তারা যেতে চেয়েছিল জাপানে

অনলাইন ডেস্ক

তারা যেতে চেয়েছিল জাপানে

নিখোঁজ হওয়া তিন তরুণীকে উদ্ধারের পর তাদের ব্যাপারে বিভিন্ন তথ্য জানিয়েছে র‌্যাব।

ঢাকার পল্লবীর তিন কলেজছাত্রীকে উদ্ধারের পর র‌্যাব জানায়, ‘জাপানি সংস্কৃতিতে নারী-পুরুষের সমঅধিকার, স্বাধীনতা, দত্তক হওয়ার সুযোগ এবং অন্যান্য ধর্মীয় ও সামাজিক বিধি-নিষেধ না থাকার কারণেই জাপান যেতে পরিকল্পনা করে তারা।’

পরিকল্পনা অনুযায়ী নৌপথে জাপান যেতে ওই তিন কিশোরী কক্সবাজার পর্যন্তও গিয়েছিল। কিন্তু ভয় পেয়ে তারা ঢাকায় ফিরে আসে। আর ফেরার পর বুধবার ভোরে তাদের মিরপুর বেড়িবাঁধ এলাকা থেকে উদ্ধার করে র‌্যাব।

এই তিন বান্ধবী মিরপুর-পল্লবী এলাকার পৃথক তিনটি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী। গত ১ অক্টোবর সকালে তারা কলেজে যাওয়ার কথা বলে বাসা থেকে ব্যাগ নিয়ে বেরিয়ে যায়।

পরে জানা যায়, তারা সবাই বাসা থেকে টাকা, গয়না ও স্কুল সার্টিফিকেট নিয়ে বেরিয়েছে।

তাদের মধ্যে এক ছাত্রীর বোন অপহরণের অভিযোগ এনে গত ২ অক্টোবর পল্লবী থানায় মামলা করেন। সেই মামলায় ইতোমধ্যে তিন কিশোরীর পরিচিত ও চারজন বন্ধুকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বুধবার র‌্যাব এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, অপহরণ মামলা হওয়ার পর পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব-৪ ছায়া তদন্ত শুরু করেছিল। নানা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব জানতে পারে তারা কক্সবাজারে অবস্থান করছে।সেখান থেকে বুধবার রাতে তারা ঢাকায় ফিরলে র‌্যাব তাদের উদ্ধার করে। এরপর জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় পুরো ঘটনা।

এই কিশোরীরা র‌্যাবকে বলেছে, ধর্মীয় ও সামাজিক নানা নিয়ম মানতে পরিবারের চাপ তাদের বিতৃষ্ণ করে তুলেছিল। সোশাল মিডিয়ায় আসক্তিতে তারা লেখাপড়ার প্রতি আগ্রহও হারিয়ে ফেলে। পাশাপাশি ইন্টারনেটে দেখে জাপানি সংস্কৃতির প্রতি তারা আগ্রহী হয়ে ওঠে।

ইন্টারনেটে জাপানি নাটক-সিনেমা দেখার পাশাপাশি জাপানি ভাষাও আয়ত্ত করা শুরু করে তারা্ এবং সুযোগ খোঁজে কীভাবে জাপান যাওয়া যায়।

র‌্যাব জানায়, দুই মাস আগে তিন বান্ধবী তাদের আরেক বন্ধুর সঙ্গে মিরপুরের দিয়াবাড়ী এলাকায় ঘুরতে গিয়ে হাফসা চৌধুরী নামে ২৪/২৫ বছরের এক নারীর সঙ্গে তাদের পরিচয় হয়, এরপর তারা ফেইসবুকে তাকে বন্ধু করে নেয়।

তিন কিশোরীর আগ্রহ দেখে হাফসাই তাদের জাপানে নেওয়ার পরিকল্পনা সাজায়।

“হাফসা চৌধুরীর পরিকল্পনায় ওই তিন বান্ধবী বাসা থেকে বের হয়ে জাপানে যাওয়ার উদ্দেশে প্রথমে গাবতলীতে যায়। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী যেন তাদের অবস্থান চিহ্নিত না করতে পারে, সেজন্য তারা নিজেদের ই মেইল, ফেইসবুক আইডি ও মোবাইল গাবতলী এলাকায় ধ্বংস করে ফেলে।”

পরে তারা নৌকায় নদী পার হয়ে আমিন বাজার পৌঁছায়। সেখানে হাফসার দুই সহযোগী একটি কালো রঙের নোয়া গাড়ি নিয়ে তৈরি ছিল বলে ওই তিন কিশোরী জানায়। ওই গাড়ি তাদের অচেনা একটি স্থানে নামায়। এরপর অটোরিকশায় করে তাদের নেওয়া হয় কমলাপুর রেলস্টেশনে।

কিন্তু চট্টগ্রামের ট্রেন তখন না পেয়ে তারা বাসে উঠে কুমিল্লার ময়নামতিতে গিয়ে নামে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “পথিমধ্যে তারা নিজেদের পরিচয় গোপনের উদ্দেশ্যে এবং পশ্চিমা সংস্কৃতির আদলে নিজেদের চুল কেটে ফেলে পশ্চিমা বেশ ধারণ করে। কুমিল্লার ময়নামতি ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় পৌঁছে তারা কেডস্, পোশাক ও একটি মোবাইল ফোন কিনে।”

এরপর কুমিল্লা থেকে বাসে চট্টগ্রাম যায় ওই তিন কিশোরী। চট্টগ্রাম সিনেমা প্যালেস মোড়ে নেমে দুটি মোবাইল ফোন কেনে। তারপর বাসে করে কক্সবাজার গিয়ে কলাতলীতে একটি হোটেলে ওঠে। তারা ১ অক্টোবর থেকে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত কক্সবাজারে ছিল। এসময় অবস্থান গোপন রাখতে তারা মোবাইল ইন্টারনেটের পরিবর্তে ওয়াইফাই ব্যবহার করছিল।

ওই তিন কিশোরী বলেছে, ২ অক্টোবর কক্সবাজার সৈকতে ‘হাফসার লোক’ আসিফ ও শফিকের (৩০-৩২ বছর বয়সী) সঙ্গে দেখা করে তারা। ওই দুজন তাদের কাছ থেকে স্বর্ণালঙ্কার ও কিছু নগদ টাকা নিয়ে নিলে তারা আতঙ্কিত হয়ে হোটেলে ফিরে আসে।

র‌্যাব জানায়, হোটেলেই থাকে তারা, কিন্তু হোটেলের আশপাশে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে ঢাকায় ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়ে তারা ৫ অক্টোবর রাতে বাসে ওঠে। ৬ অক্টোবর বুধবার ভোরে ঢাকায় পৌঁছে বেড়িবাঁধ এলাকায় গেলে সেখান থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব জানায়, হাফসা নামের ওই নারীকে শনাক্ত করার পাশাপাশি কক্সবাজারে থাকা ওই দুই ব্যক্তিকে চিহ্নিত করে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

গভীর রাতে ভাবিকে দেবরের ধর্ষণ!

অনলাইন ডেস্ক

গভীর রাতে ভাবিকে দেবরের ধর্ষণ!

দেবরের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন ভাবি। ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ অভিযুক্ত রাজন ফকিরকে (২৪) গ্রেফতার করেছে। রাজন রুপাপাত ইউনিয়নের সূর্যোগ এলাকার বাসিন্দা। গ্রেফতার করে তাকে সোমবার দুপুরে ফরিদপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে। 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ১৬ অক্টোবর রাতে ওই গৃহবধূর স্বামী কাটাগড় মাজারে গান শুনতে যায়। দুই মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে গৃহবধূ (৩০) তার ঘরে ঘুমিয়ে পড়ে। রাত একটার দিকে রাজন ফকির ঘরে প্রবেশ করে তাকে ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে। সকালে তার স্বামী বাড়িতে ফিরলে সব ঘটনা খুলে বলে।  রবিবার রাতে ভাবি বাদী হয়ে দেবর রাজন ফকিরের বিরুদ্ধে বোয়ালমারী থানায় মামলা করেন। পরে পুলিশ রাজন ফকিরকে (২৪) গ্রেফতার করে।


আরও পড়ুন

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

শরীরের ইমিউনিটির উপর বিশ্বাসী অভিনেত্রী করোনায় আক্রান্ত

অনিয়ন্ত্রিত পতিতাবৃত্তি বন্ধ করতে চান স্পেনের প্রধানমন্ত্রী

অবরোধ তুলে নিলো ঢাবি শিক্ষার্থীরা


বোয়ালমারী থানা অফিসার ইন চার্জ মোহাম্মদ নুরুল আলম জানান, মামলার পর অভিযুক্ত রাজনকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সোমবার আসামিকে ফরিদপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে এবং ওই গৃহবধূকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত 

পরবর্তী খবর

শিশু নাতনীকে ধর্ষণের অভিযোগে দাদা গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

শিশু নাতনীকে ধর্ষণের অভিযোগে দাদা গ্রেপ্তার

বরিশালের গৌরনদীতে ১১ বছরের এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী নাতনীকে ধর্ষণের অভিযোগে পালক দাদা সিদ্দিক সরদারকে (৬০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর ইউনিয়নের দক্ষিণ-পশ্চিমপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। 

গ্রেপ্তারকৃত সিদ্দিক ওই গ্রামের মৃত আব্দুল গনি সরদারের ছেলে।

আরও পড়ুন:


ইভ্যালিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের সর্বোচ্চ চেষ্টা করব: বিচারপতি মানিক

করোনা: দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু কমলেও বেড়েছে শনাক্ত

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

ডিএমপি কমিশনার ও র‍্যাব ডিজি’র পদোন্নতি


বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গৌরনদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আফজাল হোসেন।

তিনি জানান, বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী শিশু নাতনীকে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ এনে ভুক্তভোগীর খালা বাদী হয়ে রোববার (১৭ অক্টোবর) রাতে থানায় মামলা করেছেন। এরপর ওই রাতেই অভিযান চালিয়ে মামলার একমাত্র আসামি সিদ্দিক সরদারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, সোমবার (১৮ অক্টোবর) দুপুরে অভিযুক্তকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv/ কামরুল 

পরবর্তী খবর

স্ত্রীর প্রেমিককে হত্যার সিসিটিভি ফুটেজ ভাইরাল : গ্রেপ্তার ২

অনলাইন ডেস্ক

স্ত্রীর প্রেমিককে হত্যার  সিসিটিভি ফুটেজ ভাইরাল : গ্রেপ্তার ২

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় চাঞ্চল্যকর সুজন ফকিরের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী মো. আব্দুল মজিদ এবং এই হত্যাকাণ্ডে সরাসরি অংশ নেওয়া মো. মোয়াজ্জেম হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-১১। ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে নাটোরের বাগাতিপাড়া থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

আজ সোমবার দুপুরে সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজীনগরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‍্যাব-১১ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল তানভীর মাহমুদ পাশা।

গত শনিবার সকালে ফতুল্লা থানাধীন নয়াবাজার এলাকায় হত্যাকাণ্ডটি সংঘটিত হয়। সে ঘটনায় সুজন ফকির নামক এক ব্যক্তির লাশ দেখে তার বাবা সজিব ফকির (৪৫) শনাক্ত করেন। উক্ত ঘটনার অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে নিহতের ছেলে ফতুল্লা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরই মধ্যে হত্যাকাণ্ডের একটি সিসিটিভি ফুটেজে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

র‍্যাব-১১ ও র‍্যাব-৫ এর একটি দল নাটোরের বাগাতিপাড়ায় যৌথ অভিযান চালিয়ে সুজন ফকির হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী, নাটোরের বাগাতিপাড়ার আফাজের ছেলে আব্দুল মজিদ (৩৭) ও হত্যাকাণ্ডে সরাসরি অংশগ্রহণকারী মহাকাতের ছেলে মোয়াজ্জেম হোসেন (২৮) কে গ্রেপ্তার করে।

প্রাথমিক অনুসন্ধান ও আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী মো. আব্দুল মজিদের স্ত্রীর সঙ্গে নিহত সুজন ফকিরের সম্পর্ক ছিল। ফলে মজিদ ও তার স্ত্রীর মধ্যে দাম্পত্য সম্পর্কের অবনতি ঘটে। এর সূত্র ধরেই গত ৫ অক্টোবর আব্দুল মজিদের স্ত্রী কাউকে কিছু না বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। তখন থেকেই মজিদ তার ভাতিজা মোয়াজ্জেম হোসেনকে নিয়ে সুজন ফকিরকে হত্যার পরিকল্পনা করে।


আরও পড়ুন

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

শরীরের ইমিউনিটির উপর বিশ্বাসী অভিনেত্রী করোনায় আক্রান্ত

অনিয়ন্ত্রিত পতিতাবৃত্তি বন্ধ করতে চান স্পেনের প্রধানমন্ত্রী

অবরোধ তুলে নিলো ঢাবি শিক্ষার্থীরা


হত্যাকাণ্ডে অংশগ্রহণকারী আরেক সদস্য মো.হাসান (২২) দেশের বিভিন্ন এলাকায় আত্মগোপন করে আছে। তাকে গ্রেপ্তার করার জন্য র‍্যাব-১১ এর অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত 

পরবর্তী খবর

হাতের ব্যান্ডেজে একাধিক মোবাইল!

অনলাইন ডেস্ক

হাতের ব্যান্ডেজে একাধিক মোবাইল!

ভারত থেকে আসা  এক বাংলাদেশি পাসপোর্ট যাত্রীর ব্যান্ডেজ করা হাতের মধ্য থেকে ১৫ টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করেছে কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যরা। ওই ব্যক্তির নাম সানাউল্লাহ।

আজ সোমবার সকাল সাড়ে ১১টার সময় বেনাপোল চেকপোষ্ট কাস্টমস তল্লাশি কেন্দ্র থেকে তার নিকট থেকে মোবাইল ফোনগুলো উদ্ধার করা হয়।

এরককম অভিনব পন্থায় ভারত থেকে মোবাইলগুলো নিয়ে আনা হয়। এসময় শুল্ক গোয়েন্দাদের সন্দেহ হলে তাকে তল্লাশি করে মোবাইলগুলো উদ্ধার করা হয়।

চট্রগ্রাম জেলার মোহাম্মাদ সানাউল্লাহ সাতকানিয়া থানার সামিয়া পাড়া এলাকার নুরুল আমিনের ছেলে।

কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, পাসপোর্টযাত্রী সানাউল্লাহ কাস্টমস থেকে বের হয়ে হওয়ার পর তার হাতে ব্যান্ডেজ দেখে সন্দেহ হয়। এরপর তাকে তল্লাশি করে ব্যান্ডেজ এর মধ্যে থেকে ১৫টি ভারতীয় মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।


আরও পড়ুন

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজছাত্রকে অপহরণ করে বিয়ে করলো তরুণী!

শরীরের ইমিউনিটির উপর বিশ্বাসী অভিনেত্রী করোনায় আক্রান্ত

অনিয়ন্ত্রিত পতিতাবৃত্তি বন্ধ করতে চান স্পেনের প্রধানমন্ত্রী

অবরোধ তুলে নিলো ঢাবি শিক্ষার্থীরা


এসময় তার ল্যাগেজ থেকে জিন্স প্যান্ট, লেহেঙ্গা, জুতা, স্যান্ডেল, গেঞ্জি, কসমেটিক্সসহ বিভিন্ন পণ্যও উদ্ধার করা হয়।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত 

পরবর্তী খবর

রাজধানীতে অস্ত্র-মাদকসহ ৩ সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

রাজধানীতে অস্ত্র-মাদকসহ ৩ সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার

রাজধানীর কদমতলীতে অস্ত্র ও মাদকসহ তিন শীর্ষ সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। এসময় তাদের কাছ থেকে দুইটি বিদেশি পিস্তল, একটি ওয়ান শ্যুটারগান ও ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর