নিজেকে নবী দাবিকারী পাকিস্তানি নারীর মৃত্যুদণ্ড

নিজেকে নবী দাবিকারী পাকিস্তানি নারীর মৃত্যুদণ্ড

নিজেকে নবী দাবিকারী পাকিস্তানি নারীর মৃত্যুদণ্ড

অনলাইন ডেস্ক

 

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা:) কে শেষ নবী না মেনে নিজেকে নবী দাবি করার অভিযোগে পাকিস্তানে সালমা তানভির নামে এক নারী অধ্যক্ষকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত।

সোমবার নিস্তার কলোনির একটি বেসরকারি স্কুলের প্রিন্সিপাল সালমা তানভিরকে মৃত্যুদণ্ড দেয় ডিস্টিক্ট অ্যান্ড সেশন কোর্ট। এছাড়া তাকে পাঁচ হাজার পাকিস্তানি রুপি জরিমানাও করা হয়েছে।

অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মনসুর আহমদ রায়ের পর্যবেক্ষণ বলেন, মোহাম্মদ (সা.) ইসলাম ধর্মের শেষ নবী নন বলে ধর্ম অবমাননা করেছেন সালমা তানভীর।

এ ছাড়া তিনি নিজেকে ইসলামের একজন নবী বলেও দাবি করেছেন।

লাহোর পুলিশ ২০১৩ সালে স্থানীয় এক আলেমের অভিযোগের ভিত্তিতে তানভীরের বিরুদ্ধে ধর্ম অবমাননার মামলা দায়ের করেছিল। তার বিরুদ্ধে নবী মোহাম্মদকে (সা.) শেষ নবী হিসেবে স্বীকার না করার অভিযোগ ছিল এবং তিনি নিজেকেও ইসলামের একজন নবী বলে দাবি করেছিলেন।

সালমা তানভীরের আইনজীবী মোহাম্মদ রমজান বলেন, তার মক্কেল ‘অস্থির মনের মানুষ’। আদালতকে এই বিষয়টি বিবেচনায় নেওয়া উচিত ছিল।

তবে আদালতে দাখিল করা পঞ্জাব ইনস্টিটিউট অফ মেন্টাল হেলথের একটি মেডিকেল বোর্ডের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, ‘অভিযুক্ত ব্যক্তি মানসিকভাবে বিকৃত না হওয়ায় বিচারের জন্য উপযুক্ত’।

আরও পড়ুন:


মুফতি কাজী ইব্রাহীমকে আটক করেছে ডিবি

ইতিহাসের প্রয়োজনেই বঙ্গবন্ধু কন্যার জন্ম: ওবায়দুল কাদের

৫ ঘণ্টা পর মিলল ড্রেনে পড়ে নিখোঁজ সেই তরুণীর মরদেহ

ইউটিউবারদের আয়ের উপর কর, মিশরে মিশ্র প্রতিক্রিয়া


পাকিস্তানের বিতর্কিত ধর্ম অবমাননা আইনের শাস্তি বেশ কঠোর। ১৯৮৭ সাল থেকে এই আইনে কমপক্ষে এক হাজার ৪৭২ জন অভিযুক্ত হয়েছে।

ধর্ম অবমাননায় অভিযুক্তরা প্রায়ই নিজেদের পছন্দমতো আইনজীবী নেওয়ার সুযোগ পান না। কারণ বেশিরভাগ আইনজীবী এই ধরনের স্পর্শকাতর মামলায় জড়িত হতে চান না।

news24bd.tv নাজিম