প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে দেশব্যাপী গণটিকা কার্যক্রম
প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে দেশব্যাপী গণটিকা কার্যক্রম

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে দেশব্যাপী গণটিকা কার্যক্রম

অনলাইন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন আজ। এ উপলক্ষে দেশব্যাপী গণটিকা কর্মসূচি শুরু হয়েছে। গণটিকার আওতায় এদিন ৭৫ লাখ মানুষকে টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হবে। মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টা থেকে সারাদেশে একযোগে এ কর্মসূচি শুরু হয়।

টিকা নেওয়ার সময় জাতীয় পরিচয়পত্র ও টিকাকার্ড সঙ্গে আনতে হবে। উপজেলা পর্যায়ে প্রতিটি ইউনিয়নের কোনও একটি ওয়ার্ডের একটি কেন্দ্রে একটি বুথ, পৌরসভার প্রতিটি কেন্দ্রে একটি কেন্দ্রে একটি বুথ, সিটি করপোরেশনের প্রতিটি ওয়ার্ডে ৩টি বুথের মাধ্যমে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। সারাদেশে আগে থেকে যেসব কেন্দ্রে টিকাদান কর্মসূচি চলছিল সেগুলো অব্যাহত থাকবে। টিকাদান কর্মসূটি সকাল ৯টা থেকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকায় দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত চলবে।

এর আগে সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টায় গণটিকা কর্মসূচি প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে এদিন সারা দেশব্যাপী টিকা ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে ব্যাপক হারে টিকা দেওয়ার কর্মসূচি হাতে নিয়েছি। এই ক্যাম্পেইনে শুধুমাত্র প্রথম ডোজের টিকা দেওয়া হবে। একইভাবে আগামী মাসের একই তারিখে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন


বাঙালি জাতির ‘‘মুকুট মণি” শেখ হাসিনা

ভারত থেকে কেজি দরে কেনা চুল আসছে দেশে

৫ ঘণ্টা পর মিলল ড্রেনে পড়ে নিখোঁজ সেই তরুণীর মরদেহ

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ইনজামাম


তিনি আরও জানান, প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনের এই বিশেষ গণটিকা দান কর্মসূচিতে নির্ধারিত জনগোষ্ঠী যাদের বয়স ২৫ বছর বা তার বেশি সোমবার দিনগত রাতে যারা টিকা নেওয়ার এসএমএস পেয়েছেন তারা টিকা গ্রহণ করবেন। টিকা নিতে আসা ব্যক্তিদের জাতীয় পরিচয়পত্র এবং টিকা কার্ড সঙ্গে আনতে হবে। এ ক্ষেত্রে যাদের বয়স ৪০ বছরের বেশি তাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। একইসঙ্গে বয়স্ক, শারীরিক প্রতিবন্ধীদের জন্য বিশেষ বিবেচনা করা হচ্ছে। তবে স্তন্যদানকারী মা এবং গর্ভবতী মায়েরা এ টিকা ক্যাম্পেইনের আওতায় টিকা নিতে পারবেন না।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে এক বিবৃতিতে বলা হয়, টিকাদান কর্মসূচির প্রথম দুই ঘণ্টা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ৫০ বছরের বেশি বয়সী জনগোষ্ঠী, নারী এবং শারীরিক প্রতিবন্ধীদের টিকা দেওয়া হবে।   

সারাদেশ আগে থেকে যেসব কেন্দ্রে টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা ছিল, সেগুলোতে টিকাদান অব্যাহত থাকবে বলেও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

news24bd.tv এসএম