টাকাপয়সার চেয়েও বেশি আনন্দ দেয় যে তিনটি বিষয়

অনলাইন ডেস্ক

টাকাপয়সার চেয়েও বেশি আনন্দ দেয় যে তিনটি বিষয়

বিনিময়ের মাধ্যম টাকা। বর্তমান সমাজব্যবস্থায় জীবনে চলার ক্ষেত্রে প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রেই টাকার প্রয়োজন। তাই কখনো কখনো টাকা হয়ে ওঠে বিনিময় মাধ্যমের চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ। বহু মানুষের বিশ্বাস, টাকা থাকলেই আনন্দ আছে। টাকা ছাড়া জীবনে কোন আনন্দ নেই!

তবে সম্প্রতি এক সমীক্ষা তাদের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেছে। টাকা থাকা মানেই জীবনে আনন্দ থাকবে- এমন কোন অর্থ নেই। বরং টাকার চেয়েও জীবনে আনন্দদায়ক হতে পারে এমন আরও তিনটি বিষয় রয়েছে। 

‘গ্রেটার গুড সায়েন্স সেন্টার’ নামক গবেষণাকারী সংস্থার সমীক্ষাটি ব্যাখ্যা দিয়েছে এই তিনটি বিষয়ের-

সুসম্পর্ক 

এই তালিকার একেবারে প্রথমেই আছে সুসম্পর্কের বিষয়টি। বিশেষ করে বৈবাহিক বা প্রেমের জীবন যদি সুখের হয়, তা হলে জীবনে আনন্দের মাত্রা বেড়ে যায়। অর্থনৈতিক অভাবও সেখানে বিশেষ চাপ সৃষ্টি করে না। দক্ষিণ আমেরিকার বেশ কয়েকটি দেশে সমীক্ষা চালিয়ে এই দাবির সপক্ষে অনেকগুলি উদাহরণ উঠে এসেছে। দেখা গিয়েছে, শুধুমাত্র ভালবাসার কারণেই মানুষ অর্থের অভাবের মধ্যেও বেশ আনন্দে আছেন।

শরীরচর্চা

নিয়মিত শরীরচর্চা করলে মন ভাল হয়। কারণ মন ভাল রাখার হরমোনগুলির ক্ষরণ বাড়ে এর ফলে। কিন্তু সেই ভাল থাকার পরিমাণ কি টাকার অঙ্কে ব্যাখ্যা করা যাবে? সমীক্ষা এই প্রশ্নেরও উত্তর দিয়েছে। বলা হয়েছে, এক জন গড়পড়তা আমেরিকার নাগরিকের বার্ষিক বেতন যদি ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বাড়ে, তা হলে তিনি যতটা আনন্দ পান, রোজ শরীরচর্চা করলেও ঠিক ততটাই আনন্দ হয়।

যাতায়াতের সময়

তালিকার প্রথম দু’টি বিষয় পড়েই অবাক হতে পারেন কেউ। টাকার চেয়েও বেশি আনন্দ দেয় এগুলি! সে ক্ষেত্রে তৃতীয় বিষয়টি আরও বিস্ময়কর ঠেকতে পারে তাঁদের কাছে। সমীক্ষাটি বলছে, অফিস বা কর্মক্ষেত্র থেকে যাতায়াতের সময় কমলে, মানুষের মন ভাল হতে থাকে। এবং সময় বাড়লে ঠিক উল্টোটা। এটিকেও সংখ্যায় ব্যাখ্যা করা হয়েছে সমীক্ষায়। কর্মক্ষেত্র থেকে যাতায়াতের সময় ২০ মিনিট বেড়ে গেলে মানুষের ঠিক ততটা বিরক্ত লাগে, যতটা বিরক্ত লাগে বার্ষিক বেতন ১৯ শতাংশ কমে গেলে।

আরও পড়ুন:

বিশ্বের ৯০ দেশে নেটফ্লিক্স র‍্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বরে 'স্কুইড গেম'

বঙ্গবন্ধু টানেলের দ্বিতীয় সুড়ঙ্গের খনন শেষ, অপেক্ষা পরিবহন চলাচলের

দ. চীন সাগরে 'অজ্ঞাত বস্তুর' সঙ্গে মার্কিন সাবমেরিনের সংঘর্ষ

সদ্যোজাত সন্তানকে হাসপাতালে ফেলে প্রেমিকের সাথে মা উধাও


অর্থাৎ, টাকা যে জীবনে আনন্দের একমাত্র উৎস নয়, তা পরিসংখ্যানের মাধ্যমে দেখিয়েছে সমীক্ষাটি। নিঃসন্দেহে অর্থনৈতিক উন্নতি হলে আনন্দ বাড়ে। কিন্তু সবচেয়ে বেশি আনন্দ যে যে জিনিসগুলি দিতে পারে, সেই তালিকার প্রথম তিনে নেই টাকা। সেটিই প্রমাণ করেছে এই সমীক্ষা।

news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

বিয়ের সিদ্ধান্তে যাওয়ার আগে যেসব বিষয় খেয়াল রাখবেন

অনলাইন ডেস্ক

বিয়ের সিদ্ধান্তে যাওয়ার আগে যেসব বিষয় খেয়াল রাখবেন

প্রতীকী ছবি

শীত পড়তে শুরু করেছে। আর শীতকাল মানেই বিয়ের মরসুম। বিয়ে হল দু’জন মানুষের আত্মিক বন্ধন। এই বন্ধনকে দৃঢ় করতে দু’জন মানুষের সমান অবদান থাকে। কোনও একজন যদি খানিক অন্য পথে হাঁটতে থাকেন তাহলে সম্পর্ক তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়তে পারে। তাই শুধু বিয়ের দিনেই নয়, সারাজীবন ভাল থাকতে জীবনসঙ্গীকে নির্বাচনে বাড়তি সতর্কতা প্রয়োজন। প্রকৃত জীবনসঙ্গী পেতে যে বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হবে চলুন জেনে নেই।   

কথা দিয়ে কথা না রাখা: আপনার সঙ্গী যদি কোনও বিষয়ে আপনাকে কথা দিয়ে বার বার ভঙ্গ করেন তাহলে বুঝবেন তিনি হয়তো কিছু লুকোতে চাইছেন আপনার কাছে।

অস্বাভাবিক ব্যবহার করা: বন্ধু বা আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতে অনীহা দেখালে তা নিয়ে ভেবে দেখা উচিত।আপনাকেও যদি তাঁর বন্ধুবান্ধব বা আত্মীয়দের সঙ্গে মিশতে বাধা দেন, তা হলেও বিষয়টা সন্দেহজনক।

বার বার ক্ষমা চাওয়া: যদি আপনার সঙ্গী একই ভুলের পুনরাবৃত্তি ঘটিয়ে থাকেন এবং বার বারই ক্ষমা চেয়ে নেন, সেক্ষেত্রে তাঁকে জীবনসঙ্গী হিসেবে বাছার আগে ভেবে নিন।

আপনাকে নিয়ন্ত্রণ করছেন: আপনার পোশাক-আশাক, খাওয়া-দাওয়া, গতিবিধি যদি আপনার সঙ্গী দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় সেক্ষেত্রে সেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে পারেন।

আরও পড়ুন:


পেয়ারার যত উপকারিতা!


মিথ্যে কথা বলা: লক্ষ্য রাখুন কারণে-অকারণে আপনার সঙ্গী মিথ্যে কথা বলছেন না তো? যদি তা হয়ে থাকে তা সত্যিই ভাবনার বিষয়।

আপনার মতামত তাঁর কাছে গুরুত্ব পাচ্ছে না: সঙ্গীর আত্ম অহংকারের কারণে তাঁর কাছে যদি আপনার মতামত গুরুত্ব না পায় তা হলেও আরও এক বার ভেবে নিন।

news24bd.tv রিমু      

পরবর্তী খবর

দাড়িতে খুশকির সমস্যা সমাধানে সহজ উপায়

অনলাইন ডেস্ক


দাড়িতে খুশকির সমস্যা সমাধানে সহজ উপায়

দাড়িতে খুশকির সমস্যা

মাথার খুশকির সঙ্গে আমরা পরিচিত হলেও অনেকের দাড়িতেও এ সমস্যা দেখ দিতে পারে।  বিষয় নিয়ে একটি ভিডিও তৈরি করে ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন ভারতীয় চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মাধুরী আগারওয়াল। আর তারই আলোকে একটি প্রতিবেদন তৈরি করেছে ভারতীয় গণমাধ্যম দি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

দাড়িতে খুশকির সমস্যা দেখা দিলে তা দূর করতে জেনে নিন এ বিশেষজ্ঞের টিপস—

১. দাড়িতে খুশকির সমস্যা দেখা দিলে আপনার মুখ ধোয়ার জন্য খুব গরম বা খুব ঠাণ্ডা পানি ব্যবহার করবেন না। পরিবর্তে হালকা গরম পানি ব্যবহার করুন।  কারণ এটি ত্বকের প্রাকৃতিক তেলগুলোকে না উঠিয়ে ফেলে ত্বককে ডিহাইড্রেটেড করবে না।

২. দাড়ির খুশকি দূর করতে নিয়মিত শুকনো এক্সফোলিয়েশন ব্যায়াম করা বা মুখে মাসাজ করা উচিত।

৩. মুখ পরিষ্কার করতে ভারসাম্যপূর্ণ পিএইচ সমৃদ্ধ ক্লিনজার ব্যবহার করতে হবে। কারণ এটি ত্বকের হাইড্রেশনের মাত্রা অক্ষত রাখতে নিশ্চিত করবে। আর পিএইচ সমৃদ্ধ ক্লিনজার ব্যবহার করলে তা মুখের ত্বককে আরও বেশি কোমল এবং মসৃণ করে তুলবে।


আরও পড়ুন:

ক্ষেপলেন পাপন, বললেন এতো বাজে পারফরমেন্স ৮ বছরে দেখিনি

কুয়েটে শিক্ষকের মৃত্যু: ছাত্রলীগ নেতাসহ ৯ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

ইউপি নির্বাচনের পঞ্চম ধাপে নৌকা পেলেন যারা


৪. খুশকিবিরোধী সাবান ও শ্যাম্পু ব্যবহার করলে আপনার দাড়ি শুকনো হয়ে থাকবে। তাই এগুলো ব্যবহার করা এড়িয়ে চলুন এবং আপনার মুখ নিয়মিত ধোয়ার অভ্যাস করুন।

৫. দাড়ি থেকে খুশকি দূরে রাখতে আপনার দাড়িকে লোশন দিয়ে ময়শ্চারাইজ করুন। এটি দিনে ২-৩ বার করলে তা দাড়ি ভালো রাখতেও সহায়তা করে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

রিবন্ডেড চুলের যত্ন নেওয়ার টিপস

অনলাইন ডেস্ক


রিবন্ডেড চুলের যত্ন নেওয়ার টিপস

ফাইল ছবি

শখের বসে হোক কিংবা অন্য কোনো কারণে অনেকেই চুল রিবন্ডিং করেন। কিন্তু এরপর যে চুলটির বিশেষ যত্ন নিতে হয় তা আমাদের অনেকেরই অজানা। ফলে চুল দুর্বল হয়ে যায়, শুরু হয় চুল পড়া। 

রিবন্ডেড চুলের যত্ন কিভাবে নিতে হয় আসুন সেটা জেনে নেই:-

১. রিবন্ডিং করা চুলের যত্নে অয়েল ম্যাসাজ খুব গুরুত্বপূর্ণ। সপ্তাহে তিন দিন শ্যাম্পু করার এক ঘণ্টা আগে চুলে অয়েল ম্যাসাজ করুন। এতে চুলের স্বাস্থ্য ভালো থাকে। 

২. গোসলের আগে গরম পানিতে তোয়ালে চুবিয়ে আধা ঘণ্টা চুল পেঁচিয়ে রাখুন। এরপর শ্যাম্পু করুন। এতে রক্ত সঞ্চালন বাড়বে। চুলের রুক্ষ ভাব কমবে। তবে ভেজা তোয়ালে অনেকক্ষণ পেঁচিয়ে রাখবেন না, এতে চুলের গোড়া দুর্বল হয়ে যায়।

৩.রিবন্ডেড চুলের জন্য হালকা শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে। আজকাল মার্কেটে রিবন্ডেড হেয়ারের জন্য ভালো মানের শ্যাম্পু পাওয়া যায়। শ্যাম্পু করার পর অবশ্যই কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হবে। রিবন্ডিং করা চুলের জন্য আলাদা শ্যাম্পু কন্ডিশনার পাওয়া যায়। সেগুলো ব্যবহার করুন।

৪.দিনে তিনবার মোটা দাঁতের চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ে নিন, এতে মাথার ত্বকের রক্ত সঞ্চালন বাড়ে। তবে ভেজা চুল আঁচড়ানো যাবে না। এতে চুলে অনেক ক্ষতি হয়।

আরও পড়ুন:


আফ্রিকার ৭ দেশ থেকে এলেই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন

দুই হাত হারানো ফাল্গুনীকে বিয়ে করলো এনজিও কর্মী সুব্রত

স্বাধীনতার ৫০ বছরে স্বাস্থ্যখাতে অভাবনীয় সাফল্য

ঢাকার যানজটেই শেষ জিডিপির প্রায় ৮৭ হাজার কোটি টাকা


৫. অনেকেই চুল শুকানোর জন্য হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করেন। রিবন্ডিং করা চুলে এটা ব্যবহার করা যাবে না। চুল তাপ থেকে দূরে রাখতে হবে। অতিরিক্ত তাপে চুল ভেঙে যাবে। চুল শুকানোর জন্য তোয়ালে ব্যবহার করতে হবে। তবে তোয়ালে দিয়ে চুল জোরে জোরে ঘষা যাবে না।

৬. চুলের আগা কেটে ফেলার পর চুলে প্রোটিন প্যাক, ডিপ কন্ডিশনিং কিংবা হেয়ার স্পা করতে পারেন। যেমন ডিম একটি, ক্যাস্টর অয়েল এক চামচ, লেবুর রস এক চামচ ও মধু এক চামচ একসঙ্গে মিশিয়ে স্কাল্পে লাগান। এরপর শাওয়ার ক্যাপ বা তোয়ালে দিয়ে মাথা ঢেকে রাখুন। এক ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করুন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

চর থাপ্পড়ে বাড়বে সৌন্দর্য্য, আগ্রহ বাড়ছে নারীদের

অনলাইন ডেস্ক

চর থাপ্পড়ে বাড়বে সৌন্দর্য্য, আগ্রহ বাড়ছে নারীদের

থাপ্পড় থেরাপি।

ত্বকের সৌন্দর্য্য ধরে রাখতে মানুষ কত কিছুই না করে থাকে। ছুটে যায় দেশ-বিদেশে। খরচ করে কাড়িকাড়ি টাকা। কিন্তু এবার  নিজেকে সুন্দর করে তুলতে ‘থাপ্পড় থেরাপি’ নামে একটি পদ্ধতি আবিষ্কার করা হয়েছে। অবাক হবেন নিশ্চয়।

সৌন্দর্য্য ধরে রাখতে অ্যারোমা থেরাপির পাশাপাশি জায়গা করে নিয়েছে ‘থাপ্পড় থেরাপিও’।

মূলত দক্ষিণ কোরিয়ার নারীরাই এই থেরাপির প্রচলন শুরু করেন।

ত্বকের যত্ন নিতে সেখানকার নারীরা নিজেদের গালে থাপ্পড় মারতেন। তারপর এই থেরাপি শুধু দক্ষিণ কোরিয়াতেই সীমাবদ্ধ থাকেনি, ধীরে ধীরে গোটা বিশ্বেও বেশ জনপ্রিয় হয়।

রূপচর্চার অঙ্গ এই ‘থাপ্পড় থেরাপির’ পদ্ধতি হলো হাতের তালুর দ্বারা নিজের উভয় গালেই হাল্কা হাতে, আলতো করে চড় মারা।

আরও পড়ুন: 


৪ অভিজ্ঞ ছাড়াই ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে লড়বে পাকিস্তান


যেভাবে কাজ করে থাপ্পড় থেরাপি

হাতের তালু দিয়ে গালে থাপ্পড় মারার ফলে মুখের রক্ত সঞ্চালন ঠিক থাকে। ত্বককে ভীতর থেকে পরিষ্কার করতে সাহায্য করে এই পদ্ধতি। মুখের প্রতিটি অংশে রক্ত প্রবাহ বেড়ে যায়। ফলে ত্বক হয়ে ওঠে জেল্লাদার ও উজ্জ্বল।

news24bd.tv/ তৌহিদ

পরবর্তী খবর

কোন বাদাম উপকারী: কাঁচা নাকি ভাজা?

অনলাইন ডেস্ক

কোন বাদাম উপকারী: কাঁচা নাকি ভাজা?

বাদাম

বাদাম স্বাস্থ্যকর স্ন্যাকস হিসেবে বেশ সুপরিচিত। এতে রয়েছে ক্যালরি, প্রোটিন, ফ্যাট, কার্বোহাইড্রেট, ফাইবার, ভিটামিন ই, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, কপার, ম্যাংগানিজ ইত্যাদি। 

বাদাম থেকে শরীরের জন্য উপকারী কোলেস্টেরল পাওয়া যায়। এছাড়া এতে রয়েছে সি-রিঅ্যাক্টিভ প্রোটিন ও ইন্টারলিউকিন  যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে। ফাইবার সমৃদ্ধ বাদাম দূর করে হজমের গণ্ডগোল।

বাদাম খেলে হৃদপিণ্ড সক্রিয় থাকে। নিয়মিত বাদাম খেলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। এমনকি রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে বাদাম। 

বাদাম কাঁচা বা ভাজা দুই অবস্থাতেই খাওয়া যায়। তবে কোন বাদাম খাওয়া বেশি উপকারী? 

দুই ধরণের বাদামেই রয়েছে উপকারিতা। কাঁচা বাদামে অনেক সময় ব্যাকটেরিয়া থাকে যেগুলো স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। আবার ভাজা বাদাম হারিয়ে ফেলে কিছু পুষ্টিগুণ।

ফলে বাইরে থেকে সরাসরি ভাজা বাদাম না কিনে কাঁচা বাদাম কিনে তা বাড়িতে ভেজে খেতে পারেন। এতে বাইরের অতিরিক্ত লবণ, চিনি কিংবা তেল থেকে মুক্ত থাকা যাবে।

আরও পড়ুন:

আইপিএলে নিজের বেতন কমালেন কোহলি


news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর