বেস্ট ব্র্যান্ড-২০২১ স্বীকৃতি পেল বসুন্ধরা গ্রুপ

অনলাইন ডেস্ক

বেস্ট ব্র্যান্ড-২০২১ স্বীকৃতি পেল বসুন্ধরা গ্রুপ

গুণগত মানসম্পন্ন পণ্য সরবরাহ ও সেবার মাধ্যমে ভোক্তাদের আস্থা অর্জন করে ক্রমাগত এগিয়ে চলা বসুন্ধরা গ্রুপ ‘দ্য ইকোনোমিক টাইমস বেস্ট ব্র্যান্ডস ২০২১’-এর স্বীকৃতি পেয়েছে। প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের কোনো শিল্প গ্রুপ এ স্বীকৃতি পেল। ব্র্যান্ড অনুসরণ মূল্য, ভোক্তাদের পছন্দ, অনন্যতা, উদ্ভাবন এবং ভোক্তা আস্থার মতো উল্লেখযোগ্য মানদণ্ডের ভিত্তিতে এ স্বীকৃতি দেওয়া হয়।  

ভারতীয় গণমাধ্যম ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান দ্য ইকোনোমিক টাইমস প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে করা একটি গবেষণার মধ্য দিয়ে জনপ্রিয় ব্যান্ড বসুন্ধরাকে এই স্বীকৃতি দেয়। গত ৩০ সেপ্টেম্বর এক ভার্চ্যুয়াল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে এই স্বীকৃতির ঘোষণা দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন


গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়রকে আ.লীগের শোকজ

কুষ্টিয়ার খোকসায় প্রতিমা ভাঙচুর

আদালত চত্ত্বরে বোমা হামলা: বোমা মিজানের মৃত্যুদণ্ড, জাবেদের যাবজ্জীবন

মধ্যরাত থেকে ইলিশ ধরায় ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা


দ্য ইকোনোমিক টাইমস বিভিন্ন সময় দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর ব্যবসায়িক ব্র্যান্ডগুলো নিয়ে কাজ করে। প্রতিষ্ঠানটি এর আগে দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে জরিপ চালিয়ে বিভিন্ন ব্র্যান্ডকে স্বীকৃতি দিয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটির মূল্যায়নে বলা হয়, বাংলাদেশে ব্র্যান্ড মূল্যে শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপ। এ প্রতিষ্ঠানের পণ্য ভোক্তাদের পছন্দ। এর যেমন অনন্যতা রয়েছে তেমনি নিত্যনতুন উদ্ভাবনেও এগিয়ে যাচ্ছে। ফলে বসুন্ধরা গ্রুপের পণ্য এখন ভোক্তাদের আস্থার প্রতীক।

news24bd.tv/ তৌহিদ

পরবর্তী খবর

তিন মাসে মিরপুর থেকে ৪২৪ কিশোরী নিখোঁজ!

অনলাইন ডেস্ক

তিন মাসে মিরপুর থেকে ৪২৪ কিশোরী নিখোঁজ!

রাজধানীর মিরপুর এলাকা থেকে ৪২৪ মেয়ে শিশু-কিশোরী নিখোঁজ হয়েছে। তাদের একটি বড় অংশ মা-বাবার সঙ্গে অভিমান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরিচয় ও সম্পর্কের কারণে বন্ধুর সঙ্গে ঘর ছেড়েছে।

তাদের একটি বড় অংশকে পুলিশ উদ্ধার করেছে। অনেকে স্বেচ্ছায় পরিবারের কাছে ফিরেছে। এই সংখ্যা আড়াই শর মতো বলে পুলিশ জানিয়েছে। বাকিদের উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের মিরপুর বিভাগের সাতটি থানার গত তিন মাসে হওয়া সাধারণ ডায়েরি (জিডি) থেকে এই তথ্য পাওয়া গেছে। নিখোঁজ শিশু-কিশোরীদের একটি অংশ ছেলে বন্ধুদের সঙ্গে ঘর ছাড়লেও তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে জিডি করার ঘটনা নেই বললেই চলে। প্রায় সব জিডিই করেছে শিশু-কিশোরীদের অভিভাবকরা।

