সব ফোনের একই চার্জার তৈরির প্রস্তাব, অ্যাপলের আপত্তি

অনলাইন ডেস্ক

সব ফোনের একই চার্জার তৈরির প্রস্তাব, অ্যাপলের আপত্তি

স্মার্টফোন এবং ছোট আকারের ইলেকট্রনিক যন্ত্রের ব্যাটারি চার্জ দেয়ার জন্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোকে একই ধরনের চার্জার তৈরি করতে হবে - এমন একটি নতুন নিয়ম তৈরির প্রস্তাব করেছে ইউরোপিয়ান কমিশন। এই পদক্ষেপ নেয়ার পেছনে মূল লক্ষ্য বর্জ্য কমানো। এরকম নিয়ম তৈরি হলে নতুন যন্ত্র কিনলেও গ্রাহকরা পুরনো চার্জার ব্যবহার অব্যাহত রাখবে বলে মনে করছে সংস্থাটি।

ইউরোপিয়ান ইউনিয়নে বিক্রি হওয়া সব স্মার্টফোনে ইউএসবি-সি চার্জার থাকতে হবে বলে প্রস্তাবটিতে বলা হয়েছে। তবে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান অ্যাপল এই প্রস্তাবে আপত্তি জানিয়েছে। অ্যাপল আশঙ্কা প্রকাশ করেছে যে এই পদক্ষেপ প্রযুক্তির ক্ষেত্রে উদ্ভাবনীকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে।

অ্যাপলের স্মার্টফোনের জন্য আলাদা চার্জিং পোর্ট ব্যবহার হয়। তাদের আইফোন সিরিজে চার্জ দেয়ার জন্য অ্যাপলেরই তৈরি 'লাইটনিং' পোর্ট ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে প্রতিষ্ঠানটি জানাায়, "আমাদের আশঙ্কা এক ধরণের চার্জার তৈরিতে কড়া বাধ্যবাধকতা থাকলে তা উদ্ভাবনকে উৎসাহিত করা বদলে ব্যহত করবে, যার ফলে ইউরোপ এবং সারাবিশ্বের গ্রাহকরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।"

বর্তমানে অধিকাংশ অ্যান্ড্রয়েড ফোনের সাথে একটি ইউএসবি মাইক্রো-বি চার্জিং পোর্ট থাকে। অনেক অ্যান্ড্রয়েড ফোনেই বর্তমানে ইউএসবি-সি চার্জিং পোর্টও থাকে।

আইপ্যাড ও ম্যাকবুকের নতুন মডেলে ইউএসবি-সি চার্জিং পোর্ট দেখা যায়। স্যামসাং এবং হুয়াওয়ের মত জনপ্রিয় ফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের হাই-এন্ড মডেলেও ইউএসবি-সি চার্জিং পোর্ট থাকে।

প্রস্তাবে চার্জিং স্পিডের বিষয়টিও উল্লিখিত হয়েছে - অর্থাৎ ফাস্ট চার্জ হতে পারে, এমন সব ডিভাইজ একই সময়ের মধ্যে চার্জ হবে বলে বলা হচ্ছে।

রও পড়ুন:

প্রেমের স্বীকৃতি না পেয়ে প্রেট্রোল ঢেলে আগুন দিলেন নারী!

বেড়াতে গিয়ে অতিরিক্ত মদ পানে দুই ছাত্রলীগ কর্মীর মৃত্যু

শুক্রবার রাজধানীর যেসব মার্কেট ও দর্শনীয় স্থান বন্ধ থাকবে

মাদাগাস্কারে গরু চুরি নিয়ে সংঘর্ষে ৪৬ জন নিহত


বর্তমানে প্রস্তাবিত নিয়ম অনুযায়ী যেসব ডিভাইসের জন্য একই ধরণের চার্জার থাকতে হবে, সেগুলো হল: স্মার্টফোন, ট্যাবলেট, ক্যামেরা, হেডফোন, পোর্টেবল স্পিকার, হাতে ধরে ব্যবহার করারর ভিডিও গেম কনসোল।

ইয়ারবাড, স্মার্ট ওয়াচ এবং ফিটনেস ট্র্যাকারকে এই তালিকার অর্ন্তভুক্ত করা হয়নি।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

১১ নভেম্বর থেকে ঢাকায় শুরু হচ্ছে প্রযুক্তি খাতের বিশ্ব সম্মেলন

অনলাইন ডেস্ক

১১ নভেম্বর থেকে ঢাকায় শুরু হচ্ছে প্রযুক্তি খাতের বিশ্ব সম্মেলন

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের বিশ্ব সম্মেলন ‘ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস অন ইনফরমেশন টেকনোলজি'র (ডব্লিউসিআইটি) ২৫তম আসর এবার ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। 

আগামী ১১-১৪ নভেম্বর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে চারদিন ব্যাপী এই সম্মেলন। বিশ্বের যেকোনো প্রান্ত থেকে অনলাইনেও এ সম্মেলনে যুক্ত হওয়া যাবে। ডব্লিউসিআইটি ২০২১ সম্মেলনের সমান্তরালে একই সময়ে অনুষ্ঠিত হবে এশিয়া ও ওশেনিয়া অঞ্চলের আন্তর্জাতিক সম্মেলন অ্যাসোসিও ডিজিটাল সামিট ২০২১। অনুষ্ঠানগুলো সরাসরি ও ভার্চুয়াল পদ্ধতির সংমিশ্রণে অনুষ্ঠিত হবে।

দ্য ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সার্ভিসেস অ্যালায়েন্সের (উইটসা) উদ্যোগে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি যৌথভাবে এ সম্মেলনের আয়োজন করতে যাচ্ছে। এ আয়োজনের সহযোগী হিসেবে রয়েছে বেসিস, বাক্কো, ই-ক্যাব ও আইএসপিএবি। এ বিশ্ব সম্মেলনের এবারের প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘আইসিটি দ্য গ্রেট ইকুলাইজার’।

রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলের পদ্মা হলে গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এসব তথ্য জানান তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। 

তিনি আরো জানান, চার দিনব্যাপী এ সম্মেলনে থাকছে মোট ২৩টি সেমিনার, মিনিস্টেরিয়াল কনফারেন্স, বিটুবি সেশন। অনলাইনে নিবন্ধিত হয়ে এ সেমিনারগুলোতে অংশ নেয়া যাবে।

১১ নভেম্বর মিনিস্টেরিয়াল কনফারেন্সে কি-নোট স্পিকার হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ভার্চুয়ালি যুক্ত হবেন।

আরও পড়ুন: 

ইংল্যান্ড ম্যাচের আগে টাইগার শিবিরে বড় দুটি দুঃসংবাদ

১৫টি ট্রাক নিয়ে ডুবে গেলো ফেরি শাহ আমানত

১০ মিনিটের সংঘর্ষে রণক্ষেত্র নয়াপল্টন

এনআইডি নিয়ে সরকারের নতুন পরিকল্পনার কথা জানালেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


প্রতিদিন সেমিনারের পাশাপাশি থাকছে বিশেষ আয়োজন। এ বিশেষ আয়োজনে প্রথম দিন থাকবে ডিজিটাল বাংলাদেশ নাইট। ডিজিটাল বাংলাদেশ নাইটে বাংলাদেশের বিগত ১২ বছরের তথ্যপ্রযুক্তিতে অগ্রগতি সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরা হবে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

মেসেন্জারে ভিডিও কলে আনা হলো নতুন 'গ্রুপ এফেক্ট'

অনলাইন ডেস্ক

মেসেন্জারে ভিডিও কলে আনা হলো নতুন 'গ্রুপ এফেক্ট'

ফেসবুক মেসেঞ্জার ভিডিও কল এবং মেসেঞ্জার রুমে একটি নতুন গ্রুপ এফেক্ট ফিচার নিয়ে এসেছে। ডেইলি হান্টের সূত্রে জানা যায়, নতুন এই ফিচারের মাধ্যমে গ্রুপে থাকা সকলেই ভিডিও কলে 'এআর' ফিল্টার এবং এফেক্টস প্রয়োগ করতে পারেন।

ফেসবুক জানিয়েছে নতুন এই গ্রুপ এফেক্ট ফিচার দ্রুত ইন্সটাগ্রামেও যোগ করা  হবে। গ্রুপ এফেক্ট ভিডিও কলে থাকা সবার জন্য প্রযোজ্য। শুরুতে ৭০টিরও বেশি গ্রুপ এফেক্ট নিয়ে নতুন এই ফিচার সামনে এনেছে মেসেঞ্জার।


আরও পড়ুন:

চাঞ্চল্যকর সেই দম্পতি হত্যার রহস্য উদঘাটন করলো পিবিআই

দুই সন্তানের বাবার নামে প্রেমিকার মামলা

সুইমিং পুলে শুয়ে কী বললেন শ্রাবন্তী?

