পানিতে প্রায় ডুবন্ত তরুণীর মুর্তি তৈরি করে আলোচিত সেই ভাস্কর
পানিতে প্রায় ডুবন্ত তরুণীর মুর্তি তৈরি করে আলোচিত সেই ভাস্কর

পানিতে প্রায় ডুবন্ত তরুণীর মুর্তি তৈরি করে আলোচিত সেই ভাস্কর

Other

এক তরুণীর মুখের ভাস্কর তৈরি করে বেশ আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে স্পেনে। কারণ তরুণীর মুর্তিটি পানিতে প্রায় ডুবন্ত অবস্থায় বসানো হয়েছে। মেক্সিকান ভাস্কর রুবেন ওরোজকো বোঝাতে চেয়েছেন, মানুষের কাজ তাকে ডুবিয়ে দিতে পারে, আবার ভাসিয়েও রাখতে পারে। রয়টার্স এই প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

 

দূর থেকে দেখলে মনে হবে, নদীর পানিতে এক তরুণী ডুবে যাচ্ছে। স্পেনের বিলবাও শহরের নারভিন নদীতে এমন একটি জীবন্ত মুর্তি দর্শনার্থীদের মাঝে ব্যাপক কৌতুহলের জন্ম দিয়েছে।


আরও পড়ুন

অস্ট্রেলিয়ান নাগরিকদের ফেসবুক পেজে প্রবেশ বন্ধ করে দিলো সিএনএন

ভ্যাকসিন প্রত্যাখ্যানকারী কর্মীদের বরখাস্ত করবে ইউনাইটেড এয়ারলাইনস

সৌদি আরব, মিশর, সংযুক্ত আরব আমিরাতে মিউজিক চার্ট চালু করেছে ইউটিউব

জেদ্দার বাসিন্দারা নতুন লোহিত সাগরের পানি ক্রীড়াক্ষেত্রে বেশি ব্যবহার করে


 আমি প্রথমে ভেবেছিলাম মেয়েটি ডুবে যাচ্ছে। কিন্তু ওর চেহারায় ভয় নেই। তাই মনে হবে যেন, প্রবল দুঃখবোধ থেকে সে নিজেই ডুবে যেতে চাইছে।   মুর্তিটি দেখে এক মানুষ এক রকম চিন্তা করে নেবে। প্রত্যেকের নিজস্ব চিন্তা হবে আলাদা।  
মেক্সিকান হাইপারিয়ালিস্ট আর্টিস্ট রুবেন ওরজোকোর তৈরি এই ভাস্কযটির নাম রেখেছেন বিহার। বাসকিউ ভাষায় যার অর্থ ভবিষ্যত। ওরজোকো জানান, মানুষের কাজের ওপরই নির্ভর করে সে ভাসবে না ডুবে যাবে।

১২০ কিলোগ্রাম ওজনের ফাইবারগ্লাসে নির্মিত এই ভাস্কযটি গেলো বৃহস্পতিবার গভীর রাতে নারভিন নদীতে ভাসানো হয়। নদীর পানির বাড়া ও কমার ওপরই নির্ভর করে মুখটি ডুবে যাওয়া ও ভেসে থাকা।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  ​