গবেষণায় মাল্টি মিলিয়ন রিসার্স গ্র্যান্ট পেল আইইউবি’র গবেষক দল

অনলাইন ডেস্ক

গবেষণায় মাল্টি মিলিয়ন রিসার্স গ্র্যান্ট পেল আইইউবি’র গবেষক দল

ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ (আইইউবি)-এর একদল গবেষক সাম্প্রতিক সময়ে অসামান্য সফলতা অর্জন করেছে। এই অর্জনের ফলে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে আইইউবি’র অধ্যাপক-ছাত্রছাত্রীদের গবেষণার সুযোগ তরান্বিত হয়েছে এবং আইইউবি এই অর্জনে গর্ববোধ করে। 

গবেষকদের অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তি আইইউবি’র জন্য অত্যন্ত সম্মানের উল্লেখ করে, আইইউবি’র উপাচার্য তানভীর হাসান, পিএইচডি বলেন, “জ্ঞান বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় বিশ্বমানের গবেষণাকে আইইউবি  সহযোগিতা ও উৎসাহ প্রদান করে থাকে। এই অর্জন আইইউবি'র অসামান্য গবেষণা পরিবেশের স্বীকৃতি দেয়”। তাঁদের এই অর্জন বাংলাদেশে পরিচালিত মানসম্মত সায়েন্টিফিক গবেষণার উপর দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব ফেলবে বলেও তিনি মনে করেন। 

আইইউবি-এর এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড লাইফ সায়েন্সেসের ডিন বিশিষ্ট বিজ্ঞানী অধ্যাপক শাহ এম ফারুকের গবেষণায় অসাধারণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংস্থা “ওয়েলকাম ট্রাস্ট” কলেরার মতো পানি বাহিত মহামারী নিয়ন্ত্রণে গবেষণা করতে ও জনসাধারণের মধ্যে পানি বাহিত রোগ সম্পর্কে সচেতনতা  সৃষ্টির লক্ষে আগামী আড়াই বছরের জন্য প্রায় এক দশমিক দুই মিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রদান করবে। বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় বিজ্ঞানীদের সমন্বয়ে একটি প্যানেলের মাধ্যমে নির্বাচিত হয়ে অধ্যাপক ফারুক এই সিনিয়র ইনভেস্টিগেটর অ্যাওয়ার্ডটি পেয়েছেন। বাংলাদেশের একমাত্র বিজ্ঞানী হিসেবে তিনি এই অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন।

আইইউবি’র ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর ক্লাইমেট চেঞ্জ অ্যান্ড ডেভলপমেন্টের পরিচালক এর অধ্যাপক ড. সালিমুল হক নরহেড (নরওয়েজিয়ান প্রোগ্রাম ফর ক্যাপাসিটি ডেভেলপমেন্ট ইন হায়ার এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ) থেকে অত্যন্ত সম্মানিত কলোক্যাল গ্রান্ট পেয়েছেন। অধ্যাপক ড. সালিমুল হক ২০১৯ ও ২০২০ সালে জলবায়ু পরিবর্তন নীতি প্রনয়ণে ভূমিকার জন্য শীর্ষ বিশ প্রভাবশালীদের একজন হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন। 

তিনি বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী জলবায়ু বিজ্ঞানীদের মধ্যে একমাত্র বাংলাদেশি বিজ্ঞানী হিসেবে রয়টার্সের হটলিস্টে ২০৮ তম স্থান অর্জন করেছেন। আইইউবি’র এনভাইরনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বিভাগের প্রধান ড. খন্দকার আয়াজ রাব্বানি এই প্রকল্পের সমন্বয়কারী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। 

রও পড়ুন:

একাধিক পদে নিয়োগ দেবে বেক্সিমকো

বিয়ের আগেই পাত্রের মাকে নিয়ে পালিয়ে গেল পাত্রীর বাবা!

বিশ্বকাপের আগে কোহলিকে স্বস্তি দিলেন অশ্বিন

ইংরেজি শেখার জন্য বিয়ে করেছিলেন শেবাগ-যুবরাজ-হরভজন!!


ছয় বছরের (২০২১-২০১৬) এ প্রকল্পের মধ্যে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে রয়েছে মেকেরের ইউনিভার্সিটি (উগান্ডা), এডুয়ার্ডো মন্ডলেন ইউনিভার্সিটি (মোজাম্বিক), পোখারা ইউনিভার্সিটি (নেপাল), স্কুল অফ এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট ও নরওয়েজিয়ান ইউনিভার্সিটি অব লাইফ সায়েন্সেস (নরওয়েজিয়ান ইনস্টিটিউশন)। 

গবেষণাটি স্বল্পোন্নত দেশে জলবায়ু পরিবর্তনের স্থানীয় অভিযোজন নিয়ে সম্প্রতি ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ) প্রোগ্রামের সমন্বয়কারী বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে কাজ করছে। এই প্রকল্পের মোট তহবিল ২০ লাখ ডলার। দুটি গ্রান্টই আইইউবি’র জন্য আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সম্মান বৃদ্ধি করবে।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

সিনিয়রকে নাম ধরে ডাকায় ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে মারামারি, আহত ১০

অনলাইন ডেস্ক

সিনিয়রকে নাম ধরে ডাকায় ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে মারামারি, আহত ১০

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) সিনিয়রকে নাম ধরে ডাকাকে কেন্দ্র করে শাখা ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন।

গতকাল রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হলে এ ঘটনা ঘটে। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল বিকেলে ধীরেন্দ্রনাথ হল শাখা ছাত্রলীগের কর্মী ও পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের ১৩তম ব্যাচের শিক্ষার্থী রিয়াজুল ইসলাম বাঁধন নিজের রুমে অর্থনীতি বিভাগের ১২তম ব্যাচের শিক্ষার্থী তানজিম আহমেদ সোহাগের নাম ধরে ডাকেন।

ওই রুমের বাসিন্দা সোহাগের বন্ধু ওয়াকিল বিষয়টি শুনলে ১২ ব্যাচের আইন বিভাগের শিক্ষার্থী শাফী, সোহাগ ও ওয়াকিল ২০০৩ নং রুমে বাঁধনকে ডেকে শাসান। একপর্যায়ে তারা চড় মারেন। এরপর বাঁধন বিষয়টি জানালে ১৩ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা একত্রিত হয়। রাত সাড়ে ১০টার দিকে ২০০৩ নং রুম থেকে শাফীকে ডেকে নিয়ে যান ১৩ ব্যাচের সাদমান।

এ সময় হানিফ, সাদমান, মিরাজ, রবিনসহ ৮-১০ জন শাফীকে এলোপাতাড়ি মারধর করেন। পরে হল শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা ১৩ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের ৩০৩ নং রুমে একদফা মারধর করেন। এরপর শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম মাজেদের রুমে (৩০১) ডেকে নিয়ে বিচারের নামে আধঘণ্টা ধরে ফের তাদের মারধর করেন শাখা ও হল ছাত্রলীগের নেতারা। এ সময় ১৩ ব্যাচের বেশ কয়েকজন আহত হন।

এ বিষয়ে ১৩ ব্যাচের কর্মী হানিফ ভূঁইয়া বলেন, আমাদের বন্ধুকে মারধরের বিষয়ে জানতে তাদের রুমে যাই। তবে আমরা কাউকে আঘাত করিনি।

অন্যদিকে ১২ ব্যাচের শাফী বলেন, আমি হলের সিনিয়র হিসেবে জুনিয়রদের আচরণের বিষয়ে তাদের বুঝিয়ে বলি। কিন্তু তারা এসে আমাকে বেধড়ক মারধর শুরু করে। আমি এর বিচার চাই।

ধীরেন্দ্রনাথ হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাফিউল আলম দীপ্ত বলেন, হলের অভ্যন্তরীণ একটি বিষয়ে ১২ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ১৩ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। আমিসহ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বসে বিষয়টি মীমাংসা করে দিয়েছি।

আরও পড়ুন


থেমে-থেমে জ্বর আসছে খালেদা জিয়ার, খাচ্ছেনও খুবই অল্প

কুমিল্লার ঘটনা উদ্দেশ্যমূলক ও পরিকল্পিত: রিজভী

যুক্তরাষ্ট্রে উড়াল দিলেন মৌসুমী, ভিসা মেলেনি ওমর সানীর

ক্ষমতায় যাওয়ার বিএনপির রঙিন খোয়াব অচিরেই দুঃস্বপ্নে পরিণত হবে: কাদের


এ বিষয়ে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম মাজেদ বলেন, আজকের ঘটনায় জড়িত সকলে হল শাখা ছাত্রলীগের কর্মী। নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি থেকে হাতাহাতি হয়েছে। আমরা সিনিয়রদের সঙ্গে বসে বিষয়টি সমাধান করেছি। পরবর্তীতে সভাপতির সঙ্গে কথা বলে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

ঘটনাটি নিয়ে হল প্রভোস্ট ড. মোহাম্মদ জুলহাস মিয়ার সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমি জানতে পেরেছি। এটি হলের অভ্যন্তরীণ বিষয়, আমরা বসে বিষয়টি সমাধান করে দেব।

অন্যদিকে, প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন বলেন, হল প্রভোস্টসহ হলের যারা দায়িত্বে রয়েছেন তারা প্রক্টর বরাবর অভিযোগ দিলে বিষয়টি খতিয়ে দেখবো।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

এসএজিসি ক্লাবের বিজ্ঞানমেলায় উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরা

অনলাইন ডেস্ক

এসএজিসি ক্লাবের বিজ্ঞানমেলায় উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরা

শহিদ বীর-উত্তম লে. আনোয়ার গার্লস কলেজের বিজ্ঞান ক্লাব প্রতিবছর সাফল্যের সাথে বিজ্ঞান মেলার আয়োজন করে আসছে। করোনা অতিমারীকালেও প্রতিষ্ঠানের এই আয়োজন থেমে থাকেনি। এ বছরও উক্ত ক্লাবটির পরিচালনায় ৫ম বারের মতো আয়োজিত হয়েছে "অকো-টেক্স গ্রুপ প্রেজেন্টস এসএজিসি ৫ম বিজ্ঞান উৎসব-২০২১(অনলাইন)।"

করোনা অতিমারির প্রতিকূল পরিস্থিতির কারণে বিজ্ঞান মেলাটির বিভিন্ন কার্যক্রম অনলাইনে পরিচালিত হয়। বর্তমান প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানমনস্ক করে গড়ে তোলার লক্ষ্যেই এই বিজ্ঞান উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। মেলাটি অনুষ্ঠিত হয় ১০ জুন, ২০২১ থেকে ১২ জুন, ২০২১ পর্যন্ত। 

করোনা অতিমারির কারণে সেসময় বিজ্ঞান উৎসবের পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠান আয়োজন করা সম্ভব হয় নি। কিন্তু বর্তমানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে শ্রেণীকক্ষে শিক্ষা কার্যক্রম চালু হয়েছে। করোনা অতিমারির প্রকোপে গৃহবন্দি জীবনের অবসাদ কাটিয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রাণের স্পন্দন ফিরিয়ে আনতে ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ তারিখে এসএজিসি বিজ্ঞান ক্লাব "অকো-টেক্স গ্রুপ প্রেজেন্টস এসএজিসি ৫ম বিজ্ঞান উৎসব-২০২১" এর সমাপনী উৎসবের (অফলাইন) আয়োজন করে।

বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ক্ষুদে বিজ্ঞানীদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে জাঁকজমকপূর্ণ হয়ে ওঠে অনুষ্ঠানটি। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অত্র প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদের সম্মানিত সভাপতি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল কে এম আমিরুল ইসলাম, এসপিপি এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মিসেস আসমাউল হুসনা।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, "একজন শিক্ষার্থীর সঠিক বিকাশের জন্য কেবল প্রাতিষ্ঠানিক লেখাপড়াই যথার্থ নয়। লেখাপড়ার পাশাপাশি সহশিক্ষা কার্যক্রম, প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান, এমনকি বিজ্ঞান উৎসবের আয়োজনেরও প্রয়োজন আছে। শিক্ষার্থীদের অনুসন্ধিৎসু ও বিজ্ঞানমনস্ক করে তোলার পাশাপাশি তাদের মেধাকে শাণিত করার এই প্রয়াসকে স্বাগত জানাই।"

আরও পড়ুন:

বিশ্ব ক্ষুধা সূচকে ভারত-পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

ফাইনালে কলকাতা-চেন্নাইয়ের সম্ভাব্য একাদশ, সাকিব থাকছেন কি?

ভিড়ের মধ্যে কান্না করা শিশুকে ঘিরে আসল রহস্য উদঘাটন

যে কারণে ব্রাজিলের রেফারিকে নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করলেন মেসি


এ জাতীয় আয়োজন বর্তমান প্রজন্মের জন্য সৃষ্টি করেছে বিজ্ঞান চর্চার এক উজ্জ্বল ক্ষেত্র। "চ্যালেঞ্জ ইয়োর ইনার জিনিয়াস" শিরোনামে আয়োজিত এই বিজ্ঞান উৎসবের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের ১২৯টি স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রী অংশগ্রহণের মাধ্যমে তাদের বিজ্ঞানমনস্ক মনোভাবের প্রকাশ ঘটাতে পেরেছে এবং তাদের সুপ্ত প্রতিভাকে বিকশিত করার সুযোগ লাভ করেছে।

বর্ণাঢ্য এ বিজ্ঞান উৎসবে ২৮টি সেগমেন্টে বিভিন্ন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। যার মধ্যে অন্যতম হলো রোবটিক্স অলিম্পিয়াড, গণিত অলিম্পিয়াড, পদার্থবিজ্ঞান অলিম্পিয়াড, জীববিজ্ঞান অলিম্পিয়াড, সলো কুইজ, পপ কুইজ, উপস্থিত বক্তৃতা, দলীয় কুইজ প্রতিযোগিতা, মাল্টিমিডিয়া প্রেজেন্টেশন, প্রজেক্ট ডিসপ্লে। অনলাইনে শিক্ষার্থীদের প্রজেক্ট ডিসপ্লে বিজ্ঞান মেলায় যুক্ত করেছে এক ভিন্ন মাত্রা।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

সেরা গবেষকের তালিকায় ঠাকুরগাঁওয়ের প্রফেসর ড. আনোয়ার খসরু

আব্দুল লতিফ লিটু, ঠাকুরগাঁও

সেরা গবেষকের তালিকায় ঠাকুরগাঁওয়ের প্রফেসর ড. আনোয়ার খসরু

আন্তর্জাতিক সংস্থা আলপার-ডগার (এডি) বৈজ্ঞানিক সূচকে এর বিশ্বসেরা বিজ্ঞানী ও গবেষকদের তালিকায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ৪৯ জন শিক্ষক স্থান পেয়েছেন।

গত রোববার এডি সাইন্টিফিক ইনডেক্স নামে আন্তর্জাতিক খ্যাতনামা এ সংস্থা সারা বিশ্বের ৭ লাখেরও বেশি বিজ্ঞানীর ও গবেষকের সাইটেশান এবং অন্যান্য ইনডেক্সের ভিত্তিতে এই তালিকা প্রকাশ করেছে। ৪৯ জন শিক্ষকের মধ্যে ঠাকুরগাঁওয়ের প্রফেসর ড. আনোয়ার খসরু পারভেজ রয়েছেন।

প্রফেসর ড. আনোয়ার খসরু পারভেজ ১৯৭৩ সালে ঠাকুরগাঁওয়ের কালিবাড়িতে জন্মগ্রহন করেন। তিনি মৃত আব্দুর রউফ এর কনিষ্ঠ পুত্র। পেশাগত জীবনে তিনি দীর্ঘ ২২ বছর ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন। বর্তমানে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের অধ্যাপক এবং প্রেষণে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে কোষাধ্যক্ষ হিসেবে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করছেন।

তিনি কৃতিত্বের সাথে ঠাকুরগাঁও জেলা স্কুল থেকে এসএসসি এবং ঢাকা কলেজ থেকে এইচএসসি পাশের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগ থেকে বিএসসি ও এমএসসি সম্পন্ন করেন। জাপানের ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জীবপ্রযুক্তি ও জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে ইউনেস্কো আইসি-বায়োটেক পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা করেছেন ২০০৩ সালে। প্রথম পিএইচডি করেছেন মাইক্রোবায়োলজি বিষয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০০৫ সালে এবং দ্বিতীয়বার মোনবুকাগাকুশো বৃত্তি নিয়ে পিএইচডি করেন ফার্মাসিউটিক্যাল সায়েন্সে টোকুশিমা বিশ্ববিদ্যালয় জাপান থেকে ২০০৮ সালে। এরপর ইরাসমাস  মুন্ডাস বৃত্তি নিয়ে পোস্ট ডক্টরাল গবেষণা সম্পন্ন করেন ইতালির মিলান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে।

একজন পেশাদার দক্ষ মাইক্রোবায়োলজিস্ট হিসেবে গবেষণা করছেন কোভিড-১৯, ডেংগু, আণবিক ওষুধ ও সংক্রামক রোগ, পরজীবী, ক্লিনিক্যাল এবং পরিবেশগত মাইক্রোবায়োলজিসহ উদীয়মান সংক্রামক রোগ নিয়ে। তিনি উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শিক্ষার্থীদের গবেষণা কর্মের তত্ত্বাবধান করছেন। আন্তর্জাতিক কোলাবোরেটিভ গবেষণার সাথেও যুক্ত আছেন। তাঁর বুক চ্যাপ্টারসহ দেশি বিদেশি ৮০ টিরও অধিক প্রকাশনা রয়েছে। তিনি বর্তমানে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জার্নাল 'PUST STUDIES'-এর চিফ এডিটর হিসেবেও কাজ করছেন।

আরও পড়ুন


ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীকে ছাত্রলীগ নেতার ধর্ষণ, মামলা থেকে বাঁচতে বিয়ে

যে কারণে মোবাইল ইন্টারনেট বন্ধ, জানাল বিটিআরসি

পদার্থবিজ্ঞানে অবদানের জন্য ‘মুস্তফা পুরস্কার’ পেলেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী জাহিদ হাসান

উরুগুয়েকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে জয়ে ফিরল ব্রাজিল


তিনি বিশেষত কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড পয়েন্ট-অফ কেয়ারে আরটি-পিসিআর পরীক্ষাগার স্থাপনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে গত এক বছর ধরে সরকারিভাবে অংশ নিয়েছেন। এছাড়া ঠাকুরগাঁও টিবি ক্লিনিক এবং পাবনা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে একজন বিশেষজ্ঞ হিসেবেও কাজ করেছেন।

একুশে বই মেলা-২০২১’ এ- প্রকাশিত হয়েছিল প্রফেসর ড. মো: আনোয়ার খসরু পারভেজের করোনা নিয়ে লেখা প্রবন্ধের গ্রন্থ- ‘বাংলাদেশের করোনা প্রেক্ষাপট ও চালচিত্র’। বর্তমান পেক্ষাপটে ডিজিটাল প্লাটর্ফমের সাথে তাল মিলিয়ে খাদ্য, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বর্জব্যবস্থাপনাসহ নানা বিষয়ে গবেষণার মধ্যে দিয়ে দেশকে এগিয়ে নিতে কার্য পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন। তার এমন খুশির খবর ছড়িয়ে পরায় স্থানীয় ও দুর দুরান্তের গুনীজনরা মিলিত হচ্ছেন এবং কুশল বিনিময় করছেন তার সাথে।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

মাদরাসা বোর্ডের পরীক্ষা ২৪ থেকে ৩০ নভেম্বর

অনলাইন ডেস্ক

মাদরাসা বোর্ডের পরীক্ষা ২৪ থেকে ৩০ নভেম্বর

দাখিল ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে ৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষা এবং দাখিল ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নির্বাচনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৪ নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বরের মধ্যে।

কুরআন মাজিদ ও তাজভিদ ,বাংলা, ইংরেজী এবং সাধারণ গণিত বিষয়ে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা দিতে হবে।

৫০ নম্বরের প্রশ্নপত্রে ১ ঘণ্টা ৩০মিনিট পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

আরও পড়ুন:


আওয়ামী লীগ বলেছে, তারা সেদিকে যাবে না: ফখরুল

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইপিএল নিয়ে জুয়া, ৩ জনের সাজা

কুমিল্লার ঘটনায় যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


নির্ধারিত বিষয়সমূহে যে সকল অধ্যায় থেকে অ্যাসাইনমেন্ট দেওয়া হয়েছে সে সকল অধ্যায় এবং গত ১২ সেপ্টেম্বর থেকে শ্রেণিকক্ষে যে সকল অধ্যায়ের ওপর পাঠদান করা হয়েছে তা হবে দাখিল ৬ষ্ঠ থেকে দাখিল ১০ম শ্রেণির সিলেবাস। 

প্রত্যেক শিক্ষার্থীর বার্ষিক পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের সঙ্গে চলমান সকল বিষয়ের আসাইনমেন্টের ওপর ৪০ নম্বর যোগ করতে হবে এবং পরিস্কার- পরিচ্ছন্নতা  ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ওপর ১০ নম্বর যোগ করে মোট ১০০ নম্বরের মূল্যায়ন রির্পোট প্রদান করা হবে। ২০২১ শিক্ষাবর্ষে এ ছাড়া অন্য কোনো পরীক্ষা নেওয়া যাবে না।

news24bd.tv/তৌহিদ

পরবর্তী খবর

মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের জন্য যেসব নির্দেশনা দিল মাউশি

অনলাইন ডেস্ক

মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের জন্য যেসব নির্দেশনা দিল মাউশি

আগামী ২৪ নভেম্বর থেকে শুরু হবে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষা। এক বিজ্ঞপ্তিতে বুধবার (১৩ অক্টোবর) মাউশির মহাপরিচালক প্রফেসর ড. সৈয়দ গোলাম ফারুক এ নির্দেশ দিয়েছেন। একই সঙ্গে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে। আর এসব পরীক্ষা আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে শেষ করারও নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা যেসব নির্দেশনা মেনে অনুষ্ঠিত হবে -

১. বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণ গণিত বিষয়ে পরীক্ষা নিতে হবে।
২. পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের মান হবে ৫০ নম্বরের। 
৩. প্রতিটি বিষয়ের পরীক্ষার সময় হবে ১ ঘণ্টা ৩০ মিনিট।

যে সিলেবাস অনুসরণ করে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে -

যেসব অধ্যায় থেকে অ্যাসাইনমেন্ট (বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণ গণিত বিষয়) দেওয়া হয়েছে সেসব অধ্যায় এবং ১২/০১/২০২১ হতে শ্রেণিকক্ষে যেসব অধ্যায়ের ওপর পাঠদান করা হয়েছে তা ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য সিলেবাস।

আরও পড়ুন


প্রলোভন দেখিয়ে অর্ধশত নারীকে মধ্যপ্রাচ্যে পাঠিয়ে বিক্রি, গ্রেপ্তার ৮

আজ মহানবমী, কাল বিদায় নেবে দেবীদূর্গা

বরকে ফেলে সোনাসহ ‘প্রেমিক’ চাচার সঙ্গে পালালেন নববধূ

কুষ্টিয়ায় ডাইলুশন ড্রপে মাদকসহ র‌্যাবের হাতে একজন আটক


যেভাবে হবে বার্ষিক/নির্বাচনী পরীক্ষার নম্বর বিন্যাস -

(ক) বাংলা (প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র) বিষয়ের নম্বর হবে-৫০ (লিখিত ৩৫ + এমসিকিউ ১৫)।
(খ) ইংরেজি (প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র) বিষয়ের নম্বর হবে-৫০ (প্রথম পত্র ৩০ + দ্বিতীয় পত্র ২০)।
(গ) সাধারণ গণিত বিষয়ের নম্বর হবে-৫০ (লিখিত ৩৫ + এমসিকিউ১৫)।
(ঘ) প্রত্যেক শিক্ষার্থীর বার্ষিক পরীক্ষার নম্বরের সঙ্গে চলমান সকল বিষয়ের অ্যাসাইনমেন্টের ওপর ৪০ নম্বর যোগ করতে হবে।
(ঙ) বার্ষিক পরীক্ষায় সপ্তম শ্রেণি থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ওপর আরও ১০ নম্বর যোগ করতে হবে।

উল্লেখ্য, ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার সঙ্গে বৃক্ষরোপণ প্রকল্পে তাদের কর্মতৎপরতা যুক্ত করে এই ১০ নম্বর যোগ করতে হবে।

(চ) অর্থাৎ মোট ১০০ নম্বরের (৫০+৪০+১০) ওপর প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে মূল্যায়নপূর্বক বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল তৈরি করে শিক্ষার্থীদের প্রগ্রেসিভ রিপোর্ট প্রদান করতে হবে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ২০২১ শিক্ষাবর্ষে এ পরীক্ষা ছাড়া অন্য কোনো পরীক্ষা নেওয়া যাবে না এবং অবশ্যই যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে বার্ষিক ও নির্বাচনী পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে হবে।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর