প্যানডোরা বাকসো থেকে বেরিয়ে আসছে পুতিনের বান্ধবীর গল্প
প্যানডোরা বাকসো থেকে বেরিয়ে আসছে পুতিনের বান্ধবীর গল্প

প্যানডোরা বাকসো থেকে বেরিয়ে আসছে পুতিনের বান্ধবীর গল্প

অনলাইন ডেস্ক

নাম স্বেতলানা ক্রিভোনোগিক। দ্য গার্ডিয়ান বলছে, গত শতাব্দির শেষের দিকে হুট করেই এই নারী ধনী হয়ে যান।

তিনি তার নিজ শহর সেন্ট পিটার্সবার্গে একটি অভিজাত এলাকায় একটি ফ্ল্যাট,  একটি ইয়ট এবং অন্যান্য সম্পদ গড়েছেন।   যার আনুমানিক মূল্য ১০০ মিলিয়ন ডলার।

তার এই উত্থান কিভাবে ব্যাখ্যা করবেন? গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সেই নারী খুবই বিনয়ী। তিনি যৌথ পরিবারে বেড়ে উঠেছেন। পাঁচটি পরিবারের সাথে একটি রান্নাঘর এবং বাথরুম ভাগ করে নিতে হয়েছিল তাকে।

বাণিজ্য বিভাগে পড়াশেনা করেছেন তিনি। প্রথম জীবনে পরিচ্ছন্নতাকর্মী হিসেবে কাজ করতেন। ১৯৯০ এর দশকের শেষের দিকে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে তিনি পাশে পেয়েছেন বলে মিডিয়ায় খবর বেরিয়েছে।


আরও পড়ুন

প্রবল গতিবেগে আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় শাহিন

জাপানে নির্বাচিত হলেন শততম প্রধানমন্ত্রী

এ মাসে ‘খুলছে’ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

শীর্ষ সাইবার সন্ত্রাসীদের ভয়ংকর অপতৎপরতা


২০২০ সালে গণমাধ্যমে খবর বের হয়, ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল স্বেতলানা ক্রিভোনোগিকের। তারা একই বিমানে ভ্রমণ করেছেন।

২০০৩ সালে স্বেতলানা ক্রিভোনোগিক কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। তার নাম এলিজাবেথ অথবা লুইজা। অভিযোগ রয়েছে, ওই কন্যা সন্তানের বাবা পুতিন।

এ ব্যাপারে ক্রেমলিন অবশ্য কোনো মন্তব্য করেনি। পুতিনও নিজের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কিছু বলেন না। পুতিন ও তার স্ত্রী  লিউডমিলা- যার দুই মেয়ে মাশা এবং ক্যাটরিনা রয়েছে; ২০১৩ সালে বিচ্ছেদ হয়েছে তার।

লুইজা সব সময় পুতিনের ব্যাপারে করা সাংবাদিকদের প্রশ্ন এড়িয়ে যান। গার্ডিয়ানের তরফ থেকে যোগাযোগ করা হলেও তিনি ও তার মা বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত