ইউটিউবারদের আয়ের উপর কর, মিশরে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

অনলাইন ডেস্ক

ইউটিউবারদের আয়ের উপর কর, মিশরে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

ইউটিউবার এবং ব্লগারদের বার্ষিক আয় নিবন্ধন ও এর উপর কর বসানোর পরিকল্পনা করেছে মিশরের সরকার। বার্ষিক আয় ৫ লাখ মিশরীয় পাউন্ড বা ৩২ হাজার মার্কিন ডলারের বেশি আয়ের ইউটিউবারদেরকে এই কর দিতে হবে বলে জানিয়েছে দেশটির কর কর্তৃপক্ষ। খবর এএফপির।

কর কর্তৃপক্ষের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আল-গায়ের এএফপিকে বলেন, "কারো কর্মক্ষেত্র যাই হোক না কেন, সে যদি মিশরে ব্যবসা করে মুনাফা অর্জন করে তাকে অবশ্যই ন্যায্যভাবে কর দিতে হবে।"

নতুন করের হিসাব চলতি বছরের জানুয়ারির ১ তারিখ থেকে শুরু হয়ে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে বলেও নিশ্চিত করেন তিনি।

আরেক কর কর্মকর্তা, মোহাম্মদ কেশখ জানিয়েছেন, নতুন সিদ্ধান্ত মানতে ব্যর্থ হলে কর ফাঁকি আইন লঙ্ঘনের অপরাধে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে।

অনলাইনে কন্টেন্ট নির্মাতাদের উপর কর ধার্যের এই পরিকল্পনা দেশটিতে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করেছে। এ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নতুন এই কর আরোপকে সমর্থন জানিয়েছেন।

মিশরীয় এক নাগরিক টুইটারে বলেন, "দরিদ্র সবজি বিক্রেতাকে যদি কর দিতে হয়, তাহলে আমরা ধনীদের উপরও কর আরোপ করতে পারি।" 

আরেকটি টুইটে বলা হয়, "আমি যদি ইউটিউব বা টিকটকে, কিংবা অন্য কোন সাইট থেকে ৫ লাখ পাউন্ড আয় করতাম, তাহলে কর দিতে আমার কোন সমস্যা হতো না। এ নিয়ে এতো শোরগোল করার কী আছে!"

হাসান হেইকাল নামে আরেক ব্যবহারকারী টুইট করেন, "গুগল, ইউটিউব, ফেসবুক, টুইটার ইত্যাদিতে কর আরোপ করা সঠিক কেন? কারণ তারা কর না দিয়েই মিশরের ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে বিজ্ঞাপন ও তথ্য বাবদ অনেক অর্থ উপার্জন করে।"

অপরদিকে অন্যরা দ্বিমত পোষণ করে বলেন, ইন্টারনেট ব্যক্তিত্বের উপর কর চাপানোর কোনো অধিকার মিশরীয় সরকারের নেই।

ইন্টারনেটের উচ্চমূল্যের দিকে ইঙ্গিত করে এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে এক টুইটে বলা হয়, "সরকার যদি ইউটিউবারদের কাছ থেকে কর নিতে চায় তাহলে অন্তত আমাদের উন্নত ইন্টারনেট সেবা নিশ্চিত করতে হবে এবং সীমিত গিগাবাইট প্যাকেজগুলো বাতিল করতে হবে।"

এছাড়া আরো একজন করের কোন যৌক্তিকতা নেই দাবি করে বলেন, " ইউটিউব চ্যানেলে কর আরোপ এবং ইন্টারনেট থেকে লাভের বিষয়টি খুবই বিরক্তিকর। আমি কেন এমন কিছুর জন্য কর দেব যেখানে রাষ্ট্র সে ব্যাপারে কোন পৃষ্ঠপোষকতা করে না? হঠাৎ যদি আমার ইউটিউব চ্যানেলটি বন্ধ হয়ে যায় তাহলে আমাকে কে সাহায্য করবে? এমন অনেক লোক আছে যারা লক্ষ লক্ষ টাকা উপার্জন করে, সরকার তাদের কাছ থেকে কর নিক। কিন্তু এই চ্যানেলের কোন জমি নেই, জায়গা নেই, এমনকি এটি রাষ্ট্রের কোন ভূমিও দখল করছে না।"

