ইসিতে সরকারের একটা ‘শয়তান’ থাকলে সেখানে ফেরেস্তাও অসহায়!

অনলাইন ডেস্ক

ইসিতে সরকারের একটা ‘শয়তান’ থাকলে সেখানে ফেরেস্তাও অসহায়!

দেশে এখন প্রয়োজন একটাই দাবী শেখ হাসিনা সরকারের পতন। এটার মধ্যে অন্য কোনো মসলা না লাগানো ভালো বলে জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

শুক্রবার দুপুরে এক আলোচনা সভায় এই মন্তব্য করেন তিনি।ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ের মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী প্রজন্ম দলের উদ্যোগে ‘নির্দলীয় সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের দাবি’ শীর্ষক এই আলোচনা সভা হয়।

নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন সম্পর্কে এই বিএনপি নেতা বলেন, নির্বাচন কমিশন। পাঁচটি ফেরেস্তা দিয়ে যদি একটা নির্বাচন কমিশন হয়। আর সরকারে যদি একটা ‘শয়তান’ থাকে তাহলে ফেরেস্তাও অসহায়, কিছু করার নাই। সুতরাং নির্বাচন কমিশন কী হবে না হবে- এই তর্কে সময় দেওয়ার প্রয়োজন নাই।

বিএনপির এই নেতা বলেন,দেশে এত সমস্যা, সব সমস্যা নিয়ে কথা না বলে যেই সমস্যা সমাধানের যে অন্তরায় তাকে যদি আমরা পদত্যাগ করাতে পারি, তাকে যদি রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা থেকে সরাতে পারি, তাহলে জনগণই সব সমস্যা সমাধানের পথ তৈরি করবে। সুতরাং আমাদের সব চিন্তা-চেতনা-সামর্থ্য একত্রিত করে আমরা একদফায় থাকি। অন্য কোনো দাবি, অন্য কোনো দফা নয়।

সরকারপ্রধান শেখ হাসিনার উদ্দেশে তিনি বলেন, জোর করে ক্ষমতায় থাকা যায়, কিন্তু ক্ষমতা থেকে যাওয়ার পথটা যদি সুন্দর না হয় পরিণতি ভয়াবহ হয়। অনেক কিছু করছেন। আপনি যদি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করে আহ্বান করেন গণতন্ত্রের পথে একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের, তাহলে আপনার বিরুদ্ধে খ্যাপা মানুষগুলো কিছু সময়ের জন্য হলেও শান্ত হবে। কারণ বাংলাদেশের মানুষ ক্ষমা করতে পারে, তারা খুব একটা এক্সট্রিম না।


সিলেটে বাসার ছাদ থেকে আপন দুই বোনের মরদেহ উদ্ধার

ক্ষমতায় থাকছেন ট্রুডো, তবে গঠন করতে হবে সংখ্যালঘু সরকার

মিডিয়া ভুয়া খবর ছড়িয়েছে: বাপ্পী লাহিড়ি


 

গয়েশ্বর বলেন, দীর্ঘ দিনের লড়াইয়ে যে কষ্ট আছে আমাদের সেটা যার জন্য লড়াই করছি, সেই কাজ যদি আপনি এগিয়ে দেন, তাহলে আমাদের রুষ্ট মনোভাবটা পরবর্তী পর্যায়ে প্রতিফলিত নাও হতে পারে। সেটাই হলো সবচেয়ে উত্তম পথ।

সংগঠনের সভাপতি জনি হোসেন সরকারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবদুস সালাম, হাবিবুর রহমান হাবিব, ছাত্র দলের সদ্য কারামুক্ত ছাত্রদলের সাবেক নেতা ইসহাক সরকার, কৃষক দলের সাবেক নেতা রাকিকুল ইসলাম রিপন প্রমুখ নেতারা বক্তব্য দেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

এমপি স্যার বলেছেন, কোনো ভোট হবে না, সবাই সিলেক্টেড : রিটার্নিং অফিসার

অনলাইন ডেস্ক

এমপি স্যার বলেছেন, কোনো ভোট হবে না, সবাই সিলেক্টেড : রিটার্নিং অফিসার

এমপি স্যার বলেছেন, চিতলীয়া ইউনিয়নে কোনো নির্বাচন হবে না, সবাই সিলেক্টেড! সংসদ সদস্য সম্পর্কে এমন মন্তব্য করেছেন শরীয়তপুর সদরের রিটার্নিং অফিসার। এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক মাধ্যমে। যমুনা টেলিভিশন এর খবরে এমন তথ্য জানা যায়।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে রিটার্নিং কর্মকর্তাকে বলতে শোনা যায়, এমপির সাথে সিদ্ধান্ত হয়েছে, চিতলীয়া ইউনিয়নে কোনো নির্বাচন হবে না, সবাই সিলেক্টেড। নির্বাচন করতে না পারলে আদালতে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন মেম্বার প্রার্থীদের কেউ কেউ। ইউনিয়নটিতে চেয়ারম্যান পদেও একক প্রার্থী রয়েছে।

আসন্ন ইউপি নির্বাচনে সংরক্ষিত নারী সদস্য প্রার্থী ফুলমালা বেগমের প্রতীক বরাদ্দ নিতে গিয়ে রীতিমতো হতভম্ব স্বামী লিটন সর্দার। তার স্ত্রী নাকি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন, তাই মেলেনি নির্বাচনী প্রতীক।

শরীয়তপুর সদর উপজেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে প্রতীক বরাদ্দ নিতে গিয়ে এমন অভিজ্ঞতা চিতলীয়া ইউপি নির্বাচনে অনেক মেম্বার প্রার্থীর। অভিযোগ তাদের অজান্তেই প্রত্যাহার হয়েছে মনোনয়নপত্র। স্বাক্ষর জাল করে ঘটানো হয়েছে এমন কাণ্ড।

চিতলীয়া ইউপি নির্বাচনে ৯টি মেম্বার পদে ৪৮ জন প্রার্থী  মনোনয়নপত্র জমা দেন। ৯ জন বাদে প্রত্যাহার হয়েছে সবার মনোনয়নপত্র। একই চিত্র সংরক্ষিত নারী সদস্য পদেও। সবকটি পদেই একক প্রার্থী।

আরও পড়ুন:

ডিভোর্স দেয়ায় স্ত্রীকে কুপিয়ে খুন, আত্মহত্যার চেষ্টা স্বামীর

মাকে পিটিয়ে হত্যা; ছেলের মৃত্যুদণ্ড

হিন্দু সম্প্রদায়ের মন্দিরে হামলা, বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ

এ বিষয়ে চিতলীয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন জানান, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার সংক্রান্ত অভিযোগের বিষয়ে কিছুর করার নেই তার। আর ভিডিওটি সম্পর্কে তিনি বলেন, আমার তো এ রকম বলার কথা না। যদি বলে থাকি, তবে কোন প্রেক্ষিতে বলেছি মনে পড়ছে না।

মুঠোফোনে শরীয়তপুর-১ এর সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু বলেন, এটা আমার কোনো কাজ না। এ বিষয়ে কারোর সাথে আমি কোনো কথা বলিনি।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত   

পরবর্তী খবর

তেলের দাম লাফিয়ে বাড়ল, প্রতিবাদ করলে শ্রীঘর অথবা লালঘর: রিজভী

অনলাইন ডেস্ক

তেলের দাম লাফিয়ে বাড়ল, প্রতিবাদ করলে শ্রীঘর অথবা লালঘর: রিজভী

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, ‘করোনাকালে ব্যবসায়ীদের লোকসান হয়েছে বলে তেলের দাম বাড়ালেন, কিন্তু এতে শ্রমজীবী মানুষের যে লোকসান হলো, তাদের বেতন বাড়ালেন না কেন?’

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি ও শ্রমজীবী মানুষের ভোগান্তির প্রতিবাদে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল আয়োজিত এক মানববন্ধনে নজরুল ইসলাম খান বলেন, সরকারি প্রতিষ্ঠান টিসিবির হিসাবে গত এক বছরে দ্রব্যমূল্য গড়ে ৩৫ শতাংশ বেড়েছে। কিন্তু শ্রমজীবীদের কারও বেতন-ভাতা বাড়েনি।

‘আমরা সাম্প্রদায়িক হামলার নিন্দা জানাই। যাঁরা জড়িত, তাঁদের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। কিন্তু রাজনৈতিকভাবে কাউকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে আমরা বাধা দিই।’

দেশ নিয়ে দেশি ও আন্তর্জাতিক যড়যন্ত্র চলছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, যেখানে বিএনপির একটা ছোট কর্মসূচিতে এত পুলিশ থাকে, আর কুমিল্লার মন্দিরে কেন দুজন আনসার সদস্য রাখা হলো না!

মানববন্ধনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, পেঁয়াজের দাম, মরিচের দাম, চালের দাম, তেলের দাম বাড়লে এই সরকারের কী যায় আসে? বাংলাদেশের নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষ বাঁচল না মরল, তাতে তো তাদের কিছু যায় আসে না।

আরও পড়ুন:


পাগলীর জন্ম নেওয়া সন্তানের পিতা এমপি বদি

টস জিতে ফিল্ডিংয়ে পাকিস্তান

শোয়েব মালিককে ‘দুলাভাই’ ‘দুলাভাই’ বলে ডাকল ভারতীয় দর্শকরা (ভিডিও)

রুহুল কবির রিজভী বলেন, সয়াবিন তেলের দাম একলাফে সাত টাকা বেড়েছে। পৃথিবীর অন্য কোনো দেশে একলাফে তেলের দাম সাত টাকা বৃদ্ধি অসম্ভব ব্যাপার। কিন্তু এ দেশে সম্ভব। কে এর প্রতিবাদ করবে? প্রতিবাদ করলে তো আপনাকে যেতে হবে শ্রীঘরে অথবা লালঘরে। এটাই হলো বাস্তব অবস্থা।

news24bd.tv/তৌহিদ

পরবর্তী খবর

মামলার আসামিকে নৌকার প্রতীক দেওয়ায় প্রতিবাদ

অনলাইন ডেস্ক

মামলার আসামিকে নৌকার প্রতীক দেওয়ায় প্রতিবাদ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলা পূর্ব ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মানিলন্ডারিং মামলার আসামি আব্দুল্লাহ আল মামুনকে নৌকা প্রতীক দেওয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ। ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলা পূর্ব ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তাকে এই প্রতীক দেওয়া হয়।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে নবীনগর প্রেসক্লাবের সামনে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে প্রতিবাদ মানববন্ধন করে।

নবীনগর পূর্ব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শামছুল হকের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক নাছির উদ্দিন, পৌর ওয়ার্ড কাউন্সিলর গনী চান মকসুদ, ৪ নং আওয়ামী লীগ সভাপতি মাহবুর, পূর্ব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাদেক চৌধুরীসহ অরও অনেকে।

আরও পড়ুন:

মাকে পিটিয়ে হত্যা; ছেলের মৃত্যুদণ্ড

হিন্দু সম্প্রদায়ের মন্দিরে হামলা, বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ

ব্যক্তরা বলেন, আমাদের পূর্ব ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকে যাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে সে মানিলন্ডারিং মামলার আসামি। তার পরিবার জামায়াত-বিএনপির দলের সঙ্গে জড়িত। ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে অল্প বয়সী যুবককে নৌকা প্রতীকে দলীয়ভাবে মনোনয়ন দেওয়ায় আমরা তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। উপজেলা আওয়ামী লীগ ও জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের কাছে তারা আবেদন জানান, মামুনকে বাদ দিয়ে দলের সিনিয়র ও ত্যাগী নেতাদের মনোনয়ন দেওয়া হোক। তা না হলে ইউনিয়নবাসীরা আন্দোলন গড়ে তুলবে বলে জানায় তারা।

এ বিষয়ে জানতে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুন তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলো মিথ্যা ও বনোয়াট বলে দাবি করেন। তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, আমার অভিযোগগুলো মিথ্যা ও বনোয়াট। তাদের কাছে কোন প্রমাণ নেই।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে: হানিফ

নিজস্ব প্রতিবেদক

সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে: হানিফ

সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় যে দলেরই হোক যত বড় নেতা জড়িত হোক না কেন সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ।

বিস্তারিত আসছে...

আরও পড়ুন:


পাগলীর জন্ম নেওয়া সন্তানের পিতা এমপি বদি

টস জিতে ফিল্ডিংয়ে পাকিস্তান

শোয়েব মালিককে ‘দুলাভাই’ ‘দুলাভাই’ বলে ডাকল ভারতীয় দর্শকরা (ভিডিও)

news24bd.tv/তৌহিদ

 

পরবর্তী খবর

আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ৭০ লাখ মামলা হবে : মোহাম্মদ সিরাজ

অনলাইন ডেস্ক

আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ৭০ লাখ মামলা হবে : মোহাম্মদ সিরাজ

আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে পুলিশকে দিয়ে সারা দেশে বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনগুলোর বিরুদ্ধে এক লাখ রাজনৈতিক মামলা দেওয়া হয়েছে। আসামি করা হয়েছে ২৫ লাখ নেতা-কর্মীকে। তবে আওয়ামী লীগের পতন এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। আর এ সরকারের পতনের পর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে ৭০ লাখ মামলা হবে। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে যে মামলাগুলো হবে তা রাজনৈতিক কারণে হবে না-বরং গুম ও খুনের অভিযোগে দায়ের করা হবে বলে জানিয়েছেন বগুড়া জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও বগুড়া সদর আসনের সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) সিরাজ।

জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বুধবার দুপুরে বগুড়া শহরের নওয়াব বাড়ি সড়কে জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে যুব সমাবেশে  প্রধান অতিথি  বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।

সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশে বলেন, আপনারা আমাদের ভাই, আমাদের বোন, মা এবং বাবা। আপনারা রাষ্ট্রের হয়ে কাজ করুন। আপনাদের কোনো ভয় নেই।

আরও পড়ুন:

চাপের মুখে বাংলাদেশ

ইংল্যান্ড ম্যাচের আগে টাইগার শিবিরে বড় দুটি দুঃসংবাদ

শাহরুখের সাথে জুটি থেকে সরে দাঁড়ালেন নায়িকা


 

বগুড়া জেলা যুবদলের আহ্বায়ক খাদেমুল ইসলাম খাদেমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনের বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য মোশারফ হোসেন, জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি বগুড়া পৌরসভার মেয়র রেজাউল করিম বাদশা, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ফজলুল বারী তালুকদার বেলাল, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন ও বিএনপি নেতা আলী আজগর তালুকদার হেনা। সমাবেশটি সঞ্চালনা করেন যুবদল বগুড়া জেলা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলম। সমাবেশ শেষে মঞ্চে কেক কাটা হয় এবং সেই কেকগুলো এতিম খানার শিশুদের মাঝে বিতরণের ঘোষণা দেওয়া হয়।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর