তিন সন্তানের মাকে গলা কেটে হত্যা!

অনলাইন ডেস্ক

তিন সন্তানের মাকে গলা কেটে হত্যা!

তিন সন্তানের জননীকে গলা কেটে হত্যার অভিযোগে সন্দেহভাজন আটক দুই আসামির ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। ঘটনাটি ঘটে ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে। 

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বোয়ালমারী থানার ওসি (তদন্ত) মো. সালাউদ্দিন গতকাল বুধবার আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে ফরিদপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল হামিদ উভয়পক্ষের শুনানী শেষে দুই আসামি দেলোয়ার চৌধুরী ও রবিউলের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে।  

আদালত সূত্রে জানা যায়, গত ৭ অক্টোবর দিনের যেকোনো সময় বোয়ালমারী পৌরসভার আধারকোঠা গ্রামের মো. আবুল খায়ের মন্ডলের স্ত্রী নিলুফা ইয়াসমিনকে দুর্বত্তরা গলা কেটে হত্যা করে বাড়ির বাথরুমের সেফটি ট্যাংকের মধ্যে মৃতদেহ ফেলে রাখে। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মো. ইমরান হোসেন (২১) বাদি হয়ে গত রবিবার (৯ অক্টোবর) রাত সোয়া ১১টায় অজ্ঞাতনামা কয়েকজনসহ সন্দেহজনক ছয়জনের নাম উল্লেখ করে বোয়ালমারী থানায় মামলা করেন।

এর আগে, মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) সন্দেভাজন দুই আসামি দেলোয়ার চৌধুরী ও রবিউলকে আটক করে ফরিদপুর বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করে বোয়ালমারী থানা পুলিশ। এ মামলায় সন্দেহভাজন অপর আসামিরা হলেন জাহিদুল ইসলাম, রাজু, নাহিদ আলম ও মনির।

আরও পড়ুন:


মাথার টুপিতে ৭৩৫টি ডিম নিয়ে গিনেস রেকর্ড! (ভিডিও)

দেশে প্রথমবারের মতো শিশুদের পরীক্ষামূলক টিকাদান শুরু আজ

গোপনে বিয়ে সারলেন স্বস্তিকা!

নিজের গায়ে আগুন দেওয়া সেই শিক্ষার্থী মারা গেছেন


এ ব্যাপারে বোয়ালমারী থানার ওসি (তদন্ত) মো. সালাউদ্দিন বলেন, আসামিদের আদালতে প্রেরণ করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে বিজ্ঞ আদালত উভয়পক্ষের শুনানী শেষে গ্রেফতারকৃত আসামিদের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এছাড়া লাশ পাওয়া টয়লেটের ট্যাংকি পানি নিষ্কাশন করে সেখান থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত দুইটি দাঁ, একটি বটি উদ্ধার করা হয়েছে।

news24bd.tv রিমু

পরবর্তী খবর

ভোটে হারলো দুই সতীনই, স্বামীর ক্ষোভ তৃতীয় স্ত্রীর ‍উপর

অনলাইন ডেস্ক

ভোটে হারলো দুই সতীনই, স্বামীর ক্ষোভ তৃতীয় স্ত্রীর ‍উপর

নির্বাচনে পরাজিত দুই সতীন

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী সদর ইউনিয়নের নির্বাচনে ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন দুই সতীন। তারা চন্দ্রখানা বুদারবান্নি গ্রামের কসাই ফজলু মিয়ার প্রথম স্ত্রী আঙুর বেগম ও তৃতীয় স্ত্রী জাহানারা বেগম।

নির্বাচনের আঙুর বেগম কলম প্রতীক ও জাহানারা বেগম তালগাছ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তবে ভোট যুদ্ধে প্রতিদ্বন্ধিতাকারী আলোচিত দুই সতীনের কেউই জয়ের মালা গলায় পরতে পারেননি।

তৃতীয় ধাপের ভোটগ্রহণ শেষে রোববার ঘোষিত ফলাফলে আঙুর বেগম পেয়েছেন এক হাজার ৭৮০ ভোট এবং জাহানারা বেগম পেয়েছেন এক হাজার ৮ ভোট। তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আঞ্জুয়ারা বেগম পদ্মফুল প্রতীকে দুই হাজার ৯২৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

নির্বাচনে দুই স্ত্রীর পরাজয়ের পর তৃতীয় স্ত্রীর উপর কিছুটা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কসাই ফজলু মিয়া। এসময় তিনি বলেন, আমার তৃতীয় স্ত্রী জাহানারার সঙ্গে বনিবনা নেই। তার নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়ে আমাদের পরিবার বা এলাকাবাসীর কোনো মত ছিল না। সে না দাঁড়ালে আমার বড় স্ত্রী আঙুর বেগম বিজয়ী হতো।

ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মমিনুর আলম ফলাফলের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনে দুই সতীনের কেউই ভোটে জয় লাভ করতে পারেননি। তবে তাদের অংশগ্রহণকে স্বাগত জানাই।

আরও পড়ুন


বগুড়ায় ছুরিকাঘাতে এইচএসসি পরীক্ষার্থী নিহত

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

হাফ ভাড়া কার্যকর করতে মালিক সমিতির শর্তসমূহ

অনলাইন ডেস্ক

হাফ ভাড়া কার্যকর করতে মালিক সমিতির শর্তসমূহ

সংগৃহীত ছবি

আগামীকাল থেকে ঢাকায় গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের ‘হাফ ভাড়া’ কার্যকর করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে এক্ষেত্রে কিছু শর্তও জুড়ে দিয়েছে সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি।

মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভিনিউয়ে শিক্ষার্থীদের অর্ধেক ভাড়ার বিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ।  

তিনি জানান, ভ্রমণকালে বিআরটিসি বাসের মতোই ব্যক্তি মালিকানাধীন বাসে ছাত্র-ছাত্রীদের অবশ্যই নিজ নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বৈধ পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখতে হবে এবং প্রয়োজনে তা প্রদর্শন করতে হবে।

এছাড়া বিআরটিসি বাসে চলাচলের ক্ষেত্রে সকাল ৭টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা হাফ ভাড়ার সুবিধা পাবে। তবে ব্যক্তি মালিকানাধীন বাসে এ সুবিধা শুরু হবে সকাল ৮টায়, চলবে রাত ৮টা পর্যন্ত।

এছাড়াও ছুটির দিনে থাকবে না হাফ ভাড়া। হাফ ভাড়া শুধু ঢাকার জন্যও কার্যকর হবে বলে জানান এনায়েত উল্যাহ।

আরও পড়ুন:

ইচ্ছামৃত্যু চাইলেও নিতে হবে করোনার টিকা


news24bd.tv/ নকিব

পরবর্তী খবর

বগুড়ায় ছুরিকাঘাতে এইচএসসি পরীক্ষার্থী নিহত

আব্দুস সালাম বাবু, বগুড়া

বগুড়ায় ছুরিকাঘাতে এইচএসসি পরীক্ষার্থী নিহত

ছুরিকাঘাতে নিহত মোহন

বগুড়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে মোহন (১৮) নামের এক এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে হত্যা করা হয়েছে। সোমবার (৩০ নভেম্বর) দিবাগত রাত সোয়া ১১টার দিকে শহরের খান্দার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মোহন শহরের ফুলতলা এলাকার শুকুর আলীর ছেলে এবং বগুড়া সরকারি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন।

পুলিশ সূত্রে জানায়, মোহন ও তার দুই বন্ধু মোটরসাইকেল যোগে খান্দার এলাকা থেকে বাড়ি ফেরার পথে খান্দার শেহা প্যালেসের সামনে কয়েকজন যুবক মোটরসাইকেলের গতি রোধ করে। এরপর পর বাঁশ দিয়ে তাদেরকে পিটিয়ে রাস্তায় ফেলে দেন। এ সময়  মোহনকে রাস্তায় ফেলে ছুরিকাঘাত করেন দুর্বৃত্তরা। পরে  বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১২ টার দিকে মোহন মারা যান।

বগুড়া সদর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানান, এ ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারে পুলিশের কাজ করে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন


নির্বাচনে পেলেন শূন্য ভোট, লজ্জায় পুনঃগণনার আবেদন

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর

জীবননগরে ১২টি স্বর্ণের বারসহ যুবক আটক

অনলাইন ডেস্ক

জীবননগরে ১২টি স্বর্ণের বারসহ যুবক আটক

প্রতীকী ছবি

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে ১২টি স্বর্ণের বারসহ মো. শাহবুল (৪৪) নামে এক যুবককে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। 

গতকাল রাতে তাকে আটক করা হয়। আটক মো. শাহবুল উপজেলার মেদেনীপুর গ্রামের আলী আহাম্মদের ছেলে।

৫৮ ব্যাটালিয়ন বিজিবি সূত্রে জানা যায়, সন্ধ্যায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার মেদেনীপুর গ্রামের শেষ প্রান্তে খালপাড়া ব্রিজের ওপরে অভিযান চালানো হয়। চার সদস্যবিশিষ্ট টহল দলের নেতৃত্ব দেন জীবননগর উপজেলার মেদেনীপুর বিওপির নায়েক নজরুল ইসলাম।

আরও পড়ুন


চাঁপাইনবাবগঞ্জে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে কলেজছাত্র নিহত


অভিযান পরিচালনা করার সময় এক ব্যক্তি মোটরসাইকেল নিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন। এ সময় বিজিবি সদস্যরা তাকে আটক করে। এর পর তল্লাশি করে তার পকেট থেকে কচটেপ দিয়ে মোড়ানো ১২টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। যার ওজন এক কেজি ৩৯৭ গ্রাম।

এ ব্যাপারে পলাতক আরও দুজনকে আসামি করে জীবননগর থানায় মামলা করা হয়। আসামিরা হলেন-ওয়াসিম মিয়া ও রাশেদ।

news24bd.tv নাজিম

পরবর্তী খবর

নির্বাচনে পেলেন শূন্য ভোট, লজ্জায় পুনঃগণনার আবেদন

হুমায়ুন কবির সূর্য, কুড়িগ্রাম

নির্বাচনে পেলেন শূন্য ভোট, লজ্জায় পুনঃগণনার আবেদন

শূন্য ভোট পাওয়া নজরুল ইসলাম

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে একটি ভােটও পাননি রামখানা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড সদস্য প্রার্থী টিউবওয়েল প্রতীকের নজরুল ইসলাম। তার ফলাফল পত্রে ভােটের সংখ্যা শূন্য। ভােটে ফলাফলের বিষয়টি বিস্তর আলােচনার জন্ম দিয়েছে এলাকায়। প্রার্থী নিজেই লজ্জায় ক্ষােভে শংকিত। পরে ভােট পুনঃগণনার আবেদন করেন তিনি।

তৃতীয় দফায় ২৮ নভেম্বর রামখানাসহ উপজেলার ১৩ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভােট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এতে ওই ইউনিয়ন ৩ নং ওয়ার্ড সদস্য পদে টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন নাখারগঞ্জ পশ্চিম রামখানা দেওয়ানটারী গ্রামের ইজ্জততুল্ল্যার ছেলে নজরুল ইসলাম। প্রতীক প্রাপ্তির পরে বিজয়ী হতে অন্যান্য প্রার্থীর মতোই কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে প্রচারণা চালান তিনি। করেন উঠান ও খুলি বৈঠক। সবার মতই নিয়মিতভাবে দুপুর ২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত করেন প্রচারণা। পােস্টার লাগানাে হয় ওয়ার্ডের সবখানে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভােট প্রার্থণা করেন তিনি। সবশেষ ভােটের দিন কেন্দ্রে টিউবওয়েল প্রতীকর ১ জন এজেন্টও ছিল।

অথচ রবিবার ভোটের দিন গণনা করে দেখা যায় তিনি একটি ভােটও পাননি। এতে দেখা যায় নিজের পাশাপাশি তার স্ত্রী, সন্তানসহ আত্মীয়স্বজন, তার শুভাকাঙখী, কর্মী-সমর্থক ও এজেন্ট কেউই কি তাকে ভােট দেয়নি। এ নিয়ে আলােচনা-সমালোচনা চলছে সর্বত্র। সবার মুখে মুখে প্রশ্ন উঠেছে প্রার্থীর নিজের ভােট গেলো কােথায়?

নজরুল ইসলাম টিউবওয়েল প্রতীক কােন ভােট না পেলেও তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সফিকুল ইসলাম তালা প্রতীক পেয়েছেন-৮৭৭ ভােট, নুরজামাল শেখ ফুটবল প্রতীক পেয়েছেন-৭১৬টি এবং ফজল রহমান বৈদ্যুতিক পাখা প্রতীক পেয়েছেন- ৪ ভােট।

ভোটের ফলাফলের হিসেব মিলাতে পারছেন না প্রার্থী নজরুল ইসলাম নিজেও। তিনি বলেন, এ ঘটনায় আমি মর্মাহত। অপ্রত্যাশিত এ ফলাফল শােনার পর আমি মানসিকভাবে দুর্বল হয়ে গেছি। লজ্জ্বায় বাইরে যেতে মন চায় না। গতকাল থেকে নিজেকে আমি প্রায় ঘরবন্দি করে রেখেছি। ভােটের কথা মনে হলেই হাউমাউ করে আমার কান্না আসছে। যদি কর্মী-সমর্থকরা আমাকে ধােকা দেয় তারপরও আমি, আমার স্ত্রী মহরা খাতুন, বড় ছেলে মফিজুল ইসলাম, ছেলে বউ কল্পনা খাতুন, মেজো ছেলে এনামুল হক, পুত্রবধূ ফরিদা বেগমসহ রক্তের সম্পর্কের আত্মীয় স্বজনরা ভােট দিলে অন্তত দেড়শত হতে দুইশ ভােট পাবার কথা। সেখান শূন্য ভােট হয় কিভাবে? আমি এটা মেনে নিতে পারছিনা। এ ফলাফল আমি পুরােপুরি বেইজ্জত হয়ে গেছি। তাই রাতেই আমি সংশ্লিস্ট অফিসে ভােট পুনঃগণনার আবেদন করেছি।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার আনােয়ার হােসেন আবেদন পাওয়ার কথা নিশ্চিত করে বলেন, এটি আইনিভাবে মােকাবেলা করার জন্য তাকে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন


গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর

news24bd.tv এসএম

পরবর্তী খবর