রাগ করে বাইকে আগুন দিয়েছি, আমি অনুতপ্ত বললেন সেই শওকত
রাগ করে বাইকে আগুন দিয়েছি, আমি অনুতপ্ত বললেন সেই শওকত

রাগ করে বাইকে আগুন দিয়েছি, আমি অনুতপ্ত বললেন সেই শওকত

অনলাইন ডেস্ক

রাজধানীর বাড্ডার লিংক রোডে শওকত আলম নামের এক পাঠাও চালক নিজের মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেন। আজ  সকাল পৌনে ১০টার দিকে বাড্ডা লিংক রোড এলাকায় জনতা ইন্স্যুরেন্সের সামনে এ ঘটনা ঘটে।  

ঘটনাটি আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়েছে শুধু তাই নয় এ ঘটনার জেরে অ্যাপ-বেইজড ড্রাইভারস ইউনিয়ন অব বাংলাদেশ (ডিআরডিইউ) কাল সারা দেশে কর্মবিরতির ঘোষণা দিয়েছে। এসময় তারা পুলিশি হয়রানির বন্ধসহ ছয় দফা দাবিও পেশ করেছে।

তবে যাকে ঘিরে এত কিছু সেই শওকত বলছেন ভিন্ন কথা। ঘটনার পর পুড়ে যাওয়া মোটরসাইকেল ও শওকত আলমকে বাড্ডা থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। পরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

শওকত আলম সোহেল বলেন, ‌আমার নিজের ইচ্ছায়ই গাড়ি (মোটরসাইকেল) জ্বালাইছি। এতে তো আমারই ক্ষতি হলো। রাগ করতে গিয়ে নিজের গাড়িই জ্বালিয়ে দিলাম। পুলিশের কোনো দোষ নেই। আমি কেরানীগঞ্জে ব্যবসা করতাম। দেড় মাস ধরে পাঠাও চালাই। গত সপ্তাহেও আমাকে একটা মামলা দেওয়া হয়েছিল। আজ ট্রাফিক পুলিশ আবারও মামলা দিতে গেলে আমি রেগে গিয়ে বাইকে আগুন দেই।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেন এ ঘটনা ঘটিয়েছি তা জানতে চেয়েছে। এখন আমি এলাকায় চলে যাচ্ছি। আমি এ ঘটনায় অনুতপ্ত।

এ বিষয়ে বাড্ডা থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, সকালে বাড্ডা এলাকায় একটি ঘটনা ঘটে। আমরা তার পোড়ানো গাড়ি ও তাকে থানায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে আসি। এ ঘটনায় পুলিশের কোনো ভুল ছিল কি না, কী ঘটেছিল এসব বিষয় জনার জন্য ওনাকে এখানে আনা হয়েছে।  

আরও পড়ুন:


ছেলের জন্মদিনে শাকিব খানের আবেগঘন স্ট্যাটাস

দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে দুঃসময় যাচ্ছে: ফখরুল

অনিবন্ধিত সুদের ব্যবসা বন্ধের নির্দেশ

জার্মানিতে মেরকেলের দলকে হারিয়ে মধ্য বামপন্থী দলের বিজয়


বাড্ডা থানার সহকারী কমিশনার (ট্রাফিক) সুবীন রঞ্জন দাস বলেন, লোকটি খুবই হতাশাগ্রস্ত অবস্থায় রয়েছে বলে মনে হলো। তার এলাকায় ব্যবসা ছিল। করোনায় লোকসান করে এখন বাইক চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছেন। এসব কারণে হতাশা থেকে হয়তো এ কাজ করেছেন।

news24bd.tv নাজিম