সঞ্চালন লাইনের অভাবে পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের বিদ্যুৎ যাচ্ছে না জাতীয় গ্রিডে

সঞ্চালন লাইনের অভাবে পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের বিদ্যুৎ যাচ্ছে না জাতীয় গ্রিডে

Other

পায়রা ১৩২০ মেগাওয়াট তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রথম ফেইজের দুটি ইউনিটই এখন উৎপাদনে সক্ষম। তবে সঞ্চালন লাইন নির্মিত না হওয়ায় সক্ষমতার মাত্র অর্ধেক উৎপাদন করতে হচ্ছে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটির। সম্পূর্ণ উৎপাদনে গেলেও এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মাধ্যমে পরিবেশের কোন ক্ষতি হবেনা বলে দাবী কর্তৃপক্ষের।  

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় নির্মিত পায়রা ১৩২০ মেগাওয়াট তাপ বিদ্যুৎ কেšদ্রটির একটি ইউনিট গত আট ডিসেম্বর থেকে বাণিজ্যিকভাবে জাতীয় গ্রীডে বিদ্যুৎ সরবরাহ করছে।

বাংলাদেশ-চায়না পাওয়ার কেম্পানী লিঃ এ বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি নির্মাণ করে। এর একটি ইউনিট বৈশ্বিক করোনা পরিস্থিতিতেও নির্দিষ্ট সময়ে উৎপাদনে সক্ষম হতে পেরে খুশি সংশ্লিষ্টরা।

২০১৭ সাল থেকে এর নির্মাণ কাজ শুরু হয়ে এর প্রথম ইউনিটটি বিদ্যুৎ উৎপাদনে সক্ষম হয় গত বছরের জানুয়ারিতে। কিন্তু গ্রীডের অপ্রতুলতা এবং গোপালগঞ্জ থেকে ঢাকার আমিন বাজার পর্যন্তসঞ্চালন লাইনের অভাবে পুরো ১৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ বানিজ্যিকভাবে জাতীয় গ্রীডে দিতে পারছেনা কেন্দ্রটি। কেবল একটি ইউনিটের মাধ্যমে গোপালগঞ্জে নির্মিত গ্রীডের চাহিদা অনুযায়ী গড়ে ৬০০ মেগাওয়াট পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ করা যাচ্ছে।

আরও পড়ুন:


ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইপিএল নিয়ে জুয়া, ৩ জনের সাজা

চট্টগ্রাম আদালত এলাকায় বোমা হামলা মামলার রায় আজ

টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেতে আদালতে ট্রাম্প

যুবলীগ নেতার সঙ্গে ভিডিও ফাঁস! মামলা তুলে নিতে নারীকে হুমকি


 

পরিবেশ দূষণকারী ক্ষতিকর পদার্থ খুব কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে বলে দাবি বিদ্যুৎ কেন্দ্রটির কর্তৃপক্ষের। তারা দাবি করছেন, সম্পূর্ণভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদনে গেলেও তা পরিবেশের কোনো ক্ষতি করবেনা।

শিগগিরি জাতীয় গ্রীডের সাথে সঞ্চালন লাইন নির্মিত হবে এবং সম্পূর্ণ ১৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে বলে আশা এর কর্তৃপক্ষের।

news24bd.tv/আলী