১২ নারীকে ধর্ষণের পর ধরা ঝালাইমিস্ত্রি!

অনলাইন ডেস্ক

১২ নারীকে ধর্ষণের পর ধরা ঝালাইমিস্ত্রি!

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার যুবক সাগর মিজির পেশা ঝালাইমিস্ত্রি। চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করলেও ভার্চুয়াল জগতে নিজেকে তিনি স্নাতকোত্তর পাস পরিচয় দিতেন। একাধিক ভুয়া ফেসবুক আইডিও রয়েছে তাঁর। আর এসব আইডি ব্যবহার করে নারীদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলতেন তিনি।

সর্বশেষ চট্টগ্রামের এক তরুণীর সঙ্গে একই কৌশলে সম্পর্ক গড়ে তোলেন সাগর। এরপর গত ২০ সেপ্টেম্বর কক্সবাজারের একটি রিসোর্টে ওই তরুণীকে ধর্ষণের পর হত্যা করে পালিয়ে যান তিনি।

গত শনিবার রাতে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর সায়েদাবাদ বাসস্ট্যান্ড টোল প্লাজা এলাকা থেকে সাগর মিজি নামের ওই যুবককে গ্রেপ্তার করে এমন তথ্য পাওয়ার দাবি করেছে র‌্যাব। গতকাল রোববার বিকেলে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য দেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১০-এর পরিচালক অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক মাহ্ফুজুর রহমান জানান, গত ১৮ সেপ্টেম্বর সকালে কক্সবাজারের কলাতলী এলাকার একটি রিসোর্টে কক্ষ ভাড়া নেন সাগর মিজি। এরপর তিনি হোটেল কর্তৃপক্ষকে জানান, ২০ সেপ্টেম্বর তাঁর স্ত্রী ঢাকা থেকে আসবেন।

তখন দুজন থাকতে পারবেন, এমন একটি কক্ষ ভাড়া নেবেন। এরপর ২০ সেপ্টেম্বর সাগর স্ত্রী পরিচয় দিয়ে এক নারীকে নিয়ে ওই হোটেলে অবস্থান করেন। পরদিন সকালে হোটেল কর্তৃপক্ষ ওই কক্ষে কোনো সাড়া না পেয়ে দরজা ভেঙে তরুণীর লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে ওই তরুণীর লাশ উদ্ধার করে।

আরও পড়ুন:


প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহরে হামলার মামলার আসামি গ্রেপ্তার

কাল লাখ লাখ অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বন্ধ হয়ে যাবে!

আত্মহত্যা ছাড়া আর কোনো পথ দেখছি না: শাকিল


ঘটনার ছায়া তদন্তে নেমে প্রযুক্তির সাহায্যে সাগর মিজিকে শনাক্ত করে র‌্যাব জানায়, হোটেলে দেওয়া মোবাইল নম্বর ও অন্যান্য সূত্রের মাধ্যমে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে সাগর মিজিকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ওই তরুণীকে হত্যার দায় স্বীকার করেছেন। তাঁকে কক্সবাজার পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাগর র‌্যাবকে জানিয়েছেন, রিসোর্টের কক্ষে ওই তরুণীকে তিনি ধর্ষণ করেন। এ সময় নারীর সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় তাঁর। একপর্যায়ে ওই তরুণীর গলা চেপে ধরে দেওয়ালের সঙ্গে ধাক্কা দিলে মেঝেতে পড়ে যান। তখন ওই তরুণীর গলা টিপে ধরে পাশে থাকা গ্লাস দিয়ে কয়েকবার মাথায় সজোরে আঘাত করে হত্যা করেন।

র‌্যাব কর্মকর্তা মাহ্ফুজুর রহমান আরও জানান, এরই মধ্যে নিশ্চিত হওয়া গেছে, ধরা পড়ার আগে তিনি অন্তত ১২ নারীকে ধর্ষণ করেছেন। তবে তাঁদের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তাঁর ফাঁদে পা দেওয়া নারীদের মধ্যে স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া শিক্ষার্থীও রয়েছেন। এ বিষয়ে অনুসন্ধান করে দেখা হচ্ছে।

NEWS24.TV / কামরুল

পরবর্তী খবর

পূজামণ্ডপ কেন্দ্রিক ‘অপ্রীতিকর ঘটনায়’ ৭১ মামলায় আটক ৪৫০

অনলাইন ডেস্ক

পূজামণ্ডপ কেন্দ্রিক ‘অপ্রীতিকর ঘটনায়’ ৭১ মামলায় আটক ৪৫০

এ পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন স্থানে পূজামণ্ডপকেন্দ্রিক ‘অপ্রীতিকর ঘটনায়’ মামলা হয়েঠে ৭১টি। আর এসব ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ৪৫০ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার দিবাগতরাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানায় পুলিশ সদর দপ্তর। বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, আরো কিছু মামলা প্রক্রিয়াধীন। আটকের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে।

গণমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন পুলিশ সদর দপ্তরের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি) মো. কামরুজ্জামান। পূজামণ্ডপ কেন্দ্রিক অপ্রীতিকর ঘটনা অপরাধীদের গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন


শুধু তামিম নয়, বিশ্বকাপ খেলতে চায়নি আরও একজন: পাপন

তথ্য প্রতিমন্ত্রী শপথ ভঙ্গ করেছে, তার পদত্যাগ করা উচিত: জিএম কাদের

বিসিবি সভাপতির কাঠগড়ায় তিন 'সিনিয়র' খেলোয়াড়

দলে পরিবর্তন, এক নজরে ওমানের বিপক্ষে বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ


পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে কিছু ব্যক্তি বা গোষ্ঠী সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব ও বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। চক্রান্তকারীরা বিভিন্ন তথ্য বিকৃত বা অপব্যাখ্যা করে তা বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে সংঘাতমূলক পরিস্থিতি সৃষ্টির অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব ও বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারীদের মনিটর করছে পুলিশ। যারা এ ধরণের কাজ করেছে বা করছে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

গভীর রাতে ভাবিকে দেবরের ধর্ষণ!

অনলাইন ডেস্ক

গভীর রাতে ভাবিকে দেবরের ধর্ষণ!

দেবরের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন ভাবি। ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ অভিযুক্ত রাজন ফকিরকে (২৪) গ্রেফতার করেছে। রাজন রুপাপাত ইউনিয়নের সূর্যোগ এলাকার বাসিন্দা। গ্রেফতার করে তাকে সোমবার দুপুরে ফরিদপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে। 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ১৬ অক্টোবর রাতে ওই গৃহবধূর স্বামী কাটাগড় মাজারে গান শুনতে যায়। দুই মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে গৃহবধূ (৩০) তার ঘরে ঘুমিয়ে পড়ে। রাত একটার দিকে রাজন ফকির ঘরে প্রবেশ করে তাকে ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে। সকালে তার স্বামী বাড়িতে ফিরলে সব ঘটনা খুলে বলে।  রবিবার রাতে ভাবি বাদী হয়ে দেবর রাজন ফকিরের বিরুদ্ধে বোয়ালমারী থানায় মামলা করেন। পরে পুলিশ রাজন ফকিরকে (২৪) গ্রেফতার করে।


আরও পড়ুন

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

শরীরের ইমিউনিটির উপর বিশ্বাসী অভিনেত্রী করোনায় আক্রান্ত

অনিয়ন্ত্রিত পতিতাবৃত্তি বন্ধ করতে চান স্পেনের প্রধানমন্ত্রী

অবরোধ তুলে নিলো ঢাবি শিক্ষার্থীরা


বোয়ালমারী থানা অফিসার ইন চার্জ মোহাম্মদ নুরুল আলম জানান, মামলার পর অভিযুক্ত রাজনকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সোমবার আসামিকে ফরিদপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে এবং ওই গৃহবধূকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত 

পরবর্তী খবর

শিশু নাতনীকে ধর্ষণের অভিযোগে দাদা গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

শিশু নাতনীকে ধর্ষণের অভিযোগে দাদা গ্রেপ্তার

বরিশালের গৌরনদীতে ১১ বছরের এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী নাতনীকে ধর্ষণের অভিযোগে পালক দাদা সিদ্দিক সরদারকে (৬০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর ইউনিয়নের দক্ষিণ-পশ্চিমপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। 

গ্রেপ্তারকৃত সিদ্দিক ওই গ্রামের মৃত আব্দুল গনি সরদারের ছেলে।

আরও পড়ুন:


ইভ্যালিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের সর্বোচ্চ চেষ্টা করব: বিচারপতি মানিক

করোনা: দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু কমলেও বেড়েছে শনাক্ত

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

ডিএমপি কমিশনার ও র‍্যাব ডিজি’র পদোন্নতি


বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গৌরনদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আফজাল হোসেন।

তিনি জানান, বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী শিশু নাতনীকে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ এনে ভুক্তভোগীর খালা বাদী হয়ে রোববার (১৭ অক্টোবর) রাতে থানায় মামলা করেছেন। এরপর ওই রাতেই অভিযান চালিয়ে মামলার একমাত্র আসামি সিদ্দিক সরদারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, সোমবার (১৮ অক্টোবর) দুপুরে অভিযুক্তকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv/ কামরুল 

পরবর্তী খবর

স্ত্রীর প্রেমিককে হত্যার সিসিটিভি ফুটেজ ভাইরাল : গ্রেপ্তার ২

অনলাইন ডেস্ক

স্ত্রীর প্রেমিককে হত্যার  সিসিটিভি ফুটেজ ভাইরাল : গ্রেপ্তার ২

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় চাঞ্চল্যকর সুজন ফকিরের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী মো. আব্দুল মজিদ এবং এই হত্যাকাণ্ডে সরাসরি অংশ নেওয়া মো. মোয়াজ্জেম হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-১১। ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে নাটোরের বাগাতিপাড়া থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

আজ সোমবার দুপুরে সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজীনগরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‍্যাব-১১ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল তানভীর মাহমুদ পাশা।

গত শনিবার সকালে ফতুল্লা থানাধীন নয়াবাজার এলাকায় হত্যাকাণ্ডটি সংঘটিত হয়। সে ঘটনায় সুজন ফকির নামক এক ব্যক্তির লাশ দেখে তার বাবা সজিব ফকির (৪৫) শনাক্ত করেন। উক্ত ঘটনার অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে নিহতের ছেলে ফতুল্লা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরই মধ্যে হত্যাকাণ্ডের একটি সিসিটিভি ফুটেজে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

র‍্যাব-১১ ও র‍্যাব-৫ এর একটি দল নাটোরের বাগাতিপাড়ায় যৌথ অভিযান চালিয়ে সুজন ফকির হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী, নাটোরের বাগাতিপাড়ার আফাজের ছেলে আব্দুল মজিদ (৩৭) ও হত্যাকাণ্ডে সরাসরি অংশগ্রহণকারী মহাকাতের ছেলে মোয়াজ্জেম হোসেন (২৮) কে গ্রেপ্তার করে।

প্রাথমিক অনুসন্ধান ও আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী মো. আব্দুল মজিদের স্ত্রীর সঙ্গে নিহত সুজন ফকিরের সম্পর্ক ছিল। ফলে মজিদ ও তার স্ত্রীর মধ্যে দাম্পত্য সম্পর্কের অবনতি ঘটে। এর সূত্র ধরেই গত ৫ অক্টোবর আব্দুল মজিদের স্ত্রী কাউকে কিছু না বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। তখন থেকেই মজিদ তার ভাতিজা মোয়াজ্জেম হোসেনকে নিয়ে সুজন ফকিরকে হত্যার পরিকল্পনা করে।


আরও পড়ুন

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

শরীরের ইমিউনিটির উপর বিশ্বাসী অভিনেত্রী করোনায় আক্রান্ত

অনিয়ন্ত্রিত পতিতাবৃত্তি বন্ধ করতে চান স্পেনের প্রধানমন্ত্রী

অবরোধ তুলে নিলো ঢাবি শিক্ষার্থীরা


হত্যাকাণ্ডে অংশগ্রহণকারী আরেক সদস্য মো.হাসান (২২) দেশের বিভিন্ন এলাকায় আত্মগোপন করে আছে। তাকে গ্রেপ্তার করার জন্য র‍্যাব-১১ এর অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত 

পরবর্তী খবর

হাতের ব্যান্ডেজে একাধিক মোবাইল!

অনলাইন ডেস্ক

হাতের ব্যান্ডেজে একাধিক মোবাইল!

ভারত থেকে আসা  এক বাংলাদেশি পাসপোর্ট যাত্রীর ব্যান্ডেজ করা হাতের মধ্য থেকে ১৫ টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করেছে কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যরা। ওই ব্যক্তির নাম সানাউল্লাহ।

আজ সোমবার সকাল সাড়ে ১১টার সময় বেনাপোল চেকপোষ্ট কাস্টমস তল্লাশি কেন্দ্র থেকে তার নিকট থেকে মোবাইল ফোনগুলো উদ্ধার করা হয়।

এরককম অভিনব পন্থায় ভারত থেকে মোবাইলগুলো নিয়ে আনা হয়। এসময় শুল্ক গোয়েন্দাদের সন্দেহ হলে তাকে তল্লাশি করে মোবাইলগুলো উদ্ধার করা হয়।

চট্রগ্রাম জেলার মোহাম্মাদ সানাউল্লাহ সাতকানিয়া থানার সামিয়া পাড়া এলাকার নুরুল আমিনের ছেলে।

কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, পাসপোর্টযাত্রী সানাউল্লাহ কাস্টমস থেকে বের হয়ে হওয়ার পর তার হাতে ব্যান্ডেজ দেখে সন্দেহ হয়। এরপর তাকে তল্লাশি করে ব্যান্ডেজ এর মধ্যে থেকে ১৫টি ভারতীয় মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।


আরও পড়ুন

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

শরীরের ইমিউনিটির উপর বিশ্বাসী অভিনেত্রী করোনায় আক্রান্ত

অনিয়ন্ত্রিত পতিতাবৃত্তি বন্ধ করতে চান স্পেনের প্রধানমন্ত্রী

অবরোধ তুলে নিলো ঢাবি শিক্ষার্থীরা


এসময় তার ল্যাগেজ থেকে জিন্স প্যান্ট, লেহেঙ্গা, জুতা, স্যান্ডেল, গেঞ্জি, কসমেটিক্সসহ বিভিন্ন পণ্যও উদ্ধার করা হয়।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত 

পরবর্তী খবর