এবার ফেসবুকের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন নোবেলজয়ী সাংবাদিক
এবার ফেসবুকের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন নোবেলজয়ী সাংবাদিক

এবার ফেসবুকের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন নোবেলজয়ী সাংবাদিক

অনলাইন ডেস্ক

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকের বিরুদ্ধে বিভাজন সৃষ্টি, শিশুদের ক্ষতি করা, গণতন্ত্রকে দুর্বল করাসহ নানা ধরনের অভিযোগ উঠেছে। ফেসবুককে গণতন্ত্রের জন্য হুমকি হিশেবে মন্তব্য করেছেন সদ্য নোবেলজয়ী সাংবাদিক মারিয়া রেসা। রয়টার্স জানায়, মারিয়া জানিয়েছেন ভুয়া তথ্য ছড়িয়ে পড়া বন্ধ করতে ব্যর্থ হয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।    

ফেসবুক বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম।

প্রতিষ্ঠানের তথ্য অনুযায়ী মাসে তাদের দুইশ সত্তর কোটি নিয়মিত ব্যবহারকারী রয়েছে। লাখ লাখ মানুষ এই প্রতিষ্ঠানে হোয়াটসঅ্যাপ এবং ইন্সটাগ্রামের মতো পণ্যও ব্যবহার করে। কিন্তু ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তা রক্ষা করতে ব্যর্থতা, ভুয়া তথ্য ছড়ানো বন্ধে যথেষ্ট ব্যবস্থা না নেয়ার অভিযোগ রয়েছে ফেসবুকের বিরুদ্ধে।
 
আর এবার এই ফেসবুকের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন সদ্য নোবেলজয়ী সাংবাদিক মারিয়া রেসা।
বিশ্বে সংবাদের সবচেয়ে বড় সরবরাহকারী ফেসবুক। প্রতিষ্ঠানটির অ্যালগরিদম ভুয়া তথ্য বন্ধে সফল হয়নি। আপনার কাছে যদি তথ্য না থাকে, তবে আপনি প্রকৃত সত্য জানতে ও বিশ্বাস স্থাপন করতে পারবেন না। আর এসবের অভাব গণতন্ত্রকে দুর্বল করে তোলে।

আরও পড়ুন:

চীনের কাছে মাথা নত করবে না তাইওয়ান

মৃত মায়ের গলে যাওয়া দেহ নিয়ে বাঁচিয়ে তোলার প্রার্থনা মেয়েদের!

মদ্যপানে বিষক্রিয়ায় ২৯ জনের মৃত্যু!

বিশ্বের সবচেয়ে বড় ঠোঁট বানানোর নেশায় তরুণী


ফেসবুক শিশুদের ক্ষতি করছে, গণতন্ত্রকে দুর্বল করছে বলে যুক্তরাষ্ট্রের আইনপ্রণেতাদের কাছে অভিযোগ করেছেন প্রতিষ্ঠানটির সাবেক এক কর্মী। সাম্প্রতিক সময়ে তিনি ফেসবুকের অভ্যন্তরীণ অনেক নথি গণমাধ্যমকে দিয়ে বলে যাচ্ছেন সোস্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মটির নেতিবাচক ভূমিকার কথা।

টাইম ম্যাগাজিনের সাম্প্রতিক সংখ্যার প্রচ্ছদে মার্ক জাকারবার্গের একটি ছবি প্রকাশ করা হয়েছে। সেই ছবির ওপর একটি অ্যাপের চিত্রকে বেশি প্রাধান্য দিয়েছে টাইম ম্যাগাজিন।

নিজেদের পরিষেবা নিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে আইনি লড়াই চালাচ্ছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর নিজস্ব নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা যে কাজ করছে না, তা বিশ্লেষকরা বারবার সতর্ক করছে। তারা বলছে, ফেসবুকে পরিবর্তন আনা উচিত এবং এটির ওপর নজরদারি বাড়ানোর আহ্বান জানানো হয়েছে।

 news24bd.tv/এমি-জান্নাত    

;