গত তিন মাসে শুধু পল্লবী থানা এলাকা থেকেই ১১৪ কিশোরী নিখোঁজ হয়। এর মধ্যে গত জুলাইয়ে ২২, আগস্টে ৪৩ এবং সেপ্টেম্বরে ৪৮ জন নিখোঁজ হয়েছে। এই পল্লবী থানা এলাকা থেকে চলতি মাসের প্রথম ১০ দিনে অন্তত ১৫ কিশোরী বাসা থেকে নিখোঁজ হয়েছে বলে থানায় জিডি করা হয়েছে।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর পল্লবী এলাকার তিন তরুণী বাসা থেকে বের হয়ে যায়। তাদের উদ্ধারের পর জানা যায়, মানব পাচারকারী একটি চক্রের খপ্পরে পড়েছিল তারা। তারা জাপান যাওয়ার প্রলোভনে ঘর ছাড়ে। সময়মতো তাদের উদ্ধার করা না গেলে বড় ধরনের বিপদে পড়ত তারা। এর পরপরই আরো পাঁচ শিক্ষার্থী মিরপুর এলাকা থেকে নিখোঁজ হলে গণমাধ্যমে বড় খবর হয়। পরে তারা উদ্ধারও হয়। 

মিরপুর এলাকায় একাধিক অভিভাবক ও পুলিশের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নিখোঁজ হওয়া কিশোরীদের মধ্যে বেশির ভাগ ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী। এদের বড় একটি অংশ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পরিচিত-অপরিচিত ছেলেদের সঙ্গে বন্ধুত্বে জড়িয়েছে। তারপর ঘর ছেড়েছে। এরা মধ্যবিত্ত ও নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান বলে পুলিশ জানিয়েছে।

সম্প্রতি গিয়ে দেখা যায়, অসহায় এক বাবা তাঁর মেয়েকে নিয়ে পল্লবী থানার ওসির সামনে বসে আছেন। গত ৯ অক্টোবর পল্লবী এলাকার বাসা থেকে চলে যায় অষ্টম শ্রেণিতে পড়া মেয়েটি। পরের দিন পরিবার থানায় জিডি করে। তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, মেয়েটি সংঘবদ্ধ নারী পাচারকারী চক্রের ফাঁদে পড়েছে। এক পর্যায়ে তাকে কেরানীগঞ্জের জিনজিরা এলাকা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

মেয়েটির বাবা বলেন, ‘মেয়েকে সব সময় শাসনের মধ্যেই রেখেছি। কিন্তু পরিবর্তনটা এসেছে মেয়েকে স্মার্টফোন দেওয়ার পর। অনলাইনে স্কুলের ক্লাস করার জন্য তাকে ফোন দিতে হয়েছে। এখন আরো সতর্ক হতে হবে।’  

পল্লবী থানার ওসি পারভেজ ইসলাম বলেন, শুধু এই মেয়েটিই নয়, গত তিন মাসে এই থানায় ১১৪টি মেয়েশিশু নিখোঁজের ঘটনায় জিডি করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ৮০ শতাংশ উদ্ধার হয়েছে বা নিজ থেকে পরিবারে ফিরেছে। অন্যদের উদ্ধারে চেষ্টা চলছে।    

একইভাবে গত ২৬ আগস্ট মিরপুর মডেল থানায় তরুণী (১৯) নিখোঁজ হওয়ার তথ্য জানিয়ে জিডি করেন তাঁর বাবা। ৫ সেপ্টেম্বর পুরান ঢাকার একটি এলাকা থেকে তাঁকে উদ্ধার করে পুলিশ। ছেলে বন্ধুর সঙ্গে চলে গিয়েছিলেন তিনি। থানা পুলিশ হওয়ায় ছেলেটি সটকে পড়লেও ছেলের পরিবার মেয়েটির দায়িত্ব নিতে চায়। পরে দুই পরিবারের বোঝাপড়ার মাধ্যমে মেয়েটিকে বাবার কাছে দেওয়া হয়।

তবে পুলিশ জানায়, মেয়েটিকে ফেলে ছেলে পালিয়ে গেছে। ছেলেটিকে আটক করার চেষ্টা চলছে।

মিরপুর মডেল থানার ওসি মোস্তাজিরুর রহমান বলেন, তাঁর থানা এলাকা থেকে জুলাই মাসে ২০, আগস্টে ৪০ ও সেপ্টেম্বরে ৪৫ শিক্ষার্থী নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ১০৫ জনের মধ্যে উদ্ধার হয়েছে এবং নিজ ইচ্ছায় পরিবারে ফিরেছে ৮০ শিক্ষার্থী। বাকিদের উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি) মুহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘গত কয়েক মাসে এটা বেড়েছে। নিখোঁজ কিশোরীদের উদ্ধার অভিযানে নেমে দেখা গেছে, মোবাইল বা ফেসবুকের একটা প্রভাব এখানে আছে। সন্তান, অভিভাবক কেউ কারো ঠিকমতো খোঁজ রাখছে না। অপ্রাপ্তবয়স্ক এই সন্তানদের সঠিক পথে পরিচালনা করতে অভিভাবকদেরই দায়িত্ব নিতে হবে। ’

মিরপুর এলাকায় অন্তত ২০ জন অভিভাবকের সঙ্গে কথা হলে তাঁরা জানান, করোনা পরিস্থিতির কারণে গত দেড় বছর স্কুল-কলেজে যাওয়া বন্ধ ছিল। পরীক্ষা, পড়া, কোচিংসহ সবই চলছে অনলাইনে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে নির্দেশনার কারণে স্বাভাবিকভাবে পড়ুয়াদের সবার হাতে মোবাইল ফোন দিতে হয়েছে। লেখাপড়ার ফাঁকে তারা বিভিন্ন গেমসের প্রতি যেমন ঝুঁকেছে, তেমনি অনেকে চেনা-অচেনা বন্ধুদের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছে।

কিশোরীদের উদ্ধার করতে গিয়ে পুলিশ কর্মকর্তারা জানতে পেরেছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরিচয়ের সূত্র ধরে বিপুলসংখ্যক তরুণী অপ্রাপ্তবয়স্ক ‘প্রেমিকের’ হাত ধরে ঘর ছেড়েছে। অনেকেই বিয়েও করেছে।

সংশ্লিষ্ট থানার ওসিদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ভাসানটেক এলাকা থেকে গত তিন মাসে অন্তত ৩০ কিশোরী, শাহ আলী থানা এলাকা থেকে ৪০, কাফরুল থানা এলাকা থেকে ৪৫, দারুসসালাম থানা এলাকা থেকে ৩৭ এবং রূপনগর থানা এলাকা থেকে ৫৩ কিশোরী নিখোঁজের ঘটনায় জিডি করা হয়েছে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (মিরপুর-পল্লবী) ২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. সাজ্জাত হোসেন বলেন, ‘মিরপুর এলাকায় কিশোরী বা তরুণী শিক্ষার্থীদের নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা আমার কানেও এসেছে। পুলিশের সঙ্গে সমন্বয় করে এটা নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছি।’

আরও পড়ুন:


পীরগঞ্জের ঘটনায় রিমান্ড শেষে ৩৭ জন জেলহাজতে

সাকিব-নাসুমের পর সাইফুদ্দিনের আঘাত


পুলিশের মিরপুর বিভাগের উপকমিশনার আ স ম মো. মাহাতাব উদ্দিন বলেন, নিখোঁজ কিশোরীদের মধ্যে বেশির ভাগ অল্পবয়সী শিক্ষার্থী। এদের বয়স ১৪ থেকে ১৮ বছর। বেশির ভাগ নিম্ন ও মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান। তাঁর মতে, পারিবারিক অনুশাসনের শৈথিল্যের কারণে তারা ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আসক্ত হয়ে পড়েছে বলে প্রাপ্ত তথ্যে মনে হচ্ছে।

জাতীয় কন্যাশিশু অ্যাডভোকেসি ফোরামের সদস্যসচিব নাসিমা আক্তার বলেন, ‘অনেক অভিভাবক সন্তানদের প্রযুক্তি ব্যবহারের বিষয়ে সচেতন নন। কারণ তাঁরাও অনেক কিছু বুঝতে পারেন না। এটা আমাদের এক ধরনের সংকট বলা যায়। এখন পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্র নিজের জায়গা থেকে কাজ করলে উত্তরণ সম্ভব।

একটি বিশেষ এলাকার তরুণীদের ঘর ছাড়ার ঘটনায় উদ্বেগ বাড়ছে পুলিশের মধ্যেও। অপরাধ বিশ্লেষকরা বলছেন, না বুঝে ঘর ছাড়া এসব শিশু-কিশোরীর একটি অংশ মানসম্মান ও অভিভাবকদের ভয়ে একসময় পরিবারে ফেরার সাহস হারিয়ে ফেলবে। এই সুযোগে সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্র ফাঁদে ফেলে তাদের বিদেশে পাচার কিংবা বিক্রি করে দিতে পারে। সূত্র: কালের কণ্ঠ 

news24bd.tv রিমু  

পরবর্তী খবর

পুকুরে না, সেই গদা পাওয়া গেল বাড়ির ভেতরে!

অনলাইন ডেস্ক

পুকুরে না, সেই গদা পাওয়া গেল বাড়ির ভেতরে!

কুমিল্লায় পূজামণ্ডপের হনুমানের মূর্তির হাত থেকে ইকবাল হোসেনের নিয়ে যাওয়া সেই গদাটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল রোববার রাত সাড়ে ১১টার দিকে জেলা পুলিশের একটি দল কুমিল্লা নগরীর দারোগাবাড়ি মাজারের পাশের চৌধুরী ভিলার প্রাচীরের ভেতর থেকে গদাটি উদ্ধার করে। 

রাত সাড়ে ১২টার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) এম তানভীর আহমেদ।

রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে ইকবালের দেওয়া তথ্যে গদাটি উদ্ধার করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ঘটনার দিন মণ্ডপের হনুমানের মূর্তির হাত থেকে গদাটি আনার পর কুমিল্লার ঘটনার প্রধান অভিযুক্ত ইকবাল সেটি দারোগাবাড়ি মাজারের পুকুরে ফেলে দেন। এক থেকে দেড় ঘণ্টা পর্যন্ত গদাটি পানিতে না ডুবলে সেটি তুলে এনে পাশের চৌধুরী ভিলার প্রাচীরের ভেতরে ছুড়ে ফেলেন তিনি। ইকবালকে নিয়ে অভিযানে গতকাল রোববার রাতে ওই বাড়ির প্রাচীরের ভেতর থেকেই গদাটি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, ২৭ ইঞ্চি দৈর্ঘ্যের গদাটি রঙিন কাগজ ও রশি দিয়ে মোড়ানো ছিল। পুকুরে নিক্ষেপ করায় রঙিন কাগজ ভিজে নষ্ট হয়ে গেছে। উদ্ধার অভিযানের সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সোহান সরকার, গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সত্যজিৎ বড়ুয়া, কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনওয়ারুল আজিমসহ কর্মকর্তারা। সূত্র: কালের কণ্ঠ

news24bd.tv/ কামরুল 

পরবর্তী খবর

রোহিঙ্গা ও ফিলিস্তিনের সমস্যা ঝুলে আছে ৫ ‘মাতব্বরে’: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

রোহিঙ্গা ও ফিলিস্তিনের সমস্যা ঝুলে আছে ৫ ‘মাতব্বরে’: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

জাতিসংঘের স্থায়ী পরিষদের পাঁচ সদস্যের জন্য রোহিঙ্গা সংকট ঝুলে আছে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন।

তিনি বলেন, তবুও আমরা প্রত্যাশা করছি এ সংকটের সমাধান হবে।

রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত জাতিসংঘ দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

মোমেন বলেন, রোহিঙ্গাদের জন্য জাতিসংঘ যা যা করার করছে। তবে জাতিসংঘের শক্তিটা হচ্ছে নিরাপত্তা পরিষদের পাঁচজন স্থায়ী সদস্য, তারা হলো ‘মাতব্বর’। এরা একজন যদি আপত্তি করে সেখানে জাতিসংঘ কিছুই করতে পারে না। বিশেষ করে চীন ও রাশিয়ার কথা বলতে চাই। তার ফলে আমাদের রোহিঙ্গা সমস্যা, ফিলিস্তিনের সমস্যা ঝুলেই আছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন বলেন, বাংলাদেশ রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলা করছে।আমরা প্রত্যাশা করছি, এ সংকটের সমাধান হবে।

আরও পড়ুন:


পীরগঞ্জের ঘটনায় রিমান্ড শেষে ৩৭ জন জেলহাজতে

সাকিব-নাসুমের পর সাইফুদ্দিনের আঘাত

লিটনের ক্যাস মিস, মাসুল গুনছে টাইগাররা


 

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জাতিসংঘ আমাদের অনেক প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেনি। তবুও জাতিসংঘের অবদান কোনোভাবেই অস্বীকার করা যাবে না। জাতিসংঘ সামাজিক উন্নয়নে বিশেষ অবদান রেখেছে। সেজন্য জাতিসংঘ বাংলাদেশকে নিয়ে গর্বিত। বাংলাদেশও জাতিসংঘকে নিয়ে গর্বিত।

news24bd.tv/তৌহিদ

পরবর্তী খবর

দিন-দুপুরে বালু নদী ভরাট, প্রাণ-আরএফএলের বিরুদ্ধে মামলা

অনলাইন ডেস্ক

দিন-দুপুরে বালু নদী ভরাট, প্রাণ-আরএফএলের বিরুদ্ধে মামলা

রাজধানীর ঢাকার পরিবেশ ভারসাম্য রক্ষায় অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বালু নদীর তীরভূমি ও নদীগর্ভ ভরাট করে দখলের অভিযোগে প্রাণ-আরএফএল গ্ৰুপের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) । এছাড়া বালু ভরাটে সহযোগিতা করায় দুটি ড্রেজার কোম্পানি ও অজ্ঞাত ৮-১০ জনকে মামলায় আসামী করা হয়েছে। আজ রবিবার রাতে খিলক্ষেত থানায় মামলাটি দায়ের করেন টঙ্গী নদী বন্দরের সহকারী পরিচালক (বওপ) রেজাউল করিম।

এর আগে গতকাল দুপুরে রাজাখালী নৌপুলিশ ফাঁড়ির সহযোগিতায় খিলক্ষেত থানাধীন পাতিরা মৌজায় বালু নদীতে অভিযান চালায় বিআইডব্লিউটিএ। এ সময় সরকারি সংস্থাটির কর্মকর্তারা দেখতে পান, দুটি ড্রেজার দিয়ে বালু নদীর পশ্চিম পাশে তীরভূমি ও নদীগর্ভ ভরাট করছে প্রাণ-আরএফএল গ্ৰুপ। ইতোমধ্যে নদীর ২৮, ২৯ ও ৩০ নম্বর  সীমানা পিলারের অভ্যন্তরে প্রায় ১২ হাজার ৫০০ বর্গফুট নদীর জমি ভরাট করা হয়ে গেছে।

অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া টঙ্গী নদী বন্দরের সহকারী পরিচালক রেজাউল করিম বলেন, আমাদের দেখে ড্রেজার দুটি পালিয়ে যায়। তাই কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। মামলায় প্রাণ-আরএফএল গ্ৰুপের ম্যানেজার এডমিন মো. ফয়সাল মাহমুদ ও মো. সরওয়ার জাহানসহ এমভি তিথী ড্রেজার ও সোহা মেসার্স মদিনার পথে এম নং-১৮৭৩৪ নামে দুটি ড্রেজার কোম্পানি ও অজ্ঞাতনামা ৭-১০ জনকে আসামী করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ভরাট করে নদীর গতিপথ সংকুচিত করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। এতে নৌ দুর্ঘটনার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। পরিবেশ ভারসাম্য নষ্ট হয়। সরকার দখলদারদের হাত থেকে সারাদেশের নদ-নদী উদ্ধারে বদ্ধ পরিকর। আইন অনুযায়ী, নদীর সীমানা পিলারের মধ্যে কোন ভরাট বা স্থাপনা নির্মাণ করা যাবে না। এমনকি সীমানা পিলারের বাইরে ১৫০ ফুট পর্যন্ত জায়গায় কোনো স্থাপনা নির্মাণ করতে হলে বিআইডব্লিউটিএ’র অনুমতি নিতে হবে। প্রাণ-আরএফএল গ্ৰুপ সীমানা পিলারের ভেতরেই দৈর্ঘ্যে ২৫০ ফুট ও প্রস্থে ৫০ ফুট নদীর জমি ভরাট করে ফেলেছে। অভিযান চালিয়ে ভরাট কাজ বন্ধ করে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছি। একইসঙ্গে ভরাটকৃত জায়গা পুনরায় খনন করার জন্য তাদেরকে বলে এসেছি। আমরা নিয়মিত বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করব।


আরও পড়ুন:

দুই সন্তানের বাবার নামে প্রেমিকার মামলা

সুইমিং পুলে শুয়ে কী বললেন শ্রাবন্তী?

চলছে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের সোনালি অধ্যায় : হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা

ইরানের নতুন গভর্নরের গালে চড়!


খিলক্ষেত থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুন্সী ছাব্বীর আহম্মদ বলেন, নদী ভরাট নিয়ে আমরা বিআইডব্লিউটিএ থেকে একটা এজাহার পেয়েছি। এর ভিত্তিতে একটি মামলা রুজু হয়েছে। মামলা নম্বর ২৪, তারিখ ২৪-১০-২০২১। তদন্ত করে এ ব্যাপারে বলা যাবে।

এদিকে গতকাল অভিযান চালানো ওই স্থানে সরেজমিন দেখা যায়, নদীর মধ্যে এখনো বালু ভর্তি অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে পাঁচটি বাল্কহেড। সীমানা পিলার থেকে নদীর দিকে অন্তত ১০০ ফুট পর্যন্ত বালু ভরাট করা হয়েছে। সেখানে লাগানো হয়েছে ‘ক্রয়সূত্রে এই সম্পত্তির মালিক প্রাণ-আরএফএল গ্ৰুপ’ লেখা সাইনবোর্ড। এছাড়া প্রাণ-আরএফএল’র পুরনো কিছু নিরাপত্তা চৌকি, রেডিমিক্স ও কংক্রিট ব্লক ফ্যাক্টরি এবং গোডাউনের একাংশ সীমানাপিলার ছাড়িয়ে চলে এসেছে নদীর দিকে।

অভিযানে নেতৃত্বদানকারী কর্মকর্তা রেজাউল করিম বলেন, নদী দখল-দূষণ মুক্ত করতে সরকার বদ্ধ পরিকর। ঢাকার চার পাশে প্রবাহমান বুড়িগঙ্গা, তুরাগ, বালু ও শীতলক্ষ্যা নদী দখল, দূষণমুক্ত করা ও মৃতপ্রায় নদীগুলোকে উদ্ধারে হাইকোর্টের বিশেষ নির্দেশনা রয়েছে। সেই নির্দেশনার আলোকে জেলা প্রশাসক, বিআইডব্লিউটিএ এবং সংশ্লিষ্ট বিভাগসমূহ সুষ্পষ্ট নির্দেশনা প্রদান করেছে। এর আগেও আমরা বালু নদীতে অভিযান চালিয়েছি। পুনর্দখল ঠেকাতে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর

আমরা অনেক বেশি ভাত খাই বললেন কৃষিমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক


আমরা অনেক বেশি ভাত খাই বললেন কৃষিমন্ত্রী

ফাইল ছবি

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, আমরা অনেক বেশি ভাত খাই। যদি ভাতের এই কনজাম্পশন (খাওয়া) কমাতে পারি, তাহলে চালের চাহিদা অনেকটাই কমে যাবে। 

তিনি বলেন, আমরা একেকজন দিনে প্রায় ৪০০ গ্রাম চাল খাই, পৃথিবীর অনেক দেশে ২০০ গ্রামও খায় না।

ভাতের পরিবর্তে পুষ্টিকর খাবার বেশি করে খাওয়ার আহ্বান জানান মন্ত্রী।

আজ দুপুরে রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে ‘বাংলাদেশের ৫০ বছর, কৃষির রূপান্তর ও অর্জন’ শীর্ষক এক কৃষি সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ৫০ বছরে দেশের কৃষি খাতের প্রতিটি ক্ষেত্রে উন্নতি হয়েছে। এই করোনাকালেও দেশের মানুষের খাদ্যের কষ্ট হয়নি, কোনো মানুষ না খেয়ে নেই, কোনো মানুষের মাঝে হাহাকার নেই- এমন পরিস্থিতিতে আমাদের আজকের চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশকে পুষ্টি জাতীয় নিরাপদ খাদ্যে নিয়ে যেতে চাই। তার জন্য বাংলাদেশকে আমরা আধুনিক কৃষিতে নিয়ে যেতে চাই। আমরা বাংলাদেশকে খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণে নিয়ে যেতে চাই। যাতে আমাদের উদ্বৃত্ত খাবার থাকে।

আরও পড়ুন:স্বামীকে কুপিয়ে সেই দা নিয়ে ঘরের দরজায় বসেছিলেন স্ত্রী

বাংলাদেশ এখন খাদ্যে অনেকটাই স্বয়ংসম্পূর্ণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশে খাদ্যের কোনো অভাব নেই। এখন পুষ্টিজাতীয় খাদ্য নিশ্চিত করতে সরকার কাজ করছে। সেজন্য কৃষির বাণিজ্যিকীকরণের ওপর জোর তাগিদ দেন মন্ত্রী।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর