স্বপ্নের আইফোনের টাকা কিডনি রোগীকে দিলেন চিকিৎসক সাকিল
স্বপ্নের আইফোনের টাকা কিডনি রোগীকে দিলেন চিকিৎসক সাকিল

স্বপ্নের আইফোনের টাকা কিডনি রোগীকে দিলেন চিকিৎসক সাকিল

Other

আইফোন কেনার জন্য লক্ষাধিক টাকা জমিয়েছিলেন কিন্তুু কিডনি রোগে আক্রান্ত সবুজ মিয়া নামের এক ব্যাক্তির টাকার অভাবে চিকিৎসা হচ্ছেনা এ খবর পেয়ে সে টাকা তার হাতে তুলে দিয়েছেন সাকিল সরোয়ার। পেশায়  চিকিৎসত সাকিল সরোয়ারের বাসা পিরোজপুর শহরের শিকারপুর সড়ক এলাকায়। বর্তমানে সে কর্মরত আছেন পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে।

সাকিল সরোয়ার বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সবুজ মিয়ার অসুস্থতার কথা জানতে পারি।

সবুজ মিয়া সাভারের আশুলিয়ার গৌড়িপুর  গ্রামের রিজাম উদ্দিনের বাড়ীতে থাকেন। তার বাবার নাম মোঃ হুমায়ুন কবির, মায়ের নাম রিতা বেগম। সাকিল সরোয়ার বলেন, অসুস্থ সবুজ মিয়ার খবর পেয়ে তাকে সাহায্য করতে এক প্রবাসী এগিয়ে আসেন তখন বাধ সাধে সবুজ মিয়ার স্ত্রীর পরিবার।

সাকিল সরোয়ার বলেন, সবুজ মিয়ার স্ত্রী প্রতিবন্ধী। অসুস্থ স্বামীর জন্য সে কিডনী দিতে রাজী হলেও সবুজের শ্বশুর পক্ষের লোকজন বাধা দেয়, তখন থেমে যায় কিডনি দেয়া। এরপর এগিয়ে আসে সবুজের মা। তখন সমস্যা দেখা দেয় টাকা জোগাড়ের ।  

সাকিল সরোয়ার বলেন, সপ্তাহে তিনবার ডায়ালাসিস করতে ১১হাজার টাকা লাগে। আমি বিষয়টি শুনতে পেরে সবুজ মিয়ার সাথে যোগাযোগ করি এবং  ৬ মাস ধরে আইফোন কেনার জন্য জমানো লক্ষাধিক টাকা  তার হাতে তুলে দেই।

সাকিল সরোয়ার জানান, তিনি ছাড়া আরো এক প্রবাসী সবুজ মিয়াকে এক লক্ষ টাকা দিয়েছেন। এ ছাড়া নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরো একজন সবুজ মিয়াকে আরো এক লক্ষ টাকা দিয়েছেন।  

তিনি বলেন,ঢাকার একটি হাসপাতালে সবুজ মিয়ার কিডনীর অপারেশন হবে।

আরও পড়ুন:


দুই মেয়েসহ মা নিখোঁজ উৎকন্ঠায় পরিবার

রশি দিয়ে বাধা প্রতিবন্ধী শহিদের বন্দী জীবন

বাগেরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় ক্রিকেটার রিদু নিহত

স্কুল খোলার পর যেভাবে চলবে প্রাথমিকের ক্লাস


সাকিল সরোয়ারের একমাত্র ভাই  জামিল সরোয়ার আমেরিকায় থাকেন। সেখানে তিনি নিউইয়র্ক পুলিশ বিভাগ এনওয়াইপিডির শহর গোয়েন্দা ব্যুরোতে কর্মরত। তাদের বাবা সরোয়ার হোসেন একজন সফল আইনজীবী ছিলেন। এ ছাড়া তিনি (সরোয়ার হোসেন) বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন। করোনার প্রথম ডেউয়ে জামিল সরোয়ারের নিউইয়র্ক এর বাসায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন সরোয়ার হোসেন । সাকিল সরোয়ারের মা রেনু সরোয়ার অধ্যক্ষ হিসেবে চাকুরী থেকে অবসরে যান।

news24bd.tv/আলী

;