মার্ক জাকারবার্গ কী তার ফেসবুক পোস্টের মন্তব্য পড়েন?
মার্ক জাকারবার্গ কী তার ফেসবুক পোস্টের মন্তব্য পড়েন?

মার্ক জাকারবার্গ কী তার ফেসবুক পোস্টের মন্তব্য পড়েন?

অনলাইন ডেস্ক

গত সপ্তাহে ফেসবুকের পরিষেবাগুলো পরপর দুবার বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এসময় বিশ্বজুড়ে আলোড়ন সৃষ্টি হয় এবং লাখ লাখ মানুষ বিভিন্ন সমস্যায় পড়ে।

এ ঘটনায় ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ দুঃখপ্রকাশ করে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। তার এই পোস্টে প্রায় ৮২৭০০০ মানুষ মন্তব্য করে সাড়া দিয়েছে।

বেশিরভাগ মন্তব্যেই অভিযোগ করা হয়।

কিন্তু মার্ক জাকারবার্গ সেগুলো পড়েন কিনা তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বিবিসির রিপোর্টার জো টিডি।

কারণ, মন্তব্যগুলো একটানা পড়তে তার প্রায় ১৪৫ দিন সময় লাগবে।

ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ এবং ইনস্টাগ্রামের প্রায় ছয় ঘণ্টা অফলাইনে থাকার পর ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ পোস্ট করেছেন, "আজকের ফেসবুক বিঘ্নের জন্য দুঃখিত। "

এটির কারণ হিসেবে তিনি নিয়মিত যারা এই দায়িত্ব পালন করছেন, তাদের কাজকে দায়ী করেন। সেখানে প্রকৌশলীরা বলছে, অনিচ্ছাকৃতভাবে বৃহত্তর ইন্টারনেট থেকে ফেসবুক ডেটা সেন্টারগুলিকে বিচ্ছিন্ন করা হয়েছিল।

প্রায় ৮২৭০০০ মানুষ মি. জাকারবার্গের ক্ষমা প্রার্থনায় সাড়া দিয়েছেন।

নাম্বিয়া থেকে একজন লিখেছেন,  আমার পরিবারের সাথে কথা বলতে না পারাটা খুব অপ্রত্যাশিত ছিলো।

একজন ইতালীয় মন্তব্য করেন: আমি আমার ফোনটি মেরামত করার দোকানে নিয়ে গিয়েছিলাম এটা নষ্ট হয়েছে ভেবে।

একজন নাইজেরিয়ান ব্যবসায়ী পোস্ট করেছেন, সবাই খুব বিরক্ত এবং ক্ষুব্ধ যে, আপনি একই সময়ে সবকিছু বন্ধ করতে পারবেন না। এর প্রভাব আসলেই নজিরবিহীন।

ভারতের আরেকজন তার ব্যবসায় ব্যাঘাতের জন্য ক্ষতিপূরণ চেয়েছে।


আরও পড়ুন

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের চাকরি ছাড়লেন নিরব

মক্কা ও মদীনার দুই পবিত্র মসজিদে ২০০ এর বেশি নারীর নিয়োগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ফিল্মি কায়দায় তরুণী অপহরণকারী বাড্ডা থেকে গ্রেপ্তার

স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এই সপ্তাহেই, কেন্দ্র আলাদা


এটি ইতিমধ্যেই স্পষ্ট যে, কোটি কোটি মানুষ এই পরিষেবাগুলোর উপর যোগাযোগ এবং ব্যবসার জন্য কতটা নির্ভরশীল হয়ে উঠেছে। তাই এটি মজা করার কোন বিষয় নয়।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এটাও স্পষ্ট যে, এই বিভ্রাট ঘন ঘন হচ্ছে।

ডাউন ডিটেক্টরের চিফ টেকনিক্যাল অফিসার লুক ডেরিকক্স বলেন, "গত কয়েক বছরে আমরা দেখেছি যে, ইন্টারনেট সামগ্রীর বড় অংশ সরবরাহ করার জন্য অল্প সংখ্যক নেটওয়ার্ক রয়েছে এবং সেগুলোর উপরই নির্ভরশীলতা বেড়েছে।

তিনি বলেন, যখন এগুলোর মধ্যে একটিতে সমস্যা হয়,অন্যান্য লক্ষ লক্ষ  পরিষেবাগুলিকে প্রভাবিত করে। উদাহরণস্বরূপ, ফেসবুক এখন স্মার্ট টেলিভিশনের মতো বিভিন্ন পরিষেবা এবং ডিভাইসে সাইন-ইন করতে ব্যবহৃত হয়।

যখন ইন্টারনেটের জন্য ফেসবুকের কোনো সমস্যা হয়, তখন এটি  কিন্তু অর্থনীতির জন্য বড় প্রভাব সৃষ্টি করে। তাই এই ব্যপারটি প্রশ্নবিদ্ধ যে, যিনি ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী, সেই মার্ক জাকারবার্গই কী সেটিতে সময় কম দিচ্ছেন?

news24bd.tv/এমি-জান্নাত