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইতিমধ্যেই ভিডিও-শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম ইউটিউবের উপর কর আরোপ করেছে। যা প্রকারান্তরে ইউটিউবারদের কাছ থেকেই নেয়া হয়। কেউ কেউ এদিকে ইঙ্গিত করে মিশরের কর আরোপের কোন যৌক্তিকতা নেই বলে দাবি করেছেন। 

আহমেদ আবদেল ফাতাহ নামে এক ব্যবহারকারী বলেন, "এই বিষয়টি একটি আইনি সমস্যা তৈরি করবে কেননা ইউটিউব ইতিমধ্যেই ইউটিউবারদের কাছ থেকে কর নিয়েছে। তাহলে তারা কেন আলাদা করে মিশরের জন্য কর দেবে?"

রও পড়ুন:

বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন আজ

গালে থাপ্পড়ের পর এবার ডিম হামলার শিকার ম্যাক্রোঁ, ভিডিও ভাইরাল

রাজধানীর যেসব এলাকায় মার্কেট বন্ধ থাকবে আজ

শিশু সন্তানকে জবাই করে মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা, আটক মা

অনেকে আবার করের অর্থ যেন জনগণের উপকারে ব্যবহার করা হয় সেদিকে দৃষ্টিপাত করেছেন। তারা বলেন, "যদি সরকার ইউটিউবার এবং ইন্টারনেট ব্যক্তিত্বদের উপর কর আরোপ করে, তাহলে ইন্টারনেটের মান উন্নত করা তাদের ন্যূনতম কর্তব্য।"

উল্লেখ্য, মিশরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অত্যন্ত কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হয়। কোন সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে ৫ হাজারের বেশি অনুসারী থাকলে দেশটির আইন সেটি পর্যবেক্ষণে রাখার অনুমতি দেয়। সাইবার অপরাধ আইন ব্যবহার করে দেশটির কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে অনলাইনে 'অনুপযুক্ত' কনটেন্ট নির্মাণের দায়ে অনেককেই জেল ও জরিমানার শাস্তি দিয়েছে।

সূত্র: দ্য স্টার, মিডল ইষ্ট আই

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

কাতারে শুরা কাউন্সিলে ২ নারী নিয়োগ

অনলাইন ডেস্ক

কাতারে শুরা কাউন্সিলে ২ নারী নিয়োগ

কাতারে কেন্দ্রীয় আইনসভা -শুরা কাউন্সিলে ২ জন নারীকে নিয়োগ দিয়েছেন দেশটির আমির। আইনসভায় নিয়োগপ্রাপ্ত নারীরা হলেন-শেখা বিনতে ইউসুফ আল জুফাইরি এবং হামদা বিনতে হাসান আল সুলাইতি। 

আজ মঙ্গলবার এ তথ্য জানিয়েছে গালফ নিউজ। উপসাগরীয় দেশ কাতারের শুরা কাউন্সিলে মোট আসন সংখ্যা- ৪৫টি। গেল ২ অক্টোবর দেশটিতে প্রথমবারের মতো আইনসভার নির্বাচন হয়।


আরও পড়ুন:

বানভাসি রাস্তায় বিয়ে করতে এলেন বর-কনে : ছবি ভাইরাল

দ্বিতীয় ম্যাচ নিয়ে যা বললেন সাকিব

নাইজেরিয়ার বন্দুকধারীদের হামলায় কমপক্ষে ৪৩ জন নিহত

পিএসসির প্রশ্ন ফাঁস করলে ১০ বছরের জেল: মন্ত্রিপরিষদ সচিব


সেই নির্বাচনে ৩০টি আসনে  প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন ২০ জন নারী। তবে তাদের কেউই জয়ী হতে পারেননি। তবে দেশটির সংবিধানে ৩০টি আসনে নির্বাচনের নির্দেশনা থাকলেও বাকি ১৫ টি আসনে প্রতিনিধিদের নিয়োগ দেয়ার ক্ষমতা কাতারের আমিরের। সেই অনুযায়ী, কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি এই দুই নারী নিয়োগ করেন।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত 

পরবর্তী খবর

বানভাসি রাস্তায় বিয়ে করতে এলেন বর-কনে : ছবি ভাইরাল

অনলাইন ডেস্ক

বানভাসি রাস্তায় বিয়ে করতে এলেন বর-কনে : ছবি ভাইরাল

তিন দিনে প্রবল বর্ষণের শিকার কেরালা। বন্যা, ভূমিধসে হাহাকার কেরালার একাধিক রাজ্যে। এরই মধ্যে যেন দেখা গেল একচিলতে মজার ছবি। 

হিন্দুস্থান টাইমস এর খবরে জানা যায়, বানভাসি রাস্তায় সেজেগুজে বিয়ে করতে এলেন বর-কনে। গাড়ি-ঘোড়ায় করে নয়, তাঁদের বাহন একটি রান্নার ডেচকি! পানি জমা পরিস্থিতিতে অ্যালুমিনিয়ামের বাসনই ভরসা তাঁদের। সোমবারের এই ছবি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।


আরও পড়ুন:

দ্বিতীয় ম্যাচ নিয়ে যা বললেন সাকিব

নাইজেরিয়ার বন্দুকধারীদের হামলায় কমপক্ষে ৪৩ জন নিহত

পিএসসির প্রশ্ন ফাঁস করলে ১০ বছরের জেল: মন্ত্রিপরিষদ সচিব

গাজীপুর সাফারি পার্কে জেব্রা পরিবারে নতুন অতিথি


থালাভাদির এক মন্দিরে বিয়ে করবেন বলে আগে থেকে স্থির করেছিলেন ওই দম্পতি। কিন্তু পড়ে অতিবৃষ্টির কারণে সংশয়ে পড়েন তাঁরা। শেষমেশ রান্নার ডেচকিই সহায়তায় বিয়ে করেন।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত 

পরবর্তী খবর

নাইজেরিয়ার বন্দুকধারীদের হামলায় কমপক্ষে ৪৩ জন নিহত

অনলাইন ডেস্ক

নাইজেরিয়ার বন্দুকধারীদের হামলায় কমপক্ষে ৪৩ জন নিহত

নাইজেরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় সোকোটো রাজ্যে বন্দুকধারীদের হামলায় অন্তত ৪৩ জন মারা গেছেন। স্থানীয় একটি সাপ্তাহিক বাজারে গেল রোববার থেকে সোমবার সকাল পর্যন্ত এ ঘটনা ঘটে।

প্রদেশটির গভর্নরের কার্যালয়ের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানায়, রোববার স্থানীয় গরন্য এলাকায় সাপ্তাহিক বাজারে এলোপাথাড়ি গুলি চালায় সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। হামলার সময় বাজারে অনেক ক্রেতা-বিক্রেতাদের ভিড় ছিল। সোমবার সকাল পর্যন্ত অব্যাহত ছিল এ হামলা। এতে অন্তত ৪৩ জনের মৃত্যু হয়।


আরও পড়ুন:

পিএসসির প্রশ্ন ফাঁস করলে ১০ বছরের জেল: মন্ত্রিপরিষদ সচিব

গাজীপুর সাফারি পার্কে জেব্রা পরিবারে নতুন অতিথি

‘সংখ্যালঘু’ শব্দটি থাকা উচিত না

পায়রা সেতুর উদ্বোধন ২৪ অক্টোবর


হামলার সময় প্রাণ নিয়ে পালানোর চেষ্টার সময়েও অনেকে আহত হন। গেল ১২ বছর ধরে নাইজেরিয়াভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী বোকো হারাম আইএসের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে আসছে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত 

পরবর্তী খবর

ভারতে ভারী বৃষ্টিপাতে নিহত বেড়ে ৪০

অনলাইন ডেস্ক

ভারতে ভারী বৃষ্টিপাতে নিহত বেড়ে ৪০

ভারতের কেরালাসহ কয়েকটি রাজ্যে টানা বৃষ্টিতে সৃষ্ট বন্যায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪০ জনে দাঁড়িয়েছে। পাশাপাশি অনেকে নিখোঁজ রয়েছেন। 

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকায় এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, 'সোমবার পর্যন্ত নিম্নচাপের বৃষ্টিতে কেরালায় ৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। বন্যার পানিতে ধস নেমে মারা গিয়েছেন অধিকাংশ মানুষ। নিখোঁজ আরও অনেকে। এই পরিস্থিতিতে দু’টি বড় নদীবাঁধের লকগেট খোলার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে কেরালা প্রশাসন। ফলে পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কা থাকছে।'  

এদিকে গতকাল সোমবার কেরালার পানিমন্ত্রী রসি অগাস্টিন জানান, ইদ্দুকি বাঁধের পানি যেকোনো মুহূর্তে বিপদসীমা পেরিয়ে যাবে বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়।

গতকাল সোমবার সকাল ৭টায় ছিল বিপদসীমার মাত্র দুই ফুট নিচে পানি। আজ মঙ্গলবার সেই সীমা পেরিয়ে যায়।

আরও পড়ুন


এশিয়ার শীর্ষ ধনী মুকেশ আম্বানির বাড়ির অন্দরমহলের খবর একনজরে

ইউপি ও পৌরসভা নির্বাচনে আরও খুনোখুনির আশঙ্কা

দলে পরিবর্তন, এক নজরে ওমানের বিপক্ষে বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ

যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ পররাষ্ট্রমন্ত্রী কলিন পাওয়েল মারা গেছেন


রাজ্যের অধিকাংশ জেলা যেখানে প্লাবিত, সেখানে বাঁধের পানি ছাড়লে বিপদ আরও বাড়তে পারে বলে বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন। 

কেরালা ছাড়াও সোমবার উত্তরাখণ্ড, পশ্চিমবঙ্গ, রাজস্থান, দিল্লিসহ ভারতের আরও ১০টি রাজ্যে ভারী বৃষ্টি হয়েছে।

news24bd.tv রিমু  

পরবর্তী খবর

থামছে না সোশ্যাল মিডিয়ায় নারীবিদ্বেষী মন্তব্য, বিবিসি সাংবাদিকের প্রশ্ন

অনলাইন ডেস্ক

থামছে না সোশ্যাল মিডিয়ায় নারীবিদ্বেষী মন্তব্য, বিবিসি সাংবাদিকের প্রশ্ন

শুধু ঘর কিংবা ঘরের বাইরে নয়, নারীরা অনলাইন বা সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মেও নিরাপদ নয়। কিন্তু নারীরা সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলোতে কতটা অনিরাপদ তার উত্তর খুঁজে বের করার চেষ্টা করেছেন বিবিসির প্রথম স্পেশালিষ্ট ডিজইনফরমেশন রিপোর্টার মারিয়ানা স্প্রিং।

তিনি বলেন, আমি অনলাইনে প্রতিদিন অসংখ্য গালিগালাজপূর্ণ অবমাননাকর মেসেজ পাই। এগুলো এতোটাই আক্রমণাত্মক যে পরিমার্জন ছাড়া প্রকাশের উপযুক্ত নয়। কিন্তু কেন? আমার মূলত অনলাইনে ষড়যন্ত্রমূলক ও ভুয়া নিউজ খুঁজে বের করা এবং এর প্রভাব নিয়ে কাজ করি। কাজের অংশ হিসেবে সমালোচনার শিকার হতে হবে এটা জানা কথা, কিন্তু মন্তব্যগুলো খুবই নারীবিদ্বেষী।

প্রতিবেদনে মারিয়ানা বলেন, এটা শুধু আমি নই, বিশ্বজুড়ে রাজনীতিবিদ থেকে শুরু করে রিয়েলিটি-শো লাভ আইল্যান্ডের ডক্টর পর্যন্ত সকলের কাছ থেকেই নারীকে উদ্দেশ্য করে ঘৃণামূলক উক্তি ব্যবহার করতে দেখা যায়। নতুন এক গবেষণায় দেখা যায়, অনলাইনে নারীরা পুরুষের তুলনায় অপেক্ষামূলক বেশি আক্রমণের শিকার হয়।

অনলাইনে নারীদের আক্রমণের শিকার হওয়ার বিষয় পর্যবেক্ষণের জন্য বিবিসির একটি দল পাঁচটি জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে একটি ভুয়া ট্রল অ্যাকাউন্ট তৈরি করে। যেখানে তারা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ব্যবহার করে একটি গবেষণা চালায়।

এর অংশ হিসেবে ৯০ হাজারের বেশি পোস্ট ও মন্তব্য বিশ্লেষণ করে দলটি দেখতে পায়-

- তাদের ট্রল অ্যাকাউন্টকে ফেসবুক এবং ইনস্টাগ্রামে আরও বেশি করে নারী বিরোধী কনটেন্ট সুপারিশ করে। যার মধ্যে কিছু ছিল যৌন সহিংসতা নিয়েও।

- রিয়েলিটি-শো তে নারী প্রতিযোগীরা অসমভাবে লক্ষ্যবস্তু হিসেবে ব্যবহৃত হয়। এখানে প্রায়ই তারা নারীবিদ্বেষী ও বর্ণবাদী মন্তব্যের শিকার হয়।

যদিও সোশ্যাল মিডিয়াগুলো বলছে তারা নারীদের বিরুদ্ধে অনলাইনে ঘৃণা ছড়ানোর বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে নেয়। যারা এগুলোতে নারীবিদ্বেষ ছড়ায় তাদের বিরুদ্ধে অ্যাকাউন্ট স্থগিত করা, নিষেধাজ্ঞা প্রদান করা, এমনকি বন্ধ করে দেয়ার মতো ব্যবস্থা নেয়ার নিয়ম আছে।

আরও পড়ুন:

মেয়াদ-বেতন দুটোই বাড়ছে টাইগার কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর

পরের দুই ম্যাচ জিতলেও মূল পর্ব অনিশ্চিত টাইগারদের

নবীর ভবিষ্যদ্বাণী, বৃষ্টির মতো বিপদ নেমে আসবে

ডেলিভারি বয় থেকে বিশ্বকাপে অঘটনের নায়ক


কিন্তু মারিয়ানা স্প্রিং নিজের অভিজ্ঞতা থেকে জানান, তারা প্রায়ই এসবের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয় না। তিনি বলেন, আমাকে উদ্দেশ্য করে পাঠানো ভয়ংকর খারাপ কিছু বার্তার বিরুদ্ধে আমি রিপোর্ট করি। কিন্তু কয়েক মাস পরেও সেই অ্যাকাউন্টগুলো ফেসবুকেই থেকে যায়।
 
তিনি বলেন, আমার অভিজ্ঞতায় এটি একটি প্যাটার্নের অংশ। সেন্টার ফর কাউন্টারিং ডিজিটাল হেট -এর এক নতুন গবেষণায় দেখা গেছে টুইটার ও ইনস্টাগ্রামে ৩০০টি অ্যাকাউন্টের ৯৭ শতাংশই রিপোর্টের পরেও বন্ধ করা হয়নি। 

তবে টুইটার এবং ইনস্টাগ্রাম বলছে তাদের নিয়ম লঙ্ঘন করলেই পদক্ষেপ নেয়া হয় এবং অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা একমাত্র বিকল্প নয়।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর