স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে গৃহবধূকে পল্লিচিকিৎসকের ধর্ষণ!
স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে গৃহবধূকে পল্লিচিকিৎসকের ধর্ষণ!

স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে গৃহবধূকে পল্লিচিকিৎসকের ধর্ষণ!

অনলাইন ডেস্ক

স্থানীয় এক পল্লিচিকিৎসকের বিরুদ্ধে যশোরের মনিরামপুর উপজেলায় এক গৃহবধূকে (২০) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনায় আসামিদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আজ রোববার দুপুরে অভিযুক্তদের আদালতে হাজির করা হয়েছে। গত শনিবার রাতে এ ঘটনায় গৃহবধূর ভাই বাদী হয়ে ২ জনকে অভিযুক্ত করে মনিরামপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, উপজেলার কোদলাপাড়া গ্রামের পল্লিচিকিৎসক বিল্লাল হোসেন (৫০) ও তার সহযোগী বাগডোব গ্রামের ইজিবাইক চালক দ্বীন মোহাম্মদ দিলু (৪০)। স্থানীয় রোহিতা বাজারে ফার্মেসি রয়েছে বিল্লাল হোসেনের। সেখানে ওষুধ বিক্রির পাশাপাশি রোগী দেখেন তিনি।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) জিয়াউল হক জানান, প্রায় ৭ থেকে ৮ মাস আগে যশোর সদর উপজেলার পুলেরহাট এলাকায় বিয়ে হয় ওই গৃহবধূর। এক সপ্তাহ আগে গত সোমবার দুপুর ১২টার দিকে পুলেরহাট থেকে দ্বীন মোহাম্মদ দিলুর ইজিবাইকে ওই গৃহবধূকে তুলে দেন তার স্বামী। তিনি কোদলাপাড়া এলাকায় বাবার বাড়িতে আসছিলেন। একপর্যায়ে দিলু জানতে পারেন ওই গৃহবধূর সন্তান হয় না। সেসময় ভালো চিকিৎসার কথা বলে রোহিতা বাজারে বিল্লালের কাছে তাকে নিয়ে যান দিলু। পরে বিল্লাল কৌশলে গৃহবধূকে বাজারের পাশে নিজের বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করেন। তিনি বলেন, বাড়িতে স্ত্রী সন্তান না থাকায় সেখানে ঘরে আটকে রেখে ভুক্তভোগী গৃহবধূকে তাকে ধর্ষণ করা হয়। সে সময় ইজিবাইক চালক বাড়ির বাইরে ছিলেন।

পুলিশ জানায়, এক সপ্তাহ আগের ঘটনা হলেও সংসার ভাঙার ভয়ে বিষয়টি কাউকে বলতে পারেননি ভুক্তভোগী। ইজিবাইক চালক দিলুকে বিল্লাল টাকা না দেয়ায় তিনি ঘটনাটি ফাঁস করে দেন। পরে গত শনিবার ওই গৃহবধূ তার ভাইয়ের কাছে ঘটনা স্বীকার করেন।


আরও পড়ুন:

চীনের কাছে মাথা নত করবে না তাইওয়ান

মৃত মায়ের গলে যাওয়া দেহ নিয়ে বাঁচিয়ে তোলার প্রার্থনা মেয়েদের!

মদ্যপানে বিষক্রিয়ায় ২৯ জনের মৃত্যু!

বিশ্বের সবচেয়ে বড় ঠোঁট বানানোর নেশায় তরুণী


খেদাপাড়া পুলিশ ক্যাম্পের উপ-পরিদর্শক (এসআই) গোলাম রসুল বলেন, রোহিতা বাজারে লোকসমাগমের সংবাদ পেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য শনিবার সন্ধ্যার পর ঘটনাস্থলে গিয়ে ভুক্তভোগী গৃহবধূর কাছে ঘটনা শুনি। পরে থানায় ওসিকে ঘটনা জানিয়ে ভুক্তভোগীকে থানায় পাঠাই।

মনিরামপুর থানার ওসি নূর-ই-আলম সিদ্দীকি বলেন, ইতোমধ্যে আসামিদের গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ভুক্তভোগীর জবানবন্দি রেকর্ড ও ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত 

;