চলছে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের সোনালি অধ্যায় : হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা


নতুন এই গ্রুপ এফেক্ট ফিচারটি বিশ্বজুড়ে সকল ব্যবহারকারীদের জন্য চালু হতে চলেছে। সব ব্যবহারকারীদের এই ফিচার পেতে কিছুটা সময় লাগতে পারে।

আপনার জন্য এটি চালু হয়েছে কিনা জানতে আপনি প্রথমে ফোনের ফেসবুক অ্যাপ ওপেন করুন। তারপর মেসেঞ্জারে গিয়ে একটি ভিডিও কল স্টার্ট করুন। এরপর স্মাইলি ফেস অপশনে গিয়ে ট্যাপ করে এফেক্টস ট্রে ওপেন করুন। একটি গ্রুপ এফেক্টস চেক করুন এবং ভিডিও কলের সকল অংশগ্রহণকারীদের আবেদন করার জন্য সব অপশনগুলো দেখতে এটি সিলেক্ট করুন।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

নাম পরিবর্তন হচ্ছে ফেসবুকের

অনলাইন ডেস্ক

সেই ১৭ বছরের পুরোনো নাম পরিবর্তনের পরিকল্পনা করছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) নাম পরিবর্তনের সঙ্গে জড়িত একটি সূত্রের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে দ্য ভার্জ।
 
ধারণা করা হচ্ছে, আগামী সপ্তাহে এ পরিবর্তন আসতে পারে। ফেসবুকের নতুন নাম হতে পারে মেটাভার্স। মূলত নিজেদের পুনর্গঠিত করতেই ফেসবুকের এ নাম পরিবর্তনের উদ্যোগ।

আরও পড়ুন:


তাইওয়ানকে চীনের হাত থেকে রক্ষা করতে বদ্ধপরিকর যুক্তরাষ্ট্র

অভিযুক্ত ইকবালের সঙ্গে ছাত্রলীগ নেতা মিশু-রায়হান-অনিকের পরিচয় যেভাবে

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চাকরির সুযোগ, আবেদন অনলাইনে

আরও বিস্তৃতি বাড়াচ্ছে আইপিএল, আসছে নতুন দল


মেটাভার্স নামের অর্থ হলো একটি ভার্চ্যুয়াল জগৎ। যেখানে ইন্টারনেটের মাধ্যমেই এ জগতের সঙ্গে যুক্ত হওয়া যাবে। এ জগৎ বাস্তবতার সঙ্গে ডিজিটাল সংমিশ্রণ। ভার্চ্যুয়াল রিয়েলিটি অথবা অগমেন্টেড রিয়েলিটির মাধ্যমে গড়ে ওঠার কারণে এই জগতে ব্যবহারকারীদের নিজেকে আরও জীবন্ত মনে হবে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

মাত্র ১৬ হাজার টাকায় ৬ জিবি র‍্যামের ফোন

অনলাইন ডেস্ক

মাত্র ১৬ হাজার টাকায় ৬ জিবি র‍্যামের ফোন

বর্তমানে সকলের হাতে হাতে স্মার্ট ফোন। নিত্য নতুন ফোন আসছে প্রতিনিয়তই। তাই তো এবার স্মার্টফোন জগতের অন্যতম শীর্ষ ব্র্যান্ড ইনফিনিক্স নিয়ে এলা নতুন ডিভাইস হট ১১এস। যার মূল্য ১৬হাজার টাকার মধ্যেই।

জি৮৮ প্রসেসর, ১২৮ জিবি স্টোরেজ ও ৬ জিবি র‌্যামের ফোনটি পাওয়া যাবে  ১৫,৯৯০ টাকায়।

হট ১১এস মডেলের এই মোবাইলটিতে রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেল ট্রিপল এআই নাইটস্কেপ ক্যামেরা। ফ্রন্টে সেলফি তোলার জন্য আছে ডুয়েল এলইডি ফ্ল্যাশ সম্বলিত ৮ মেগাপিক্সেল ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল বিশেষ ক্যামেরা। এছাড়া সামনে ও পেছনে উভয় ক্যামেরায় রয়েছে এআই ফিচার।

স্মার্টফোনটিতে আরো আছে ৫০০০ এমএএইচ ব্যাটারি। যেটির সাহায্যে একনাগাড়ে ১৩ ঘণ্টা গেম খেলা যাবে। মাত্র ৫ শতাংশ চার্জেও মোবাইলটিতে কথা বলা যাবে অতিরিক্ত দুই ঘণ্টা। অত্যাধুনিক এই ডিভাইসটির ৪ জিবি র‍্যাম এবং ৬ জিবি র‍্যামের দুটি ভার্সন আছে এবং উভয় ভার্সনেই রয়েছে ১২৮ জিবি স্টোরেজ সুবিধা।

আরও পড়ুন:


ইভ্যালিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের সর্বোচ্চ চেষ্টা করব: বিচারপতি মানিক

করোনা: দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু কমলেও বেড়েছে শনাক্ত

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

ডিএমপি কমিশনার ও র‍্যাব ডিজি’র পদোন্নতি


 

৪ জিবি র‍্যাম ভার্সনটির দাম মাত্র ১৪,৯৯০ টাকা ও ৬ জিবি র‍্যাম ভার্সনটির দাম নির্ধারিত হয়েছে ১৫,৯৯০ টাকা। গ্রাহকরা গ্রিন ওয়েভ এবং পোলার ব্ল্যাক দুটি রঙের স্মার্টফোন কিনতে পারবেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

ফেলে দেওয়া মোবাইল ফোনে কোটি টাকার ব্যবসা

অনলাইন ডেস্ক

ফেলে দেওয়া মোবাইল ফোনে কোটি টাকার ব্যবসা

তাই মোবাইল ফোন তৈরিতে ব্যবহার করা হয় মুল্যবান এই ধাতব স্বর্ণ। কারণ এটি বিদ্যুৎ সুপরিবাহী। শুধু সোনাই নয় রুপা ও তামা ব্যবহার করা হয়ে থাকে মোবাইল ফোন তৈরিতে। সোনা ক্ষয় হয় না, মরিচা ধরে না। তাই মোবাইল ফোনের ইন্টিগ্রেটেড সারকিট বোর্ডের ছোট্ট কানেকটরগুলোতে স্বর্ণ ব্যবহৃত হয়। যদিও এটি খুব সামান্য পরিমাণে থাকে। তবে ফেলে দেওয়া অনেকগুলো ফোন থেকে সংগ্রহ করা যায় উল্লেখযোগ্য পরিমাণ সোনা, যা দিয়ে চলে কোটি টাকার ব্যবসা। 

বিবিসিেএবং আনন্দবাজার সূত্রে জানা যায়, স্মার্টফোন বা আইফোন, সব ধরনের মোবাইল ফোন তৈরিতেই সোনা থাকে।। হিসাব করে দেখা গেছে, ফোনে ৩৪ থেকে ৫০ মিলিগ্রাম পর্যন্ত সোনা থাকে। একটি ফোনে পরমাণ সামান্যই থাকে। কিন্তু যে হারে পরিত্যক্ত মোবাইলের সংখ্যা বাড়ছে তাতে সংগৃহীত সোনার পরিমাণ কম নয়।

অব্যবহৃত মোবাইল ফোন যেখানে আমাদের কাছে প্রযুক্তি বর্জ্য। সেখান থেকে সোনার মতো দামি ধাতু বের করে চলছে রমরমা ব্যবসা। হিসাব বলছে, ৪১টি মোবাইল ফোন থেকেই ১ গ্রাম সোনা পাওয়া যায়। বাংলাদেশি মুদ্রায় এখন যার গড় মূল্য ছয় হাজার ২৭৩ টাকা। ওই হিসাবেই দেখা গেছে, বিশ্বে সারা বছরের বাতিল মোবাইল ফোন থেকে চার হাজার কোটি টাকার সোনা পাওয়া যায়।


আরও পড়ুন:

ইয়েমেনে বিমান হামলায় ১৬০ হুথি বিদ্রোহী নিহত

গাড়ি উৎপাদন কমাচ্ছে টয়োটা

ক্যাটরিনাকে বিয়ের প্রসঙ্গে এবার মুখ খুললেন ভিকি

আত্মহত্যার চেষ্টা করা ছাত্রী বোর্ড পরীক্ষায় প্রথম!


মোবাইল ফোনে সোনার কানেকটরগুলো ডিজিটাল ডাটা দ্রুত এবং যথাযথ স্থানান্তর করার জন্যও ব্যবহৃত হয়। মোবাইল ফোনের মতো, সোনা কম্পিউটার ও ল্যাপটপের আইসিগুলিতেও ব্যবহৃত হয়। আর এই ভাবেই বাতিল মোবাইল, ল্যাপটপ ইত্যাদি দিয়ে চলে কোটি কোটি টাকার ব্যবসা।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত 

পরবর্তী খবর