্রিট ব্লকের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানান।
 

আরও পড়ুন:

মেয়াদ-বেতন দুটোই বাড়ছে টাইগার কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর

চাকরির কথা বলে তরুণীকে হোটেলে নিয়ে পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করে নূর

নবীর ভবিষ্যদ্বাণী, বৃষ্টির মতো বিপদ নেমে আসবে

হঠাৎ পায়ের রগে টান পড়লে কী করবেন?


অনুষ্ঠানে মীর গ্রুপ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব নাবা-ই জাহির উল্লেখ করেন,পরিবেশের বন্ধু এই মানুষটিকে পরিবেশ বান্ধব হলো ব্লক দিয়ে ঘর তৈরি করে দিতে পারায় আমরা সত্যিই গর্বিত। সাদা মনের মানুষটির আদর্শ বেঁচে থাকুক মীর কনক্রিট ব্লকের পরিবেশ বান্ধব যাত্রায়।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি মধ্যে খাতুনগঞ্জে নষ্ট হচ্ছে পেঁয়াজ

বাবু কামরুজ্জামান

অব্যবস্থাপনার কারণে চট্টগ্রামে মিয়ানমার থেকে আমদানি করা নষ্ট পেঁয়াজ যখন ফেলে দেয়া হচ্ছে ময়লার ভাগাড়ে। তখন ঢাকার বাজারে এখনো পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি। 

রোববার (১৭ অক্টোবর) বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, পেঁয়াজের দাম পাইকারি ও খুচরা বাজারে কোনভাবেই ১০ টাকার বেশি ব্যবধান হতে পারে না।এর ব্যত্যয় হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন তিনি। 

এদিকে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফসিসিআইও বলছে পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে বড় কারণ ছিল কোন একটি মহলের কারসাজি। 

দেশের সবচেয়ে বড় ভোগ্যপণ্যের বাজার খাতুনগঞ্জে মিয়ানমার থেকে আমদানি করা পেঁয়াজের অধিকাংশের ঠিকানা সিটি করপোরেশনের ময়লার ভাগাড়। সমুদ্রপথে বাংলাদেশে আসতে সময় বেশি লাগায় গরমে নষ্ট হওয়া এসব পেঁয়াজ অনেকে পানির দামে বিক্রি করলেও তার বেশিরভাগই নষ্ট হয়েছে।

চট্টগ্রামের বাজারে অব্যবস্থাপনার কারণে যখন পেঁয়াজ নষ্ট হচ্ছে তখন রাজধানীতে পেঁয়াজ কিনতে হচ্ছে ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি। ফলে দুর্ভোগে নিম্ন আয়ের মানুষ। রোববার ঢাকা চেম্বার আয়োজিত এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে পেঁয়াজের লাগামহীন দাম নিয়ে বাণিজ্য মন্ত্রী বলেন, পাইকারি ও খুচরা বাজারের সাথে দামের ব্যবধান ১০ টাকার বেশি হতে পারে না কোনভাবেই।

আরও পড়ুন:


‘পবিত্র কোরআন অবমাননার’ ব্যাপারে সাংবাদিকদের প্রশ্নে যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আমার পিছনে কোন রাজনৈতিক বংশের জোর ছিল না: মোদি

ক্যামেরার সামনেই বিরাট-আনুশকার কথা কাটাকাটি!

সরকারের মদদেই পূজা মণ্ডপে কোরআন অবমাননা: ফখরুল


এদিকে, রোববার, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মজুদ, আমদানি, সরবরাহ ও মূল্য পরিস্থিতি নিয়ে মতবিনিময় সভার আয়োজন করে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই।অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআই সভাপতি মন্তব্য করেন কোন একটি মহলের কারসাজিতেই দাম বেড়েছে পেঁয়াজের।

তবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অনুরোধের পর পেঁয়াজ আমদানির ক্ষেত্রে বিদ্যমান পাঁচ শতাংশ শুল্কহার প্রত্যাহার করে নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ; যা কার্যকর হচ্ছে রোববার থেকে। যদিও আমদানিতে শুল্ক কমানোর ঘোষণা দেওয়ার  সাথেই পেঁয়াজের দাম কেজিতে কমে আসে অন্তত ১০ টাকা।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর