নিহত সেই এএসআই’র গ্রামের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম
নিহত সেই এএসআই’র গ্রামের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম

নিহত সেই এএসআই’র গ্রামের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম

Other

রংপুরের হারাগাছে মাদক কারবারির ছুরিকাঘাতে নিহত পিয়ারুল ইসলামের কুড়িগ্রামের বাড়িতে চলছে এখন শোকের মাতম।

শুক্রবার মাঝরাতে মাদক কারবারি পারভেজ হাসান পলাশের ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত পিয়ারুলকে রাতেই রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সকালে তার মৃত্যু হয়। তার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পরলে পরিবারসহ এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য খোরশেদ আলম জানান, রংপুরের হারাগাছ থানায় কর্মরত এএসআই পিয়ারুল ইসলামের মৃত্যু মেনে নিতে পারছে না তার পরিবারসহ এলাকাবাসী। সে একজন স্বজ্জন ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত ছিল। তিন ভাইবোনের মধ্যে সে ছিল বড়। তার বাবা আব্দুর রহমান মিন্টু চন্দ্রপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন। পিয়ারুল ইসলাম দীর্ঘ একযুগ ধরে পুলিশ বিভাগে কর্মরত ছিলেন। সর্বশেষ রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ বিভাগের আওতায় হারাগাছ থানায় কর্মরত ছিলেন। তার দুটি পুত্র সন্তান রয়েছে। প্রথমটির বয়স ৭ এবং দ্বিতীয়টির বয়স দেড় বছর।

কুড়িগ্রামের রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ রাজু সরকার জানান, এএসআই পিয়ারুল ইসলামের প্রথম জানাযা নামাজ রংপুর পুলিশ লাইন মাঠে বিকেল সাড়ে ৩টায় অনুষ্ঠিত হয়। দ্বিতীয় জানাযা রাত ৯টায় তার গ্রামের বাড়ি কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার বিদ্যানন্দ ইউনিয়নের চন্দ্রপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। এরপর তাকে চন্দ্রপাড়া গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এসময় পুলিশ বিভাগের কর্মকর্তা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, গণ্যমান্য ব্যক্তি ও এলাকাবাসী অংশগ্রহন করেন।

আরও পড়ুন


নিউ ইয়র্ক থেকে ওয়াশিংটনে গেলেন প্রধানমন্ত্রী

ইভানার মৃত্যু: অবশেষে ব্যারিস্টার স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা নিল পুলিশ

বাংলাদেশে ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাবো’র আঘাত হানা নিয়ে যা জানা গেল

বঙ্গবন্ধু হত্যায় চুপ ছিল কেন রক্ষীবাহিনী


নিহত পিয়ারুল ইসলামের বাবা আব্দুর রহমান মিন্টু জানান, আমার সন্তানের মৃত্যু মেনে নিতে খুব কষ্ট হচ্ছে। সরকারি দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে জীবন দিয়েছে সে। এজন্য আমি গর্ব অনুভব করি। হত্যাকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) মধ্যরাতে রংপুরের হারাগাছে ডিউটিকালিন সময়ে সাহেবগঞ্জ এলাকায় গাজাসহ পারভেজ হাসান পলাশ নামে এক মাদক কারবারিকে আটক করেন তিনি। এসময় পলাশ তাকে ছুরিকাঘাত করলে গুরুতর অসুস্থ্য অবস্থায় পিয়ারুলকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতেই অস্ত্রোপচার শেষে আইসিইউতে তাকে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে নিবিড় তত্ত্বাবধানে থাকা অবস্থায় শনিবার সকাল ১১টার দিকে তিনি মারা যান।

news24bd.tv এসএম

;