চট্টগ্রামে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আলম ডাকাত নিহত

ফাতেমা জান্নাত মুমু, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আলম ডাকাত নিহত

চট্টগ্রাম বাঁশখালীতে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুক যুদ্ধে আলমগীর ওরফে আলম ডাকাত নামে একজন নিহত হয়েছে।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) দিবাগত রাত ২টার দিকে বাঁশখালী উপজেলার কন্ডামারা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ঘটনাস্থল তল্লাশি করে ২টি ওয়ান সুটার গান, একটি এলজি, একটি ফল্ডিং চাকু, ১১ রাউন্ড তাজাগুলি, ২টি রামদা উদ্ধার করা হয়।

চট্টগ্রাম র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. নূরুল আবছার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাঁশখালী উপজেলার কন্ডামারা এলাকায় অভিযানে নামে র‌্যাব-৭ এর বিশেষ দল। এ সময় ওই এলাকার পরিচিত আলমগীর ওরফে আলম ডাকাত দলবল নিয়ে নিজেদের আস্থানায় অবস্থান করছিল। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পালানোর চেষ্টা করে ডাকাত দল। র‌্যাব তাদের পিছু করলে ডাকাত দল র‌্যাবকে লক্ষ করে গুলি ছুড়ে। আত্মরক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়।

আরও পড়ুন


নির্বাচন নিয়ে বিএনপির নীতি রাষ্ট্রঘাতী: ওবায়দুল কাদের

দুই হাজার কোটি টাকা মানি লন্ডারিং: বহিস্কৃত যুবলীগ নেতা ফুয়াদ গ্রেপ্তার

বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিতে প্রস্তাব, সার্বিয়া প্রেসিডেন্টের সম্মতি

গাজীপুরের বাক প্রতিবন্ধি বাছিরন নেছা পেলেন মাথা গোঁজার ঠাঁই


এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে র‌্যাবের গুলিতে ডাকাত দলের প্রধান আলম ডাকাত ঘটনাস্থলে নিহত হয়। এসময় তার সঙ্গীরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

বাঁশখালী থানার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই লিটন চাকাম জানান, লাশ ময়না তদন্তের জন্য চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর তার পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে।

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

নির্জন স্থানে গাছে ঝুলছিল ব্যবসায়ীর লাশ, পরে উদ্ধার

মোহাম্মদ আল-আমিন, গাজীপুর

নির্জন স্থানে গাছে ঝুলছিল ব্যবসায়ীর লাশ, পরে উদ্ধার

ব্যবসায়ী হাবিবুল বাশার প্রধানের লাশ

গাছে ঝুলছিল ঔষধ ব্যবসায়ী হাবিবুল বাশার প্রধানের (২২) লাশ। রোববার (৫ ডিসেম্বর) সকালে স্থানীয়রা ঝুলন্ত লাশ দেখিতে যায়। খবর পেয়ে শ্রীপুর থানা পুলিশ দুপুরে নিহতের লাশ উদ্ধার করে। ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের পন্ডিতের ভিটা নামক এলাকায়। 

নিহত হাবিবুল বাশার উপজেলার বেলদিয়া গ্রামের মোঃ খাইরুল প্রধানের ছেলে। তিনি কাওরাইদ বাজারে প্রধান মেডিকেল হল নামক দোকানে ব্যবসা করতেন।

নিহতের স্বজন ও স্থানীয়রা জানান, হাবিবুল কাওরাইদ বাজারের মাছ মহল এলাকায় প্রধান মেডিকেল হল নামক দোকানে ঔষধের ব্যবসা করত। শনিবার সকালে প্রতিদিনের মত সে বাড়ি থেকে দোকানে যায়। রাতে বাড়ি ফিরতে দেড়ি হলে তার বাবা খাইরুল একাধিক বার মোবাইলে ফোন করিলেও হাবিবুল ফোন রিসিভ করেনি। পরে তিনি বাজারে গিয়ে দেখতে পান হাবিবুলের ফার্মেসি খোলা রয়েছে। দোকানের ক্যাশ, তালা, চাবি সবই ঠিক আছে দোকানে নেই হাবিবুল। পরে তিনি বাজারে বিভিন্নস্থানে খোঁজাখুঁজি করে ছেলের সন্ধান করতে পারেননি। নিজেই দোকান বন্ধ করে বাড়ি চলে যান। রাতে হাবিবুল বাড়ি ফিরে আসেনি। 

সকালে স্থানীয় লোকজন কাওরাইদ কেএন উচ্চ বিদ্যালয়ের পশ্চিম পাশে পন্ডিতের ভিটা নামক স্থানের নির্জন এলাকায় গাছের সাথে ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায়। খবর পেয়ে খাইরুল প্রধান ঘটনাস্থলে গিয়ে ছেলের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান। ছেলের লাশ দেখে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন তিনি।

নিহতের স্বজনদের দাবি, অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা কৌশলে হাবিবুলকে দোকান থেকে নির্জন স্থানে নিয়ে হত্যা করে লাশ গাছের সাথে ঝুলিয়ে রাখে।

স্থানীয় কাওরাইদ ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের সদস্য মো. নূরুল ইসলাম জানান, পন্ডিতের ভিটায় লাশ ঝুলে থাকার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে হাবিবুলের লাশ দেখতে পাই। খবর দিলে পুলিশ এসে দুপুরে তার লাশ উদ্ধার করে।

শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামরুল হাসান জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। লাশ ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুরের শহিদ তাজ উদ্দিন আহম্মদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে পরবর্তী যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন


দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাট: প্রতিদিন অবৈধ আয় প্রায় অর্ধকোটি টাকা

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে

রাজনৈতিক দলের নেত্রী স্কুল ড্রেস পরেও আন্দোলন করেছে: তথ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

রাজনৈতিক দলের নেত্রী স্কুল ড্রেস পরেও আন্দোলন করেছে: তথ্যমন্ত্রী

ফাইল ছবি

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে একটি রাজনৈতিক দলের নেত্রী স্কুল ড্রেস পরে আন্দোলন করছেন।

আজ রোববার (৫ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, নিরাপদ সড়ক ও বাসে অর্ধেক ভাড়া কার্যকরের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ৩০-৩৫ বছর বয়সী ছাত্রের মায়েরাও ঢুকে গেছেন।

আমরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেখলাম ৩৫ বছর বয়সী একটি রাজনৈতিক দলের নেত্রী স্কুল ড্রেস পরে আন্দোলন করছেন। আর কালকে টেলিভিশনে কয়েকটি মুখ দেখলাম, তাদের দেখে মনে হয় না তারা স্কুলের ছাত্র বা ছাত্রী।

আরও পড়ুন


চট্টগ্রামেও হাফ ভাড়া নেওয়ার ঘোষণা


তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলনে রাজনীতিবিদরা ঢুকে গেছে এবং রাজনৈতিক উদ্দেশেও সেখানে ঢুকে গেছে। সুতরাং ছাত্রদের যাতে কেউ রাজনীতির হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করতে না পারে, সে জন্য সতর্ক থাকতে হবে।

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী বলেন, নিরাপদ সড়ক, এটা আমরা সবাই চাই। এটা শুধু শিক্ষার্থী না, সবাই আমরা নিরাপদ সড়ক চাই। সে দাবির প্রতি আমাদেরও সমর্থন আছে। কিন্তু তাই বলে রাস্তাঘাট আটকে আন্দোলন করা, সেটা কতটুকু যৌক্তিক? অন্য মানুষের ভোগান্তিতে ফেলে আন্দোলন করা সেটা কতটুকু যৌক্তিক, সে প্রশ্নও থেকে যায়।

news24bd.tv/ কামরুল 

পরবর্তী খবর

সড়কের পাশে মিলল বোরকা পরা তরুণীর মরদেহ

অনলাইন ডেস্ক

সড়কের পাশে মিলল বোরকা পরা তরুণীর মরদেহ

ফাইল ছবি

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের এশিয়ান হাইওয়ে সড়কের পাশ থেকে বোরকা পরিহিত এক তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ সকাল ১০টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

তাৎক্ষণিকভাবে নিহত ওই তরুণীর পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে তার বয়স ৩০ বছর।

জানা যায়, উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের এশিয়ান হাইওয়ে সড়কের পাশে সিংলাবো এলাকা থেকে ওই তরুণী লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেন। পরে তালতলা তদন্তকেন্দ্রের পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

আরও পড়ুন:


চট্টগ্রামেও হাফ ভাড়া নেওয়ার ঘোষণা


তালতলা তদন্তকেন্দ্রের পুলিশের ইনচার্জ এএসএম ইকবাল হোসেন জানান, মরদেহটির ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। তরুণীর পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ভোলায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ যুবক নিহত

অনলাইন ডেস্ক

ভোলায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ যুবক নিহত

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলায় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই যুবক নিহত হয়েছেন।

রোববার (৫ ডিসেম্বর) ভোর ৪টার দিকে উপজেলার চর কুকরি-মুকরিতে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহতদের বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি।

র‍্যাব-৮ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ওসি) মো. রাজিব রায়হান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। র‌্যাবের দাবি, নিহতরা জলদস্যু বাহিনীর সদস্য। তিনি বলেন, চরফ্যাশন উপজেলার কুকরি-মুকরিতে একদল দলদস্যু ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল। বিষয়টি টের পেয়ে র‌্যাবের একটি দল অভিযান চালায়।

র‍্যাবকে দেখে দস্যুরা গুলি চালায়। র‍্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। দুই পক্ষের গুলি বিনিময়ের পর দস্যুরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে দুই দস্যুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এরা কোন বাহিনীর তা প্রাথমিকভাবে জানা যায়নি। র‍্যাব বিষয়টির তদন্ত করছে।

আরও পড়ুন


নিউজিল্যান্ডে যাবেন না সাকিব, দল ঘোষণার পর চিঠি

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

বারবার শারীরিক সম্পর্ক, বিয়ের দাবিতে তরুণীর অনশন

অনলাইন ডেস্ক

বারবার শারীরিক সম্পর্ক, বিয়ের দাবিতে তরুণীর অনশন

বিয়ের দাবিতে ময়মনসিংহের ফুলপুরে প্রেমিকের বাড়িতে দুই দিন ধরে অনশন করছেন প্রেমিকা। ফুলপুরের নাকাগাঁও গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, অনশনরত তরুণী শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ি উপজেলার রুপনগর গ্রামের বাসিন্দা। সে দীর্ঘদিন ধরে রাজধানীর মিরপুর এলাকার একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন।

আর প্রেমিক ফুলপুর সদর ইউনিয়নের নাকাগাঁও গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে মাজহারুল ইসলাম। সে মিরপুর এলাকায় রাজমিস্ত্রির কাজ করতেন। দুজনের মধ্যে পরিচয় হলে সেখান থেকেই প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এরপর বিয়ের প্রলোভনে মাজহারুল একাধিকবার ওই তরুণীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করে। এই সম্পর্ক প্রায় দুই বছর ছিলো তাদের মাঝে।

স্থানীয়রা জানান, প্রেমের সম্পর্ক থেকেই তাদের মধ্যে গভীর সম্পর্ক তৈরি হয়। এর সুবাদে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার আসা-যাওয়া চলছিল। প্রেমিকার দাবি, প্রেমিক মাজহারুল ইসলাম তার কাছ থেকে নগদ প্রায় লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। 

এক পর্যায়ে প্রেমিকা বিয়ের জন্য চাপ দিলে প্রেমিক রাজি না হয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। অবশেষে মোবাইল নম্বর বন্ধ থাকায় শুক্রবার সকালে প্রেমিকা প্রেমিকের বাড়িতে এসে বিয়ের দাবিতে অনশন শুরু করেন। এরপর থেকে প্রেমিকসহ পরিবারের লোকজন পালিয়েছেন। 

জানা যায়, স্থানীয়রা দুদিনে দু’দফা চেষ্টা চালিয়ে প্রেমিকাকে অনশন থেকে শনিবার ফেরত পাঠিয়েছেন।

এ ঘটনায় প্রেমিকা ফুলপুর থানা পুলিশ ও স্থানীয়দের কাছে সুবিচার দাবি করেছেন। ফুলপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, এ বিষয়ে অভিযোগ আসলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন


কানাডায় শীতকালীন উৎসবে প্রবাসীদের মিলনমেলা

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর