জাতীয় প্রেস ক্লাবে রাজনৈতিক সমাবেশ-কর্মসূচি বন্ধ ঘোষণা

অনলাইন ডেস্ক

জাতীয় প্রেস ক্লাবে রাজনৈতিক সমাবেশ-কর্মসূচি বন্ধ ঘোষণা

জাতীয় প্রেস ক্লাবে সব ধরনের রাজনৈতিক সমাবেশ ও কর্মসূচি বন্ধ থাকবে। আজ বুধবার প্রেস ক্লাবের যুগ্ম-সম্পাদক মাঈনুল আলমের সই করা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে বুধবার ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় গত ১০ অক্টোবর ক্লাব প্রাঙ্গণে সংগঠিত বিশৃঙ্খল ও অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাসমূহ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। 

সভায় বলা হয়, কমিটি ক্লাব ও সদস্যদের স্বার্থে ক্লাবে শৃঙ্খলা ও নিয়মানুবর্তিতা বজায় রাখতে বদ্ধপরিকর। যেকোনো মূল্যে ক্লাবের স্বার্থ, মর্যাদা সমুন্নত রাখা হবে। ক্লাবের বিভিন্ন হল ও মিলনায়তন ভাড়া প্রদানের ক্ষেত্রে নির্ধারিত নিয়মাবলী ও শর্ত আবশ্যিকভাবে পালন করা হবে। 

আরও পড়ুন:


ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইপিএল নিয়ে জুয়া, ৩ জনের সাজা

চট্টগ্রাম আদালত এলাকায় বোমা হামলা মামলার রায় আজ

টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেতে আদালতে ট্রাম্প

যুবলীগ নেতার সঙ্গে ভিডিও ফাঁস! মামলা তুলে নিতে নারীকে হুমকি


 

আলোচনা সভা, সেমিনারের নামে কোনো দলের রাজনৈতিক কর্মসূচি, সমাবেশ করতে দেওয়া হবে না। সভায় জেহাদ স্মৃতি পরিষদ, জিয়া পরিষদসহ যেকোনো দলের রাজনৈতিক সমাবেশ ও কর্মসূচি ভবিষ্যতে বন্ধ থাকবে বলে সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

আরও বলা হয়, ইতোপূর্বে এসব সংগঠনের কর্মসূচির ফলে ক্লাবে বিশৃঙ্খলা ও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। যার ফলে ঐতিহ্যবাহী প্রেস ক্লাবের সুনাম ও মর্যাদা ক্ষুণ্ন হয়। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সবাইকে অবহিত করা হচ্ছে এবং সার্বিক সহযোগিতা কামনা করা হচ্ছে।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

মিরপুর থেকে ৪২৪ কিশোরী নিখোঁজ, শিগগির সামাজিক বৈঠক পুলিশের

অনলাইন ডেস্ক

মিরপুর থেকে ৪২৪ কিশোরী নিখোঁজ, শিগগির সামাজিক বৈঠক পুলিশের

গত তিন মাসে রাজধানীর মিরপুর এলাকা থেকে ৪২৪ মেয়ে শিশু-কিশোরী নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়। শিশু-কিশোরীরা যাতে ঘর ছেড়ে না যায় মিরপুরের সাতটি থানা এলাকায় অভিভাবকদের নিয়ে শিগগির সামাজিক বৈঠক করবে পুলিশ। সামাজিক বৈঠক করে সবার মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুলিশ। 

গতকাল সোমবার সংশ্লিষ্ট থানাগুলোর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, চলতি মাসের ২৫ তারিখ পর্যন্ত মিরপুর এলাকা থেকে আরো ৭৫ শিশু-কিশোরী নিখোঁজ হওয়ার তথ্য পেয়েছে পুলিশ। এই নিয়ে নিখোঁজের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫১৭। এদের মধ্যে মিরপুর এলাকা থেকে ৩৯৫ জন এখন পর্যন্ত উদ্ধার হয়েছে বা নিজেরাই পরিবারের কাছে ফিরে এসেছে। অন্যদের উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। 

নিখোঁজ শিশু-কিশোরীদের একটি অংশ ছেলেবন্ধুদের সঙ্গে ঘর ছাড়লেও ছেলেদের পরিবারের পক্ষ থেকে জিডি করার ঘটনা নেই বললেই চলে। প্রায় সব জিডিই করেছেন মেয়ে শিশু-কিশোরীদের অভিভাবকরা।

গতকাল ঢাকা মহানগর পুলিশের মিরপুর বিভাগের সাতটি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা (ওসি) জানান, সাত দিনের মধ্যে প্রতিটি এলাকার অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও স্কুল-কলেজের শিক্ষকদের সঙ্গে সামাজিক বৈঠক করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁরা। তাঁরা মনে করেন, করোনাকালে স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীরা অনেকটা ঘরবন্দি হয়ে পড়ে। এ অবস্থায় তারা নানা ভুল করতে থাকে। তারা মানসিকভাবে অনেকটা হতাশার মধ্যে সময় কাটায়। পরিস্থিতি সহনীয় করতে ডাকা সামাজিক বৈঠকে অভিভাবকদের পাশাপাশি থানা পুলিশ সদস্য, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাও উপস্থিত থাকবেন। এ ছাড়া সভা-সেমিনার করা হবে এলাকায়। সেই সঙ্গে স্কুলের ক্লাসরুমে শিক্ষকদের উপস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলবেন পুলিশ কর্মকর্তারা। এতে এলাকার জনপ্রতিনিধিদেরও সম্পৃক্ত করা হবে। 

কিভাবে বৈঠক আয়োজন করা হবে, জানতে চাইলে পুলিশ কর্মকর্তারা বলেন, বিট পুলিশিংয়ের মাধ্যমে এ কাজ করা হবে। তাঁদের তথ্য মতে, বিট পুলিশের মূল ধারণা হচ্ছে, পুলিশ কর্মকর্তারাই সেবা নিয়ে যাবেন মানুষের কাছে। তবে মামলাসহ কিছু আইনগত বিষয়ে থানায় আসতে হবে ভুক্তভোগীদের। যদিও বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে চরম বিপদে না পড়লে মানুষের থানামুখী হওয়ার সম্ভাবনা কম। তাই প্রতিটি মহল্লাকে বিটে বিভক্ত করে একজন উপ-পুলিশ পরিদর্শককে (এসআই) এর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:


তিন মাসে মিরপুর থেকে ৪২৪ কিশোরী নিখোঁজ!


এ ব্যাপারে ঢাকা মহানগর পুলিশের মিরপুর জোনের সহকারী কমিশনার এম এম মঈনুল ইসলাম এবং মিরপুর বিভাগের দারুসসালাম জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) মিজানুর রহমান বলেন, নিখোঁজের সংখ্যা যাতে আর বাড়তে না পারে, সে জন্য কিছু বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বিট পুলিশের মাধ্যমে প্রতিটি এলাকায় অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের সঙ্গে সামাজিক বৈঠক করা হবে।

আরো বলেন, বৈঠকের আগের দিন বিট পুলিশ বাড়ির মালিক, অভিভাবক অর্থাৎ ভাড়াটিয়াদের সঙ্গে কথা বলে। এরপর পরের দিনের সুবিধামতো একটি সময়ে তাঁদের নিয়ে বৈঠক করা হবে। এর বাইরে স্কুলে গিয়েও এ বিষয়ে কথা বলা হবে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে। 

news24bd.tv রিমু   

পরবর্তী খবর

পাগলীর জন্ম নেওয়া সন্তানের পিতা এমপি বদি

অনলাইন ডেস্ক

পাগলীর জন্ম নেওয়া সন্তানের পিতা এমপি বদি

কক্সবাজার টেকনাফে পাগলীর গর্ভে জন্ম নেওয়া নবাগত শিশুটির পিতা হয়েছেন সাবেক কক্সবাজার-৪ (উখিয়া- টেকনাফ) আসনের এমপি আব্দুর রহমান বদি। তিনি এ শিশুকন্যার সব দায়িত্ব নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. টিটু চন্দ্র শীল এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

নবজাতক এ কন্যা শিশুটির নাম রাখা হয়েছে মরিয়ম জারা।

সোমবার বিকেলে টেকনাফ পৌরসভা হতে তাদের নামে  (বদি/শাহীনা) শিশুটির জন্ম নিবন্ধন হয়। এ প্রক্রিয়া শেষে তা প্রকাশ করলে মুহূর্তের মধ্যে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। 

স্থানীয়রা বলছেন, যে যা বলুক আজ থেকে শিশু মরিয়ম জারার পিতা সাবেক এমপি আব্দুর রহমান বদি ও মা শাহীনা আক্তার। এ মহৎ কাজের জন্য হাজারো মানুষ তাকে স্বাগত জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে সাংসদ বদির বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। তবে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. টিটু চন্দ্র শীল জানান, মা ও মেয়ে সুস্থ আছে, তবে মঙ্গলবার তাদের হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে।

তিনি আরও জানান, আমিও শুনেছি পাগলীর জন্ম দেওয়া শিশুটির পিতা হয়ে দায়িত্ব নিয়েছেন সাবেক এমপি আব্দুর রহমান( বদি)।

উল্লেখ্য, গত শনিবার রাতে টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক এবং কর্তব্যরত নার্সের সহযোগিতায় শিশু মরিয়ম জারা পৃথিবীতে আগমন করে।

news24bd.tv/তৌহিদ

পরবর্তী খবর

পূজামণ্ডপের ঘটনাটি দুঃখজনক: বদিউল আলম মজুমদার

অনলাইন ডেস্ক

সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার বলেছেন, গত ১৩ অক্টোবর কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে যে ঘটনা ঘটেছে তা অত্যন্ত দুঃখজনক।

এ সময় তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, দোষীদের খুঁজে বের করে সঠিক বিচার করতে হবে। সেই সাথে সাধারণ কোন নাগরিক যেন হয়রানির শিকার না হতে হয় সেদিকেও প্রশাসনের নজর দিতে হবে। 

আরও পড়ুন: খালেদা জিয়ার পরবর্তী চিকিৎসা কী জানা যাবে ২১ দিন পর 

দুপুরে কুমিল্লা টাউনহলের মুক্তিযোদ্ধা কর্নারে সুজনের আয়োজনে “রাষ্ট্র ও সমাজে সুশাসন প্রতিষ্ঠায়, শুদ্ধাচার চর্চার বিকল্প নেই” জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল বাস্তবায়নে করণীয় শীর্ষক এক  নাগরিক সংলাপে বদিউল আলম এ সব কথা বলেন।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

ডেঙ্গুতে ২৪ ঘণ্টায় ১৯০ জন হাসপাতালে

অনলাইন ডেস্ক


ডেঙ্গুতে ২৪ ঘণ্টায় ১৯০ জন হাসপাতালে

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে গেলো ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৯০ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তবে কারও মৃত্যু হয়নি। আক্রান্তদের অধিকাংশই রাজধানীর বাসিন্দা।

আজ বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এ তথ্য জানিয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়,  নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ১৫৪ জন রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে এবং ৩৬ জন ঢাকার বাইরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

এ নিয়ে বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ভর্তি থাকা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৬১ জনে। ঢাকার ৪৬টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৭০৩ জন এবং অন্যান্য বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১৫৮ জন।

আরও পড়ুন: লিটন ও লাহিরুকে যে শাস্তি দিলো আইসিসি

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে আজ (২৫ অক্টোবর) পর্যন্ত হাসপাতালে সর্বমোট রোগী ভর্তি হয়েছেন ২২ হাজার ৬৮৮ জন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ২১ হাজার ৭৪০ জন রোগী। ডেঙ্গুতে এ সময়ে ৮৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

জলবাযু পরিবর্তনের ভয়াবহ বিরূপ প্রভাবে বাংলাদেশ

ডেস্ক রিপোর্ট

জলবাযু পরিবর্তনের ভয়াবহ বিরূপ প্রভাবে বাংলাদেশ

গত দুই দশকে জলবাযু পরিবর্তনে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ১০ টি দেশের তালিকা প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। যেখানে ভয়াবহ বিপর্যয়ে পড়া দেশগুলোর তালিকায় বাংলাদেশসহ বেশিভাগই এশিয়ার। এরিমাঝে চলতি মাসের শেষে শুরু হতে যাওয়া জাতিসংঘের জলবায়ুবিষয়ক শীর্ষ সম্মেলন সফলতার দিকে তাকিয়ে রয়েছেন সবাই। এর আগেই জাতিসংঘ সতর্ক করে বলেছে,  সম্মেলন ব্যর্থতার ফল হবে আরো ভয়াবহ।

খুব অল্প সময়ের ব্যাবধানে বদলে যাচ্ছে সবুজ পৃথিবী। দেশে দেশে  রেকর্ড তাপমাত্রা, দাবদাহে পুড়ে যাচ্ছে বনাঞ্চল৷ দেখা দিচ্ছে অতিবৃষ্টি, বন্যা জলোচ্ছাস৷ আগামী ১৫ বছরেই পৃথিবীর তাপমাত্রা বাড়বে ১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যার ফলে একের পর এক বিপর্যয়ে পড়বে গোটা বিশ্ব। তবে এরিমধ্যে এর প্রভাব অনেকটায় দৃশ্যমান। গবেষকদের আশঙ্কা এই পরিবর্তনের ফলে ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলো বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে।

এ মাসে প্রবাসী আয় ১০০ কোটি ডলার ছাড়ালো

জলবাযুর পরিবর্তনে গেল ২০ বছরে যে ১০ টি দেশ সবচেয়ে বিপর্যয়ে পড়েছে তার তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশ। গত ২০ বছরে বাংলাদেশে ১৮৫টিরে বেশি জলবায়ু পরিবর্তনজনিত বড় দুর্যোগ আঘাত হেনেছে। এতে ১১ হাজারের বেশি  মানুষের প্রাণহানি হয়েছে। আর অর্থনৈতিক ক্ষতি হয়েছে ৩৭২ কোটি ডলার। ক্ষতিগ্রস্ত তালিকাতে রয়েছে মিয়ানমার, থাইল্যান্ড, নেপাল, পাকিস্তানের নাম। জলবাযু পরিবর্তনের এই প্রভাবে দেখা দিচ্ছে খাদ্য সংকট। ইথিওপিয়া, মাদাগাস্কার, দক্ষিণ সুদান, কেনিয়াসহ   অনেক দেশের  মানুষ দুর্ভিক্ষের মুখে। 

প্রতিবছরের মতো এবারেও ঘটা করে শুরু হতে যাচ্ছে জলবায়ুবিষয়ক শীর্ষ সম্মেলন। জাতিসংঘ জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার কমানোর যে লক্ষ্য দিয়েছে, তা থেকে সরে আসতে তদবির চালাচ্ছে এই আযোজকদের বড় অংশ। তাদের কর্মকান্ড যেন এই সম্মেলনকে আরো প্রশ্নবিদ্ধ করে তুলেছে। সম্মেলনকে ঘিরে বিক্ষোভ কেরছে পরিবেশবিদরা।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

পরবর্তী খবর