ফরিদপুরে নদী ভাঙনে বিলীন বসতভিটা

ফরিদপুরে নদী ভাঙনে বিলীন বসতভিটা

Other

ফরিদপুরের মধুখালী-বোয়ালমারী ও আলফাডাঙ্গা উপজেলায় মধুমতি নদীর ভাঙন তীব্র হয়েছে। এরই মধ্যে নদী ভাঙনে বিলীন হয়েছে বসত ভিটা, ফসলি জমি, স্কুল, মসজিদসহ বহু স্থাপনা। হুমকির মুখে রয়েছে বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আব্দুর রউফের বাড়িসহ বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ভাঙন রোধে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

  

এভাবেই নদী ভাঙনে ভিটে-মাটি হারানোর কথা বর্নণা করছিলেন ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার আকলিমা ও আয়শা বেগম। ভাঙনের কবলে পরে তিনবার জায়গা পরিবর্তন করেও রক্ষা করতে পারেননি বসত-ভিটা ।

শুধু আকলিমা ও আয়শা বেগমই নন নদী ভাঙনে নি:স্ব হয়েছে তাদের মত তিন উপজেলার  প্রায় ১০ ইউনিয়নের কয়েক হাজার পরিবার। নদী গর্ভে বিলিন হয়েছে এসব ইউনিয়নের  স্কুল, মসজিদ-মাদ্রাসা, হাট-বাজারসহ বহু স্থাপনা। হুমকির মুখে রয়েছে বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

নদী তীরবর্তী মানুষের অভিযোগ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা একাধিকবার  আশ্বাস দেয়ার পরও  স্থায়ী বেড়ি বাঁধ নির্মাণ হয়নি। আর এ কারণেই প্রতিবছর নদী ভাঙনের শিকার হন তারা।

আরও পড়ুন:


কাল জাতিসংঘ অধিবেশন ও সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন প্রধানমন্ত্রী

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়রকে আ.লীগের শোকজ

মেট্রোরেলে চাকরির সুযোগ

আগামী ৮ অক্টোবর মুক্তি পাচ্ছে পদ্মাপুরাণ


পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, ভাঙন রোধে প্রকল্প প্রণয়ন করা হয়েছে। যা একনেকের বৈঠকে পাস হলেই বেড়ি বাঁধ নির্মাণের কাজ শুরু হবে। মধুমতি নদীর ভাঙন রোধে সরকার দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ নেবে এমন প্রত্যাশা ক্ষতিগ্রস্তদের।

news24bd.tv নাজিম