পারল না বাংলাদেশ

অনলাইন ডেস্ক

পারল না বাংলাদেশ

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলতে নেমেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু বিশ্বকাপের আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশকে হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা।

আবুধাবির টলারেন্স ওভালে টস জিতে  আগে ব্যাট করতে নামে টাইগাররা। উইকেটে থিতু হয়েও ইনিংস বড় করতে পারেননি বাংলাদেশের কোনো ব্যাটসম্যান। ইনিংস সর্বোচ্চ ৩৪ রান আসে সৌম্য সরকারের ব্যাট থেকে। বোলাররা শুরুতে ভালো করলেও খেই হারান শেষদিকে। ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৪৭ রান জড়ো করে টাইগাররা। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৪ রান করেন সৌম্য সরকার। ২৬ বলের মোকাবেলায় হাঁকান ১টি চার ও ২টি ছক্কা।

এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে শেখ মেহেদী হাসান অপরাজিত ১৬, লিটন দাস ১৬ ও নুরুল হাসান সোহান ১৫ রান করেন। শ্রীলঙ্কার পক্ষে দুশমন্থ চামিরা শিকার করেন তিনটি উইকেট।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৮০ রানের মধ্যে ৬ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের জয়কে তখন মনে হচ্ছিল নিছক সময়ের ব্যাপার। সৌম্য-মেহেদীদের সৃষ্টি করা সেই চাপ শক্ত হাতে সামাল দেন অভিষকা ফার্নান্দো ও চামিকা করুনারত্নে।

আরও পড়ুন:


ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইপিএল নিয়ে জুয়া, ৩ জনের সাজা

চট্টগ্রাম আদালত এলাকায় বোমা হামলা মামলার রায় আজ

টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেতে আদালতে ট্রাম্প

যুবলীগ নেতার সঙ্গে ভিডিও ফাঁস! মামলা তুলে নিতে নারীকে হুমকি


 

সপ্তম উইকেটে দুজনের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের মুঠো থেকে ফসকে যায় ম্যাচ। শ্রীলঙ্কা লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ১৯তম ওভারের শেষ বলে। শেষপর্যন্ত জয় নিয়েই মাঠ ছাড়েন অভিষকা ও চামিকা। তাসকিন-শরিফুল-নাসুমরা রানের লাগাম টেনে ধরতে পারেননি।

অভিষকা ৪২ বলে ৬২ রান করে অপরাজিত থাকেন। তার ইনিংসে ছিল ২টি চার ও ৩টি ছক্কা। ১টি করে চার-ছক্কায় ২৫ বলে ২৯ রানে অপরাজিত থেকে জয়ে দারুণ অবদান রাখেন চামিকা। । বাংলাদেশের হয়ে সৌম্য নেন সর্বোচ্চ ২ উইকেট।


বাংলাদেশ একাদশ : লিটন দাস (অধিনায়ক), নাঈম শেখ, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, আফিফ হোসেন ধ্রুব, নুরুল হাসান সোহান (উইকেটরক্ষক), শামীম হোসেন পাটোয়ারি, তাসকিন আহমেদ, শেখ মেহেদী হাসান, নাসুম আহমেদ ও শরিফুল ইসলাম।

শ্রীলঙ্কা একাদশ : কুশল পেরেরা (উইকেটরক্ষক), অভিষকা ফার্নান্দো, ভানুকা রাজাপক্ষে, দাসুন শানাকা (অধিনায়ক), ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা, চামিকা করুনারত্নে, দুশমন্থ চামিরা, মাহিষ থিকশানা, দীনেশ চান্দিমাল, লাহিরু কুমারা, পাথুম নিসাঙ্কা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
বাংলাদেশ: ২০ ওভারে ১৪৭/৭ (নাঈম ১১, লিটন ১৬, সৌম্য ৩৪, মুশফিক ১৩, আফিফ ১১, সোহান ১৫, শামীম ৫, মেহেদি ১৬*, তাসকিন ৪*; চামিকা ২-০-১১-০, চামিরা ৪-০-২৭-৩, কুমারা ৪-০-২৪-১, মাহিশ ৪-০-৩১-১, হাসারাঙ্গা ৪-০-২৪-১, শানাকা ২-০-১৭-১)

শ্রীলঙ্কা: ১৯ ওভারে ১৪৮/৬ (কুশল পেরেরা ৪, নিশানকা ১৫, চান্দিমাল ১৩, আভিশকা ৬২*, হাসারাঙ্গা ৭, রাজাপাকসে ০, শানাকা ৭, চামিকা ২৯*; তাসকিন ৪-০-২৫-১, নাসুম ৪-০-৩৪-০, মেহেদি ৩-০-২২-১, শরিফুল ৪-০-৪১-১, সৌম্য ৩-০-১২-২, আফিফ ১-০-৮-০)

ফল : শ্রীলঙ্কা ৪ উইকেটে জয়ী।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

শোয়েব মালিককে দেখে 'দুলাভাই' স্লোগান দিল ভারতীয়রা (ভিডিও)

অনলাইন ডেস্ক

শোয়েব মালিককে দেখে 'দুলাভাই' স্লোগান দিল ভারতীয়রা (ভিডিও)

এবারের বিশ্বকাপই খেলার কথা ছিলো না তার। বিশ্বকাপের আগমুহূর্তে পাকিস্তানের তারকা ব্যাটসম্যান শোয়াইব মাকসুদ চোটের কারণে ছিটকে পড়ায় শেষ মুহূর্তে কপাল খুলে যায় শোয়েব মালিকের। মাঠে নেমেছিলেন ভারতের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচেও। আর এতেই এই অদ্ভুত অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হন তিনি।

ম্যাচের পর স্বয়ং তার স্ত্রী ভারতীয় তারকা টেনিস খেলোয়াড় সানিয়া মির্জা একটি ভিডিও রিটুইট করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তা ভাইরালও করেছেন। মুবিন নামে এক ব্যক্তি টুইটারে গ্যালারি থেকে নেওয়া একটি ভিডিও পোস্ট করেন। যেখানে দেখা যায়, বাউন্ডারির ধারে ফিল্ডিং করছেন শোয়েব মালিক। গ্যালারি থেকে এক দল সমর্থক তখন তাকে ‘দুলাভাই’ বলে ডাকছেন। শোয়েব আসলে সানিয়ার স্বামী বলেই ভারতীয় সমর্থকরা তাকে এই নামে ডাকছিলেন। মাঝে এক বার ঘুরে তাকান শোয়েব। তাই দেখে আরও চিৎকারে ফেটে পড়েন সমর্থকরা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা এক প্রতিবেদনে জানায়, ভিডিও দেখে টুইটারে নিজের প্রতিক্রিয়াও জানিয়েছেন সানিয়া। সেই পোস্টটি রিটুইট করে হাসির ইমোজি দিয়েছেন। সঙ্গে দু’টি ভালবাসার ইমোজিও রয়েছে। টুইটারেও সমর্থকরা এই পোস্ট লুফে নিয়েছেন। দু’দেশের সমর্থকদের একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধাই এই পোস্টের মাধ্যমে ফুটে উঠেছে বলে জানিয়েছেন তারা।

ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন

উল্লেখ্য, ভারতের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা শোয়েবের ব্যক্তিগত জীবনেও রয়েছে। স্ত্রী ভারতের হায়দরাবাদের টেনিস সুন্দরী সানিয়া মির্জা। ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের দিন সঙ্কটে থাকেন সানিয়া। এদিকে ক্যারিয়ারের একেবারে শেষ পর্যায়ে থাকা শোয়েব মালিকের এটাই হয়তো শেষ বিশ্বকাপ।

আরও পড়ুন:

দলে লিটনের থাকা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন ওয়াসিম আকরাম!


news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

দলে লিটনের থাকা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন ওয়াসিম আকরাম!

অনলাইন ডেস্ক

দলে লিটনের থাকা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন ওয়াসিম আকরাম!

দারুণ প্রতিভা আর সম্ভাবনা নিয়ে বাংলাদেশ দলে এসেছিলেন লিটন দাস। ব্যাটিং স্টাইল ও চোখধাঁধানো দৃষ্টিনন্দন শট খেলার জন্য পেয়েছেন সাবেক খেলোয়াড় ও ক্রিকেটবোদ্ধাদের ভূয়সী প্রশংসাও। তবে মাঠে তার প্রতিভার আলোকচ্ছটার সামান্যটাই দেখাতে পেরেছেন তিনি।

দীর্ঘদিন ধরেই অফফর্মে রয়েছেন লিটন। ঘরের মাঠে দেশ অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের সাথে সিরিজ জিতলেও লিটন ছিলেন অফফর্মে। প্রস্তুতি ম্যাচেও রান পাননি। বড় স্কোর গড়তে পারেননি প্রথম রাউন্ডের তিন ম্যাচেও। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মূলপর্বের প্রথম ম্যাচেও মাত্র ১৬ রান করে আউট হন এ ওপেনার।

তবে সবকিছু ছাপিয়ে গেছে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে তার ক্যাচ মিস দুটি। টানা এ ব্যর্থতার পরেও প্রশ্ন উঠেছে দলে তার জায়গা নিয়ে। দেশি-বিদেশি ক্রিকেটভক্তদের সমালোচনায় বিদ্ধ হচ্ছেন তিনি। লিটনের বিরুদ্ধে এই সমালোচনার পালে যেন হাওয়া দিলেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ও কিংবদন্তি পেসার ওয়াসিম আকরাম। 

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে আলোচনার ফাঁকে ফখর-ই-আলমের নেতৃত্বে ‘দ্য প্যাভিলিয়ন’ নামের এক অনুষ্ঠানে লিটনের সমালোচনা করে ওয়াসিম বলেন, লিটন দাসকে তো মনে হচ্ছে প্রস্তুতি ম্যাচ থেকেই ঘুমিয়ে আছে। বাছাইপর্বতে রান করতে পারলো না। ভাল ফিল্ডিং করছে না। আমি জানি না সে কোনো দলে আছে।

লিটনের সমালোচনা করলেও বাংলাদেশ দলের ভূয়সী প্রশংসা করেন ওয়াসিম আকরাম। বলেন, আমি মনে করি বাংলাদেশ খুব ভালো খেলেছে। শারজার লো স্কোরিং উইকেটেও তারা ১৭০ এর বেশি রান করেছে। এরপর শ্রীলংকার ৮০ রানের মধ্যে ৪ উইকেট ফেলে চাপেও ফেলে দিয়েছিল। তবে আসালাঙ্কা ও রাজপাকসে আক্রমণ করে গেছে। রক্ষণাত্মক মানসিকতা নিয়ে ম্যাচ খেললে জয় পেতো না তারা।

আরও পড়ুন:

রশিদ-মুজিবের ঘূর্ণি জাদুতে আফগানদের বিশাল জয়


news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

রশিদ-মুজিবের ঘূর্ণি জাদুতে আফগানদের বিশাল জয়

অনলাইন ডেস্ক

রশিদ-মুজিবের ঘূর্ণি জাদুতে আফগানদের বিশাল জয়

রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে এবারের বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করাই ছিলো অনিশ্চিত। এরপর বিশ্বকাপের দল যখন ঘোষণা করা হলো, তখন দলটির অধিনায়ক রশিদ খান পদত্যাগের ঘোষণা দেন। দলে থাকলেও নেতৃত্ব দেবেন না তিনি। পরিবর্তে দায়িত্ব দেয়া হয় মোহাম্মদ নবির ঘাড়ে। 

সেই দলই বিশ্বকাপের মূলপর্ব শুরু করলো ১৩০ রানের বিশাল ব্যবধানে। সে সঙ্গে নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে, টি-টোয়েন্টি সর্বোচ্চ ব্যবধানে জয়ের রেকর্ডও গড়লো তারা। এর আগে তাদের সবচেয়ে বড় জয় ছিল ১০৬ রানের।

প্রথমে ব্যাটিংয়ে আফগানিস্তানের দেয়া ১৯১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে স্কটল্যান্ড মাত্র ১০.২ ওভারে ৬০ রানেই গুটিয়ে যায়। 

টস জিতে ব্যাট করতে নামার পর হযরতুল্লাহ জাজাই, রহমানুল্লাহ গুরবাজ এবং নজিবুল্লাহ জাদরানদের তাণ্ডবে একের পর এক বল আছড়ে পড়তে থাকে গ্যালারিতে। শেষ পর্যন্ত এবারের বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ স্কোর গড়েন আফগান ব্যাটাররা। ৪ উইকেট হারিয়ে তাদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৯০ রান।

১৯১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে জর্জ মানসে এবং কাইল কোয়েৎজার মিলে শুরুটা একটু ভালোই করেছিলেন। ৩.২ ওভারে ২৮ রানের জুটি গড়েন দু’জন। এরপরই শুরু হয় মুজিব-উর রহমানের মায়াবী জাদু। তার বলে একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে স্কটিশরা।

ওই এক ওভারেই তিন উইকেট হারায় আফগানিস্তান। কাইল কোয়েৎজার, কালাম ম্যাকলেয়ড এবং রিচি বেরিংটন ফিরে যান মুজিবের বলে। নাভিন উল হকের বলে উইকেট দিয়ে ফিরে যান ম্যাথ্যু ক্রস। নিজের পরের ওভারেই মুজিব তুলে নিলেন ওপেনার জর্জ মানসের উইকেট। যিনি সর্বোচ্চ ২৫ রান করেন।

এরপর দৃশ্যপটে চলে আসেন রশিদ খান। বল করতে এসেই তুলে নিলেন মাইকেল লিস্কের উইকেট। ক্রিস গ্রিভসকেও সাজঘরে ফেরত পাঠান রশিদ। মুজিব-উর রহমান নিজের শেষ ওভারে বল করতে এসে তুলে নিলেন ফাইফার। অর্থ্যাৎ, তার পঞ্চম শিকার মার্ক ওয়াট।

১১তম ওভাররে প্রথম দুই বলে জস ডেভি এবং ব্রাড হুইলের উইকেট রশিদ খান তুলে নিতেই শেষ হয়ে যায় স্কটল্যান্ডের ইনিংস।

৪ ওভারে ২০ রান দিয়ে ৫ উইকেট নেন মুজিব-উর রহমান। ২.২ ওভার বল করে ৯ রান দিয়ে ৪ উইকেট নেন রশিদ খান এবং বাকি উইকেটটি নেন নাভিন উল হক।

আরও পড়ুন:

লজ্জাজনক হারের পর এবার দুঃসংবাদ শুনলো ভারত


news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে পাকিস্তানের একাদশ যেমন হতে পারে

অনলাইন ডেস্ক

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে পাকিস্তানের একাদশ যেমন হতে পারে

ভারত বধের পর এবার সামনে নিউজিল্যান্ড। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ১৯তম ম্যাচে মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় মুখোমুখি হবে পাকিস্তান-নিউজিল্যান্ড।

শারজায় অনুষ্ঠিত হবে খেলাটি। এই ম্যাচের মধ্য দিয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু হবে নিউজিল্যান্ডের।  পাকিস্তান খেলবে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে। 

বাবর আজমের নেতৃত্বাধীন পাকিস্তান নিজেদের প্রথম ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতকে ১৫১/৭ রানে আটকে দিয়ে ১০ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে জয় পায়। বিশ্বকাপের মতো বড় আসরে এই প্রথম ভারতকে হারাল পাকিস্তান। এর আগে ১২ ম্যাচে জয়ের দেখা পায়নি তারা। 

ভারতকে হারিয়ে ফুরফুরে মেজাজে রয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট দল।  নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে কিউইদের বিপক্ষে ছয় ছিনিয়ে নিতে চাইবেন বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ানরা।

আরও পড়ুন: আবাসিক এলাকায় গ্যাস সংযোগ দিতে হাইকোর্টের রুল

এই ম্যাচের আগে টি-টোয়েন্টিতে ২৪ ম্যাচে মুখোমুখি হয় পাকিস্তান-নিউজিল্যান্ড। অতীতের সেই সাক্ষাতে ১৪ ম্যাচে জয় পায় পাকিস্তান। আর ১০টিতে জয় পায় কিউইরা। 

তবে বিশ্বকাপের মতো বড় আসরে ৫ ম্যাচের সাক্ষাতে পাকিস্তান জয় পায় ৩ ম্যাচে আর ২ ম্যাচে জয় পায় নিউজিল্যান্ড। 

পাকিস্তানের সম্ভাব্য একাদশ: বাবর আজম, মোহাম্মদ রিজওয়ান, ফখর জামান, মোহাম্মদ হাফিজ, শোয়েব মালিক, আসিফ আলী, ইমাদ ওয়াসিম, শাদাব খান, হাসান আলী, হারিস রউফ ও শাহিন শাহ আফ্রিদি। 

নিউজিল্যান্ডের সম্ভাব্য একাদশ: মার্টিন গাপটিল, টিম সিপার্ট, কেন উইলিয়ামস, ডেভন কনওয়ে, গ্লেন ফিলিপস, জেমস নিশাম, মিচেল সেন্টনার, টিম সাউদি, ইস সৌদি, ট্রেন্ট বোল্ট ও লুকি ফার্গুনসন।

news24bd.tv/তৌহিদ

পরবর্তী খবর

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে আফগানিস্তানের রানের রেকর্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে আফগানিস্তানের রানের রেকর্ড

সুপার টুয়েলভে প্রথম লড়াইয়ে আজ মুখোমুখি হয়েছে আফগানিস্তান ও স্কটল্যান্ড। শারজাতে  আগে ব্যাটিং করে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে রানের রেকর্ড গড়ল আফগানিস্তান।

স্কটিশদের বিপক্ষে তারা ৪ উইকেটে ১৯০ রান করেছে। এর আগে ২০১৬ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ৬ উইকেটে ১৮৬ রান করে তারা। 

বিশ্বকাপে জয়ের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে স্কটল্যান্ডকে করতে হবে ১৯১ রান। শারজার উইকেটকে বলা হচ্ছিল মন্থর। অথচ মাঠে নামলেই দেখা যাচ্ছে উইকেট রান প্রসবা। আফগানিস্তারে ব্যাটম্যানরা তেমন কিছুই তো করে দেখালেন। ইনিংসের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত একই ফ্লোতে খেলেছেন। দুই ওপেনার হজরতউল্লাহ জাঝাই ও মোহাম্মদ শাহজাদ উড়ন্ত সূচনা এনে দেন। ৫৪ রানের গুটি গড়ে শাহজাদ (২২) আউট হন। জাঝাই সাজঘরে ফেরার আগে ৩০ বলে করেন ৪৪ রান। 

১০ ওভারে আগফানিস্তানের রান ছিল ৮২। শেষ ১০ ওভারে তারা তোলে ১০৮ রান। এর পুরো কৃতিত্বটা যাবে রহমতউল্লাহ গুরবাজ ও নাজিবুল্লাহ জারদানের উপর। দুজনের ৫২ বলে ৮৭ রানের জুটি আফগানিস্তানকে বড় সংগ্রহ এনে দেয়।

আরও পড়ুন: পূজামণ্ডপের ঘটনাটি দুঃখজনক: বদিউল আলম মজুমদার

৩৭ বলে ১ চার ও ৪ ছক্কায় ৪৬ রান করেন রহমতউল্লাহ। ইনিংসের শেষ বলে আউট হওয়ার আজে নাজিবুল্লাহ ৩৪ বলে করেন ৫৯ রান। তার ইনিংসে ছিল ৫টি চার ও ৩টি ছক্কা। অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী শেষদিকে নেমে ৪ বলে ২ চারে তোলেন ১১ রান। 

বল হাতে স্কটল্যান্ডের হয়ে শাফইয়ান শরিফ ৩৩ রানে ২ উইকেট নেন। ১টি করে উইকেট পেয়েছেন জয় ডেভে ও মার্ক ওয়াট। 

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর