আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘরের দেওয়ালে পানি দিতে গিয়ে স্বামী-স্ত্রী-সন্তানের মৃত্যু
আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘরের দেওয়ালে পানি দিতে গিয়ে স্বামী-স্ত্রী-সন্তানের মৃত্যু

আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘরের দেওয়ালে পানি দিতে গিয়ে স্বামী-স্ত্রী-সন্তানের মৃত্যু

Other

নেত্রকোনার হাওরাঞ্চল খালিয়াজুরীতে আশ্রয়ন প্রকল্পের নিজ ঘরের দেয়ালে পানি দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে স্ত্রী সন্তানসহ দিনমজুরের করুণ মৃত্যু হয়েছে।

উপজেলার গাজিপুর ইউনিয়নের বয়ড়া গ্রামের লতিফপুর পাড়ায় বুধবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত দিনমজুর আইবুল মিয়া (৫০) ও তার স্ত্রী আবেদা খাতুন (৪০) মেয়ে পিংকি (২৫) ঘটনাস্থলেই মারা যান। এসময় আইবুল মিয়ার শিশু নাতনি তাসিয়া আহত হয়।

স্থানীয়রা উদ্ধার করে খালিয়াজুরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাক্তার প্রসেনজিৎ দাস তিনজনকেই মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের বয়ড়া গ্রামের লতিফপুর পাড়ায় প্রধানমন্ত্রীর উপহারের বরাদ্দ নতুন ১৯৫ টি ঘরের কাজ চলছে। তার মধ্যে দিনমজুর আইবুল মিয়ায়াও একটি ঘর বরাদ্দ পেয়েছেন। সেই ঘরের দেয়ালে বুধবার সকালে একবার পানি দিয়ে পরবর্তীতে আবারো পানি দিচ্ছিলেন।

এসময় কোথাও তারের লিক থাকায় পানির পাইপ ধরতেই তিনি বিদ্যুৎতায়িত হন। এরপর চিৎকার করলে তা দেখে স্ত্রী ও মেয়ে এসে ছাড়াতে চাইলে তারাও আহত হন। সেই সাথে মেয়ে পিঙ্কির দুই বছরের শিশু কন্যাও তাদেরকে ধরতে এসে আহত হয়।
পরে অন্যান্যরা তাদের উদ্ধার করে খালিয়াজুরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমেপ্লেক্সে নিতে নিতেই তিনজন মারা যান। তবে দুই বছরের শিশু তাসিয়া বেঁচে যায়। নিহত আইবুল ওই এলাকার মৃত কিতাব আলীর ছেলে।

আরও পড়ুন


শীর্ষ সাইবার সন্ত্রাসীদের ভয়ংকর অপতৎপরতা

বিএনপি এবার ভুল করবে না: মেজর হাফিজ

পুলিশ-আদালত-সরকার একসাথে নিষ্পেষণ চালাচ্ছে: গয়েশ্বর

সব বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে এ মাসেই

লাঠিসোটা লাগবে না, জনস্রোতে সরকারের পতন সম্ভব: নুর


স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রসেনজিৎ দাস জানান, হাসপাতালে আনার আগেই বাবা-মা ও মেয়ে মারা যান। শিশু তাসিয়াকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

গাজীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে যাচ্ছেন।  

খালিয়াজুরী থানার ওসি মো. মজিবুর রহমান বলেন, ‘আমি দাপ্তরিক কাজে নেত্রকোনায় এসেছি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

খালিয়াজুরী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এএইচএম আরিফুল ইসলাম বলেন, ‘বিষয়টি খুবই মর্মান্তিক। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মারা যাওয়া তিনজনের দাফনের জন্য আর্থিক সহায়তার ব্যবস্থা করা হবে। ’ 

news24bd.tv/ তৌহিদ

সম্পর্কিত খবর